ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট

সভ্যতার উৎকর্ষতার দরুন আমাদের জীবনে ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের ব্যবহার দিন দিন বেড়েই চলেছে। ঘরবাড়ি, অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজ, ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান, শপিং মল, হাসপাতাল, ডিপার্টমেন্টাল সেন্টারসহ সব ধরনের প্রতিষ্ঠানে এসব পণ্য এখন অত্যাবর্শকীয়, ইলেক্ট্রনিক্স বিভিন্ন পণ্যের অভ্যস্ততায় আমাদের জীবনাচরন এমন হয়েছে যে  এসবের অনুপস্থিতি এসব আমরা বেশিক্ষন মেনে নিতে পারিনা। তাই এসব পণ্যের দরদাম ও বিক্রয়স্থল সম্পর্কে ধারনা থাকা দরকার। ঢাকার মধ্যেই আছে নামকরা কিছু ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু ষ্টেডিয়াম ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট, মিরপুর ষ্টেডিয়ামের ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট, বসুন্ধরা সিটি ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট অন্যতম। প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

 

যেসব পণ্য পাওয়া যায়

এই সব মার্কেটের বিভিন্ন দোকানে রেফ্রিজারেটর, কালার টেলিভিশন (লেড, এলসিডি ও সি আর টি), মাইক্রোওয়েব ওভেন, ইলেক্ট্রিক ওভেন, ওয়াশিং মেশিন, রাইস কুকার, সিলিং ফ্যান, ওয়াটার ফিল্টার, আয়রন, ষ্টীল, ক্যামেরা, মুভি, মোবাইল ফোন, চার্জার, মেমোরি কার্ড, ডিস এন্টেনা, রিসিভার, ভিসিডি প্লেয়ার, ডিভিডি প্লেয়ার, সিসি ক্যামেরা, নিরাপত্তা সরঞ্জাম, চার্জার ফ্যান, মেটাল ডিটেক্টর, এয়ার কন্ডিশনার এবং বিভিন্ন ইলেক্ট্রিক পণ্যের খুচরা যন্ত্রাংশ খুচরা বিক্রি করা হয়।

 

যেসব দেশের পণ্য পাওয়া যায়

জাপান, কোরিয়া, চায়না, থাইল্যান্ড, মালেশিয়া, সিঙ্গাপুর, পাকিস্তান ও ভারতের তৈলী পণ্য সামগ্রী এইসব দোকানে পাওয়া যায়।

কয়েকটি পণ্যের দাম-

পণ্যের নাম

পণ্যের দাম

টিভি (সাইজ ও মডেল ভেদে)

১১,০০০ থেকে ২,৬০,০০০ টাকা

রেফ্রিজারেটর (সাইজ ও মডেল ভেদে)

২৫,০০০ থেকে ১,১৮,০০০ টাকা।

ওয়াশিং মেশিন (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৯,৫০০ থেকে ৩৯,০০০ টাকা।

এসি (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৩৭,০০০ থেকে ১,৫১,৯৯০ টাক।

আয়রন (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৪০০ থেকে ৮,০০০ টাকা।

ওভেন (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৬,০০০ থেকে ২৫,০০০ টাকা।

ওয়াটার ফিল্টার (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৩,০০০ থেকে ১৫,০০০ টাকা।

আয়রন ষ্ট্যান্য (সাইজ ও মডেল ভেদে)

২,০০০ থেকে ৬,০০০ টাকা।

রেংসের সিলিং ফ্যান (সাইজ ও মডেল ভেদে)

২,২০০ থেকে ৩,৪০০ টাকা।

গ্যাসের চুলা (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৪০০ থেকে ৮,০০০ টাকা।

ইলেক্ট্রিক চুলা (সাইজ ও মডেল ভেদে)

৫,০০০ টাকা।

সি সি ক্যামেরা

৩০০ থেকে ৪০,০০০ টাকা।

 

যেসকল কোম্পানীর শো-রুম রয়েছে

নামকরা এসব মার্কেটে ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রীর দোকান ছাড়াও বেশ কিছু আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড যেমন- সামসং, সনি ইরেকশন, রেংগস, এলজি, বাটার ফ্লাই, প্যানাসনিক, শার্প প্রভৃতির শো-রুম রয়েছে।

 

সার্ভিস সেন্টার

স্যামসাং, সনি ইরেকশন, রেংগস, কনকা ফিলিপসসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সার্ভিস সেন্টার রয়েছে ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেটগুলোতে। এছাড়াও ব্যাক্তি পর্যায়ের বেশ কিছু ছোট-খাট সার্ভিস সেন্টারে পণ্য সার্ভিসের কাজ করে থাকে।

 

পরিবহন

ক্রয়কৃত পণ্য সামগ্রী কোম্পানীর নিজস্ব পরিবহন যোগে ক্রেতাদের বাসায় পৌঁছে দেয়া হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে পরিবহনের ব্যবস্থা ক্রেতাদেরই করতে হয়।

 

বিবিধ

বেশীর ভাগ ইলেক্ট্রনিক্সের মার্কেটে গাড়ি পার্কিংএর ব্যবস্থা রয়েছে। গাড়ি পার্ক করার জন্য নির্ধারিত চার্জ দিতে হয়।


২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি