পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আবেদ খান

দীর্ঘ ৪৯ বছর ধরে সাংবাদিকতার বিভিন্ন স্তরে অবিরামভাবে কাজ করে চলেছেন আবেদ খান। শুধু প্রিন্ট মাধ্যমেই নয় একই সাথে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে সমান দক্ষতার সাথে কাজ করেছেন।  

 

জন্ম

১৬ এপ্রিল ১৯৪৫ সালে আবেদ খান খুলনা জেলার রসুলপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

 

 

পারিবারিক জীবন

  • অবিভক্ত ভারতের প্রকাশিত দৈনিক আজাদ-এর সম্পাদক মাওলানা আকরম খাঁ আবেদ খানের নানা ছিলেন।
  • তাঁর বাবার নাম আব্দুল হাকিম খান এবং আজরা খানম।
  • আবেদ খানের সহধর্মিনী ড. সানজিদা আখতার
  • তার একমাত্র সন্তান আসাদ করিম খান

 

সাংবাদিক জীবন

  • ১৯৬২ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে  আবেদ খানের সাংবাদিকতা জীবন শুরু। তৎকালীন দৈনিক জেহাদ পত্রিকায় সহ-সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন।
  • ১৯৬৩ সালে যোগ দেন দৈনিক সংবাদ-এ। পরের বছরই দৈনিক ইত্তেফাকে যোগদান করেন।
  • ১৯৭২ সালের আগস্টে দৈনিক ইত্তেফাকে আবেদ খানের ধারাবাহিক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন ‘ওপেন সিক্রেট’ প্রকাশিত হতে থাকে।
  • আবেদ খান ১৯৯৫ সাল থেকে দৈনিক জনকণ্ঠের সম্পাদকীয় পাতায় অভাজনের নিবেদন এবং  প্রথম পাতায় লেট দেয়ার বি লাইট শিরোনামের মন্তব্য প্রতিবেদন লিখতে থাকেন।
  • পাশাপাশি সময়ে দৈনিক সংবাদে আবেদ খান তৃতীয় নয়ন নামে একটি অন্তর্দৃষ্টি-বিশ্লেষণাত্মক কলাম ধারাবাহিকভাবে লিখতে থাকেন।
  • ১৯৯৮ সালে নতুন দৈনিক প্রথম আলো-তে কালের কণ্ঠ শিরোনামে তাঁর উপসম্পাদকীয় কলাম প্রকাশ হতে থাকে।
  • ২০০৯ সালে  প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে দৈনিক কালেরকণ্ঠে কাজ শুরু করেন।
  • ২০১১ সালের জুলাই মাসে আবেদ খান দৈনিক জাগরণ নামের নতুন পত্রিকায় সম্পাদক ও প্রকাশক হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন।

ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সাংবাদিকতা

  • ১৯৭১ সালে কলকাতার আকাশবাণী বেতার কেন্দ্র থেকে তাঁর তারুণ্যদীপ্ত জবাব দাও স্বকণ্ঠ-ঘোষিত কথিকাটি মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল।
  • স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ বেতারে একটি স্যাটায়ার-ধর্মী টক-শো’র পাণ্ডুলিপি লিখতেন তিনি।
  • বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে প্রবেশ করেন ১৯৭৮ সালে। আবেদ খান ও ড. সানজিদা আখতার দম্পতির গ্রন্থনা-উপস্থাপনায় দম্পতি-বিষয়ক ধারাবাহিক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান তুমি আর আমি প্রচারিত হয়েছে। এছাড়া দম্পতি-শিল্পীদের নিয়ে সঙ্গীত বিষয়ক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান একই বৃন্তে, ১৯৮৪, ১৯৮৬ ও ১৯৯০ সালে আবেদ খান-সানজিদা দম্পতি ঈদের ‘আনন্দমেলা’ বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন।  
  • ১৯৯৯ সালে তিনি একুশে টেলিভিশনের সংবাদ ও চলতি তথ্য বিষয়ে প্রধান হিসেবে কাজ করেন।
  • ১৯৯৬-৯৯ সালে তাঁর অনুসন্ধানমূলক টেলিভিশন রিপোর্টিং সিরিজ ঘটনার আড়ালে টেলিভিশন-সাংবাদিকতার একটি অন্যতম মাইল ফলক।

 

প্রকাশিত গ্রন্থগুলো

  • অভাজনের নিবেদন
  • গৌড়ানন্দ কবি ভনে শুনে পুণ্যবান
  • কালের কণ্ঠ
  • প্রসঙ্গ রাজনীতি
  • হারানো হিয়ার নিকুঞ্জপথে
  • আনলো বয়ে কোন বারতা ইত্যাদি

 

স্বাধীকার আন্দোলন

  • স্বাধীকার আন্দোলনে অন্যতম সক্রিয় কর্মী ও ও গৌরবময় মুক্তিযুদ্ধে বলিষ্ঠ যোদ্ধা হিসেবে অংশগ্রহণ করেন আবেদ খান।
  • মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে তিনি ৮ নং সেক্টরে তাঁর নাম অন্তর্ভুক্ত করান। তিনি এই সেক্টরের সাব-সেক্টরের কমান্ডার ছিলেন।
  • এ ছাড়াও জুন মাসে ১২ টি বাম দলের সমন্বয়ে গঠিত জাতীয় মুক্তিসংগ্রাম সমন্বয় পরিষদ-এর পশ্চিমাঞ্চলের আহ্বায়ক ছিলেন আবেদ খান।
 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
আনিসুল হকবর্তমান সময়ের মেধাবী সাংবাদিক
আবেদ খানদীর্ঘ ৪৯ বছর ধরে সাংবাদিকতার জড়িত রয়েছেন
শফিক রেহমানযায়যায় দিন খ্যাত জনপ্রিয় সাংবাদিক ও টিভি ব্যক্তিত্ব
তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়াদৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিষ্ঠাতা এবং বাংলাদেশে সাংবাদিকতার পথিকৃৎ
এনায়েতউল্লাহ খানএদেশে ইংরেজী সাংবাদিকতায় পথিকৃৎদের একজন
ওয়াহিদুল হকপ্রগতিশীল ঘরনার সাংবাদিক
সেলিনা পারভীনপাকিস্তান আমলে স্বাধীনতার পক্ষে নির্ভিক কলম সৈনিক।
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি