পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

গাঙ্গচিল ট্যুরিজম

 

বিভিন্ন ট্যুরিষ্ট স্পটে ভ্রমণ সহ অন্যান্য সুবিধা প্রদানের নিমিত্তে গাঙ্গচিল ট্যুরিজম কোম্পানী যাত্রা শুরু করে।

 

ঠিকানা, যোগাযোগ ও অবস্থান

৩৩/২, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক, জাকারিয়া ভবন (৫ম তলা), হাটখোলা রোড, ঢাকা – ১২০৩।

ফোন:

৭১২১১৩১, ৭১২৩৩৪৮

মোবাইল:

০১৭১১-১৪৬৮৪৪, ০১৫৫২-৩৫৭৪৭২

ই-মেইল:

[email protected]

ওয়েব সাইট:

www.gungchilgroup.com

মতিঝিল শাপলা চত্ত্বর থেকে দক্ষিণ দিক দিয়ে মধুমিতা সিনেমা হল পার হয়ে টিকাটুলি যাওয়ার পথে বঙ্গভবন মুখী ও অভিসার সিনেমা হল সংলগ্ন মোড়ে অবস্থিত পুরাতন ইত্তেফাক ভবনের বিপরীত পাশে জাকারিয়া ভবনের ৫ম তলায় এই ট্যুরিজম প্রতিষ্ঠানটি অবস্থিত।

 

যে সকল স্থানে ট্যুর পরিচালনা করা হয়

এই প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা ও ঢাকার আশে পাশে ট্যুর পরিচালনার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক স্থানে বিভিন্ন ধরনের ট্যুর পরিচালনা করে থাকে। ঢাকা ও ঢাকার আশেপাশের ট্যুরগুলোর মধ্যে রয়েছে শেরাটন হোটেল, জাতীয় জাদুঘর, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, ঢা:বি:, কার্জন হল, আহসান মঞ্জিল, সোনারগাঁও, সাভার স্মৃতিসৌধ। আর ঢাকার বাইরের স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে -

১.

ঢাকা টু সুন্দরবন

২.

ঢাকা টু কক্সবাজার টু সেন্টমার্টিন

৩.

ঢাকা টু রাঙ্গামাটি

৪.

ঢাকা টু শ্রীমঙ্গল টু সিলেট

৫.

ঢাকা টু বান্দরবন

 

ঢাকা টু সুন্দরবন

ভ্রমণের সময় ও যাতায়াত

প্রতি বছর সেপ্টেম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত সুন্দরবন ভ্রমণে আগ্রহীদের জন্য ৪ দিন ৫ রাতের প্যাকেজ ভ্রমণের আয়োজন করা হয়। ঢাকার রাজারবাগ থেকে গ্রীনলাইন কোম্পানির ৪০ আসন বিশিষ্ট শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসযোগে খুলনা পর্যন্ত যাওয়া হয়। তারপর খুলনা জেলখানা ঘাট থেকে লঞ্চযোগে সুন্দরবন যাওয়া হয়। ডাবল বেড ও ফ্যামিলি বা ৪ বেডের কেবিন সমৃদ্ধ এই লঞ্চটিতে মোট ৩৫টি কেবিন রয়েছে।

খাবার ব্যবস্থা

সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, রাতের খাবার ও সান্ধ্যাকালীন নাস্তা এই প্যাকেজের অন্তর্ভুক্ত। অর্থাৎ সকল প্রকার খাবার দাবার কোম্পানি কর্তৃক সরবরাহ করা হয়। তবে এর বাইরে অন্য কোন কিছু খেতে চাইলে তা নিজ খরচে খেতে হবে।

সকালের নাস্তা

ব্রেড ও জেলী অথবা, পরোটা ও সবজী অথবা, খিচুড়ী।

দুপুরের খাবার

সাদাভাত, মাছ, সবজী ও ডাল।

রাতের খাবার

সাদাভাত, মাংস, সবজী ও ডাল।

সান্ধ্যকালীন খাবার

চা, কফি, কুকিজ ও ফ্রুটস।

 

সুন্দরবনে যে সকল স্থানে ভ্রমণ করা হয় 

১.

কটকা

৬.

মান্দারবাড়ীয়া

২.

কচিখালী

৭.

তিন কোনা আইল্যান্ড

৩.

দুবলার চর

৮.

পক্ষীর চর

৪.

হিরণ পয়েন্ট

৯.

হারবাড়ীয়া

৫.

এগ আইল্যান্ড

১০.

করমজল

 

ট্যুরের খরচ

এই প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা থেকে সুন্দরবন ভ্রমণে জনপ্রতি ৯,০০০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকা এবং দম্পতিদের ক্ষেত্রে ১৮,০০০ টাকা থেকে ২০,০০০ টাকা নিয়ে থাকে। আর দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ট্যুর আয়োজনের ক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে ১০% থেকে ২০% ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রেও আলোচনা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন জন প্রতি ৬,০০০ টাকা করে নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীর সংখ্যা সর্বনিম্ন ১০০ জন হতে হবে। দলগত ভ্রমণের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ১০ জন থেকে সর্বোচ্চ ১০০ জন বা তার চেয়ে বেশী ভ্রমণকারী হলে ট্যুর পরিচালনা করা হয়।

 

ট্যুরের নিয়মাবলী ও সতর্কতা

  • ট্যুরের আগে বন বিভাগীয় কর্মকর্তার কাছে নামের তালিকা জমা দিতে হয়।
  • দলগত ভাবে চলাচল নিরাপদ।
  • উজ্জ্বল বা ঝলমলে পোশাক পরিধান থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • কোন প্রকার শিকার থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • কোন প্রকার বন্যপ্রাণীকে উত্যক্ত করা যাবে না।
  • বন বিভাগের নিরাপত্তা রক্ষীদের সঙ্গে রাখতে হবে।
  • লাইফ জ্যাকেট, অগ্নি-নির্বাপন সামগ্রী এবং ফাষ্ট এইড বক্স অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে।

 

ঢাকা টু কক্সবাজার টু সেন্টমার্টিন

ভ্রমণের সময় ও যাতায়াত

প্রতি বছর নভেম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত ঢাকা থেকে কক্সবাজার ও কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন ভ্রমণের (৪ দিন ৪ রাত) প্যাকেজ আয়োজন করে থাকে। তন্মধ্যে ৩ দিন ২ রাত কক্সবাজারে যাপন করা হয়। ঢাকার রাজারবাগ থেকে গ্রীনলাইন কোম্পানির ৪০ আসন বিশিষ্ট শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসযোগে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করা হয়। কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে নিয়মিত যেসকল বোট যাতায়াত করে সেই বোটযোগে ভ্রমণকারীদের কোম্পানির নিজ দায়িত্বে সেন্ট মার্টিন ভ্রমণে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

খাবার ব্যবস্থা

ভ্রমণকারীরা ভিন্ন ভিন্ন পছন্দ ও রুচির অধিকারী। তাই কোম্পানির সরবরাহকৃত খাবার সকলের পছন্দ ও চাহিদা অনুযায়ী নাও হতে পারে। সেই দিক বিবেচনা করে এই প্রতিষ্ঠানটি শুধুমাত্র সুন্দরবন ভ্রমণ প্যাকেজে খাবার সরবরাহ করে থাকে। এছাড়া অন্য কোন ভ্রমণ প্যাকেজে তারা শুধুমাত্র সকালের নাস্তা ব্যতীত অন্য কোন খাবার সরবরাহ করে না। এক্ষেত্রে ভ্রমণকারীদের নিজ খরচে খাবারের ব্যবস্থা করতে হয়। হোটেল থেকে রেষ্টুরেন্টে যাওয়ার জন্য কোম্পানি গাড়ী সরবরাহ করে থাকে।

 

কক্সবাজারে যে সকল হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয় সেগুলো হলো –

ক্র. নং

হোটেলের নাম

১.

হোটেল সী ক্রাউন।

২.

হোটেল সী প্যালেস

৩.

হোটেল সী ওয়ার্ল্ড

৪.

হোটেল সী গার্ল

 

সেন্টমার্টিনে যে সকল হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয় সেগুলো হলো –

ক্র. নং

হোটেলের নাম

১.

হোটেল ব্লু মেরিন

২.

সেন্টমার্টিন রিসোর্ট

৩.

হলি-ডে ভিলা

 

ট্যুরের খরচ

এই প্যাকেজ উপভোগ করতে হলে জনপ্রতি ৬,০০০ টাকা থেকে ৭,০০০ টাকা এবং দম্পতিদের জন্য ১২,০০০ টাকা থেকে ১৪,০০০ টাকা পর্যন্ত খরচ হয়। আর দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ট্যুর আয়োজনের ক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে ১০% থেকে ২০% ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রেও আলোচনা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন জন প্রতি ৩,০০০ টাকা থেকে ৪,০০০ টাকা করে নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীর সংখ্যা সর্বনিম্ন ১০০ জন হতে হবে।

 

ট্যুরের সতর্কতা

  • নিজের ইচ্ছামত একা একা যেখানে সেখানে যাওযা যাবে না।
  • ভাটার সময় পানিতে নামতে হবে জোয়ারের সময় কোন অবস্থাতেই পানিতে নামা যাবে না।

 

ঢাকা টু রাঙ্গামাটি

ভ্রমণের সময় ও যাতায়াত

সুন্দরবনের ন্যায় প্রতি বছর সেপ্টম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত এই প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা থেকে রাঙ্গামাটি (৩ দিন ৩ রাতের) প্যাকেজ ভ্রমণের ব্যবস্থা করে থাকে। ফকিরাপুল থেকে ৪৫ সিট বিশিষ্ট নন-এসি বাসযোগে রাঙ্গামাটির উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করা হয়। রাঙ্গামাটিতে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শনের জন্য কোম্পানি কর্তৃক নৌযানের ব্যবস্থা করা হয়।

 

ট্যুরের খরচ

এই প্যাকেজের আওতায় রাঙ্গামাটি পরিভ্রমণ করতে জন প্রতি ৫,০০০ টাকা থেকে ৬,০০০ টাকা এবং দম্পতিদের জন্য ১০,০০০ টাকা থেকে ১২,০০০ টাকা চার্জ নিয়ে থাকে। আর দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ট্যুর আয়োজনের ক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে ১০% থেকে ২০% ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রেও আলোচনা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন জন প্রতি ৩,০০০ টাকা থেকে ৪,০০০ টাকা করে নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীর সংখ্যা সর্বনিম্ন ১০০ জন হতে হবে।

 

খাবার ব্যবস্থা

এই প্যাকেজ ভ্রমণের আওতায় শুধুমাত্র সকালের নাস্তা অন্তর্ভুক্ত। অন্যান্য খাবার খরচ ভ্রমণকারীকে পৃথকভাবে নিজে বহন করতে হবে। তবে খাওয়ার জন্য হোটেল থেকে রেষ্টুরেন্টে যাওয়ার জন্য কোম্পানি কর্তৃক গাড়ীর সরবরাহ করা হয়।

 

যে সকল স্পটগুলো দেখানো হয়

এই প্যাকেজের আওতায় ভ্রমণকারীদের রাঙ্গামাটির বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন জায়গা ঘুরে ঘুরে দেখানো হয়। যা কিনা নিজ উদ্যোগে গিয়ে ঘোরা সম্ভব নাও হতে পারে। যেমন - রাজবাড়ী, পর্যটন ঝুলন্ত ব্রিজ, সুভলং, ঝর্ণা, পেডা টিংটিং/টুকটুক গ্রাম।

 

যে সকল হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয় সেগুলো হলো –

ক্র. নং

হোটেলের নাম

১.

পর্যটন মোটেল

২.

হোটেল সোফিয়া

৩.

বনরূপা রিসোর্ট

 

সতর্কতা

  • দলগত ভাবে চলাফেরা করতে হবে।
  • লেকের পানিতে নামতে গেলে সাবধানতা বজায় রাখতে হবে।
  • উচু পাহাড়ে উঠার ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।
  • উপজাতীয়দের সাথে তাদের শিক্ষা-সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আলাপ আলোচনা করতে হবে।

 

ঢাকা টু শ্রীমঙ্গল টু সিলেট

ভ্রমণের সময় ও যাতায়াত

সারা বছরব্যাপী এই প্রতিষ্ঠানটি ভ্রমণকারীদের চাহিদা অনুযায়ী ঢাকা থেকে শ্রীমঙ্গল হয়ে সিলেট পর্যন্ত (৩ দিন ৩ রাতের) প্যাকেজ ভ্রমণের আয়োজন করে থাকে। ঢাকার রাজারবাগ থেকে গ্রীনলাইন কোম্পানির ৪০ আসন বিশিষ্ট শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাসযোগে ঢাকা টু শ্রীমঙ্গল টু সিলেটের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করা হয়।

 

খাবার ব্যবস্থা

এই প্যাকেজ ভ্রমণের আওতায় শুধুমাত্র সকালের নাস্তা অন্তর্ভুক্ত। অন্যান্য খাবার খরচ ভ্রমণকারীকে পৃথকভাবে নিজে বহন করতে হবে। তবে খাওয়ার জন্য হোটেল থেকে রেষ্টুরেন্টে যাওয়ার জন্য কোম্পানি কর্তৃক গাড়ীর সরবরাহ করা হয়।

 

যে সকল স্পটগুলো দেখানো হয়

প্যাকেজ ভ্রমণের একটি উল্লেখযোগ্য সুবিধা হল কোম্পানির নিজস্ব গাইড কর্তৃক বিভিন্ন ঐতিহাসিক ও মনোমুগ্ধকর স্থান পরিদর্শন করা যায়। যা নিজ উদ্যোগে ভ্রমণের ক্ষেত্রে অনেক সময় সম্ভবপর হয় না। এই ভ্রমণ প্যাকেজে  জাফলং, হযরত শাহজালাল (রা) ও হযরত শাহ পরান (রা) এর মাজার শরীফ, শ্রীমঙ্গল টি বোর্ডের চা বাগান প্রভৃতি দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখানো হয়।

 

ট্যুরের খরচ

এই প্যাকেজের আওতায় ঢাকা থেকে শ্রীমঙ্গল হয়ে সিলেট পর্যন্ত ঘুরা, থাকা ও পুনরায় ঢাকায় ফিরে আসা পর্যন্ত জন প্রতি ৫,০০০ টাকা থেকে ৬,০০০ টাকা এবং দম্পতিদের জন্য ১০,০০০ টাকা থেকে ১২,০০০ টাকা চার্জ নিয়ে থাকে। আর দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ট্যুর আয়োজনের ক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে ১০% থেকে ২০% ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রেও আলোচনা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন জন প্রতি ৩,০০০ টাকা থেকে ৪,০০০ টাকা করে নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীর সংখ্যা সর্বনিম্ন ১০০ জন হতে হবে।

 

যে সকল হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয় সেগুলো হলো –

ক্র. নং

হোটেলের নাম

১.

হলি সাইড

২.

রোজ ভিউ

৩.

হোটেল মেট্রো

৪.

জাস্টিজ রিসোর্ট

 

ঢাকা টু বান্দরবন

ভ্রমণের সময় ও যাতায়াত

সারা বছরব্যাপী এই প্রতিষ্ঠানটি ভ্রমণকারীদের চাহিদা অনুযায়ী ঢাকা টু বান্দরবন (৩ দিন ৩ রাত) প্যাকেজ ভ্রমণের আয়োজন করে থাকে। ঢাকার ফকিরাপুল থেকে নন-এসি বাসযোগে বান্দরবন অভিমুখে যাত্রা করা হয়।

 

ট্যুরের খরচ

এই ভ্রমণ প্যাকেজের আওতায় জন প্রতি ৫,০০০ টাকা থেকে ৬,০০০ টাকা এবং দম্পতিদের জন্য ১০,০০০ টাকা থেকে ১২,০০০ টাকা চার্জ নিয়ে থাকে। আর দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ট্যুর আয়োজনের ক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে ১০% থেকে ২০% ডিসকাউন্ট দিয়ে থাকে। ছাত্র-ছাত্রীদের ক্ষেত্রেও আলোচনা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন জন প্রতি ৩,০০০ টাকা থেকে ৪,০০০ টাকা করে নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে ভ্রমণকারীর সংখ্যা সর্বনিম্ন ১০০ জন হতে হবে।

 

খাবার ব্যবস্থা

এই প্যাকেজ ভ্রমণের আওতায় শুধুমাত্র সকালের নাস্তা অন্তর্ভুক্ত। অন্যান্য খাবার খরচ ভ্রমণকারীকে পৃথকভাবে নিজে বহন করতে হবে। তবে খাওয়ার জন্য হোটেল থেকে রেষ্টুরেন্টে যাওয়ার জন্য কোম্পানি কর্তৃক গাড়ীর সরবরাহ করা হয়।

 

যে সকল হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয় সেগুলো হলো –

ক্র. নং

হোটেলের নাম

১.

হিল সাইট রিসোর্ট

 

যে সকল স্পটগুলো দেখানো হয়

এই ভ্রমণ প্যাকেজের আওতায় ভ্রমণকারীদের বান্দরবন জেলার বেশ কিছু দর্শনীয় ও ঐতিহাসিক স্থানে কোম্পানির নিজস্ব গাইড কর্তৃক পরিদর্শনে নিয়ে যাওয়া হয়। যেমন - মেঘনা ঘাট, স্বর্ণ মন্দির, শৈলকুপা, চিমবুক পাহাড়, নীলগিরি।

 

বিবিধ

  • সকল ক্ষেত্রে রাজারবাগ ও ফকিরাপুল থেকে যাত্রা আরম্ভ করলেও দলগত বা প্রাতিষ্ঠানিক ভ্রমণের ক্ষেত্রে ভ্রমণকারীদের সুবিধামত স্থান থেকে যাত্রা আরম্ভ করা হয়।
  • প্যাকেজের আওতার বাইরে কোন সার্ভিস কোম্পানি প্রদান করতে বাধ্য নহে।
 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
সিএনএইচ হলিডেদেশে ও দেশের বাইরে প্যাকেজ ট্যুর পরিচালনা করে থাকে
পার্টি প্ল্যানার্স বাংলাদেশপার্টি প্ল্যানার্স বাংলাদেশ সম্পর্কে তথ্য রয়েছে
বিডি ট্যুরসদেশে-বিদেশে ভ্রমণ সম্পর্কে তথ্য রয়েছে
ভ্রমণের বন্ধু: ইওর ট্রিপ মেটভ্রমণে সহায়তাকারী অনলাইন প্রতিষ্ঠান
ট্যুরিস্ট প্লাসসুলভে ভ্রমন আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান
আই আর এয়ার টিকেটিং এন্ড ট্রাভেলভ্রমণের একটি প্রতিষ্ঠান
সামীর ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরসবিদেশ ভ্রমণের ব্যবস্থা করে থাকে।
গ্যালাক্সী হলিডেজ বিদেশ ভ্রমণে সহায়তাদান করে থাকে।
ট্রাভেল কুক লিমিটেডদেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশ ভ্রমণে যেতে চাইলে
ম্যাপল ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলস্বিশ্বের যে কোন স্থান, যে কোন প্রয়োজনে ভ্রমণে সহায়তা করে থাকে।
আরও ১৫ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি