তারকা হোটেল

 

আবাসিক হোটেলের ধারা থেকেই বস্তুত: তারকা হোটেলের উদ্ভব। প্রযুক্তির বিকাশের সাথে সাথে সর্বাধুনিক প্রযুক্তিলব্ধ সুবিধা সম্পন্ন হয়ে আবাসিক হোটেলগুলো লাভ করেছে তারকা মর্যাদা। সুবিধার তারতম্যের কারণে তারকা মর্যাদায়ও রয়েছে পার্থক্য। সমগ্র পৃথিবীতেই তিন তারকা ও পাঁচ তারকা হোটেলের ছড়াছড়ি এবং এই ধারায় সর্বশেষ সংযোজন সাত তারকা হোটেলের। হোটেলের তারকা মান শুধু হোটেলের মর্যাদাই বৃদ্ধি করে না, এর সাথে একটি দেশের ভাবমূর্তিও জড়িত। কেননা, বিদেশি অতিথিদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা এবং স্থানীয় নাগরিকদের আর্থিক সামর্থ্যের সাথে তারকা হোটেলের একটি অদৃশ্য সম্পর্ক রয়েছে।

 

বাংলাদেশের তারকা হোটেলগুলো মূলত: রাজধানী ঢাকাকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠেছে। যদিও সম্প্রতি ঢাকার বাইরেও তারকা হোটেলের বিস্তৃতি ঘটেছে। রাজধানীর ঢাকার তারকা হোটেল গুলোর মধ্যে রয়েছে প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও, রেডিসন ওয়াটার গার্ডেন, ঢাকা রিজেন্সী হোটেল এন্ড রিসোর্ট, হোটেল স্যারিনা, হোটেল রূপসী বাংলা, হোটেল রাজমণি ঈশা খাঁ প্রভৃতি। প্রতিটি হোটেলেই তাদের স্বতন্ত্র্য সুযোগ-সুবিধা এবং গ্রাহক সেবার জন্য গ্রাহকদের কাছে লাভ করেছে স্বতন্ত্র্য মর্যাদা।

 

সর্বাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন রুমগুলোর মধ্যে রয়েছে ডিলাক্স, ডিলাক্স টুইন, সুপার ডিলাক্স,লাক্সারী ডিলাক্স, এক্সিকিউটিভ স্যুইট, কিং স্যুইট, প্রিমিয়ার স্যুইট, বাঙ্গালি স্যুইট প্রভৃতি। এসব রুম এবং স্যুইটগুলোর মধ্যে কতকগুলোর রয়েছে সিটি ভিউ সুবিধা। বস্তুত: রুমের আয়তন এবং সুযোগ-সুবিধার উপর নির্ভর করে এদের ভাড়া। রুম ও স্যুইটগুলোর ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধার মধ্যে রয়েছে, এলসিডি অথবা লেড টিভি, ক্যাবল চ্যানেলস, দ্রুতগতির ইন্টারনেট সুবিধা, শীতাতপ সুবিধা প্রভৃতি। হোটেলের অভ্যন্তরীন সুবিধার মধ্যে রয়েছে মিনি বার, বার, লন্ড্রি সুবিধা, রেষ্টুরেন্ট সুবিধা, হল রুম, বল রুম, কনফারেন্স রুম, কেন্দ্রীয় শীতাতপ, ইনডোর গেমস, সুইমিং পুল, পার্লার, সেলুন, স্বয়ংসম্পূর্ন ব্যায়ামাগার, স্যোনা এবং স্টীম বাথ, রুম সার্ভিস, স্যুভেনির শপ, শপিং কর্নার, ব্যাংক বা এটিএম বুথ, ফরেইন মানি এক্সচেঞ্জ, গিফট শপ, কার রেন্টাল, ফ্যাক্স, কপিয়ার, স্কুয়াশ কোর্ট, টেনিস কোর্ট, ২৪ ঘন্টা রিসেপশন, হুইয়ারপুল, চিকিৎসা কেন্দ্র, বাণিজ্যিক অফিস, সার্বক্ষনিক নিরাপত্তা প্রভৃতি। তারকা হোটেল হওয়া সত্ত্বেও প্রতিটির স্বতন্ত্র্য বৈশিষ্ট্যের কারনেই এদের রুম স্যুইট ভাড়া এবং বুকিং প্রনালী ও বুকিং রেট আলাদা আলাদা। হোটেলগুলোর বহিঃসেবার মধ্যে রয়েছে এয়ারপোর্ট ট্রিপ এবং নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা। অবশ্য এ সুযোগ বুকিং এবং পূর্ব যোগাযোগ সাপেক্ষে।  এসব হোটেলে বোর্ডার তথা অতিথিদের বাইরেও কিছু নন-বোর্ডার সুবিধা রয়েছে। এসব সুবিধা পেতে গেলে নন-বোর্ডারদেরকে পূর্ব থেকেই যোগাযোগ করতে হয় এবং প্রয়োজনীয় অর্থ পরিশোধ করতে হয়।

 

এসব তারকা হোটেলে বছরের সর্বদাই ভিড় হয় না। সাধারনত: পর্যটনকাল শীতকালে বাইরের অতিথি বেশি আসায়, শীতকালে ভিড় বেশি হয় এবং রুমের ভাড়াও তখন বেড়ে যায়। কেননা, রুমের ভাড়া সাধারনত: রুমের সহজ প্রাপ্তির উপর নির্ভর করে। রুমের চাহিদা বেশি থাকলে সহজে রুম মেলেনা বলে অনেক সময় রুমের ভাড়া কিছুটা বেড়ে যায়। এ ছাড়াও বড় আন্তর্জাতিক ক্রীড়া উৎসব, সাংস্কৃতিক উৎসব বা আন্তঃরাষ্ট্রীয় কিংবা আন্তর্জাতিক সম্মেলন উপলক্ষ্যে এসব হোটেলের চাহিদা বাড়ে এবং হোটেলে ভিড় বেশি হয়।

 

তারকা হোটেলগুলো প্রতিনিয়তই তাদের সর্বাধুনিক সেবা দেয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে এবং নিজেদের মর্যাদা এবং গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে চলছে তাদের একাগ্র ও নিরন্তর প্রয়াস।

 


২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি