পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

জমির নামজারি বা মিউটেশন কেন ও কিভাবে করবেন?

মানুষের কিছু কিছু সম্পদ রয়েছে যা সবসময় হাত বদল হয়। তেমনই একটি সম্পদ হল জমি-জমা। কোন কারণে যদি জমি-জমার মালিকানা পরিবর্তন হয় তবে ঐ জমির পুরোনো মালিকের নাম বাদ দিয়ে নতুন মালিকের নাম প্রতিস্থাপন করাকে নামজারি বা মিউটেশন বলে। বিভিন্ন কারণে জমির মালিকানা পরিবর্তন হয়। যেমন: উত্তরাধিকারসূত্রে মালিকানা লাভ, বিক্রয়, দানের মাধ্যমে, খাসজমি বন্দোবস্তসহ বিভিন্ন ধরনের হস্তান্তরের কারণে জমির মালিকানা বদল হয়। এসবক্ষেত্রে জমির নতুন মালিকের নামে জমির নামজারি করে নিতে হয় নতুবা মালিকানা দাবি করার ক্ষেত্রে অনেক জটিলতা সৃষ্টি হয়। জমি ক্রয়-বিক্রয়, নিবন্ধন বা খাজনা প্রদানসহ বিভিন্ন কাজে জমির নামজারি করার প্রয়োজন হয়। ফলে নামজারি করা অনেকটা বাধ্যতামূলক।

কিভাবে করবেন নামজারি:

সহকারী ভূমি কমিশনারের অফিস থেকে নির্ধারিত আবেদনপত্র সংগ্রহ করে আবেদন করতে হবে। এতে নিজের নাম, ঠিকানা, রেজিস্ট্রি ক্রয় দলিলের সম্বর ও সাল সঠিকভাবে ও যথাস্থানে এবং স্পষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। পাশাপাশি মূল দলিলের ফটোকপি, ভায়া দলিল, খতিয়ানের ফটোকপি ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের দলিল, ওয়ারিশ সনদপত্র, বন্টননামা দিতে হবে। কোনো রায় বা ডিক্রির কারণে নামজারি করতে হলে ডিক্রি বা রায়ের অনুলিপিও জমা দিতে হবে। এভাবে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। আবেদনকারী চাইলে প্রতিনিধির মাধ্যমেও আবেদন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রতিনিধির পাসপোর্ট আকারের ছবি সংযুক্ত করতে হবে।

নামজারির সময়সীমা:

বর্তমান আইন অনুযায়ী মহানগরের মধ্য সর্বনিম্ন ৬০ কর্ম দিবস এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে ৪৫ কর্ম দিবসের মধ্যে নামজারির প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার বিধান রয়েছে।

কোথায় করাবেন নামজারি:

নামজারি করানোর জন্য সহকারী ভূমি কমিশনারের অফিসে আবেদন করতে হয়। সেখানে নাজির পদে দায়ীত্বরত একজন সহকারী নির্ধারিত ফি জমা নেন। নামজারির তদন্তের দায়িত্বে থাকেন সহকারী সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা। তারা নামজারি তদন্ত করে থাকেন। তবে অনেকে বিভ্রান্ত হয়ে সহকারী সেটেলমেন্ট কর্মকর্তার অফিসে আবেদন করে থাকে।

নামজারি নামঞ্জুর হলে কি করবেন:

যেকোনো কারণে নামজারি নামঞ্জুর হতেই পারে। হতে পারে এটা দলিল-দস্তাবেজের ত্রুটির কারণে আবার হতে পারে অন্য কোন কারণে। এতে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। এর জন্য প্রতিকারের ব্যবস্থা রয়েছে। নামজারি নামঞ্জুর হলে সহকারী ভূমি কমিশনারের আদেশের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (রাজস্ব) কাছে ৩০ দিনের মধ্যে আপিল করতে হবে। আবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)নামজারি নামঞ্জুর করলে তার আদেশের বিরুদ্ধে ৩০ দিনের মধ্যে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারের (রাজস্ব)কাছে আপিল করতে হবে। সেখানেও যদি আবেদন নামঞ্জুর হয় তবে তার আদেশের বিরুদ্ধে ভূমি আপিল বোর্ডে ৯০ দিনের মধ্যে আপিল করা যায়। এ ছাড়াও রিভিশনের পথ তো খোলা রয়েছেই। এ ছাড়া রিভিউর পথও খোলা আছে। রিভিউ আবেদন করতে হয় ৩০ দিনের মধ্যে।

নামজারি কেন এত জরুরী:

নামজারি করাটা অতিশয় জরুরী। নামজারি না করালে আপনি জমির প্রকৃত মালিক হওয়া সত্ত্বেও মালিকানা দাবি করতে পারবেন না। কারণ ভূমি রেকর্ড অফিসে আপনার নামই উঠবে না। আপনি নিজ নামে জমির খাজনা দিতে পারবেন না। অর্থাৎ নামজারি না করা পর্যন্ত আপনি জমির মালিকই হবেন না। তাই যারা জমি কিনে এখনও নামজারি করাননি তাদের অতি শীঘ্রই নামজারি করে নেওয়াটা খুবই জরুরী।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
জমি-জমা বিষয়ক অতি প্রয়োজনীয় তথ্য সমূহজেনে রাখুন প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো
জমির নামজারি বা মিউটেশন কেন ও কিভাবে করবেন?গড়িমসি করে এখনও নামজারি না করলে শীঘ্রই করে ফেলুন
খতিয়ান পরিচিতিভিতরে বিস্তারিত তথ্য আছে
সানওয়ে রিয়েল এস্টেট এন্ড ডেভেলপার্স লিঃN\A, N\A
ভেনাস সিটি ডেভেলপমেন্ট লিঃশাহবাগ, হাতিরপুল
রুপান্তর মডেল সিটিপল্টন, বিজয়নগর
এনসিওর লেক সিটিপল্টন, পুরানা পল্টন
তানশীর প্রপার্টিজ লিঃপল্টন, পুরানা পল্টন
সেঞ্চুরী কুয়াকাটা মডেল টাউনগুলশান, গুলশান ১
স্বর্ণালী আবাসনগুলশান, গুলশান ২
আরও ১৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি