পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

উত্তরা কবরস্থান

 

প্রতিষ্ঠালগ্নে এই কবরস্থানটিতে পারিবারিক কর্তৃত্ব থাকলেও পরবর্তীতে এই কবরস্থানের কর্তৃত্ব রাজউক বুঝে নেয়। এর পরবর্তীতে ১৯৯০ সালে রাজউক এই কবরস্থান পরিচালনার দায়িত্ব ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে বুঝিয়ে দেয়। তাই এই কবরস্থানের নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠাকাল কারো সঠিকভাবে জানা নেই। এই কবরস্থানটি ঢাকা – গাজীপুর – ময়মনসিংহ সড়কের ০.৫ কিলোমিটার পূর্ব দিকে উত্তরা ৪নং সেক্টরে রেললাইনের সাথেই অবস্থিত। ইহা ঢাকা সিটি কর্পোরেশন অঞ্চল – ১০ এর অন্তর্ভুক্ত।  

 

কবরস্থান

এই কবরস্থানটির মোট আয়তন ১.১১ একর। এর মধ্যে সাধারণের জন্য .৯৬ একর এবং সংরক্ষিত .১৫ একর জায়গা। এখানে সংরক্ষিত জায়গায় ৮৪ জন মৃত ব্যক্তির কবর দেয়া যাবে যাবে। বর্তমানে কোন ব্যক্তি বা পরিবারের নামে কবরের স্থান বরাদ্দ দেওয়া বন্ধ আছে। তবে যারা আগেই সংরক্ষিত স্থানে জায়গা ক্রয় করেছে তার রক্তের সম্পর্ক আছে এমন কেউ মৃত্যুবরণ করলে পূর্বে ক্রয় করার রশিদ দেখিয়ে তার মেয়াদ থাকা অবস্থায় ৩,০২০ টাকা দিয়ে পুনরায় সেই স্থানে নতুন কবর দিতে পারবে। কোন ব্যক্তির নামে স্বতন্ত্র কবর রাখার ব্যবস্থাও বর্তমানে বন্ধ আছে। তবে সে যদি কোন খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা, প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, ২১শে পদকপ্রাপ্ত, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত ব্যক্তি হয় তবে তা ১০ – ২০ বছরের জন্য সংরক্ষণ করা যায় তাও কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক হয়ে থাকে। জানাজা পড়ার জন্য বড় এবং আলাদা কোন স্থান নেই। তবে কবরস্থানে অবস্থিত মসজিদের ভিতরে বা রাস্তায় জানাযা পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। এই কবরস্থানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১টি লাশ কবরদানের জন্য নিয়ে আসা হয়। কবরস্থানের ভিতরে একটি মসজিদ আছে যেখানে ৫০ জন লোক নামাজ পড়তে পারে। সাথেই ওজু করার ব্যবস্থা আছে। এই কবরস্থানটি ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের কর্তৃত্বে যে কয়টি কবরস্থান রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে ছোট। এই কবরস্থানে মেহরাব এর দায়িত্ব পালন করেন হারুন সাহেব। তার মোবাইল নাম্বর হলো ০১৭১৭-৬৩৭৯০৫। এছাড়া এই কবরস্থান সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে তথ্য জানার জন্য ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ওয়েবসাইট: www.dhakacitycorporation.org এই ঠিকানায় জানা যাবে। কবরস্থানের প্রবেশ গেটের ডান পাশে অফিসের অবস্থান।

 

দাফনের খরচ

প্রথমে লাশ নিয়ে কবরস্থানে আসতে হবে। সাথে তার পরিচয়পত্র আর দূর্ঘটনা বা হাসপাতালে মারা গেলে মৃত্যু সার্টিফিকেট সঙ্গে আনতে হবে। এরপর ২০ টাকা দিয়ে একটি রশিদ সংগ্রহ করতে হবে। তাছাড়া বাঁশ, বেড়া, চাটাই কেনাসহ ছোট-বড় কবর ভেদে ৫০০ টাকা থেকে ২,০০০ টাকা পর্যন্ত ন্যূনতম খরচ হয়। বাঁশ, চাটাই, বেড়া এখানেই পাওয়া যায়। স্থানীয় কন্ট্রাকটর ইহা নির্দিষ্ট মূল্যে সরবরাহ করে থাকে।

 

বিবিধ

এখানে আলাদা কোন গাড়ি পার্কিংয়ের স্থান নেই। তবে পাশের রাস্তায় কয়েকটি গাড়ি পার্কিং করা যায়।

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
শাহজাহানপুর কবরস্থানমতিঝিল, শাহজাহানপুর
খ্রিষ্টান কবরস্থানওয়ারী, ওয়ারী
উত্তরা কবরস্থানউত্তরা, সেক্টর ১০
শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানশাহ আলী, মিরপুর ১
জুরাইন কবরস্থানশ্যামপুর, জুরাইন
বনানী কবরস্থানগুলশান, বনানী
পোস্তগোলা শ্মশান ঘাটঢাকা, পোস্তগোলা শ্বশান ঘাট
আজিমপুর পুরাতন কবরস্থানঢাকা, কবরস্থান
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি