পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

ভিক্ষা করে ৪টি স্কুল চালান ভারতীয় অধ্যাপক

সমাজে আমরা বিভিন্ন ধরনের শিক্ষানুরাগী মানুষ দেখতে পাই। মানুষের মাঝে শিক্ষা ছড়িয়ে দিতে, শিক্ষার আলোয় মনকে উদ্ভাসিত করতে অনেক কিছুই করেন তারা। নানা রকম ত্যাগ তিতিক্ষা করতে হয় এ ধরনের শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের। তবে ভিক্ষা করে মানুষের মাঝে শিক্ষা ছড়িয়ে দেয়ার কাজ করছেন এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। এবার সে ধরনেরই একজন মানুষের সন্ধান মিলেছে।

ট্রেনের যাত্রীদের কাছ থেকে সাহায্য গ্রহণ করে প্রতিষ্ঠা করেছেন চারটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুল। স্কুলগুলোকে চালিয়েও নিচ্ছেন লোকজনের সাহায্যের টাকা দিয়ে। ভারতের মুম্বাই শহরের সাবেক মেরিন ইঞ্জিনিয়ার এবং ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক সন্দীপ দেশাই এ কাজটিই করে যাচ্ছেন ২০১০ সাল থেকে। আর তার সাথে আছেন আরেকজন অধ্যাপক নুরুল ইসলাম।

ট্রেনে কখনো কখনো নিজের সহকর্মীদের কাছ থেকেও অর্থ সংগ্রহ করতে হয় তাদের। মুম্বাইয়ের ‘এসপি জেইন ইন্সটিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রিসার্চ’র ৬৫ বছর বয়সী অধ্যাপক দেশাই বলেন, ‘যখন আমি ট্রেনে উঠি আমার সহকর্মীরা দূর থেকে আমাকে দেখতে পায়। আমার কাছে থাকে একটি ব্যাগ এবং এর ভেতরে থাকে প্লাস্টিকের একটি বাক্স। আমি আমাদের প্রতিষ্ঠানের সাথে লোকদের পরিচয় করিয়ে দেই এবং এটি সম্পর্কে দু-চার লাইন বলি।’

চারটি স্টেশন পার হয়ে ট্রেনের যখন সান্টা ক্রজে চলে আসে তখনো দেশাই নিজের বাক্সটি ব্যাগে ঢুকান না। সাহায্যের জন্য কথা বলেই যেতে থাকেন। তিনি হেসে বলেন, এরপর আমার সহকর্মীরা আমার কাছে আসেন এবং কর্কশ ভাষায় আমাকে পরের স্টেশনে নেমে যেতে বলেন। আমার কাছে মনে, এটা একটা আল্টিমেটাম।’

গ্রামের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য স্কুল চারটি চালান তিনি। এগুলো ভারতের মহারাষ্ট্র ও আরেকটি রাজস্থানের বিভিন্ন স্থানে। স্কুলগুলোর জন্য এ পর্যন্ত ৫০ লাখেরও বেশি রুপি সংগ্রহ করেছেন দেশাই ও নুরুল ইসলাম। বর্তমানে মহারাষ্ট্রে পঞ্চম স্কুলটি খোলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। নিজের সহকর্মীরা বিরক্ত হলেও ট্রেনের সাধারণ যাত্রীরা কখনোই বিমুখ করেন না দেশাইকে।

 

রওনক মেহতা নামের এক যাত্রী বলেন, ‘আমি এই পথে দুই বছর ধরে যাতায়াত করি। প্রতিদিন আমি তাকে দেখি। যদি তার উদ্দেশ্য নির্ভেজাল না হতো তবে তিনি প্রতিদিন আসতেন না। ভারতে অগণিত শিশু আছে যারা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত। আমাদের ছোট্ট সাহায্য থেকে তারা যদি শিক্ষা লাভ করতে পারে তবে তা খুবই আনন্দের।’

শুধু জনসাধারণে দানশীলতাই নয় সাহায্য সংগ্রহে দেশাইকে সহায়তা করেন রেল বিভাগের কর্মচারিরাও। তাদের সাহায্য সম্পর্কে দেশাই বলেন, ‘আমি যখন ট্রেনে উঠি তখন তারাও আমার সাথে এসে দাঁড়ায়। বলতে থাকে, আপনি যদি একজন মানুষকে এক বেলা খাবার খাওয়ান তবে আপনি তাকে একবারই খাওয়ালেন। আর আপনি যদি কাউকে শিক্ষার ব্যবস্থা করে দেন তবে আপনি তাকে সারাজীবন খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিলেন।’

অধ্যাপক দেশাইয়ের হাতের দানবাক্সগুলো পরিপূর্ণ হয়ে উঠলে মুখে হাসি ফুটে ওঠে তার। সবাইকে উদ্দেশ্য করে ধন্যবাদ দিতে থাকেন তিনি। পরবর্তীতে আরো সাহায্য করার আহ্বান জানিয়ে ট্রেন থেকে নেমে যান সন্দীপ দেশাই।

 

ভিডিওঃ

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
জাপানি বিজ্ঞানীর জমজমের পানির রহস্য আবিষ্কার করলেন!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
অবশেষে ফেঁসে যাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজবিস্তারিত জানুন টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ সম্পর্কে
পোষা সিংহ নিয়ে ব্যস্ত সড়কে, আটক করলো পুলিশএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
রোগ সারানোর নামে মারধরের পর গোবর খাওয়ানো হল তরুণীকে এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
গোমূত্রে তৈরি সাবান, শ্যাম্পু বিক্রি করবে আরএসএসএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ফিডারের দুধে বিষ মিশিয়ে সন্তানকে হত্যা, মা আটকএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
মাত্র একঘন্টার জন্য ইফতার করেন ফিনল্যান্ডের মুসলমানরাএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ট্রাম্পের নামে টয়লেট পেপার!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
দাড়ি না কাটায় স্বামীর মুখ ঝলসে দিলেন স্ত্রীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
আরও ১৩২০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি