শিক্ষাবোর্ড

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়মেডিকেল কলেজ

ডেন্টাল কলেজকলেজকারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান • স্কুল

 

জুনিয়র, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন ও মান নির্ধারনী পরীক্ষা গ্রহণ সংক্রান্ত সব ধরণের কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য বাংলাদেশের ৮টি অঞ্চলে ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড রয়েছে। এই শিক্ষাবোর্ডগুলো ঢাকা, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট, বরিশাল, দিনাজপুর ও যশোরে অবস্থিত। এছাড়া মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পর্যায়ের পাঠ্যক্রম ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রনের জন্য রয়েছে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড এবং মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিপ্লোমা পর্যায়ে কারিগরী শিক্ষাক্রম পরিচালনা ও পরীক্ষাসমূহ নিয়ন্ত্রনের জন্য রয়েছে বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষা বোর্ড। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডকারিগরী শিক্ষা বোর্ড ছাড়া ৮টি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডের দপ্তর স্ব স্ব অঞ্চলে অবস্থিত। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে ঢাকার শিক্ষা ভবন থেকে এসব বোর্ডের কার্যক্রম পরিচালনা ও তত্ত্বাবধান করা হয়।

 

মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের সদর দপ্তর:

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের সদর দপ্তর ২, অরফানেজ রোড, বকশীবাজার, ঢাকা-১২১১ এই ঠিকানায় অবস্থিত।

 

কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের সদর দপ্তর:

কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের সদর দপ্তর আগারগাঁও, শের-এ-বাংলা নগর, ঢাকা- ১২০৭, এই ঠিকানায় অবস্থিত।

 

সাধারণ শিক্ষাবোর্ডের কার্যক্রমসমূহ:

  • জুনিয়র, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিবন্ধন ও মান নির্ধারণী পরীক্ষা গ্রহণসংক্রান্ত সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করা।
  • যথাসময়ে গৃহীত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা। পরীক্ষার্থীর আবেদনের প্রেক্ষিতে উত্তরপত্র পূনর্মূল্যায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
  • নিবন্ধন পত্রে তথ্যগত কোন ভূল থাকলে তা সংশোধনের ব্যবস্থা করা।
  • সনদপত্র  ও নম্বরপত্র হারিয়ে গেলে তা পুনরায় সরবরাহের ব্যবস্থা করা।
  • প্রয়োজন অনুসারে সনদপত্র বা নম্বরপত্রের ইংরেজী অনুলিপি সরবরাহ করা।
  • প্রয়োজনে ভর্তি বাতিল অথবা অন্য কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাইগ্রেশনের ব্যবস্থা করা।
  • নতুন প্রতিষ্ঠিত বেসরকারী স্কুল বা কলেজের অনুমোদন প্রদান ও এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম তদারকি করা ।

 

গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাবলী:

  • সনদপত্র বা নম্বরপত্র হারিয়ে গেলে:
  • প্রথমে নিজের পূর্ণ নাম, ঠিকানা ও আনুষ্ঠানিক তথ্য যেমন, রোল নম্বর, রেজিষ্ট্রেশন নম্বর ইত্যাদি উল্লেখ পূর্বক নিকটস্থ থানায় জি.ডি করতে হবে।
  • একইভাবে সব তথ্য উল্লেখ করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিতে হবে।
  • শিক্ষার্থী যে শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন সে শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে নির্ধারিত ফরম ডাউনলোড করে সে ফরমে মাননীয় শিক্ষা নিয়ন্ত্রকের বরাবর সনদপত্র/নম্বরপত্র নতুন করে উত্তোলনের আবেদন করতে হবে। আবেদন পত্রের সাথে প্রবেশ পত্র ও রেজিষ্ট্রেশন বোর্ডের অনুলিপি ও পাসপোর্ট সাইজের ছবি নিজ প্রতিষ্ঠান প্রধানের নামাঙ্কিত সীলমোহরসহ সত্যায়িত করে আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।
  • নির্ধারিত চার্জ:
    • প্রথমবার- ১৩০ টাকা
    • ২য় বার- ১৫০ টাকা
    • ৩য় বার- ২৫০ টাকা
    • চার্জ ৭নং কাউন্টারে জমা দিতে হয়।
  • পাওয়ার সময়: সাধারণত আবেদনের ৩দিন পর পাওয়া যায়। ৬ষ্ঠ তলার সনদ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এই সনদপত্র/নম্বরপত্র প্রদান করেন।

 

ভূল সংশোধনের ক্ষেত্রে :

  • প্রথমে থানায় জিডি ও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে হবে।
  • সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে প্রযোজ্য আবেদন ফরম ডাউনলোড করতে হবে। আবেদন ফরমের সাথে শিক্ষার্থীর প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক সত্যায়িত নাগরিকত্ব সনদ, সনদপত্র, নম্বরপত্র, রেজিষ্ট্রেশন নম্বর, প্রবেশপত্র ও পাসপোর্ট সাইজের ছবি সহ মাননীয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর আবেদন করতে হবে।
  • চার্জ:
  • বয়স সংশোধনের জন্য – ১০০০ টাকা
  • নাম সংশোধনের জন্য -১৫০০ টাকা
  • ভূল সংশোধনের সময়কাল: সাধারণত ভূল সংশোধনের জন্য ১৫দিন সময় প্রয়োজন হয়।
  • উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নের ক্ষেত্রে :
  • টেলিটকের মাধ্যমে মেসেজ অপশনে গিয়ে RCS -Board ১ম ৩ অক্ষর- Sub Code লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হয়। সাথে সাথে ফিরতি মেসেজে একটি Pin Code আসবে। অত:পর আবার মোবাইল অপশনে গিয়ে RCS লিখে Yes-Pin Code- নিজের মোবাইল নম্বর লিখে আবার ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। প্রতি বিষয়ের জন্য উত্তরপত্র পুরর্মূল্যায়নের ফি ১৫০ টাকা।
  • জরুরী প্রয়োজনে সনদপত্র ও নম্বরপত্র উত্তোলনের নিয়মাবলী: সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটে গিয়ে নির্ধারিত ফরম উত্তোলন করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং সোনালী ব্যাংক বোর্ড শাখার অনুকূলে ৩০০ টাকার ব্যাংক ড্রাফট সংযুক্ত করে ৭নং কাউন্টারে জমা দিতে হবে। সঠিকভাবে কাগজপত্র জমাদেয়ার ৪-৮ ঘন্টা পর জরুরী কাগজপত্র উত্তোলন করা যাবে।
  • ইংরেজী অনুলিপি পেতে হলে: সনদপত্র বা নম্বরপত্রের ইংরেজী অনুলিপি প্রদানের জন্য শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক একটি প্রতিষ্ঠান দায়িত্ব প্রাপ্ত থাকে। বর্তমানে এক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান হচ্ছে-
    • দিগন্ত ইনফরমেশন মিডিয়া, জুম্মান প্লাজা (ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পার্শ্বে)
    • যোগাযোগ: ০১৭১৮-৮০৫৩৮১

 

  • দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে সনদপত্র ও নম্বরপত্রের ইংরেজী অনুলিপি সংগ্রহ করা সম্ভব।

 

  বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড প্রদত্ত সেবাসমূহ:

  • নম্বরপত্র উত্তোলন
  • সনদপত্র উত্তোলন
  • নাম সংশোধন
  • বয়স সংশোধন
  • ভর্তির বাতিল
  • এক মাদ্রাসা থেকে অন্য মাদ্রাসায় ভর্তি স্থানান্তর
  • ফলাফল যাচাই/ পুনঃমূল্যায়ণ
  • ইংরেজীতে সনদপত্র অনুবাদকরণ

 

প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী:

সনদ নম্বরপত্র উত্তোলন

সনদপত্র ও নম্বরপত্র হারিয়ে গেলে তা উত্তোলন করার নিয়ম-

  • প্রথমে থানায় জিডি করতে হবে, জিডিতে নিজের নাম, পুরো ঠিকানা, রোল নম্বর ও রেজিষ্ট্রেশন নম্বর লিখতে হবে এবং কখন কিভাবে হারিয়ে গেছে তা উল্লেখ করতে হবে।
  • পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিতে হবে এবং বিজ্ঞপ্তিতে নিজের নাম ,বাবার নাম, পাসের সন, বোর্ড, রোল ও রেজিষ্ট্রেশন নম্বর লিখতে হবে।
  • বোর্ডে গিয়ে উক্ত সমস্যার নিমিত্তে ফরম সংগ্রহ করতে হবে। উল্লেখ্য, বোর্ডের মূল ভবনের নিচ তলায় গেটে বিনামূল্যে ফরম বিতরণ করা হয়। উক্ত ফরম পূরনের পর মাদ্রাসার প্রধান কর্তৃক পাসপোর্ট সাইজের ছবি ১ কপি, ব্যাংক ড্রাফট, বিজ্ঞপ্তিকৃত পত্রিকার নাম ও প্রকাশের তারিখ- উল্লেখসহ পত্রিকার কাটিং আবেদনপত্রের সাথে জমা দিতে হবে এবং থানায় জিডির ১ কপি সংযুক্ত করতে হবে। মাদ্রাসা প্রধান কর্তৃক সকল কাগজপত্র সত্যায়িত করতে হবে।
  • ফর্ম বিনামূল্যে সংগ্রহ করা যায়।

সংশ্লিষ্ট চার্জ-

  • দাখিল সাময়িক সনদ/ নম্বরপত্র = ১২৫ টাকা।
  • আলিম সাময়িক সনদ/ নম্বরপত্র = ১৩০ টাকা।
  • ফাযিল সাময়িক সনদ/ নম্বরপত্র = ১৫০ টাকা।
  • কামিল সাময়িক সনদ/ নম্বরপত্র= ১৭০ টাকা।

ভুল সংশোধন

  • সনদপত্র ও নম্বরপত্রে যে সকল ভুল সংশোধন করা যায় নাম ও বয়স।
  • যে সকল বিষয় লিখতে হবে জিডি ও বিজ্ঞপ্তিতে নাম, ঠিকানা, রোল নম্বর, রেজিষ্ট্রেশন নম্বর, পাসের সন, পরীক্ষার নাম, মাদ্রাসার নাম এবং জিডিতে ভুলের যৌক্তিক কারণ দর্শাতে হবে।
  • মাদ্রাসা প্রধান কর্তৃক শিক্ষার্থীর যে সকল কাগজ সত্যায়িত করতে হবে। যেমন-

 

                                -শিক্ষার্থীর নাগরিক সনদপত্র।

  • পরীক্ষার সনদ ও নম্বরপত্র।
  • প্রবেশপত্র ও রেজিষ্ট্রেশন পত্র।
  • সত্যায়িতকরণের শর্তাবলী- শিক্ষার্থীর নিজ মাদ্রাসার প্রধান কর্তৃক সত্যায়িত করতে হবে, যেখানে উক্ত প্রধানের নামাঙ্কিত সীল থাকতে হবে।

চার্জ সমূহ-

  • নাম- ৫০০ টাকা।
  • বয়স- ৫০০ টাকা।
  • অন্যান্য- ৫০০ টাকা।

 

  • ভুল সংশোধনের সময়কাল- ১৫ দিন।

 

খাতা ফলাফল পুনঃ মূল্যায়ণের প্রক্রিয়া

বোর্ড কর্তৃক নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে টেলিটক নম্বরের মাধ্যমে ম্যাসেজ অপসনে গিয়ে RSE- বোর্ড, Mad- রোল, Subject- কোড লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

পক্ষান্তরে ফিরতি ম্যাসেজে একটি Pin নম্বর আসবে। এরপর আবার ম্যাসাজ অপসনে গিয়ে RSE- Yes উক্ত Pin নম্বর, নিজের মোবাইল নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

 

জরুরী প্রয়োজনে নম্বরপত্র সনদপত্র উত্তোলনের প্রক্রিয়া

বোর্ডে গিয়ে নির্দিষ্ট ফরম নিয়ে ও তার চার্জ সোনালী ব্যাংকের বি এম ই বি, ঢাকা শাখায় জমা দিয়ে সকল কাগজপত্র মাদ্রাসা প্রধান কর্তৃক ৩নং প্রশ্নের আলোকে বোর্ড কাউন্টারে জমা দিতে হবে। পরবর্তীতে আবেদন গ্রহনকারীর রশিদ প্রদানের আলোকে ৪ র্থ তলায় রশিদে উল্লিখিত ব্যক্তির কাছ থেকে ৪ থেকে ৮ ঘন্টার মধ্যে উত্তোলন করা যায়।

ইংরেজীতে অনুবাদের প্রক্রিয়া, খরচ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

সনদ উত্তোলনের নিয়মের আলোকে বিষয় ইংরেজীতে অনুবাদ লিখতে হবে। বাকি সব ঠিক থাকবে। এক্ষেত্রে খরচ-

দাখিল

৩০০ টাকা

ফাযিল

৩৫০ টাকা

আলিম

৩২৫ টাকা

কামিল

৪০০ টাকা

 

যেকোন ভুল সংশোধনের ক্ষেত্রে নোটারী করতে হবে। নোটারী করতে খরচ ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা।

 

প্রতিষ্ঠানের নাম

দিগন্ত ইনফরমেশন মিডিয়া, জুম্মন প্লাজা,

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পশ্চিম পাশে।

যোগাযোগ- ০১৭১৮-৮০৫৩৮১

 

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড

লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য

  • কারিগরি শিক্ষা কাঠামোর নুতন কোর্স অনুমোদন এবং উন্নয়ন সাধন;
  • শিক্ষা পদ্ধতিতে ব্যবহৃত উপকরনসমূহের যোগান এবং উন্নয়ন সাধন;
  • কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পরিচালনার জন্য কোর্স বাছাইকরনে সহযোগীতা;
  • অনুমোদিত কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার আয়োজন এবং তদারকি করা;
  • কৃতকার্য শিক্ষার্থীকে সরকারি সনদ প্রদান করা;

 

বিশেষ প্রয়োজনীয় তথ্য

  • সনদ হারিয়ে গেলে অত্র ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় উপ-পরিদর্শক, সনদ শাখায় যোগাযোগ করতে হয়। সনদ হারিয়ে গেলে থানায় জিডি করতে হয় এবং পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রদান করতে হয়। জিডি কপি এবং প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি কপি বোর্ডে এসি নির্দিষ্ট ফরম পূরণ পূর্বক জমা দিতে হয়।
  • সনদপত্র এবং নম্বরপত্র সাধারনত ১৫ দিনের মধ্যে পাওয়া যায়।
  • জরুরী ভিত্তিতে ৩ দিনের মধ্যে সনদপত্র এবং নম্বরপত্র তুলতে ২৫০ টাকা দিতে হয়।
  • জরুরী ভিত্তিতে ১ দিনের মধ্যে সনদপত্র এবং নম্বরপত্র তুলতে ৪০০ টাকা দিতে হয়।
  • সনদপত্র এবং নম্বরপত্রের ভূল সংশোধন করা যায়।
  • পুরনো সনদের পরিবর্তে নতুন সনদ নিতে পুরনো সনদপত্র এবং নম্বরপত্র জমা দিতে হয়।

২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি