পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আব্বাস উদ্দিন আহমেদ

বিশিষ্ট কণ্ঠশিল্পী আব্বাস উদ্দীন আহমদ বাংলাদেশের পল্লীগীতি গেয়ে বিখ্যাত হয়েছেন। তাঁকে পল্লীগীতির সম্রাট বলা হয়। তিনিই গ্রাম বাংলার পল্লীগীতিকে শহুরে মানুষের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন।

 

জন্ম

২৭ অক্টোবর , ১৯০১ সালে  পশ্চিমবঙ্গের কুচ বিহার জেলার  তুফানগঞ্জ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আব্বাস উদ্দীন আহমেদ।

 

পারিবারিক জীবন

  • তাঁর পিতা জাফর আলী আহমদ ছিলেন তুফানগঞ্জ মহকুমা আদালতের উকিল।
  • তাঁর দুই সন্তান ফেরদৌসী রহমান এবং মুস্তাফা জামান আব্বাসী। দুজনও গান গেয়ে খ্যাতি লাভ করেছেন।।

 

পড়াশোনা

  • বলরামপুর স্কুলে আব্বাসউদ্দীনের শিক্ষা জীবন শুরু হয়।
  • ১৯১৯ সালে তুফানগঞ্জ স্কুল থেকে তিনি ম্যাট্রিক পাশ করেন।  
  • ১৯২১ সালে কুচবিহার কলেজ থেকে আইএ পাস করেন।

 

সঙ্গীত জীবন

  • আধুনিক গান, স্বদেশী গান, ইসলামি গান, পল্লীগীতি, উর্দুগান সবই তিনি গেয়েছেন। তবে পল্লীগীতিতে তার মৌলিকতা ও সাফল্য সবচেয়ে বেশি।
  • গানের জগতে তার ছিল না কোনো ওস্তাদের।
  • আপন প্রতিভাবলে নিজেকে সবার সামনে তুলে ধরেছিলেন।
  • তিনি প্রথমে ছিলেন পল্লীগায়ের একজন গায়ক।
  • যাত্রা, থিয়েটার ও স্কুল-কলেজের সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান শুনে তিনি গানের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েন এবং নিজ চেষ্টায় গান গাওয়া রপ্ত করেন।
  • রংপুর ও কুচবিহার অঞ্চলের ভাওয়াইয়া, ক্ষীরোল চটকা গেয়ে আব্বাস উদ্দীন প্রথমে সুনাম অর্জন করেন।
  • জারি, সারি, ভাটিয়ালি , মুর্শিদি, বিচ্ছেদি, দেহতত্ত্ব, মর্সিয়া, পালা গান গেয়েও জনপ্রিয় হন।
  • তিনি তার দরদভরা সুরেলা কণ্ঠে পল্লী গানের সুর যেভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলেন তা আজও অদ্বিতীয়।
  • তিনি কাজী নজরুল ইসলাম, জসীমউদ্দীন, গোলাম মোস্তফা প্রমুখের ইসলামি ভাবধারায় রচিত গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন।
  • সেসময় আব্বাস উদ্দিন ছিলেন প্রথম মুসমানন গায়ক যিনি আসল নাম ব্যবহার করে এইচ এম ভি থেকে গানের রেকর্ড বের করতেন।
  • রেকর্ড গুলো ছিল বাণিজ্যিক ভাবে ভীষণ সফল।
  • ১৯৫৬ সালে জার্মানিতে আন্তার্জাতিক লোকসংগীত সম্মেলন এবং ১৯৫৭ সালে রেঙ্গুনে প্রবাসী বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলনে তিনি যোগদান করেন।

 

অভিনয়

  • আব্বাসউদ্দিন আহমেদ মোট ৪টি বাংলা চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।
  • এই ৪টি সিনেমা হলো 'বিষ্ণুমায়া' (১৯৩২),'মহানিশা' (১৯৩৬),'একটি কথা' ও 'ঠিকাদার'(১৯৪০)।

 

পুরস্কার

  • আমার শিল্পীজীবনের কথা’ (১৯৬০) আব্বাস উদ্দীনের রচিত একমাত্র গ্রন্থ।
  • সংগীতে অবদানের জন্য তিনি মরণোত্তর প্রাইড অব পারফরমেন্স (১৯৬০)
  • শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার (১৯৭৯)
  • স্বাধীনতা দিবস পুরস্কারে (১৯৮১) ভূষিত হন।

 

মৃত্যু

এই বরেণ্য পল্লীগীতি সম্রাট ৩০ ডিসেম্বর ১৯৫৯ সালে পরলোক গমণ করেন।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রাফিয়াথ রশিদ মিথিলামিথিলার পূর্ণ জীবন বৃত্তান্ত
সানিয়া সুলতানা লিজা২০০৮ সালের ক্লোজআপ ওয়ান বিজয়ী সংগীত তারকা
দিলশাদ নাহার কণাবাংলা গানের অন্যতম শিল্পী
হাবিব ওয়াহিদবর্তমান প্রজন্মের হার্টথ্রুব সংগীত তারকা
মিলা ইসলামবর্তমান সময়ের হুদয় কাপানো সঙ্গীত শিল্পী হচ্ছে মিলা।
কণ্ঠশিল্পী তপু ও নজিবার ভালোবাসার গল্পকণ্ঠশিল্পী তপুর ও নজিবার ভালোবাসার গল্প বিস্তারিত পড়ুন
আবদুর রহমান বয়াতীবাউল গানের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র
পার্থ বড়ুয়াপার্থ বড়ুয়া সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য রয়েছে
আজম খানবাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের পথ প্রদর্শক
হাসন রাজামরমী বাউল শিল্পী
আরও ২৫ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি