পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

ব্র্যাক ব্যাংক

লাভজনক ও সামাজিক দায়বদ্ধ ব্যাংক হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করাই ব্র্যাক ব্যাংকের লক্ষ্য। চলতি, সঞ্চয়ী, স্থায়ীসহ বিভিন্ন ধরনের এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে গ্রাহকদের অর্থ ব্যাংকে জমা রাখা হয়। তেমন কিছু হিসাব হলো -  

 

চলতি বা কারেন্ট এ্যাকাউন্ট

‘প্রাপ্তি কারেন্ট এ্যাকাউন্ট’ নামে একটি চলতি হিসাব ব্র্যাক ব্যাংকে চালু আছে। যেকোন ধরনের প্রতিষ্ঠান যেমন – ব্যাক্তি মালিকানাধীন, অংশীদারী, কোম্পানী, এন.জি.ও, সমিতি ইত্যাদি এই এ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। ব্র্যাক ব্যাংকের যেকোন শাখা বা এসএমই সার্ভিস সেন্টারে এই এ্যাকাউন্টে মাত্র ৫,০০০ টাকা জমা দিয়ে খোলা যায়। ৫,০০০ টাকা থেকে অনুর্ধ্ব ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত জমার উপর ২% হারে ইন্টারেষ্ট পাওয়া যায় এবং ২৫,০০০ টাকা উপরে জমার উপর ৪% হারে ইন্টারেষ্ট পাওয়া যায়। একক ব্যক্তিমালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের হিসাবের জন্য রয়েছে ফ্রি এটিএম কার্ড। এছাড়া গড়ে প্রতিমাসে ২৫,০০০ টাকার উপরে জমা থাকলে কোন ব্যাংক চার্জ দিতে হয় না। ছয় মাস অন্তর অন্তর ব্যাংক স্টেটমেন্ট গ্রাহকের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেয়া হয়।

 

ফিউচার স্টার এ্যাকাউন্ট

সন্তানের ভবিষ্যৎ উচ্চশিক্ষা ও প্রয়োজন মেটানোর জন্য এই এ্যাকাউন্টে অত্যন্ত আকর্ষণীয় ইন্টারেস্টে টাকা জমা রাখা যায়। অনুর্ধ্ব ১৮ বছর বয়সী ছেলেমেয়েরা এই এ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। আইনগত অভিভাবক দ্বারা এ্যাকাউন্ট পরিচালনা করতে হয়। মাত্র ২০,০০০ টাকা দিয়ে এই এ্যাকাউন্ট খোলা যায়। ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত জমার উপর বার্ষিক ৪% হারে ইন্টারেষ্ট দেওয়া হয়। জমা ৫০,০০০ টাকার উপরে হলে বার্ষিক ৬% এবং ১,০০,০০০ টাকা বা তার বেশী হলে বার্ষিক ৮% হারে ইন্টারেষ্ট পাওয়া যায়। সন্তানের বয়স ১৮ বছর হলেই টাকা উত্তোলন করা যাবে। তবে জরুরী প্রয়োজনে যেকোন সময় এ্যাকাউন্ট বন্ধ করে টাকা উত্তোলন করা যাবে। ১ বছরের মধ্যে এ্যাকাউন্ট বন্ধ করলে কোন ইন্টারেষ্ট দেওয়া হয় না।

 

ট্রিপল বেনিফিট সঞ্চয়ী হিসাব

কমপক্ষে ৫০,০০০ টাকা দিয়ে এই এ্যাকাউন্ট খুলতে হয়। সর্বোচ্চ ৮.৫% পর্যন্ত মাসিক ব্যালেন্সের উপর ইন্টারেষ্ট দেওয়া হয়। তবে ৫০,০০০ টাকার নীচে জমার জন্য কোন ইন্টারেষ্ট দেওয়া হয় না।

 

ঋণ

গৃহঋণ

‘আপন ঘর’ নামে গৃহ ঋণের ব্যবস্থা আছে। নির্মানাধীন, অর্ধনির্মিত, সম্পূর্ণ তৈরী কিংবা পুরাতন স্থাপনার ক্ষেত্রে তৈরী, বর্ধিতকরণ কিংবা সজ্জিতকরণের জন্য গৃহ ঋণ দেওয়া হয়। ঋণ পাওয়ার জন্য ঋণগ্রহীতা যদি চাকুরীজীবি হয় তাহলে মাসিক ২৫,০০০ টাকা বেতনে প্রতিষ্ঠিত ফার্মে কমপক্ষে ৩ বছর কর্মরত থাকতে হবে। ৩ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যবসায়ী বা পেশাদার ব্যাক্তি যার মাসিক আয় ন্যূনতম ৩০,০০০ টাকা তিনিও গৃহঋণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। সর্বোচ্চ ২৫ বছরের মধ্যে ঋণ পরিশোধ করার ব্যবস্থা আছে। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট মেট্রোপলিটান এলাকায় সম্পদের মর্টগেজের বিপরীতে গৃহঋণ দেওয়া হয়।

 

কার লোন

নতুন কিংবা রিকন্ডিশন গাড়ি ক্রয় করার জন্য আর্থিক সহযোগীতা করতে ব্র্যাক ব্যাংকের রয়েছে ‘কার লোন’। ২১ বছর থেকে ৬৫ বছর বয়সী যেকোন বাংলাদেশী নাগরিক কার লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ী ও পেশাদার ব্যক্তিদের জন্য কার লোন তাদের স্বপ্নের গাড়ি ক্রয়ে অনন্য ভূমিকা পালন করে। চাকুরীজীবিদের জন্য মাসিক আয় ২৫,০০০ টাকা ও অন্যান্য পেশার লোকদের মাসিক আয় ৩৫,০০০ টাকা হতে হবে। চাকুরীক্ষেত্রে ১ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে আর ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে ২ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। গাড়ির মোট মূল্যের অর্ধেক ঋণ দেওয়া হয়। ১ থেকে ৫ বছরের মধ্যে ঋণ পরিশোধ করার জন্য সময় পাওয়া যায়।

 

ব্যাংকের কিছু সাধারণ সেবা ও চার্জ সমূহের বিবরণ দেওয়া হলো

  • এখানে ১২ পাতার চেক বইয়ের জন্য ভ্যাটসহ ৩৪৫ টাকা দিতে হয়।
  • সেভিংস ও কারেন্ট একাউন্ট এর বাৎসরিক চার্জ ১,২০০ টাকা তবে এর মধ্যে ১টি চেক বই + বাৎসরিক এটিএম চার্জ + একাউন্ট চার্জ সব সহ।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট নিতে হলে ভ্যাটসহ ১১৫ টাকা দিতে হয়। সাথে সাথেই ব্যাংক স্টেটমেন্ট পাওয়া যায়।
  • ১৮ বছরের যে কেউ এখানে ডিপিএস করতে পারে। প্রথমে একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলতে হয়। পরে ডিপিএস ফরম পূরণ করে তার বর্ণনা অনুযায়ী টাকা জমা দিতে হয়।
  • কিছু সংখ্যক বুথে টাকা জমা দেওয়ার ব্যবস্থা আছে। যেমন – যাত্রাবাড়ি, মতিঝিল, গুলশান,ধানমন্ডি,উত্তরা।
  • কোন কারণে বুথে কার্ড আটকে গেলে কল সেন্টারে কল করতে হবে এবং তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। অথবা মাদার শাখায় এসে জানাতে হবে। চার কর্ম দিবসের মধ্যেই কার্ড মাদার শাখা থেকে নেওয়া যাবে। এতে কোন চার্জ দিতে হবে না। ব্যালেন্স কাটার পর টাকা না বের হলে সাধারণত কিছুক্ষণের মধ্যেই ব্যালেন্স ঠিক হয়ে যায়। না হলে মাদার শাখায় নির্ধারিত আবেদনপত্রে আবেদন করতে হবে। এখানে বুথের নাম্বার, ঠিকানা, সময় ইত্যাদি মনে রাখতে হবে। অথবা কল সেন্টারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। কল সেন্টারের নাম্বার – ১৬২২১
  • ব্যালেন্স জানার স্লিপ নিলে এই ব্যাংকের বুথে কোন চার্জ কাটে না। কিন্তু অন্য ব্যাংকের বুথ থেকে স্লিপ নিলে সেই ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী টাকা কাটে।
  • এই ব্যাংকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ৩ (তিন) লাখ টাকা থেকে ৫০ (পঞ্চাশ) লাখ টাকা ঋণ দেওয়া হয় এবং মাঝারি উদ্যোক্তাদের দেওয়া হয় ১ (এক) কোটি থেকে ১০ (দশ) কোটি টাকার ঋণ সুবিধা। আর নারী উদ্যোক্তাদের জন্য দেওয়া হয় ‘প্রথমা’ ঋণ; এতে উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ৪৮ মাসের জন্য ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে এ ব্যাংক থেকে জামানতসহ ‘অপূর্ব’, জামানতহীন ‘অনন্য’ নামের এসব ঋণ নিতে হলে ১৭-১৮ শতাংশ সুদে পাঁচ বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হয়।

 

ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার শাখাসমূহের নাম ও ঠিকানা

ক্রমিক নং

শাখা

ঠিকানা

০১.

প্রধান কার্যালয়

১, গুলশান এভিনিউ, গুলশান – ১, ঢাকা – ১২১২।

ফোন: ৮৮৫৯২০২

০২.

আসাদগেট শাখা

প্লট # ১, আসাদগেট, মোহাম্মদপুর, ঢাকা।

০৩.

বনানী শাখা

১০, কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বনানী, ঢাকা।

০৪.

বোর্ডবাজার শাখা

হোল্ডিং # ১৪২, কালামেশ্বর, ঢাকা-ময়মনসিংহ রোড, বোর্ডবাজার, গাজীপুর – ১৭০৪।

০৫.

বসুন্ধরা শাখা

হোল্ডিং # ১৯৩, প্লট # বি, সাফওয়ান রোড, বসুন্ধরা আ/এ, ঢাকা – ১২২৯।

০৬.

আশকোনা শাখা

আশকোনা কমিউনিটি সেন্টার এন্ড ডেকোরেটর, ৫৬৭/এ, আশকোনা, দক্ষিণখান, ঢাকা – ১২৩০।

০৭.

দক্ষিণখান ব্রাঞ্চ

মজিদ ভবন, প্লট # ১১৫; ১০, শহীদ লতিফ রোড, দক্ষিণখান, উত্তরা, ঢাকা।

০৮.

সাত মসজিদ রোড শাখা

৬৬, ধানমন্ডি আ/এ, ঢাকা – ১২০৫।

০৯.

দোহার শাখা

৬৭, আশরাফ আলী চৌধুরী প্লাজা, জয়পাড়া, দোহার, ঢাকা – ১৩৩০।

১০.

ধনিয়া শাখা

৩৪২, ধনিয়া বিশ্বরোড, যাত্রাবাড়ি, ঢাকা।

১১.

এলিফ্যান্ট রোড শাখা

হোল্ডিং # ১৩৬ (নীচতলা), এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা – ১২০৫।

১২.

গুলশান শাখা

হাউজ # ৫০ (নীচতলা), রোড # ৩, গুলশান # ১, ঢাকা – ১২১২।

১৩.

নর্থ গুলশান শাখা

হোল্ডি # ১৬৬এনই (ক), গুলশান এভিনিউ – ২, ঢাকা – ১২১২।

১৪.

কেরাণীগঞ্জ শাখা

হাজী মোল্লা ম্যানসন (১ম তলা), পূর্ব আগানগর মসজিদ রোড, কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা – ১৩১০।

১৫.

মান্ডা শাখা

হোল্ডি # ৯৬ (মোনখা বাজার), উত্তর মান্ডা, ঢাকা।

১৬.

মতিঝিল শাখা

১০৭, মতিঝিল বা/এ, ঢাকা – ১০০০।

১৭.

গ্রাফিক্স বিল্ডিং শাখা

৯ জি, মতিঝিল বা/এ, ঢাকা – ১০০০।

১৮.

নতুন বাজার শাখা

মিঞা ভাই প্লাজা, ১০২০ (নীচতলা), নতুন বাজার, ঢাকা – ১২১২।

১৯.

নওয়াবগঞ্জ শাখা

ইছামতি প্লাজা, প্লট # ৪১৫ (নীচতলা), ঢাকা-বান্দুরা প্রধান সড়ক, নওয়াবগঞ্জ।

২০.

নিউ ইস্কাটন শাখা

শাহনাজ টাওয়ার, ৯, নিউ ইস্কাটন রোড, ঢাকা – ১০০০।

২১.

রামপুরা শাখা

বিসমিল্লাহ টাওয়ার, ৪৫৫/১, পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা – ১২১৯।

২২.

শ্যামলী শাখা

১৯-২০, আদর্শ ছায়ানীড়, রিং রোড, শ্যামলী, ঢাকা – ১২০৭।

২৩.

উত্তরা শাখা

হাউজ # ১, রোড # ১৫, সেক্টর # ৩, উত্তরা, ঢাকা – ১২৩০।

২৪.

জিনজিরা শাখা

মনা ট্রেড সিটি (১ম তলা), ডাকপাড়া, জিনজিরা হাইওয়ে, কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা – ১৩১০।

২৫.

নবাবপুর শাখা

১৭২, নবাবপুর রোড (১ম তলা), ঢাকা – ১১০০।

২৬.

মিরপুর শাখা

প্লট # ৩, রোড # ৩, ব্লক # এ, সেকশন # ১১, মিরপুর, ঢাকা।

 

প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা

ব্র্যাক ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা হল –

ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড

১, গুলশান এভিনিউ, গুলশান – ১, ঢাকা – ১২১২।

ফোন: ৮৮৫৯২০২

২৪ ঘন্টা কল সেন্টার নাম্বার – ১৬২২১

বিদেশ থেকে কল করার জন্য +৮৮০২৮৮৫২২৩৩

ওয়েব সাইট: www.bracbank.com

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
এক্সিম ব্যাংকের কৃষি বিনিয়োগ কর্মসূচিগুলশান, গুলশান এভিন্যিউ
ডাচ্ বাংলা ব্যাংক লিমিটেডমতিঝিল, মতিঝিল
এক্সিম ব্যাংকের আমানত প্রকল্পগুলোগুলশান, গুলশান ১
আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডN\A, N\A
ঢাকা ব্যাংকমতিঝিল, মতিঝিল
ইসলামী ব্যাংকের আই ব্যাংকিংN\A, N\A
কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন পি এল সিমতিঝিল, দিলকুশা
সিটি মানারাহ্ ইসলামিক ব্যাংকিং (সিটি ব্যাংক)N\A, N\A
উত্তরা ব্যাংক লিমিটেডঢাকা, মতিঝিল
এবি ব্যাংকমতিঝিল, দিলকুশা
আরও ১২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি