পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

রমনা পার্ক

ঢাকা শহরে বিনোদনের জন্য যে কয়েকটি পার্ক সকলের কাছে সুপরিচিত রমনা পার্ক তার মধ্যে অন্যতম। শহরের ক্লান্ত মানুষ বিশ্রাম ও বিনোদনের জন্য এই পার্কে ছুটেঁ আসে। প্রতিবছর এই পার্কে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান দেখতে হাজির হয় হাজার হাজার নর-নারী।

 

অবস্থান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় শিশু পার্ক, কাকরাইল মসজিদ ও রুপসী বাংলা হোটেলের পাশেই রমনা পার্ক অবস্থিত। শাহবাগ থেকে  ১-২ মিনিটের পথ রমনা পার্ক।

 

সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

এই উদ্যানটি ১৬১০ সালে মোঘল আমলে প্রতিষ্ঠা করা হয়। সেই সময়ে রমনার পরিসীমা ছিল বিশাল এলাকা জুড়ে। মোঘলরাই রমনার নামকরণ করেন। পুরানো হাইকোর্ট ভবন থেকে বর্তমান সড়ক ভবন পর্যন্ত মোঘলরা বাগান তৈরী করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে কোম্পানী আমলে এ এলাকা জঙ্গলে পরিণত হয়। পরবর্তীতে ১৯ শতকে ব্রিটিশ শাসক এবং ঢাকার নবাবদের সহায়তায় এটির উন্নয়ন সাধন করা হয়। ঢাকা শহরের নিসর্গ পরিকল্পনার কাজ শুরু হয়েছিল ১৯০৮ সালে লন্ডনের কিউই গার্ডেনের অন্যতম কর্মী আর. এল প্রাউডলকের তত্ত্বাবধায়নে। শহরের সেই নিসর্গ পরিকল্পনার ফল ছির রমনা পার্কের উন্নয়ন। ২০ বছর লেগেছিল সে কাজ শেষ হতে।

বর্তমানে রমনা পার্কে প্রতি বছর পহেলা বৈশাখে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান হয়। রমনার বটমুলে ছায়ানটের আয়োজনে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান এখন অনেক জনপ্রিয়।

 

কিভাবে যাবেন

গাবতলী, যাত্রাবাড়ী কিংবা সদরঘাট থেকে যে কোন পরিবহনে শাহবাগে নেমে যে কোন ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করলে রমনা পার্ক দেখিয়ে দিবে।

 

প্রধান আকর্ষণ

রমনা পার্কের প্রধান আকর্ষণ হলো রমনার বটমূল। রমনার বটমূলে রয়েছে পাথরের উপরে বসার মতো স্থান। যে কেউ এখানে প্রিয়জনের সাথে এসে একান্তে সময় কাটাতে পারেন। এছাড়া এখানের লেক, নির্মল পানি ও সুশীতল নিবির শান্ত পরিবেশ যে কারও মন ভরিয়ে দিবে।

 

দেখতে পাবেন

  • এখানে রয়েছে রমনার বটমূল যে বটমূলে প্রতিবছর ছায়ানট আয়োজন করে ১’লা বৈশাখের অনুষ্ঠান।
  • এখানে রয়েছে চোখ জুড়ানো অপরুপ সুন্দর লেক।
  • এখানে রয়েছে সেগুণ, আম, কাঠাল সহ নাম না জানা শত শত প্রজাতির বৃক্ষরাজি।

 

খেতে চাইলে

সকালের নাস্তা কিংবা দুপুরের খাবার পরিবেশনের জন্য রমনা পার্কের মধ্যে রয়েছে বেশ কয়েকটি রেষ্টুরেন্ট। ইচ্ছা হলে এখানে সেরে নিতে পারেন সকাল কিংবা দুপুরের খাওয়া-দাওয়া।

 

খোলা-বন্ধের সময়সূচী

প্রতিদিন সকাল ৮:০০ টা থেকে সন্ধা ৭:০০ টা পর্যন্ত রমনা পার্ক খোলা থাকে।

 

প্রবেশমূল্য

রমনা পার্কে প্রবেশের জন্য কোন প্রবেশমূল্য নেই।

 

বিবিধ

এই পার্কে নিরাপত্তার জন্য তেমন কোন নিরাপত্তাকর্মী নেই। তবে ভিতরে অনেক গুলো পুলিশ ক্যাম্প আছে। এই ক্যাম্পে এসে যে কেউ অভিযোগ করতে পারেন।

 

আপডেটের তারিখঃ ২ জুলাই, ২০১৩ ইং

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
ওসমানী উদ্যাননগরে এক চিলতে সবুজের প্রদর্শনী
ওয়ান্ডারল্যান্ড, স্বামীবাগপুরনো ঢাকার শিশুদের চিত্ত বিনোদনের স্থল
ঢাকার পার্কগুলোঢাকার সব পার্কগুলোর ঠিকানা ও অন্যান্য তথ্য
বাহাদুর শাহ পার্কনবাবী আমলের ইতিহাস নিয়ে স্বমহিমায় টিকে আছে
নন্দন পার্কদেশের অন্যতম আন্তর্জাতিক মানের থিম পার্ক
ফ্যান্টাসী কিংডমপার্কটির সকল তথ্য আছে
বলধা গার্ডেনঐতিহাসিক নিদর্শ ও অসংখ্য দুর্লভ বৃক্ষের সমাবেশ স্থল
জাতীয় চিড়িয়াখানাজাতীয় চিড়িয়াখানায় ভ্রমণে সহায়ক দিক নির্দেশনা
ধানমন্ডি লেকধানমন্ডি লেক বিষয়ে বিস্তারিত বর্ননা আছে
ড্রিম হলিডেঢাকার অদূরে নরসিংদীতে অবস্থিত এই পার্কটির বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
আরও ৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি