পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ভ্রমণ

তিতাস পাড়ের সমৃদ্ধ জনপদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা। সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিনের জন্মভূমি এ জেলায় দেশের বৃহত্তম গ্যাস মওজুদ অবস্থিত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর শিল্প-সাহিত্য ও শিক্ষা-সংস্কৃতির ঐতিহ্য সুপ্রাচীন। এ শহরকে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক রাজধানী বলা হয়। ১৮৬৯ সালে শহরটি পৌরসভায় রূপান্তর হয়। উনবিংশ শতাব্দীতে এ শহরের উত্থান।

 

অবস্থান

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পূর্বে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে। দক্ষিণে কুমিল্লা জেলা পশ্চিমে নরসিংদী ও কিশোরগঞ্জ জেলা এবং উত্তরের সিলেটের হবিগঞ্জ জেলার অবস্থান।

 

যোগাযোগ পদ্ধতি

ঢাকা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাথে সড়ক ও রেল উভয় পথেই যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে। সড়ক পথের চেয়ে রেল পথে যাতায়াতই সুবিধাজনক।

 

সড়ক পথ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাসগুলো প্রধান সায়েদাবাদ ও কমলাপুর থেকে ছাড়ে। এছাড়া ঢাকার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষিপ্তভাবে আরও কিছু কাউন্টার রয়েছে। তবে সায়েদাবাদের চেয়ে কমলাপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া বাসগুলোর যাত্রীসেবার মান ভালো।

 

ঢাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া

পরিবহন এর নাম

বুকিং এর জন্য যোগাযোগ

যাত্রা স্থান

ছাড়ার সময়

যাত্রী প্রতি ভাড়া

সোহাগ পরিবহন

০৪৪৭৬০০০৫৬১

কমলাপুর

প্রথম বাস -সকাল ৭.৩০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - রাত ৯.৩০

১৫০/-

তিশা পরিববহন

০১৯১৫-৭২৮৭৪৫

কমলাপুর

প্রথম বাস -সকাল ৭.০০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - রাত ১০.০০

১৫০/-

তিতাস পরিবহন

০১৬৭৫-৩৮৯৭৭৬

কমলাপুর

প্রথম বাস -সকাল ৭.০০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - সন্ধ্যা ৮.০০

১৫০/-

 

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ঢাকা

পরিবহন এর নাম

বুকিং এর জন্য যোগাযোগ

যাত্রা স্থান

ছাড়ার সময়

যাত্রী প্রতি ভাড়া

সোহাগ পরিবহন

০১৭১৪-০৭২২৭৫

০১৭১৮-৯৫৪৩৩৫

পৌরতলা

প্রথম বাস -সকাল ৭.৩০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - সন্ধ্যা ৬.০০

১৫০/-

তিশা পরিববহন

03834050076

01725-689024

০১৯২০-১২৪২৪২

পৌরতলা

প্রথম বাস -সকাল ৭.০০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - রাত 6.30

১৫০/-

তিতাস পরিবহন

০৭১৭৫-১৯৮৬৬৯

পৌরতলা

প্রথম বাস -সকাল ৭.০০

১৫ মিনিট অন্তর অন্তর

শেষ বাস - সন্ধ্যা ৬.০০

১৫০/-

 

 

রেলপথে

ঢাকা থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রুটের নির্দিষ্ট কোনো ট্রেন নেই। ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, নোয়াখালী রুটের ট্রেনগুলো ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে যাত্রী ওঠানামা করিয়ে থাকে।

 

ট্রেনের নাম

চট্টগ্রাম/সিলেট হতে ছাড়ে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে ছাড়ে

ট্রেনের নাম

ঢাকা হতে ছাড়ে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে ছাড়ে

মহানগর প্রভাতী

সকাল ৭.১৫ মিঃ

সকাল ১১.৫০ মি

মহানগর প্রভাতী

সকাল ৭.৪০ মি

সকাল ১০.১৫ মি

মহানগর গোধুলী

বিকাল ৩.০০ মিঃ

বিকাল ৭.৩০ মি.

মহানগর গোধুলী

বিকাল ৩.০০ মি

বিকাল ৫.৩৮ মি

উপকুল (নোয়াখালী)

দুপুর ২.১৫ মিঃ

বিকাল ৬.১৯ মি.

উপকুল (নোয়াখালী)

সকাল ৭.০০ মি

সকাল ৯.২৫ মি

পারাবত (সিলেট)

দুপুর ২.৪৫ মিঃ

সন্ধ্যা ৭.১৮ মি.

পারাবত (সিলেট)

সকাল ৬.৪০ মি.

সকাল ৯.০০ মি

তুর্ণা নিশিতা

রাত ১১.০০ মিঃ

রাত ৩.২৪ মি:

তুর্ণা নিশিতা

রাত ১১.০০ মি.

রাত ১.৩০ মি

তিতাস কমিউটার

-

সকাল ৫.৩৮ মি:

তিতাস কমিউটার

সকাল ১০.১০

-

তিতাস কমিউটার

-

দুপুর ১.৩০ মি

তিতাস কমিউটার

বিকাল ৫.৩৫ মি.

-

কর্ণফুলী

সকাল ১০.০০ মি

দুপুর ৪.১৩ মি.

কর্ণফুলী

সকাল ৮.০০ মি

দুপুর ১২.২০ মি

নাছিরাবাদ (জগন্নাথগঞ্জ)

বিকাল ৩.১০ মিঃ

রাত ১২.৪০ মি.

নাছিরাবাদ (জগন্নাথগঞ্জ)

রাত ১২.৩০ মি

সকাল ১০.৩২ মি

সিলেট মেইল

সন্ধ্যা ৭.২০ মিঃ

রাত ৪.২৫ মি.

সিলেট মেইল

রাত ৯.০০ মি

রাত ১.০৫ মি

চট্টগ্রাম মেইল

রাত ১০.৩০ মিঃ

রাত ৪.০৫ মি.

চট্টগ্রাম মেইল

রাত ১০.৩০ মি

রাত ১.৫৫ মি

নোয়াখালী এক্সপ্রেস

রাত ৮.৩০ মিঃ

রাত ১.৩০ মি.

নোয়াখালী এক্সপ্রেস

রাত ৮.১০ মি

রাত ১১.৩০ মি

সুরমা মেইল

রাত ৭.২০ মিঃ

রাত ৪.২৫ মি.

সুরমা মেইল

রাত ০৯.০০ মি

রাত ১.০৫ মি

 

যোগাযোগ

কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন

ফোন নম্বর: ৯৩৫৮৬৩৪, ৮৩১৫৮৫৭, ৯৩৩১৮২২

মোবাইল নম্বর: ০১৭১১৬৯১৬১২

 

বিমানবন্দর রেলওয়ে ষ্টেশন

ফোন নম্বর: ৮৯২৪২৩৯

ওয়েবসাইট: www.railway.gov.bd

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা হতে অন্যান্য উপজেলায় যাতায়াতের তথ্যাবলী

আখাউড়া উপজেলা

০১। রেলপথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে আখাউড়া।

০২। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী স্ট্যান্ড হতে টেম্পু/সিএনজি যোগে আখাউড়া সদর।

 

কসবা উপজেলা

০১। রেলপথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে কসবা।

০২। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/ পৈরতলা বাস স্ট্যান্ড হতে বাসযোগে কসবা সদর।

 

আশুগঞ্জ উপজেলা -  

০১। রেলপথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে কসবা।

০২। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/পৈরতলা বাস স্ট্যান্ড হতে বাসযোগে আশুগঞ্জ সদর।

 

সরাইল উপজেলা - ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/ পৈরতলা/ মেড্ডা বাস স্ট্যান্ড হতে বাস/টেম্পু/সিএনজিতে বিশ্বরোড মোড়। তারপর টেম্পু/ সিএনজিতে সরাইল উপজেলা সদর।

 

নাছিরনগর উপজেলা - ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/পৈরতলা/মেড্ডা বাস স্ট্যান্ড হতে বাস/টেম্পু/সিএনজিতে বিশ্বরোড মোড়। তারপর টেম্পু/সিএনজিতে নাছিরনগর উপজেলা সদর।

 

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা

০১। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/ পৈরতলা বাস স্ট্যান্ড হতে বাসযোগে কোম্পানীগঞ্জ, মুরাদনগর, হোমনা হয়ে বাঞ্ছারামপুর সদর।

০২। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হতে ট্রেনে/ বাসে নরসিংদীর বেলানগর লঞ্চ ঘাট হতে লঞ্চ/ স্পিড বোর্ডে

মরিচাকান্দি হয়ে টেম্পু/ সিএনজি যোগে বাঞ্ছারামপুর সদর।

০৩। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ গোকর্ণ ঘাট হতে লঞ্চযোগে নবীনগর ভায়া হয়ে বাঞ্ছারামপুর সদর।

 

নবীনগর উপজেলা

০১।ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ গোকর্ণঘাট হতে লঞ্চযোগে নবীনগর সদর।

০২। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরস্থ কাউতলী/পৈরতলা হতে কোম্পানীগঞ্জ হয়ে নবীনগর সদর।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হতে উপজেলার দূরত্ব

উপজেলার নাম

দূরত্ব

আখাউড়া উপজেলা

২৬ কিঃ মিঃ

কসবা উপজেলা

৩৪ কিঃ মিঃ

আশুগঞ্জ উপজেলা

২৫ কিঃ মিঃ

সরাইল উপজেলা

১৪ কিঃ মিঃ

নাছিরনগর উপজেলা

২৯ কিঃ মিঃ

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা

৮২ কিঃ মিঃ

নবীনগর উপজেলা

৭৬ কিঃ মিঃ

 

 

দর্শনীয় স্থান

হাতির পুল

ঢাকা সিলেট বা কুমিল্লা সিলেট রোডের সংলগ্ন স্থানে অর্থ্যাৎ সরাইল থানার বারিউরা নামক বাজারের প্রায় একশত গজ দূরে ইট নির্মিত একটি উঁচু পুল বিদ্যমান। পুলটি সংস্কার করার ফলে এখন অনেক বেশি আকর্ষণীয়। বাংলাদেশে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর থেকে পুলটিকে সংস্কার ও সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলটির হাতির পুল নামে পরিচিত। দেওয়ান শাহবাজ আলী সরাইলে দেওয়ানী লাভের পর বর্তমানে শাহবাজপুরে তাঁর কাচারী প্রতিষ্ঠা করেন। শাহবাজ আলী সরাইলের বাড়ী এবং শাহবাজপুর যাতায়াতের জন্য সরাইল থেকে শাহবাজপুর পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ করেছিলেন। রাস্তাটি ১৬৫০ খ্রিঃ দিকে নির্মিত হয়েছিল বলে অনুমান করা হয়। উক্ত রাস্তাটি পরিত্যক্ত অবস্থায় কুট্টা পাড়ার মোড় থেকে শাহবাজপুর পর্যন্ত এখনও টিকে আছে। রাস্তাটিকে স্থানীয়রা জাঙ্গাল বলে থাকে। দেওয়ান শাহবাজ আলী এবং হরষপুরের জমিদার দেওয়ান নুরমোহাম্মদের সঙ্গে আত্মীয়তার সর্ম্পক ছিল বলে অনেক ঐতিহাসিক মত প্রকাশ করে। ফলে উভয় পরিবারের যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে উক্ত জাঙ্গালটি ব্যবহৃত হতো বলে মনে করা হয়। উক্ত জাঙ্গালটির উপরে পুলটি অবস্থিত। শুধু মাত্র হাতির পিটে চড়ে দেওয়ানদের চলাচল আবার কথিত আছে পুলটির গোড়ায় হাতি নিয়ে বিশ্রাম দেওয়া হতো বলে পুলটিকে হাতির পুল নামে অভিহিত করা হয়। পুলটির গায়ে অপূর্ব সুন্দর কারুকার্য করা ছিল। সংস্কারের সময কিছু কারুকার্য নতুন করে তৈরী করা হয়েছে। জাঙ্গাল এবং হাতির পুলের পাশ দিয়ে বর্তমান ঢাকা সিলেট ও চট্টগ্রাম সিলেট রোড চলে গেছে। সরাইল হরষপুর জাঙ্গাল দিয়ে কবে থেকে লোক চলাচল বন্ধ হয়ে যায় তা সঠিকভাবে জানা যায়নি। হাতির পুলের নীচে দিয়ে ইংরেজ আমলেও নৌকা চলাচল করত বলে জানা যায়।

 

 

গঙ্গাসাগর দিঘী

অতীতে নৌ-পথের গুরুত্ব যখন অধিক ছিল, তখন হাওড়া নদীর তীরবর্তী গঙ্গাসাগর ছিল মূলত আগরতলার নদী-বন্দরস্বরূপ। গঙ্গাসাগরের পূর্বনাম ছিল রাজদরগঞ্জ বাজার। এ বাজার তৎকালীন সময়ের বিশিষ্ট ব্যাংক ‘দি এসোসিয়েটেড ব্যাংক লিঃ অফ ত্রিপুরা’র প্রধান অফির স্থাপিত হয়েছিল। তখনো উপমহাদেশে ব্যাংকের প্রচলন সঠিকভাবে হয়নি। এ অবস্থায় একটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান অফিস স্থাপনা উল্লেখিত স্থানের ঐতিহাসিকতাকেই উজ্জ্বল করে বৈকি। তাছাড়া ত্রিপুরা রাজ্যের ভাটি অঞ্চলের খাজনা আদায়ের মহল অফিসও এ রাজদরগঞ্জ বাজারেই ছিল। রাজদরগঞ্জ বাজারের পরবর্তী নাম মোগড়া বাজার। এখানে ‘সেনাপতি বাড়ি’ নামে একটি জায়গা আছে। তাই মনে করা হয়ে থাকে যে, ত্রিপুরা-রাজ্যের কোন এক সেনাপতি এখানে বসবাস করতেন স্থায়ী অথবা অস্থায়ীভাবে। ত্রিপুরা-রাজ্য এখানে একটি বিরাট দীঘি খনন করান। গঙ্গা দেবীর নামানুষারে দীঘির নামকরণ করেন ‘গঙ্গাসাগর দীঘি’। সেই থেকেই জায়গাটির নাম গঙ্গাসাগর হয়।

 

 

কেল্লা শহীদ মাজার

আখাউড়ার খড়মপুরে অবস্থিত হজরত সৈয়দ আহম্মদ (রঃ) এর দরগাহ যা কেল্লা শহীদের দরগাহ নামে সমগ্র দেশে পরিচিত। কেল্লা শহীদের দরগাহ সর্ম্পকে যে কাহিনী প্রচলিত আছে তা হচ্ছে এই যে, সে সময় খড়ম পুরের জেলেরা তিতাস নদীতে মাছ ধরত। একদিন চৈতন দাস ও তার সঙ্গীরা উক্ত নদীতে মাছ ধরার সময় হঠাৎ তাদের জালে একটি খন্ডিত শির আটকা পড়ে যায়। তখন জেলেরা ভয়ে ভীত হয়ে পড়ে এবং খন্ডিত শিরটি উঠাতে গেলে আল্লাহর কুদরতে খন্ডিত শির বলতে থাকে ‘‘একজন আস্তিকের সাথে আর একজন নাস্তিকের কখনো মিল হতে পারে না। তোমরা যে পর্যন্ত কলেমা পাঠ করে মুসলমান না হবে ততক্ষণ আমার মস্তক স্পর্শ করবে না।’’ খন্ডিত মস্তকের এ কথা শুনে মস্তকের কাছ থেকে কলেমা পাঠ করে চৈতন দাস ও সঙ্গীরা হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে মুসলমান হয়ে যায়। মস্তকের নির্দেশ মোতাবেক ইসলামী মতে খড়ম পুর কবরস্থানে মস্তক দাফন করে। ধর্মান্তরিত জেলেদের নাম হয় শাহবলা, শাহলো, শাহজাদা, শাহগোরা ও শাহরওশন। তাঁরাই এ দরগাহের আদিম বংশধর। এই দরগাহের খ্যতি ধীরে ধীরে চর্তুদিঁকে ছড়িয়ে পড়ে। এ থেকেই শাহ পীর সৈয়দ আহম্মদ গেছুদারাজ ওরফে কেল্লা শহীদের পবিত্র মাজার শরীফ নামে পরিচিতি লাভ করে। ২৬০ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত দরগা শরীফের জায়গা তৎকালীন আগরতলা রাজ্যের মহারাজা দান করেন। বিভিন্ন ঐতিহাসিকগণ অনুমান করেন যে, আওলিয়া হজরত শাহ জালাল (রঃ) এক সঙ্গে সিলেটে যে ৩৬০ জন শিষ্য এসেছিলেন হজরত সৈয়দ আহম্মদ গেছুদারাজ ছিলেন তাঁদের অন্যতম। তরফ রাজ্যেও রাজা আচক নারায়নের সঙ্গে হজরত শাহজালালের প্রধান সেনাপতি হজরত সৈয়দ নাসিরউদ্দিন যে যুদ্ধ পরিচালনা করেন সে যুদ্ধে হজরত সৈয়দ আহম্মদ গেছুদারাজ শহীদ হন এবং তাঁর মস্তক তিতাস নদীর স্রোতে ভেসে আসে। প্রতি বছর ওরসে কেল্লা শতীদের মাজারে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হয়।

 

থাকার ব্যবস্থা

নাম

ঠিকানা ও যোগাযোগ

জেলা পরিষদ ডাকবাংলো

কোতয়ালী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০৮-৫১৫৯৭৫৫

হোটেল চন্দ্রিমা

ষ্টেশন রোড, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১৭২০-৬৫৫৮৪২

হোটেল অন্বেষা

ষ্টেশন রোড, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১৭১২-৪২৯৯৮৬

হোটেল নিরাপদ

ষ্টেশন রোড, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

 ফোন: ০১৭১২-৫৭৭৫৯৩

হোটেল রহমান

দক্ষিণ কালী বাড়ী রোড, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১৬৭০-৯০৬১১৩

হোটেল নাজ

কুমারশীল মোড়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১৭১১-৮৮৭৫৯২

হোটেল মুক্তা

এ রোড, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১৮২৪-৪০৬০৩৬

হোটেল বলাকা

জগৎ বাজার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ফোন: ০১১৯৯০২৬০৪৭

হোটেল স্টার

এ রোড, ব্রাহ্মণ

ফোন: ০৮৫১-৫৮০৫০

 

 

 

আপলোডের তারিখ: ২৬/০৪/২০১৩ ইং।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
কক্সবাজার ভ্রমণকক্সবাজার ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য
কিশোরগঞ্জ ভ্রমণকিশোরগঞ্জ ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য রয়েছে
কুমিল্লা ভ্রমণকুমিল্লা ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য
কুষ্টিয়া ভ্রমণ কুষ্টিয়া জেলার প্রয়োজনীয় তথ্য
কুড়িগ্রাম ভ্রমণকুড়িগ্রাম ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য
খাগড়াছড়ি ভ্রমণখাগড়াছড়ি ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য রয়েছে
খুলনা ভ্রমণ খুলনা জেলার প্রয়োজনীয় তথ্য
গাইবান্ধা ভ্রমণগাইবান্ধা ভ্রমণের প্রয়োজনীয় তথ্য
গোপালগঞ্জ ভ্রমণ গোপালগঞ্জ জেলার প্রয়োজনীয় তথ্য
চাঁদপুর ভ্রমণ চাঁদপুর জেলা সর্ম্পকে তথ্যাবলী
আরও ৪৮ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি