ট্রেন সার্ভিস

সিটি সার্ভিসআন্ত:নগর ট্রেনমেইল/এক্সপ্রেস ট্রেনআন্তর্জাতিক ট্রেন

ট্রেনের সময়সূচী-ভাড়াকমিউটার ট্রেন

 


বাংলাদেশে ট্রেন সার্ভিস বলতে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব বাংলাদেশ রেলওয়ের সার্ভিসকেই বোঝায়। ৭১ পরবর্তী সময়ে রেলের প্রসার তেমন ঘটেনি। কিন্তু এদেশে রেলের ইতিহাস ১৪২ বছরের পুরোনো। ৪৭ পূর্ববর্তী সময়ে এখানকার রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা ছিল কোলকাতামূখী।

 

 


বর্তমান অবস্থা

এখন ঢাকা থেকে বরিশাল ছাড়া অন্য সব বিভাগীয় সদর এবং অনেক জেলা ও উপজেলা সদরে ট্রেনে চড়ে যাওয়া যায়।

রেল নেটওয়ার্ক আরও বিস্তৃত করা হচ্ছে। পর্যটন শহর কক্সবাজারকেও রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনার কাজ চলছে। ২০০৮ সালে ঢাকা কলকাতা রেল সার্ভিস চালু হয়। বর্তমানে দেশে রেলপথের দৈর্ঘ্য ২,৮৫৫ কিলোমিটার। বিস্তারিত...
 


টিকেট সংগ্রহ

বাংলাদেশ রেলওয়ের টিকেট রেল স্টেশন ছাড়াও মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে সংগ্রহ করা যায়। রেলস্টেশনেগুলোতে কম্পিউটারাইজড টিকেটিং ব্যবস্থা থাকায় যেকোন স্টেশন থেকে টিকেট সংগ্রহ করা যায়। তবে নারায়ণঞ্জ এবং গেন্ডারিয়া রেলস্টেশনে কম্পিউটারাইজড টিকেটিং ব্যবস্থা না থাকায় এ স্টেশনগুলো থেকে অন্য ট্রেনের টিকেট সংগ্রহ করা যায় না।

রেলের টিকেট সংগ্রহের বিস্তারিত

 


রেলওয়ে অনুসন্ধান কেন্দ্র

রেলওয়ের ওয়েবসাইট: http://www.railway.gov.bd/

  • ঢাকা কমলাপুর রেল স্টেশন- ৯৩৫৮৬৩৪, ৮৩১৫৮৫৭, ৯৩৩১৮২২, ০১৭১১-৬৯১৬১২
  • বিমানবন্দর রেল স্টেশন- ৮৯২৪২৩৯

ঢাকা কলকাতা ট্রেন সার্ভিস (মৈত্রী এক্সপ্রেস)

২০০৮ সালের ১৪ ই এপ্রিল ঢাকা থেকে কলকাতা ট্রেন সার্ভিস চালু হয়। ইমিগ্রেশনসহ মোট ১৩ ঘন্টা সময় লাগে এই যাত্রাপথে। ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশন থেকে দর্শনা ও গেদে হয়ে কলকাতায় পৌঁছে এই ট্রেনে।

মৈত্রী এক্সপ্রেসের বিস্তারিত...

 


সকল ট্রেনের সময়সূচি

ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছেড়ে যাওয়া আন্ত:নগর ও মেইল ট্রেনগুলোর সময়সূচির বিস্তারিত...

 


 

ঢাকা নারায়ণগঞ্জ ট্রেন সার্ভিস

ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে নারায়ণগঞ্জের সাথে একটি সিঙ্গেল লাইন ট্রেন লাইন আছে যেটিতে বেসরকারী ব্যবস্থাপনায় ট্রেন সার্ভিস পরিচালিত হয়। ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশনের শরহতলী প্লাটফর্ম থেকে ট্রেনগুলো ছেড়ে যায়। নারায়ণগঞ্জ ছাড়াও গেন্ডারিয়া, পাগলা, ফতুল্লা এবং চাষাড়ায় থামে ট্রেনগুলো। এসব ট্রেনে মহিলাদের জন্য আলাদা বগিও থাকে। সময়সূচিসহ বিস্তারিত...


 

যাত্রীদের জন্য আরও কিছু তথ্য

  • ঢাকার কমলাপুর এবং এয়ারপোর্ট রেলস্টেশন এলাকা সংরক্ষিত এলাকা। কমলাপুর রেলস্টেশনে কেবল টিকেটধারীরাই প্রবেশ করতে পারেন। অন্য কেউ প্রবেশ করতে চাইলে তাকে প্লাটফর্ম টিকেট সংগ্রহ করতে হয়। টিকেটের দাম দুই টাকা।
  • ট্রেন প্লাটফর্মে দাঁড়ানো অবস্থায় টয়লেট ব্যবহার থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয় যাত্রীদের।
  • আন্ত:নগর ট্রেনগুলোয় খাবার বগি থাকে, যেখানে বিভিন্ন ধরনের খাবার পরিবেশন করা হয়। আবার খাবারের বগি থেকে যাত্রীদের খাবার পৌঁছে দেবার ব্যবস্থাও থাকে।
  • নামাজের ব্যবস্থাও থাকে চলন্ত ট্রেনে।
  • ট্রেনে যাত্রীদের জন্য অনেক সময় কিছু বিশেষ সতর্কবাণী দেয়া হয়। যেমন- যমুনা সেতু পার হওয়ার সময় যাত্রীদের হাত ও মাথা ভেতরে রাখতে বলা হয়। কারণ সেতুর বিদ্যুতের খুঁটিগুলো একদম রেল লাইন ঘেঁষে অবস্থিত।
  • প্রত্যেক বগিতেই ইমার্জেন্সী ব্রেক থাকে। সেটি ব্যবহার করে জরুরী অবস্থায় ট্রেন থামানো যায়। তবে অপ্রয়োজনে সেটা করলে ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

 


২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি