পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

মিরপুর এলাকার এটিএম বুথ

ব্যাংক এশিয়াকমার্শিয়াল ব্যাংকট্রাস্ট ব্যাংকএইচএসবিসি ব্যাংক

ইউসিবি ব্যাংকমিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকঢাকা ব্যাংক

ইসলামী ব্যাংকওয়ান ব্যাংকযমুনা ব্যাংকডাচ বাংলা ব্যাংক

 • এবি ব্যাংকসিটি ব্যাংকইষ্টার্ণ ব্যাংকপ্রাইম ব্যাংকস্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

 

বুথ: ব্যাংক এশিয়া

শুরুতে

অবস্থান: এশিয়া ব্যাংকের মিরপুর শাখা সংলগ্ন এই এটিএম বুথটি আপ্যায়ন কমিউনিটি সেন্টার এর উত্তর পাশে ক্যাপিটাল মার্কেট ডিভিশন এর নিচে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। তিনটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: কমার্শিয়াল ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ২০৩, সেনপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি পর্বত প্লাজার নিচে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ট্রাস্ট ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: হাউজ-২৪, ব্লক-এ, সেকশন-১১, মিরপুর

অবস্থান: এটি মিরপুর শাখার ট্রাস্ট ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: এইচএসবিসি ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: মিরপুর-১১

অবস্থান: এটি হেলাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার এর বিপরীত পাশে উত্তর দিকে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইউসিবি ব্যাংক

শুরুতে

অবস্থান: এটি মিরপুর ব্রাঞ্চের ইউসিবি এর নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: সিটি প্লাজা, ১৪/১১, পল্লবী, মিরপুর-১২

অবস্থান: এটি পল্লবী শাখার মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ঢাকা ব্যাংক

শুরুতে

অবস্থান: এটি মিরপুর-১১ নং বেনারশী পল্লী ঢাকা ব্যাংক শাকার নিচ তলায় অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: প্লট- ২৭-২৮, সড়ক-১, সেকশন-৬, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬ 

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ শাখার ইসলামী ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: প্লট- ৩৬/বি, সেকশন-৬, মিরপুর-১০, ঢাকা-১২১৬ 

অবস্থান: এটি ১০ নম্বর গোল চত্বরের কাছাকাছি অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ মুক্তবাংলা শপিং মল সংলগ্ন গোল চত্বরের পাশে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ওয়ান ব্যাংক

শুরুতে

অবস্থান: এটি আপ্যায়ন কমিউনিটি সেন্টারের পাশে মিরপুর শাখার ওয়ান ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: যমুনা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ২০৩, সেনপাড়া, মিরপুর 

অবস্থান: এটি রস মিস্টির দোকানের দক্ষিন পাশে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৭৯৬, কাজীপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি হাজী টাওয়ার থেকে ১৫০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৭৯৪, কাজীপাড়া

অবস্থান: এটি কাজীপাড়া বাসস্ট্যান্ডের পশ্চিম পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। এগারটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৫৭১, কাজীপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদের নিচে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ১২৬, সেনপাড়া, বেগম রোকেয়া স্মরণী

অবস্থান: এটি সেনপাড়া মোড়ের পূর্ব পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ১০, দারুস সালাম রোড, মিরপুর-১

অবস্থান: এটি মিরপুর ১ নং বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রায় ৭০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। সাতটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ মুক্তবাংলা শপিং মল সংলগ্ন অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১, বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমী এর সাথে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি ডেলটা মেডিকেল কলেজের পাশে মেডিকেল কলেজ থেকে ১০০ গজ পূর্বে দারুস সালাম রোড, মিরপুর-১ এ অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর ১নং গোল চত্বরের সন্নিকটে মিরপুর বাসষ্ট্যান্ড হতে ৩০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২/১, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬, পল্লবী

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: মিরপুর-১২, এ/৮/২৩ পল্লবী, ঢাকা-১২১৬

অবস্থান: এটি হারুন মোল্লা সড়ক মিরপুর ১২ নং বাসষ্ট্যান্ড থেকে ৫০ গজ উত্তরে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। সাতটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি পুলিশ স্টাফ কলেজের বিপরীতে, মিরপুর-১৪, বিল্ডিং-১ এ অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ নং বুশরা ক্লিনিক থেকে ৫০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর ১১ নং বাসষ্ট্যান্ড এর বনলতা ফুড প্যালেস এর বিপরীতে ফুড প্যালেস থেকে এর দূরত্ব ১০০ গজ উত্তরে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: প্লট-২৭, রোড- ২, ব্লক-বি, সেকশন-১২, পল্লবী, মিরপুর

অবস্থান: এটি সুমন’স মেডিকেলের উত্তর পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২৩১, সেনপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি সেন্ট্রাল প্লাজা এর নিচ তলায় অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১১, মিরপুর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিপরীতে ডায়াগনস্টিক সেন্টার হতে এর দূরত্ব ১০০ গজ দক্ষিনে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২১৮, বেগম রোকেয়া স্মরণী, ঢাকা-১২০৭

অবস্থান: এটি ব্লু ল্যান্ড চাইনিজ রেস্টুরেন্ট এর নিচে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৮১৯, পশ্চিম শেওড়াপাড়া

অবস্থান: এটি সীমন্ত ডেকরেটর থেকে ৮০ গজ পূর্ব পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে একবারে ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি শেওড়াপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদের নিচে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৭৭৯, শেওড়াপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি শেওড়াপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদের ১০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।   বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। এগারটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ব্যাংক এশিয়া

অবস্থান: এশিয়া ব্যাংকের মিরপুর শাখা সংলগ্ন এই এটিএম বুথটি আপ্যায়ন কমিউনিটি সেন্টার এর উত্তর পাশে ক্যাপিটাল মার্কেট ডিভিশন এর নিচে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। তিনটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: কমার্শিয়াল ব্যাংক

ঠিকানা: ২০৩, সেনপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি পর্বত প্লাজার নিচে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ট্রাস্ট ব্যাংক

ঠিকানা: হাউজ-২৪, ব্লক-এ, সেকশন-১১, মিরপুর

অবস্থান: এটি মিরপুর শাখার ট্রাস্ট ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: এইচএসবিসি ব্যাংক

ঠিকানা: মিরপুর-১১

অবস্থান: এটি হেলাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার এর বিপরীত পাশে উত্তর দিকে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইউসিবি ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর ব্রাঞ্চের ইউসিবি এর নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক

ঠিকানা: সিটি প্লাজা, ১৪/১১, পল্লবী, মিরপুর-১২

অবস্থান: এটি পল্লবী শাখার মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ঢাকা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১১ নং বেনারশী পল্লী ঢাকা ব্যাংক শাকার নিচ তলায় অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

ঠিকানা: প্লট- ২৭-২৮, সড়ক-১, সেকশন-৬, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬ 

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ শাখার ইসলামী ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

ঠিকানা: প্লট- ৩৬/বি, সেকশন-৬, মিরপুর-১০, ঢাকা-১২১৬ 

অবস্থান: এটি ১০ নম্বর গোল চত্বরের কাছাকাছি অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ মুক্তবাংলা শপিং মল সংলগ্ন গোল চত্বরের পাশে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ওয়ান ব্যাংক

অবস্থান: এটি আপ্যায়ন কমিউনিটি সেন্টারের পাশে মিরপুর শাখার ওয়ান ব্যাংকের নীচ তলায় অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: যমুনা ব্যাংক

ঠিকানা: ২০৩, সেনপাড়া, মিরপুর 

অবস্থান: এটি রস মিস্টির দোকানের দক্ষিন পাশে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৭৯৬, কাজীপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি হাজী টাওয়ার থেকে ১৫০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৭৯৪, কাজীপাড়া

অবস্থান: এটি কাজীপাড়া বাসস্ট্যান্ডের পশ্চিম পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। এগারটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৫৭১, কাজীপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদের নিচে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  দুইবারে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ১২৬, সেনপাড়া, বেগম রোকেয়া স্মরণী

অবস্থান: এটি সেনপাড়া মোড়ের পূর্ব পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে  সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ১০, দারুস সালাম রোড, মিরপুর-১

অবস্থান: এটি মিরপুর ১ নং বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রায় ৭০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। সাতটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ মুক্তবাংলা শপিং মল সংলগ্ন অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১, বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমী এর সাথে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি ডেলটা মেডিকেল কলেজের পাশে মেডিকেল কলেজ থেকে ১০০ গজ পূর্বে দারুস সালাম রোড, মিরপুর-১ এ অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর ১নং গোল চত্বরের সন্নিকটে মিরপুর বাসষ্ট্যান্ড হতে ৩০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২/১, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬, পল্লবী

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: মিরপুর-১২, এ/৮/২৩ পল্লবী, ঢাকা-১২১৬

অবস্থান: এটি হারুন মোল্লা সড়ক মিরপুর ১২ নং বাসষ্ট্যান্ড থেকে ৫০ গজ উত্তরে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়ার এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। সাতটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি পুলিশ স্টাফ কলেজের বিপরীতে, মিরপুর-১৪, বিল্ডিং-১ এ অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১ নং বুশরা ক্লিনিক থেকে ৫০ গজ পূর্বে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর ১১ নং বাসষ্ট্যান্ড এর বনলতা ফুড প্যালেস এর বিপরীতে ফুড প্যালেস থেকে এর দূরত্ব ১০০ গজ উত্তরে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: প্লট-২৭, রোড- ২, ব্লক-বি, সেকশন-১২, পল্লবী, মিরপুর

অবস্থান: এটি সুমন’স মেডিকেলের উত্তর পাশে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২৩১, সেনপাড়া, মিরপুর

অবস্থান: এটি সেন্ট্রাল প্লাজা এর নিচ তলায় অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

অবস্থান: এটি মিরপুর-১১, মিরপুর ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিপরীতে ডায়াগনস্টিক সেন্টার হতে এর দূরত্ব ১০০ গজ দক্ষিনে অবস্থিত।   

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০  টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। এখানে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ২১৮, বেগম রোকেয়া স্মরণী, ঢাকা-১২০৭

<

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
লালবাগের এটিএম বুথলালবাগ, লালবাগ
আজিমপুর এলাকার এটিএম বুথগুলোলালবাগ, আজিমপুর
নিউমার্কেট এলাকার এটিএম বুথগুলোনিউমার্কেট, নিউমার্কেট
মিরপুর এলাকার এটিএম বুথপল্লবী, সেকশন ৭
শেরেবাংলা নগরশেরে বাংলা নগর, শেরে বাংলা নগর
উত্তরা এলাকার এটিএম বুথউত্তরা, উত্তরা
মগবাজার এলাকার এটিএম বুথগুলোরমনা, মগবাজার
পল্টন এলাকার এটিএম বুথগুলোপল্টন, পল্টন
মতিঝিল এলাকার এটিএম বুথগুলোঢাকা, মতিঝিল
ধানমন্ডি এলাকার এটিএম বুথগুলোধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আরও ৮ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি