পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

জলাতঙ্ক

হাইড্রোফোবিয়া বা জলাতঙ্ক একটি প্রাণঘাতী রোগ হলেও সময়মত ব্যবস্থা নিয়ে মৃত্যু এড়ানো যায়। এখন অবশ্য ‘হাইড্রোফোবিয়া’ না বলে ‘র‌্যাবিস’ বলা হয়। মূলত জলাতঙ্ক র‌্যাবিস-এর অনেকগুলো লক্ষণের একটি। বাতাসভীতিও এ রোগের একটি লক্ষণ। গ্রীক পুরাণে চার হাজার বছর আগেও জলাতঙ্ক রোগের উল্লেখ পাওয়া যায়।

 

কারণ

এক ধরনের ভাইরাসের আক্রমণে জলাতঙ্ক রোগ হয়। এই ভাইরাস মস্তিষ্কসহ পুরো স্নায়ুতন্ত্রকে আক্রমণ করে। এ রোগের লক্ষণ একবার দেখা দিলে আর বিশেষ কিছু করার থাকে না। মৃত্যু একরকম নিশ্চিত। কিছু ওষুধ এবং সেবা-শুশ্রূষার মাধ্যমে রোগীকে কিছুটা ভাল রাখার চেষ্টা করা হয়। তবে অল্প কিছু ক্ষেত্রে বেঁচে যাওয়ার নজিরও আছে।

 

শিয়াল, ভালুক, বাদুড়, বেজি ইত্যাদি বন্য জীবজন্তুর কামড় বা থাবার মাধ্যমে ভাইরাসটি মানুষের মধ্যে সংক্রামিত হতে পারে। এছাড়া লোকালয়ে থাকা কুকুর বা বিড়ালও জলাতঙ্কের কারণ হতে পারে। বাংলাদেশে প্রধানত কুকুরের কামড়েই জলাতঙ্ক হয়। বাহক প্রাণীর রক্ত এবং লালায় জলাতঙ্কের ভাইরাস থাকে। কেবল থাবা বা কামড় নয়, আগে থেকে থাকা ক্ষতস্থান প্রাণীর লালার সংস্পর্শে আসার কারণেও জলাতঙ্ক হতে পারে। এই ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করে মস্তিষ্কে পৌঁছে যায় এবং ধীরে ধীরে পুরো স্নায়ুতন্ত্রকে আক্রমণ করে। কামড়ের ১০ দিন থেকে এক বছরের মধ্যে লক্ষণ প্রকাশ পেতে পারে। তবে গড়ে ৩ থেকে ৭ সপ্তাহের মধ্যে লক্ষণ দেখা দেয়। আর সাধারণত লক্ষণ দেখা দেয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই রোগীর মৃত্যু হয়।

 

জলাতঙ্ক বা র‌্যাবিস হলে যেসব লক্ষণ দেখা দেয়:

  • ক্ষতস্থান চুলকানো,
  • ক্ষতস্থানে ব্যথা,
  • মুখ থেকে লালা নিসৃত হওয়া,
  • উত্তেজনা,
  • স্বল্পমাত্রায় জ্বর,
  • গিলতে সমস্যা হওয়া,
  • পানি পিপাসা থাকা,
  • পানি দেখে ভয় পাওয়া,
  • মৃদু বায়ু প্রবাহে ভয় পাওয়া,
  • আবোল-তাবোল বকা,
  • প্যারালইসিস, ইত্যাদি।

 

সতর্কতা:

বন্যপ্রাণী এবং যেসব প্রাণী সম্পর্কে বিশেষ জানা নেই সেসব প্রাণী থেকে দূরে থাকা উচিত। যারা কুকুর, বিড়াল এসব প্রাণী পোষেন তাদের উচিত এসব প্রাণীকে টিকা দিয়ে নেয়া। একবার টিকা দিলেই কাজ শেষ হয়ে যায় না। নিয়মিত বিরতিতে টিকা দিতে হয়। যাদের ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে কাজ করতে হয় তারা আগে থেকেই জলাতঙ্কের টিকা নিয়ে রাখতে পারেন।

 

কুকুর, বিড়াল, বাদুড় ইত্যাদির কামড় বা থাবার শিকার হলে

ক্ষতস্থান সাবন এবং প্রচুর পানি সহকারে ধুয়ে ফেলতে হবে। সম্ভব হলে স্পিরিট বা আয়োডিন লাগাতে হবে। দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। কামড়ের দিনই প্রতিষেধক টিকা নেয়া শুরু করতে হবে। যে প্রাণী কামড়েছে সেটিকে হত্যা না করে সতর্কতার সাথে বেঁধে রেখে পর্যবেক্ষণ করতে হবে। যদি ১০ দিনের মধ্যে প্রাণীটির মৃত্যু না হয়, কামড়ের কারণে জলাতঙ্ক হওয়ার ঝুঁকি কম বলে ধরে নেয়া হয়। প্রাণীটির শরীরে জলতঙ্ক জীবাণু আছে কিনা সেটা প্রাণীটির মস্তিষ্ক থেকে টিস্যু নিয়েও পরীক্ষা করে দেখা যায়। যদি দেখা যায় জলাতঙ্ক জীবাণু আছে তবে চিকিৎসক সে মোতাবেক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেন।

 

জলাতঙ্কের টীকা সময়মত নিয়ে জলাতঙ্কের ঝুঁকি প্রায় ১০০ ভাগ এড়ানো সম্ভব।

 

অন্যান্য কারণ ও ভুল ধারণা

জলাতঙ্কে আক্রান্ত কুকুরের কামড়ে গরু, ছাগল ইত্যাদি গৃহপালিত প্রাণীরও জলাতঙ্ক হতে পারে। এসব প্রাণীর মাংস খেয়ে মানুষও এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে। ঝাড়ফুঁক বা এ জাতীয় পদ্ধতিতে জলাতঙ্ক বা কুকুর কামড়ের কোন চিকিৎসা করা যায় না। তাই সচেতনতা বৃদ্ধির প্রয়োজন রয়েছে। ক্ষতস্থানে চুন, হলুদের গুঁড়া বা এ জাতীয় কিছু লাগিয়ে কোন উপকার হয় না। জলাতঙ্কে আক্রান্ত মৃত মানুষের অঙ্গ অন্য মানুষে শরীরে প্রতিস্থাপনের মাধ্যমেও জলাতঙ্ক ছড়ায়।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
আপনার মুখে দুর্গন্ধ? লবঙ্গ দিয়ে মাত্র ১০ মিনিটে দূর করুন মুখের দুর্গন্ধজেনে নিন কিভাবে কিভাবে দূর করবেন আপনার মুখে দুর্গন্ধ
৩ টাকা দিয়ে ফলটি কিনুন !! এই একটি ফলের রসেই গলবে কিডনির পাথর।বিস্তারিত ভিতরে পড়ুন
ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতাবিস্তারিত পড়ুন ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতা
যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালোবিস্তারিত পড়ুন যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালো
খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফলবিস্তারিত পড়ুন খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফল
পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়বিস্তারিত পড়ুন পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়
যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে নাবিস্তারিত পড়ুন যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে না
এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুনবিস্তারিত পড়ুন এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুন
জিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুনজিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুন! জেনে নিন কখন, কি ভাবে খাবেন?
শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়বিস্তারিত পড়ুন শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়
আরও ১২৭৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি