পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আদম শৃঙ্গ সব ধর্মের তীর্থস্থান

কোরআনে আছে, নিষিদ্ধ ফল খাওয়ায় আদম (আ.) ও বিবি হাওয়াকে স্বর্গ থেকে বিতাড়িত করে পৃথিবীতে পাঠানো হয়। স্বর্গ থেকে বিতাড়িত হয়ে আদম (আ.) পৃথিবীতে প্রথম যে স্থানে নিপতিত হয়েছিলেন তা বাংলাদেশ থেকে খুব দূরে নয়, প্রতিবেশি দেশ শ্রীলঙ্কাংয়। শ্রীলঙ্কার যে পাহাড়টিতে আদম (আ.) অবতরণ করেছিলেন বলে কোরআনে বর্ণিত আছে তা সবার কাছে বর্তমানে আদম শৃঙ্গ বা আদম চূড়া নামে পরিচিত। পাহড়টিকে ঘিরে তৈরি হয়েছে নানারকম রহস্য।

শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে বিশ্বে নানা রকম পায়ের ছাপ পাওয়া গেছে সেখানে। তাই এই পাহাড়টিকে ঘিরে মানুষের জল্পনা-কল্পনারও শেষ নেই। তবে এইখানে শেষ নয়, এই পাহাড়টি যে কেবল মুসলমানদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু তা কিন্তু নয়। পাহাড়টি নিয়ে যুগে যুগে সব ধর্মের মানুষেরই আগ্রহ রয়েছে। 

মুসলমানদের পাশাপাশি হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানরা এই পাহাড়টিকে পবিত্র স্থান বলে মনে করেন। তবে পাহাড়টিকে ঘিরে এক এক ধর্মের মানুষের বিশ্বাস এক এক রকম।

সনাতন ধর্মালম্বীরা মনে করেন প্রভু শিবই এই পাহাড় গমন করেন এবং পাহাড়ে যে পায়ের ছাপ পাওয়াগেছে সেটা তারই। অপরদিকে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা মনে করেন গৌতম বৌদ্ধই প্রথম এই পাহাড়ারে শৃঙ্গে ওঠেন। তবে খ্রিষ্টান ও মুসলমান এই দুই ধর্মালম্বীরাই মনে করেন আদম (আ.) প্রথম এই পাহাড়ের শৃঙ্গে পদার্পণ করেন।

পাহাড়টিকে পবিত্র তীর্থ স্থান মনে করে দূর দূরান্ত থেকে অনেকে ভ্রমন করতে আসে। আদম শৃঙ্গের উচ্চতা ৭,৩৬০ ফুট। আর এই পবিত্র স্থানটি দেখার জন্য সারা পৃথিবী থেকে প্রতিদিন অগনিত মানুষ ভিড় করে। তবে পাহাড়ে আরোহণ করা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। শৃঙ্গে পৌঁছতে হলে যে পথ ব্যবহার করতে হয় তা চলে গেছে জঙ্গলের ভেতর দিয়ে। সেই জঙ্গরে রয়েছে নানান ঝুঁকি। আছে বিষধর কীটপতঙ্গ। তবে শৃঙ্গের কাছাকাছি একটি ধাতব সিঁড়ি আছে। তাতে রয়েছে ৪ হাজার ধাপ। এর প্রতিটি ধাপ নিরাপদ নয়। অনেকে আবার পাহাড়ে চড়তে গিয়ে নানা দুর্ঘটনারও শিকার হয়। তার ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে শীর্ষে যেতে হলে কমপক্ষে ১২ থেকে ১৬ ঘণ্টা সময় লাগে। জটিল আবহাওয়া অঞ্চলের মধ্যে এর অবস্থান। বছরে মাত্র তিন থেকে চার মাস এ পাহাড়ে আরোহণ করা যায়। বছরের অন্য সময়টাতে এতে আরোহণ সম্ভব নয়। কারণ, বলা হয়ে থাকে এ পাহাড় তখন ঘন মেঘের ভিতর লুকিয়ে থাকে। চারদিক থেকে মেঘ পাহাড়টিকে আচ্ছন্ন করে রাখে। ৮৫১ খ্রিস্টাব্দে এ পাহাড়ের পদচিহ্ন সর্বপ্রথম নজরে পড়ে আরব বাদশাহ সোলাইমানের চোখে। ইবনে বতুতা ও মার্কো পোলোসহ বিশ্বের অনেক নামকরা পর্যটকরা এই আদম চূড়া ভ্রমণ করেছেন। ইবনে বতুতাকে অনুসরণ করে অনেকে এই পবিত্র পাহাড়ে আরোহণ করেছিলেন। এখানে ওঠার জন্য তিনি যাত্রা শুরু করেছিলেন বারবেরিন থেকে।

তারও আগে বণিক ও ভ্রমণপিপাসু মার্কো পোলো আদমের পদচিহ্ন দেখার জন্য এবং তার প্রতি সম্মান জানানোর জন্য এ পাহাড়ে আরোহণ করেন। অনেক ইতিহাসবিদই বিখ্যাত এই শৃঙ্গ নিয়ে বিভিন্ন সময় বই লিখেছেন। তবে ইতিহাস লেখার অনেক অনেক আগে থেকেই কোরআনে এর সুস্পষ্ট বর্ণনা ছিল। সেই তখন থেকে এখন পর্যন্ত শৃঙ্গটি অবিকল রয়েছে। কোন পরিবর্তন এখন পর্যন্ত  লক্ষ্য করা যায়নি, যা সত্যি বিস্ময়ের।

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
জাপানি বিজ্ঞানীর জমজমের পানির রহস্য আবিষ্কার করলেন!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
অবশেষে ফেঁসে যাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজবিস্তারিত জানুন টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ সম্পর্কে
পোষা সিংহ নিয়ে ব্যস্ত সড়কে, আটক করলো পুলিশএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
রোগ সারানোর নামে মারধরের পর গোবর খাওয়ানো হল তরুণীকে এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
গোমূত্রে তৈরি সাবান, শ্যাম্পু বিক্রি করবে আরএসএসএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ফিডারের দুধে বিষ মিশিয়ে সন্তানকে হত্যা, মা আটকএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
মাত্র একঘন্টার জন্য ইফতার করেন ফিনল্যান্ডের মুসলমানরাএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ট্রাম্পের নামে টয়লেট পেপার!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
দাড়ি না কাটায় স্বামীর মুখ ঝলসে দিলেন স্ত্রীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
আরও ১৩২০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি