পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

মতিঝিল এলাকার এটিএম বুথগুলো

এবি ব্যাংকপূবালী ব্যাংকপ্রিমিয়ার ব্যাংক

প্রাইম ব্যাংকজনতা ব্যাংকশাহজালাল ইসলামী ব্যাংক

কমার্শিয়াল ব্যাংকব্যাংক এশিয়াসোনালী ব্যাংকব্র্যাক ব্যাংক

স্ট্যান্ডার্ড টার্চার্ড ব্যাংকযমুনা ব্যাংক আইএফআইসি ব্যাংক

ইসলামী ব্যাংকইস্টার্ন ব্যাংকট্রাষ্ট বাংলা ব্যাংক

সিটি ব্যাংকইউসিবি ব্যাংকডাচ বাংলা ব্যাংক

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকসাউথ ইষ্ট ব্যাংকন্যাশনাল ব্যাংক

রূপালী ব্যাংক

বুথ: এবি ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৩০, ৩১ আরব বাংলাদেশ ব্যাংক

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৪০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একাবরে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা এবং একদিনে সর্বোচ্চ সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  পূবালী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ২৬, দিলকুশা (পূবালী ব্যাংকের নীচ তলা)।

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৫০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা এবং একদিনে সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা তোলা যায়। বুথটি থেকে ইসলামী ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ডাচ বাংলা ব্যাংক, জনতা ব্যাংকের কার্ড এবং ভিসা কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: প্রিমিয়ার ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৮১ বাংলার বানী ম্যানশন (নিচ তলা)

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৩০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।  

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা এবং একদিনে সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা করে দিনে দুইবার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: প্রাইম ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৮২ আলহাজ্ব ম্যানশন (নীচ তলা)

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৩০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  প্রাইম ব্যাংক

ঠিকানা: ৩৭/এ দিলকুশা সাধারণ বীমা টাওয়ার (নীচ তলা) 

অবস্থান: বাংলাদেশ ক্যামিক্যাল ইন্ডাষ্ট্রীজ কর্পোরেশন থেকে ২০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: প্রাইম ব্যাংক

ঠিকানা: আদমজী কোর্ট এনেক্স-২ (নীচ তলা)

অবস্থান: বক চত্ত্বর থেকে ২০০ গজ উত্তর পশ্চিম কোনে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।ডাচ বাংলা ব্যাংকে গ্রাহকগণও টাকা তলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ: জনতা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ১১০ নং বিল্ডিং (নীচ তলা)

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৫০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে।  ১০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

ডাচ বাংলা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, এবি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, এশিয়া ব্যাংকের গ্রাহকগণও এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৯২৯ করিম চেয়ারম্যান বিল্ডিং (নীচ তলা)

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৪০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে।  ৫০, ১০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ একলাখ টাকা তোলা যায়, প্রতিবারে ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে জনতা, এনসিসি, আইএফসি, এবি ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: কমার্শিয়াল ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ২নং দিলকুশা (নীচ তলা)  

অবস্থান: বক চত্ত্বর থেকে ২০ গজ দক্ষিনে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। ডাচ বাংলা ব্যাংক, এশিয়া ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক এবং এখান থেকে ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: ব্যাংক এশিয়া

শুরুতে

ঠিকানা: ১১১ ও ১১২ চাবুট বিল্ডিং (নীচ তলা)  

অবস্থান: মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে ৪০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ব্যাংক এশিয়া

ঠিকানা: ৪ নং দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: বক চত্বর থেকে ১০০ গজ পূর্ব দক্ষিন কোণে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। অন্যান্য ব্যাংকের কার্ডধারীরাও এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: সোনালী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৫ নং দিলকুশা (নীচ তলা)

অবস্থান: বক চত্ত্বর থেকে ২০০ গজ পূর্বে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। অন্যান্য ব্যাংকের কার্ডধারীরাও এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: সোনালী ব্যাংক

ঠিকানা: ৯১ নং বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শিল্প মন্ত্রণালয়ের নীচ তলায় অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। অন্যান্য ব্যাংকের কার্ডধারীরাও এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: ব্র্যাক ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ১০৭ খান ম্যানশন (নীচ তলা)

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ১০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। অন্যান্য ব্যাংকের কার্ডধারীরাও এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: স্ট্যান্ডার্ড টার্চার্ড ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ১২২/২৪ মেট্রোপলিটন চেম্বার বিল্ডিং এর নীচ তলায় অবস্থিত। 

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ২০০ গজ দক্ষিন পূর্ব কোণে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। ডাচ বাংলা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক এবং এনসিসি ব্যাংকের কার্ডধারীরা এখান থেকে টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ: স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

ঠিকানা: সিটি সেন্টার (নীচ তলা)

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ২৫০ গজ পূর্বে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ভিসা কার্ডসহ যে কোন ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

ঠিকানা: সিটি সেন্টার (নীচ তলা)

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ২০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ডাচ বাংলা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ:  স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

ঠিকানা: ১৮/২০, মতিঝিল, আমেরিকান লাইফ ইন্সুরেন্স বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্ত্বর থেকে ২০০ গজ দক্ষিনে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: যমুনা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ২, ডিআইও বিল্ডিং (নীচ তলা)

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ১০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৮০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ব্র্যাক ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, আইবিসি, ইস্টার্ন ব্যাংক এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের গ্রাহকগণ টাকা তুলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ:  যমুনা ব্যাংক

ঠিকানা: ৩৩, দিলকুশা সাধারণ বীমা বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: বাংলাদেশ ক্যামিক্যাল ইন্ডাষ্ট্রীজ কর্পোরেশন থেকে ২০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। দুইটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। জনতা, এনসিসি, ইউসিবি, এবি, ন্যাশনাল, প্রাইম, ইসলামী ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহগণ টাকা তুলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ: আইএফআইসি ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ১২৫/এ ইসলাম চেম্বার (নীচ তলা) 

অবস্থান: দৈনিক বাংলা থেকে ২০০ গজ পূর্বে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। ব্র্যাক ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, ডাচ বাংলা ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, আইএফআইসি, ট্রাস্ট ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ টাকা তুলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ:  আইএফআইসি ব্যাংক

ঠিকানা: ৬০ ফেডারেশন ভবন (নীচ তলা)

অবস্থান: শাপলা চত্ত্বর থেকে ১০০ গজ উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইসলামী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৭৫ নং বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্ত্বর থেকে ২০০ গজ পশ্চিমে অবস্থিত। 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ইসলামী ব্যাংক

ঠিকানা: ৪১/ দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: কৃষি ভবন থেকে ৪০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে দিনে তিনবার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ভিসা কার্ড ব্যবহার করেও টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ইসলামী ব্যাংক

ঠিকানা: ৪০, দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: কৃষি ভবন থেকে ৪০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে দিনে তিনবার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ভিসা কার্ড ব্যবহার করেও টাকা তোলা যায়।

 

বুথ: ইস্টার্ন ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৮৮ স্বাধীনতা ভবন (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্বর থেকে ২০০ গজ উত্তর পশ্চিমে  অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ট্রাষ্ট বাংলা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৩১ আমিন মহিউদ্দিন ফাউন্ডেশন বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্বর থেকে ১০০ গজ উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। জনতা, এনসিসি, আইএফআইসি, ডাচ বাংলা ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ টাকা তুলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ: সিটি ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৬৫-৬৬ চেম্বার বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্ত্বর থেকে ১০০ গজ উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ইউসিবি ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৫৮ সাধারণ বীমা কর্পোরেশন বিল্ডিং (নীচ তলা) 

অবস্থান: শাপলা চত্বর থেকে ১০০ গজ উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে।  ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ডাচ বাংলা ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: কুরবান এনেক্স বিল্ডিং-১ (নীচ তলা) 

অবস্থান: বিডিবিএল ভবন থেকে ২০০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ডাচ বাংলা ব্যাংক

ঠিকানা: ৪৭, মতিঝিল, ফাউন্ডেশন বিল্ডিং (নীচ তলা)

অবস্থান: শাপলা চত্ত্বর থেকে ১০ গজ উত্তরে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। চারটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ১৫, দিলকুশা, জাহিদ মেটাল (নীচ তলা)  

অবস্থান: কৃষি ভবন থেকে ২০০ গজ উত্তরে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এখান থেকে ন্যাশনাল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণও টাকা তুলতে পারেন।

 

বুথ:  সাউথ ইষ্ট ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৫২-৫৩ দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: ডিবিবিএল ভবন থেকে ৩০০ গজ দক্ষিন পূর্ব কোনে অবস্থিত।

 

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 

বুথ:  ন্যাশনাল ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৪৮, দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: কৃষি ভবন থেকে ২০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়। এনসিসি, এশিয়া, জনতা, এবি, ব্র্যাক, প্রাইম, ন্যাশনাল ব্যাংক এবং ভিসা কার্ড গ্রাহকগণ টাকা তুলতে পারেন এখান থেকে।

 

বুথ:  রূপালী ব্যাংক

শুরুতে

ঠিকানা: ৩৪, দিলকুশা (নীচ তলা) 

অবস্থান: বাংলাদেশ ক্যামিক্যাল ইন্ডাষ্ট্রীজ কর্পোরেশন থেকে ২০ গজ পূর্বে অবস্থিত।

বুথটিতে টাকা জমা দেয়া এবং একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা নেই। একটি মেশিন আছে এখানে। ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট তোলা যায়। সব সময় খোলা থাকে। একদিনে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা তোলা যায় আর একবারে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা তোলা যায়।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
লালবাগের এটিএম বুথলালবাগ, লালবাগ
আজিমপুর এলাকার এটিএম বুথগুলোলালবাগ, আজিমপুর
নিউমার্কেট এলাকার এটিএম বুথগুলোনিউমার্কেট, নিউমার্কেট
মিরপুর এলাকার এটিএম বুথপল্লবী, সেকশন ৭
শেরেবাংলা নগরশেরে বাংলা নগর, শেরে বাংলা নগর
উত্তরা এলাকার এটিএম বুথউত্তরা, উত্তরা
মগবাজার এলাকার এটিএম বুথগুলোরমনা, মগবাজার
পল্টন এলাকার এটিএম বুথগুলোপল্টন, পল্টন
মতিঝিল এলাকার এটিএম বুথগুলোঢাকা, মতিঝিল
ধানমন্ডি এলাকার এটিএম বুথগুলোধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আরও ৮ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি