পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

স্তন ক্যান্সার- নিজে নিজের পরীক্ষা করুন

 

মানুষের শরীর অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কোষ দিয়ে তৈরী। এত ছোট যে খালি চোখে এদের দেখা যায় না। এরকম অনেকগুলো কোষ মিলেই শরীরে বিভিন্ন টিস্যু আর গ্রন্থি তৈরী। এগুলি প্রত্যেকটিরই, যেমন: মস্তিস্ক, যকৃত, ফুসফুস ইত্যাদির নিদিষ্ট কিছু কাজ রয়েছে।

 

কোষগুলো সাধারণত: নিজেদের মধ্যে বিভক্ত হয়ে তাদের বদ্ধি ঘটায়। এই বৃদ্ধি একটি স্বাভাবিক, নির্দিষ্ট ও নিয়মিতভাবে সংগঠিত হয়। এই বৃদ্ধির মাধ্যমে আমাদের শরীরের টিস্যুগুলির বৃদ্ধি ও ক্ষয়পূরণ হয়। কোন রোগ এই স্বাভাবিক কার্যক্রমকে বিঘ্নিত করে।

 

আবার মাঝে মাঝে এই কোষগুলি অনিয়ন্ত্রিতভাবে বেড়ে যায়, যার ফলে কোষগুলি সেই জায়গায় ফুলে ওঠে; ফোড়াও হতে পারে বা টিউমারও হতে পারে। টিউমার দুই ধরনের হয়: বিনাইন (Benign) ও ক্যান্সার (Malignant)। বিনাইন টিউমার একটি নির্দিষ্ট জায়গায় সীমাবদ্ধ থাকে। চিকিৎসা বা প্রয়োজনে অস্তোপচার করলে এটা সাধারণত: আর কোন ক্ষতি করতে পারে না।

 

ক্যান্সার বা Malignant টিউমার পার্শ্ববর্তী টিস্যু ও গ্রন্থিতে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ক্যান্সারাক্রান্ত এই কোষগুলি রক্তে মিশে যেতে পারে। তখন রক্তের মধ্য দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে যায়।

 

ক্যান্সার কথাটা দিয়ে অনেক সময় রোগের বর্ণনা করা হয়ে থাকে। সে সমস্ত রোগের যেমন কারণ ভিন্ন তাদের চিকিৎসাও তেমন ভিন্ন ভিন্ন। যদিও সব ক্যান্সার থেকে সম্পূর্ণ আরোগ্য লাভ করা যায় না কিন্তু সব ক্যান্সারের চিকিৎসা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে ক্যান্সার হওয়ার আগেই সাধারণভাবে এ ব্যাপারে কি কি করণীয় তা জানা থাকা দরকার। যদি ক্যান্সারের প্রথম অবস্থাতেই একে চিহ্নিত করা যায় এবং সময়মত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া যায় তা’হলে সম্পূর্ণ রোগ মুক্তি সম্ভব না হলেও চিকিৎসার মাধ্যমে এই রোগের মোকাবেলা করা সম্ভব।

 

স্তন ক্যান্সার

আমাদের দেহের উপরিভাগের সামনের অংশে স্তনদ্বয় অবস্থিত। স্তনের ক্যান্সারকেই আমরা স্তন ক্যান্সার বলি। ক্যান্সারের কথা শুনলেই মনে আতঙ্ক জাগে। কিন্তু যখন দেখি যে স্তন ক্যান্সারই হচ্ছে সারা বিশ্বে মহিলাদের মৃত্যুর কারণ, তখন মনে হয় এ ব্যাপারে আমাদের সচেতন হওয়ার সময় এসেছে। স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতন হওয়া মানে স্তন সম্পর্কে সচেতন হওয়া এবং শরীর সম্পর্কে সচেতন হওয়া।

 

আমরা কি কখনও ভালভাবে আমাদের স্তনগুলিকে দেখেছি ? এটা তো আমাদের শরীরের অন্যান্য অঙ্গের মতই অঙ্গ বিশেষ। খুব সহজেই গোসল করা বা কাপড় পরার সময় আমরা আমাদের স্তনদ্বয়কে ভালভাবে লক্ষ্য করতে পারি। আমরা নিজের স্তনের গঠন ও গড়ন সম্পর্কে পরিচিত হতে পারি। স্বাভাবিক অবস্থায় স্তন নরম ও দলাহীন হয়। তবে মাসিকের পূর্বের দিনগুলিতে স্তন কিছুটা সংবেদনশীল অনুভূত হয় অর্থাৎ টনটনে ভাব বা শক্ত ভাব অথবা ফোলা ফোলা ভাব হয়। স্তনের মাঝে বিভিন্ন পরিবর্তনের হাজারো কারণ থাকতে পারে। বেশীরভাগ পরিবর্তনই ক্ষতিকারক নয়, তবে সবগুলিরই পরীক্ষা করা উচিৎ কারণ, যে কোন একটাই হতে পারে স্তন ক্যান্সারের প্রথম লক্ষণ। স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে প্রথম পদক্ষেপ হিসাবে আমরা নিজেরাই নিজেদের স্তন পরীক্ষা করে দেখতে পারি।

 

কিভাবে নিজেকে নিজে পরীক্ষা করতে হয়

গোসলের সময়-

গোসলের সময় স্তন পরীক্ষা করুন। ভিজা চামড়ার উপর দিয়ে ধীরে ধীরে হাত দিন। আঙ্গুল চিত্রের মত চেপ্টা করে স্তনের উপর দিয়ে এদিকে ওদিকে চালনা করুন। বাম দিকের স্তন পরীক্ষা করার জন্য ডান হাত এবং ডান দিকের স্তন পরীক্ষা করার জন্য বাম হাত ব্যবহার করুন। দেখুন কোন lump বা দলা অথবা শক্ত গিট্টুর মত কিছু সনাক্ত হয় কিনা।

 

আয়নার সামনে-

আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজের স্তনকে লক্ষ্য করুন। প্রথমে হাত দু’পাশে থাকবে, তারপর হাত দু’টো সোজা করে মাথার উপরে তুলুন। এবার সতর্কভাবে লক্ষ্য করুন স্তনের আকার-এর কোন পরিবর্তন চোখে পড়ে কিনা। দেখুন স্তনবৃন্ত বা অন্য কোন অংশ ফুলে গেছে কিনা কিংবা কোন অংশে লালচে ভাব বা টোল পড়া আছে কিনা।

 

এবারে কোমরে হাত দিন এবং কোমরে চাপ দিন। এখন ডান বা বাম স্তনকে ভাল করে দেখুন। যদিও খুব কম মহিলারই দুটি স্তন দেখতে একই রকম হয়, তবুও প্রতিনিয়ত এই পরীক্ষার মাধ্যমে বুঝা যায় কোনটা স্বাভাবিক।

 

মাটিতে শুয়ে-

মাটিতে চিত হয়ে শুয়ে পড়ুন। আপনার ডান স্তন পরীক্ষা করার জন্য ডান দিকে ঘাঁড়ের নীচে বালিশ অথবা ভাঁজ করা কাপড় দিন। এরপর ডান হাত মাথার পিছনে রাখুন। এবার বাম হাতের আঙ্গুলগুলি চেপ্টা করে ডান স্তনের উপর রাখুন। ঘড়ির কাঁটার গতি অনুসরণ করে আপনার হাত ঘুরাতে শুরু করুন। সবচেয়ে উপরের জায়গটাকে ১২টা মনে করে চক্রাকারে হাত ১টার দিকে নিয়ে আসুন। মনে রাখতে হয় স্তনের নীচের অংশ কিছুটা শক্ত মনে হতে পারে। এটা স্বাভাবিক। সম্পূর্ণ ঘুরে আসার পর স্তন বৃন্তের (nipple) দিকে এগিয়ে যাবেন। এক ইঞ্চি অগ্রসর হবার পর একইভাবে পুনরায় স্তনকে পরীক্ষা করুন। সবশেষে স্তন বৃন্তকে বৃদ্ধাঙ্গুল ও তর্জনী আঙ্গুলের মধ্যে ধরে চাপ দিতে হবে। লক্ষ্য করুন কোন রকমের নিৱসরণ হচ্ছে কিনা, সেটা রক্ত জাতীয় বা স্বচ্ছ যেমনই হোক, তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

 

প্রতি মাসে মাসিক শেষ হবার ২/৩ দিন পর নিজেকে নিজে পরীক্ষা করত হয়। যাদের মাসিক বন্ধ হয়ে গেছে তারা মাসের যে কোন একটা নির্দিষ্ট বেছে নিয়ে প্রতি মাসে নিজেকে নিজে পরীক্ষা করতে হবে। তবে সবারই যে স্তন ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা সমান তা নয়। যাদের এই ক্যান্সাররে ঝুঁকি বেশি, তারা হলেন:

  • যাদের বয়স ৪০ এর উর্ধ্বে।
  • যাদের Menopause বা মাসিক বন্ধ হতে দেরি হচ্ছে।
  • যারা নিৱসন্তান।
  • যাদের ইতিমধ্যে স্তনে দলা বা লাম্প আছে (Fibrocystic disease।
  • যারা এষ্টোজেন জাতীয় হরমোন ব্যবহার করেন। এখানে বলতে হয় যে, কোন কোন জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়িতে এই হরমোন আছে। সেজন্য বড়ি কেনার সময় প্যাকেটের উপরে এই হরমোন আছে কিনা তা দেখে কিনতে হবে।
  • যাদের স্তনের ও বুকের অনেক এক্সরে করা হয়েছে।
  • যাদের পরিবারের মধ্যে কোন নিকট আত্মীয় যেমন-মা, বোন, এদের কারো স্তন ক্যান্সার হয়েছে; ত’হলে তাদের এই ক্যান্সার হবার সম্ভাবনা রয়ে যায়। যদিও তার শতকরা হার নগণ্য।
  • যারা সন্তান প্রসব করার পর বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়াননি।

 

প্রকৃত পক্ষে স্তন ক্যান্সার কেন হয় তার সঠিক কোন বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা জানা নেই। তবে পরিসংখ্যাণে দেখা দেছে নবজাতককে বুকের দুধ খাওয়ালে স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

 

স্তন ক্যান্সার হবার ঝুঁকি থাকুক বা নাই থাকুক, নিজেকে নিজে পরীক্ষা করার মাধ্যমে স্তনের বিভিন্ন সমস্যা সনাক্ত করতে পারি। আসলে স্তন ক্যান্সার ছাড়াও স্তনের অন্যান্য বিভিন্ন রোগ হতে পারে। সেগুলি হয়তো স্তন ক্যান্সারেরই পূর্ব লক্ষণ, যেমন:

  • স্তনের কোন অংশে কোন দলা বা চাকা অনুভূত হওয়া- হতে পারে তা ব্যথাহীন।
  • স্তনে ব্যথা বা ভারী বোধ হওয়া অথবা ফুলে যাওয়া- এক্ষেত্রে বলতে হয় যে, মাসিক পূর্বের দিনগুলিতে সাধারণত: স্তন কিছুটা সংবেদনশীল থাকে ও দলাদলা অনুভূত হয়।
  • স্তন বৃন্ত থেকে কোন রস বের হওয়া।  

 

এখানে নির্দিষ্টকৃত লক্ষণগুলো ছাড়াও পূর্বে আলোচিত কোন পরিবর্তন চোখে পড়লে দেরি না করে ডাক্তার দেখাতে হবে। যদি ক্যান্সারের কোন সম্ভাবনা থেকে থাকে তা যত তাড়াতাড়ি সনাক্ত করা হয় তার চিকিৎসা তত সহজতর।

 

নারীপক্ষ

নারীকে পরিবারে, সমাজে ও রাষ্ট্রে অধিকারসম্পন্ন নাগরিক ও মর্যাদাসম্পন্ন মানুষ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে ১৯৮৩ সাল থেকে নারীপক্ষ কাজ করে আসছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে প্রতিট মঙ্গলবার সদস্যরা সভায় বসছেন। এই সভা নারীর নিজস্ব কথা বলার একটি জায়গা এবং নারীপক্ষ’র সকল তৎপরতা ও আন্দোলনের কেন্দ্রস্থল।

 

নারীর সমঅধিকার ও সমমর্যাদা অর্জনের জন্য নেয়া হয়েছে বিভিন্ন সুনির্দিষ্ট ও বহুমুখী কর্মসূচী: নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে রাষ্ট্রীয় কর্মকান্ড পরিবীক্ষণ, স্থানীয় স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনায় সরকারের জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ, নারী নির্যাতন বিষয়ক গবেষণা, নির্বাচন পূর্বে প্রার্থীদের সঙ্গে আলোচনা সভা ও নারীর প্রতি বৈষম্য, অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও রাষ্ট্রীয় নীতি সমূহে নারী-পুরুষের সম অধিকারের বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করার লক্ষ্যে তৎপরতা। নারী আন্দোলনের একটি শক্তিশালী স্বতন্ত্র মঞ্চ তৈরির জন্য দেশব্যাপী গড়ে তোলা হয়েছে নারী সংগঠনসমূহের নেটওয়ার্ক ‘দুর্বার’।

 

নারীপক্ষ মূলত পাঁচটি ক্ষেত্রে কাজ করে:

  • নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন
  • নারীর স্বাস্থ্য ও প্রজনন অধিকার
  • পরিবেশ ও উন্নয়নে নারীর অবস্থান
  • নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা
  • সংস্কৃতি ও গণমাধ্যমে নারীর অবস্থান

 

যারা আমাদের সব সময় অনুপ্রাণিত করে যাচ্ছেন:

দীপা হক

শিরিন আকবর

আলাতুননেসা

রোকসানা খন্দকার

জহুরা বেগম

ফিরোজা

রাবেয়া

ফৌজিয়া

হাজেরা

কাজী রোজী

পারুল

পরান রহমান

সাজেদা

সেতারা বেগম

উমা চক্রবর্তী

আসমা আক্তার

কল্যাণী রায়

লুসী রায়

 

নারীপক্ষ

জি.পি.ও বক্স নং-৭২৩, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।

ফোন: ৮১১৯৯১৭, ৮১৫৩৯৬৭, ফ্যাক্স: ৮১১৬১৪৮

ই-মেইল: [email protected]

ওয়েবসাইট: www.naripokkho.com

প্রকাশকাল: মাঘ ১৪০৮/জানুয়ারী ২০০২

দ্বিতীয় সংস্করণ: কার্তিক ১৪১৪/নভেম্বর ২০০৭

 

(আপলোডের তারিখ : ২০/০৭/২০১২)

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
আপনার মুখে দুর্গন্ধ? লবঙ্গ দিয়ে মাত্র ১০ মিনিটে দূর করুন মুখের দুর্গন্ধজেনে নিন কিভাবে কিভাবে দূর করবেন আপনার মুখে দুর্গন্ধ
৩ টাকা দিয়ে ফলটি কিনুন !! এই একটি ফলের রসেই গলবে কিডনির পাথর।বিস্তারিত ভিতরে পড়ুন
ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতাবিস্তারিত পড়ুন ক্যানসার-তেজস্ক্রিয়তাও প্রতিরোধ করে সাদা তিল! রয়েছে আরও বহু উপকারিতা
যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালোবিস্তারিত পড়ুন যে কারণে ক্রুসিফেরি পরিবারের সবজি খাওয়া ভালো
খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফলবিস্তারিত পড়ুন খাওয়ার পর একটু হাঁটার সুফল
পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়বিস্তারিত পড়ুন পর্যাপ্ত ফল ও সবজি না খেলে যা হয়
যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে নাবিস্তারিত পড়ুন যে সকল সুস্বাদু খাবার আপনার শরীরের মেদবৃদ্ধি করবে না
এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুনবিস্তারিত পড়ুন এবার চিরকালের জন্য কোমরের ব্যথা দূর করার জাদুকরি উপায় জেনে রাখুন
জিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুনজিরা খেয়ে ১৫ দিনে মেদচর্বি একদম ঝরিয়ে ফেলুন! জেনে নিন কখন, কি ভাবে খাবেন?
শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়বিস্তারিত পড়ুন শিশুদেরকে বাহু ধরে ঘোরানো ঠিক নয়
আরও ১২৭৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি