পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

বুমেরাং এর আদ্যপান্ত

আদি থেকেই রহস্যে ঘেরা এই পৃথিবী। তা সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টিই হোক আর মনুষ্য তৈরিই হোক। এর প্রতিটি রহস্যের পেছনে বিজ্ঞানীরা আজও ছুটে চলেছে। অনেক কিছু অজানা থাকলেও কিছু কিছু রহস্য এরই মধ্যে তারা উদঘাটন করে ফেলেছে।বিজ্ঞানীরা অনেক রহস্যের জট খুলতে পারলেও আমাদের কাছে তা আজও রহস্যময়।  বুমেরাং এমনই এক ভয়ানক আর রহস্যময় অস্ত্র। যা কি না নিক্ষেপকারীর লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে তার কাছেই আবার ফিরে আসত। কিন্তু সেই লক্ষ্যকারীর কোন ক্ষতি হতো না। খুব অবাক লাগছে তো? তাহলে আজ এই রহস্যে ঘেরা অস্ত্র সম্পর্কে জেনে নিন।

বর্তমানে বিভিন্ন দেশেই তৈরি হচ্ছে অত্যাধুনিক সব অস্ত্র। আর তা বিধ্বংসীও বটে। তবে শুধু এখনকার মানুষরাই অস্ত্র তৈরি করে তা কিন্তু নয় পূর্বের দিনের মানুষরাও বানাতো অস্ত্র। এখনকার অস্ত্রের মতো এত বেশি ভয়াবহ হয়তো ছিলো না । তবে সেই সময়ের অস্ত্রগুলো তৈরি করা হতো প্রখর বুদ্ধিমত্তা দ্বারা। তেমনই একটি অস্ত্র এই বুমেরাং। এটি দিয়ে মানুষ বা শক্তিশালী জন্তু-জানোয়ারকে সহজেই আক্রমণ করা যেত। সুদূর অতীতে দ্বৈরথ যুদ্ধে পদাতিক ও অশ্বারোহী বাহিনীর প্রধান হাতিয়ার ছিল এই বুমেরাং।

একে একটি বক্রাকৃতি মারণাস্ত্র বলা যায়। এই ভয়ানক অস্ত্র প্রথমে তৈরি করেছিল আদিম অস্ট্রেলীয়রা। এরপর তাদের অনুকরণ করে ভারতেও এর ব্যবহার শুরু হয়। এশীয় ও মিসরীয় যোদ্ধারা সবসময় বুমেরাং ব্যবহার করত। প্রাচীন ভারতীয়রা যে বুমেরাং তৈরিতে পারদর্শী ছিল। এখনও ভারতের কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান জাদুঘরে সুসজ্জিত দেয়ালচিত্রে তা দেখা যায় ।এর ছিল তিনটি বৈশিষ্ট্যঃ

-এতে বিমানের প্রপেলারের মতো প্যাঁচ ছিল।
-এটি চলার সময় নানারকম পাক খেয়ে এঁকেবেঁকে চলতে পারত।
-কোনো কারণে লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে বুমেরাং ফের নিক্ষেপকারীর কাছেই ফিরে আসতে পারত।

এ অভিনব অস্ত্রটির নিখুঁত যান্ত্রিক কৌশল বহুকাল ধরে বিজ্ঞানীদের অবাক করে আসছে। অষ্টাদশ শতকের শুরুতে মানুষ যখন বিভিন্ন ধরনের মারণাস্ত্র তৈরিতে ব্যস্ত, ঠিক তখনই বুমেরাংয়ের প্রতি মানুষের কৌতূহল বহুগুণে বেড়ে যায়। এক শৌখিন বিজ্ঞানী ছুটে যান অস্ট্রেলিয়ায়। তিনি দীর্ঘদিন ঘুরে বেড়ান আদিম এলাকাগুলোতে। আদিবাসীদের সঙ্গে কাটান বেশ কিছুদিন। তাতেই
বেরিয়ে আসে বুমেরাংয়ের তথ্য ও এর অদ্ভুত যন্ত্রকৌশলের রহস্যটি।

পদার্থবিজ্ঞানের একটি মৌলিক সূত্রের মাধ্যমে সে চলাফেরা করে। বুমেরাং কাঠ বা পাতলা লোহা দিয়ে তৈরি। এর চলার গতি আঁকাবাঁকা, ঘূর্ণিবায়ুর মতো পাক খাওয়া ছুটন্ত সাপের মতো ঢেউ তোলা। বুমেরাংয়ের চলার ধরন সহজেই শিকারকে ঘায়েল করে। বুমেরাংয়ের সেই বিচিত্র গতি তিনটি কারণের মিলিত ফল। কারণগুলো হলোঃ

-প্রথমেই নিক্ষিপ্ত বল
-বুমেরাংয়ের নিজস্ব ঘূর্ণি
-বায়ুর বাধা

এ তিনের সমন্বয়ে বুমেরাং এঁকেবেঁকে পাক খেয়ে চলে। আর বুমেরাংয়ের অবাক করা আসল রহস্যটা হলো লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে ফিরে আসে নিক্ষেপকারীর কাছে। তবে এটি কিভাবে যে নিক্ষেপকারীর হাতে ফিরে আসে সে ব্যাপারে অনেক তথ্য প্রকাশিত হলেও সেটি এখনও অনেক বিজ্ঞানী ও সাধারণ মানুষদের কাছে এক রহস্যের বিষয়।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
জাপানি বিজ্ঞানীর জমজমের পানির রহস্য আবিষ্কার করলেন!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
অবশেষে ফেঁসে যাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজবিস্তারিত জানুন টাইটানিকের চেয়ে ২০ গুন বড় বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ সম্পর্কে
পোষা সিংহ নিয়ে ব্যস্ত সড়কে, আটক করলো পুলিশএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
রোগ সারানোর নামে মারধরের পর গোবর খাওয়ানো হল তরুণীকে এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
গোমূত্রে তৈরি সাবান, শ্যাম্পু বিক্রি করবে আরএসএসএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ফিডারের দুধে বিষ মিশিয়ে সন্তানকে হত্যা, মা আটকএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
মাত্র একঘন্টার জন্য ইফতার করেন ফিনল্যান্ডের মুসলমানরাএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
ট্রাম্পের নামে টয়লেট পেপার!এখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
দাড়ি না কাটায় স্বামীর মুখ ঝলসে দিলেন স্ত্রীএখানে বিস্তারিত বর্ননা করা হয়েছে।
আরও ১৩২০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি