পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

স্বাস্থ্যের যত্নে আয়ুর্বেদিক খাবার

চিকিৎসা ও খাদ্যের প্রাচীন বিজ্ঞানটি ছিলো আয়ুর্বেদ। ভারতীয় উপমহাদেশের খাবারের বড় অংশ জুড়ে রয়েছে এটি। তবে এর মাধ্যমেই প্রথমবারের মতো আবিষ্কার হয়নি যে খাদ্য মানুষের স্বাস্থ্যের যাবতীয় বিষয়ের দেখভাল করে। প্রাচীন ও মধ্যযুগীয় ইউরোপ এবং আরবে চিকিৎসাবিজ্ঞানের আলাদা ধারা ছিল। সেই সময় যাবতীয় তত্ত্ব একটিতে জোট বেঁধেছিল। তা হলো থিওরি অব হিউমার। বলা হতো, মানসিক অবস্থার ভারসাম্যহীনতার কারণেই অসুখ হয়। আর মানসিক অবস্থা সামাল দিতে হয় সঠিক খাদ্য বাছাইয়ের মাধ্যমে।

আয়ুর্বেদ আসলে কেবলমাত্র একটা কার্যক্রম নয়। এর পেছনের অনন্য দর্শন ও বিভিন্ন তত্ত্ব সেই প্রাচীন আমলেই হাতে লেখা হয়েছে। এটা এমন এক পদ্ধতি যার আবেদন আজও টিকে রয়েছে। আধুনিক সমাজে একে বিজ্ঞান হিসাবে তালিকাভুক্ত করা হবে না, কিন্তু প্রচলিত জীবনযাপনের অনেক ভালো কিছু পাওয়ার অসাধারণ এক উপায় বাতলে দেয় আয়ুর্বেদ।

তাই সুষ্ঠু জীবন পেতে দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় আয়ুর্বেদকে যোগ করতে হবে। ভারতের আইটিসি হোটেলস-এর শেফ মঞ্জিত গিল এ নিয়ে দিয়েছেন নানা পরামর্শ।

আয়ুর্বেদ কি?

মুখে বলা দর্শন হিসাবেই স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু নিয়ে প্রাচীন জ্ঞানের ধারাটাই আয়ুর্বেদ। এটা কোনো লিখিত বক্তব্য নয়। এ সংক্রান্ত বহু চিন্তাধারা ও পদ্ধতির মিশেল ঘটেছে আজকের ওষুধ ও খাদ্য বিষয়ক বিজ্ঞানের সঙ্গে।

মূল তত্ত্বঃ

আয়ুর্বেদের মতে মানব দেহের চারটি মূল উপাদান হলো দোষ, ধাতু, মল এবং অগ্নি। এদের আয়ুর্বেদের মূল সিদ্ধান্ত বলা হয়। জীবিত মানবদেহ এসব উপাদানের সমষ্টি। তিন দোষ হলো ভাটা, পিত্ত এবং কফ। সাতটি প্রাথমিক টিস্যু যথা রস, রক্ত, মনসা, মেডা, অস্থি, মজ্জা এবং শুক্র মিলিয়ে ধাতু। মল অর্থাৎ শরীরের নোংরা বর্জ্য পদার্থ বা আবর্জনা যাদের মধ্যে মল প্রস্রাব ও ঘাম রয়েছে। শরীরের সমস্ত রাসায়নিক ও পাকসংক্রান্ত কাজ হয় অগ্নি নামক দৈহিক আগুনের সাহায্যে। আমাদের লিভার এবং টিস্যুতে উৎপন্ন জৈব রাসায়নিক পদার্থ বিশেষকে অগ্নি নামকরণ করা হয়। দেহের বৃদ্ধি ও পচন পুরোটাই নির্ভর খাদ্যের উপর যা দোষ, ধাতু ও মল এ পরিবর্তিত হচ্ছে। হজম প্রক্রিয়া, শোষণ, পরিপাক প্রনালী ও খাদ্যের রাসায়নিক প্রক্রিয়ার ওপর আমাদের স্বাস্থ্য ও রোগ নির্ভর করে। আবার আমাদের শারীরিক সুস্থতার ওপর মানসিক অবস্থা ও অগ্নির প্রভাবও আছে।

ছয়টি স্বাদঃ

তিনটি দোষ-এর খাবারের স্বাদকে ৬টি ভাগে ভাগ করা হয়। কোনো খাবারই আসলে ভালো বা খারাপ নয়। সব খাবারের মধ্যে ভারসাম্য এনেই স্বাস্থ্যের যত্ন নিতে হবে।

মৌসুমের খাবারঃ

আয়ুর্বেদের অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। সব খাবার রান্না করতে হবে মৌসুমী উপকরণ দিয়ে। হমজ করতে এমন খাবার খেতে হবে যেন দোষ ভারসাম্যহীন না হয়ে যায়। কটু বা মিষ্টি স্বাদ বেশ গরম। কাজেই হজম হতে এদের শীতকালে খাওয়াটাই ভালো। আবার যে স্বাদগুলো শীতল তা গরমকালে খেতে হবে। বর্ষায় টক বা লবণাক্ত খাবার উপকারী।

বিশেষায়িত খাবারঃ

খাদ্যকে যার যার দেহ অনুযায়ী বিশেষায়িত করে রান্না করতে হবে। দৈহিক ও আবেগগত পরীক্ষার মাধ্যমে জানতে হবে কার দেহে বাত, পিত্ত ও কফ অনেক বেশি। যে মানুষের কফ বেশি বুঝতে হবে তার দেহে তরল বেশি। এরা অনেক অলস ও ওজনদার মানুষ হয়ে থাকেন। তাদের অনেক কটু বা তিতা স্বাদের খাবার খেতে হবে। পানির সঙ্গে ভারসাম্য স্থাপন করতে তাদের দরকার অগ্নি। আর এভাবে মানুষ বুঝে তার খাবার রান্নার প্রক্রিয়ার নিয়ম রয়েছে আয়ুর্বেদে।

কিছু মৌলিক নীতিঃ

এর মধ্যে রয়েছে, টাটকা খাবার রান্না করতে হবে। উপকরণের মধ্যে ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থা থাকবে। যথাযথ আগ্রহ ও স্বাদ নিয়ে খাবার খেতে হবে।.

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
আপনার মুখে দুর্গন্ধ? লবঙ্গ দিয়ে মাত্র ১০ মিনিটে দূর করুন মুখের দুর্গন্ধজেনে নিন কিভাবে কিভাবে দূর করবেন আপনার মুখে দুর্গন্ধ
৩ টাকা দিয়ে ফলটি কিনুন !! এই একটি ফলের রসেই গলবে কিডনির পাথর।বিস্তারিত ভিতরে পড়ুন
ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতাবিস্তারিত পড়ুন ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতা
যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালোবিস্তারিত পড়ুন যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালো
খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফলবিস্তারিত পড়ুন খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফল
পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়বিস্তারিত পড়ুন পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়
যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে নাবিস্তারিত পড়ুন যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে না
এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুনবিস্তারিত পড়ুন এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুন
জিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুনজিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুন! জেনে নিন কখন, কি ভাবে খাবেন?
শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়বিস্তারিত পড়ুন শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়
আরও ১২৭৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি