পুরো লিস্ট দেখুন

ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স

আগুন নেভানোসহ যে কোন দূর্ঘটনা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা ও রোগী পরিবহণের জন্য ঢাকা মহানগরীতে সর্বমোট ১২ টি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ইউনিট রয়েছে।

 

নিয়ন্ত্রণ কক্ষ

পুরো ঢাকা মহানগরীর জন্য নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ফোন নম্বর ১৯৯, ৯৫৫৫৫৫৫, ৯৫৫৬৭৫৪।

 

অন্যান্য ইউনিটের ফোন নং-

ফায়ার বিগ্রেড

নাম

ফোন

ইমার্জেন্সী

১৯৯

হেড কোয়ার্টার্স

৯৫৫৫৫৫৫, ৯৫৫৬৬৬৬

ডেমরা

৭৪০০১১১

খিলগাঁও

৭২১৮৩২৯

কুর্মিটোলা

৯৮৬০৭৬২

লালবাগ

৮৬১৯৯৮১

মিরপুর

৯০০১০৫৫

মোহাম্মদপুর

৯১১২০৭৮

পলাশী

৮৬২৮৬৮৮

পোস্তগোলা

৭৪১০৭৭১

সদরঘাট

৭১১৯৭৫৯

তেজগাঁও

৯৮৯৮১৮৭

টঙ্গী

৯৮০১০৭০

 

অগ্নি নির্বাপন

আগুন নেভাতে মোট ৪ ধরনের গাড়ী ব্যবহার করা হয়ে। এগুলো হলো পানির পাম্পের গাড়ী, ফোম ট্রলি, ইটি গাড়ী এবং এ্যাম্বুলেন্স। প্রথম কলে গাড়ীর সাথে ড্রাইভার সহ মোট ৬ জন প্রশিক্ষিত ফায়ার সার্ভিস কর্মী ঘটনাস্থলে দ্রুত হাজির হয়। ২য় কলে ৬ জন ফায়ারম্যান, একজন অফিসার, একজন লিডার ও ড্রাইভারসহ মোট ৮ জন ঘটনাস্থলে দ্রুত হাজির হয়ে থাকে। হাজির হওয়া ইউনিট যদি কোন কারণে আগুন নেভাতে ব্যর্থ হয় তবে আগুন নেভানোর জন্য ঐ ইউনিটের কর্তব্যরত অফিসার ফায়ার সার্ভিস কন্ট্রোল রুম এর সাথে যোগাযোগ করে অন্য এক বা একাধিক ইউনিট আসার ব্যবস্থা করে থাকেন।

 

পানি শেষ হলে

আগুন নেভাতে গাড়ীর পানি শেষ হলে নিকস্থ পানির ট্যাংক বা জলাশয় বা ঝিল থাকলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা পাম্পের সাহায্যে পানির ব্যবস্থা করে থাকে। অপর লাইনটি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা অব্যাহত থাকে।

 

পানি দিয়ে যদি আগুন নেভানো না গেলে সেক্ষেত্রে ফোম ব্যবহার করে থাকে। রাসায়নিক পদার্থ, দাহ্য পদার্থ এবং তৈল জাতীয় পদার্থের মধ্যে লাগা আগুন নেভাতে সাধারণত ফোম ব্যবহার করে থাকে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ।

 

রাস্তা সরু হলে

রাস্তা সরু হলে বা যেকোন কারণে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ী ঢুকতে না পারলে পাম্পের গাড়িটি যতদূর কাছে নেওয়া সম্ভব হয় ততদূর কাছে গিয়ে আশে-পাশের পানির ট্যাংক থেকে পানির ব্যবস্থা করে আগুন নেভানোর ব্যবস্থা করে থাকে। এছাড়া ইমারজেন্সী টেন্ডার পাম্পবাহী গাড়ী দিয়ে পুকুর, জলাশয় এবং নদী থেকে পানি নিয়ে আগুন নেভানো হয়ে থাকে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে মোটর সাইকেলের মত ছোট ছোট পাম্পওয়ালা গাড়ি দিয়ে যাত্রাসংকূল স্থানে আগুন নেভানোর ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে।

 

অভিযান শুরু

ফোন বা খবর পাওয়ার ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স ইউনিট কাঙ্খিত ঠিকানার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।  

 

উদ্ধার তৎপরতা

সম্পদের চেয়ে জীবনের মূল্য বেশি হওয়ায় আগুন নেভানোর ক্ষেত্রে মানুষ উদ্ধার করাকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়ে থাকে। উদ্ধারের পাশাপাশি আগুন নেভানোর কাজও সমান গতিতে করা হয়ে থাকে। ইউনিটে যদি ৮ জন সদস্য থাকে তবে এর মধ্যে ৩ জন সদস্য মানুষ উদ্ধারে এবং বাকী ৫ জন সদস্য আগুন নেভানোর কাজে নিয়োজিত থাকে।

স্কাইলিফট এর সাহায্যে সর্বোচ্চ ১৪ থেকে ১৮ তলা ভবন থেকে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধার করার ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। এছাড়া বড় কোন ভবনে আগুন লাগলে প্রথমে নিচতলা থেকে শুরু করে আস্তে আস্তে উপরের তলায় যেয়ে থাকে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা।

 

ক্ষতিপূরণ

কারখানা বা অফিসে অগ্নিকান্ডে ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ লিখিত তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করে থাকে। এক্ষেত্রে যার কারখানায় আগুন লেগেছে সেই কারখানার কর্তৃপক্ষ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের দায়িত্বরত অফিসারের নিকট লিখিত আবেদন করলে সে অনুযায়ী ফায়ার সার্ভিস কর্তৃক তদন্ত কমিটি গঠন করে। কি পরিমান মালামাল বা কি পরিমান টাকা  জিনিসপত্র ক্ষতি হয়েছে তার ভিত্তিতে লিখিত প্রতিবেদন দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে ১,৫০০ টাকা সার্ভিস চার্জ প্রদান করতে হয়। ক্ষতিপূরণ আদায়ের জন্য নিম্ন লিখিত কাগজ পত্র ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে সংগ্রহ করতে হয়। কাগজগুলো হলো-

  • সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নামে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের (DCC) এর কাগজপত্র লাগবে।
  • ইন্সুরেন্স কাগজপত্র প্রতিষ্ঠানের নামে থাকতে হবে।
  • ফায়ার সার্ভিস থেকে প্রতিষ্ঠানের নামে কাগজপত্র থাকতে হবে।

 

প্রশিক্ষণ বা কর্মশালা

প্রতিষ্ঠান, কারখানায় আগুন প্রতিরোধে ফায়ার ফাইটিং এর উপর কর্মশালা বা প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে। এটা বছরের যেকোন সময় বা যেকোন ঋতুতে হতে পারে। এর জন্য ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করতে হয়। ৩ দিন এবং ৭ দিনের এই দুই প্যাকেজে প্রশিক্ষণ বা কর্মশালার আয়োজন করে থাকে ফায়ার সার্ভিস। ৩ দিনের জন্য ১৬,৫০০ টাকা এবং ৭ দিনের জন্য ৩৪,০০০ টাকা ফায়ার সার্ভিসকে কর্মশালা ফি প্রদান করতে হয়।

 

বাছাই, নিয়োগ ও প্রশিক্ষণ

মিরপুর ১০ এর গোলচত্বরের উত্তর পশ্চিম কোনায় ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের যে ইউনিট রয়েছে সেখানে কর্মী বাছাই, নিয়োগ এবং নিয়োগপ্রাপ্তদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। অবস্থিত।

ঠিকানা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, মিরপুর-১০, ঢাকা। যোগাযোগের ফোন নম্বর- ০৯২১৫৩৭৭৭ এবং ০১৭১৫-৯১০৯০৫

 

এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস

আগুনে পোড়া আহত মানুষদের উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত হাসাপাতালে নেওয়ার জন্য ফায়ার সার্ভিসের জন্য রয়েছে এ্যাম্বুলেন্স সেবা। প্রথম ৮ কি.মি. এর জন্য ১০০ টাকা এবং পরবর্তী প্রতি কিলোমিটারের জন্য ৯ টাকা এ্যাম্বুলেন্সের সার্ভিস চার্জ প্রদান করতে হয়।

 

প্রাথমিক করণীয়

  • আতঙ্কিত না হয়ে সতর্কতার সহিত পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে।
  • শহরে অগ্নিকান্ডের মূল কারণ বৈদ্যুতিক গোলযোগ, চুলার আগুন ও বিড়ি, সিগারেটের জলন্ত টুকরা। তাই ব্যবহৃত বৈদ্যুতিক তার ত্রুটি মুক্ত কিনা মাঝে মাঝে পরীক্ষা করতে হবে।
  • রান্নার পর চুলা বন্ধ রাখতে হবে। তারপরও যদি আগুন লেগে যায় বৈদ্যুতিক সংযোগের মেইন সুইচ বন্ধ করে দিতে হবে।
  • হাতের কাছে পানি থাকলে সঙ্গে সঙ্গে তা ঢেলে দিতে হবে। মোটা কাঁথা বা কাপড় ভিজিয়ে জাপটা দিতে হবে।
  • শরীরের কাপড়ে আগুন লেগে যায় তখন দৌড়াদৌড়ি না করে মাটিতে গড়াগড়ি দিতে হবে। ঐ সময় দৌড় দিলে আগুন না করে বরং এর মাত্রা আরো বেড়ে যায়।
  • আগুন নিজে নেভাতে না পারলে যতদ্রুত সম্ভব নিকটস্থ ফায়ার সার্ভিসে ফোন করতে হবে।

 

পোড়া মানুষের দ্রুত করণীয়

  • আগুনে পোড়া বা এসিডে ঝলছে যাওয়া মানুষটির ক্ষত স্থানে তাৎক্ষনিক ভাবে প্রচুর পানি ঢালতে হবে।
  • ডিমের কুসুম, পেষ্ট অথবা ডারমাজিম মল, পোড়া স্থলে পুরু করে লাগিয়ে দিতে হবে।
  • যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করতে হবে।
 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটকিভাবে নেবেন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট, নমুনাসহ
বাংলাদেশ এয়ারপোর্টে নতুন ব্যাগেজ বিধিমালাজেনে নিন বাংলাদেশ এয়ারপোর্টে নতুন ব্যাগেজ বিধিমালা
সিম নিবন্ধন করবেন? নিন ৫মিনিটে নিজের জাতীয় পরিচয় পত্রআপনার নিজের NID কার্ড এর পিডিএফ ডাউনলোড দিতে পারবেন আর ব্যবহার করতে পারবেন সকল কাজে
মেশিন রিডেবল পাসপোর্টকোথায়, কীভাবে আবেদন করতে হবে, কত টাকা খরচ হবে সহ বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
বিটিসিএল টেলিফোন সংযোগনতুন সংযোগ নেয়াসহ বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
বিদ্যুৎদেশের বিদ্যুৎখাত সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারবন্দীদের সাথে দেখা করার নিয়মসহ আরও অনেক তথ্য রয়েছে
নোটারি পাবলিককোথায়, কীভাবে করতে হবে, কত টাকা খরচ হবে সহ বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত আইনগত সাহায্য সংস্থা ও সাহায্য সমূহসরকারি সহায়তা নিন এবং আইনি প্রক্রিয়া সমুন্নত রাখুন
অনলাইন গণমাধ্যম পরিচালনা (খসড়া) নীতিমালা ২০১২২০১২ সালের সর্বশেষ নীতিমালা
আরও ১০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি