পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

সেলেনা গোমেজ: এক মার্কিন অভিনয় ও সংগীত শিল্পীর গল্প

সেলেনা গোমেজ গান, মডেলিং আর অভিনয় দিয়ে বলতে গেলে বিশ্ব জয়ই করে ফেলেছেন। মিডিয়া আর ইন্টারনেটের বদৌলতে সেলেনা গোমেজকে উত্তর আমেরিকা, ইউরোপের গন্ডি পেরিয়ে এখন দক্ষিণ আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, এশিয়ার তরুণ তরুণীরা চিনে ফেলেছে। এর মধ্যে একটি গোষ্ঠী আছে সেলেনা গোমেজের ব্যাপক ভক্ত।

 

জন্ম পরিচয়:

সেলেনা গোমেজ যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের গ্রান্ড প্রাইরিতে ১৯৯২ সালের ২২ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম রিকার্ডো জোয়েল গোমেজ এবং মায়ের নাম মান্ডি টেফি। জন্মের সময় তার মা মান্ডি টেফির বয়স ছিল মাত্র ১৬ বছর।  তার বাবা মেক্সিকান আমেরিকান এবং মা ইটালিয়ান বংশদ্ভূত আমেরিকান। তার নামের শেষে গোমেজ এসেছে বাবার দিক থেকে আর নামের শুরুতে সেলেনা এসেছে মায়ের দিক থেকে। সেলেনার বয়স যখন ৫ বছর তখন তার বাবা-মায়ের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। সেলেনা তার মায়ের কাছেই থেকে যান। ২০০৬ সালে তার মা পুনরায় বিয়ে করেন। তার পুরো নাম সেলেনা মেরি গোমেজ। তার ডাক নামের তালিকাটা একটু বড়। তার ডাক নামগুলো হলো – সেল, সেলি, সেলিনিটা, কঞ্চিতা। সেলেনা তার প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করে টেক্সাসের ড্যানি জোনস মিডল স্কুল থেকে।

 

অভিনয় ও সংগীত জীবনের কথা:

ছোটপর্দার অভিনয়শিল্পী হিসেবে ক্যারিয়ারের শুরু করেন তিনি। ‘বার্নি অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’ টিভি সিরিজের মাধ্যমে সেলেনা প্রথমে আত্মপ্রকাশ করেন। এ সময় তার বয়স ছিল মাত্র ৭ বছর।  এটি ২০০২ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত চলেছিল। সেলেনা গোমেজ ‘স্পাই কিডস থ্রিডি গেম ওভার’, ‘ওয়াকার টেক্সাস র‌্যাঙ্গার ট্রায়াল বাই ফায়ার’ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন। এ ছাড়া তিনি ডিজনি চ্যানেলের ‘দ্য স্যুট লাইফ অব জ্যাক অ্যান্ড কোডি’ সিরিজেও অতিথি শিল্পী হিসেবে অভিনয় করেন। এরপর তিনি ডিজনির ‘উইজার্ডস অব ওয়েভার্লি প্লেস’ সিরিজের অন্যতম প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন। এটি সাফল্য অর্জন করে এবং সেলেনা বিভিন্ন পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন। পরবর্তীতে সেলেনা ডিজনি চ্যানেলের বিভিন্ন সিরিজ এবং চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এর মধ্যে ‘জোনাস ব্রাদারস :লিভিং দ্য ড্রিম’, ‘ডিজনি চ্যানেল গেমস’ উল্লেখযোগ্য। ২০০৯ সালে সেলেনা ‘প্রিন্সেস প্রোটেকশন প্রোগ্রাম’ ও ‘উইজার্ডস অব ওয়েভার্লি প্লেস দ্য মুভি’ চলচ্চিত্র দু’টিতে অভিনয় করেন। আর ডিজনির বাইরে সেলেনা র‌্যামোনা অ্যান্ড বিজাস চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ২০১১ সালে সেলেনা ‘মন্টে কার্লো’ এবং ‘দ্য মাপেটস’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ২০১২ সালে হোটেল ‘ট্রান্সিলভানিয়া’ এবং ‘স্প্রিং ব্রেকার্স’ চলচ্চিত্র দু’টিতে অভিনয় করেন। আর এরপর ২০১৩ বছরের শেষভাগে এসে মুক্তি পেল তার নতুন সিনেমা ‘গেটওয়ে’।

আপন মা ও সৎ বাবার সাথে সেলেনা

২০০৯ সালে সেলেনা গড়ে তোলেন ব্যান্ড দল 'সেলেনা গোমেজ অ্যান্ড দ্য সিন'। ২০০৯ সালে তার ব্যান্ডের প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম 'কিস অ্যান্ড টেল' বিলবোর্ড টপ টেনে স্থান পায়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১১ সালে দ্বিতীয় অ্যালবাম 'আ ইয়ার উইদাউট রেইন' বের হলে তা বিলবোর্ডের টপ ফাইভে জায়গা করে নেয়। এর পর থেকেই সঙ্গীতের ভুবন তার সফল পদচারণে মুখর হয়ে ওঠে। ২০১১ সালে তিনি ‘হোয়েন দ্য সান গোজ ডাউন’ অ্যালবাম প্রকাশ করেন। এই অ্যালবামের ‘লাভ ইউ লাইক অ্যা লাভ সং’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে। এই অ্যালবামটি প্রকাশের পরে তিনি অভিনয়ে আরও মনোযোগ ও সময় দেওয়ার জন্য তার সংগীত চর্চায় কিছুটা বিরতি দেন।

প্রেম-ভালোবাসা:

সময়টা ছিল ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাস। কানাডিয়ান পপতারকা জাস্টিন বিবারের গান শুনে তার প্রেমে পড়েন মার্কিন অভিনেত্রী ও গায়িকা সেলেনা গোমেজ। একবার এক স্টেজ শোতে বিবারকে জড়িয়ে চুমুও খেয়েছিলেন সেলেনা। সম্পর্কের শুরুটা অনেকটা এভাবেই। শুরুর দিকে চুটিয়ে ডেটিং শুরু করেছিলেন টিন সেনসেশন জাস্টিন বিবার এবং সেলেনা গোমেজ। জাস্টিন বিবার অবশ্য সেলেনা গোমেজের চেয়ে দুই বছরের ছোট।

 

প্রেম-ভালোবাসা নিয়ে ভাঙা-গড়ার খেলা:

অভিনয় ও সংগীতে তিনি যতটা আলোচিত ও সমালোচিত হয়েছেন ঠিক তেমনই আলোচিত ও সমালোচিত হয়েছেন তার প্রেম-ভালোবাসার সংবাদে। কখনো তার প্রেম ভাঙছে, আবার কখনো জোড়া লাগছে। তিন বছর ধরে তিনি কানাডীয় পপতারকা জাস্টিন বিবারের সঙ্গে প্রেম করছেন। কিন্তু প্রেমিককে নিয়ে মোটেও শান্তিতে নেই তিনি। বিবারের পরকীয়া, অদ্ভুত আচরণ, মনোমালিন্যসহ বিভিন্ন কারণে বার বার তাদের প্রেম ভেঙে যাচ্ছে। তবে বিচ্ছেদের কিছু দিন পর আবারো তাদের একসঙ্গে মেলামেশা করতে দেখা যাচ্ছে। এ কারণে তাদের প্রেম-ভাঙন নিয়ে রহস্যের কূলকিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না ভক্তরা। সম্প্রতি (অক্টোবর, ২০১৪)  আবার বিচ্ছেদের পথে হেঁটে খবরের শিরোনাম হয়েছেন আলোচিত এই তারকা যুগল। মার্কিন টিভি ব্যক্তিত্ব, মডেল কেন্ডাল জেনারের সঙ্গে বিবারের সখ্যের জের ধরে এবার সেলেনা প্রেমের ইতি টেনেছেন। সেলেনা কিছু দিন আগে টের পান যে, একে অন্যকে পটানোর জন্য এসএমএস চালাচালি করছেন বিবার ও কেন্ডাল। এর পরিপ্রেক্ষিতে সেলেনা দাবি করেন, তার ও বিবারের মাঝে দেয়াল সৃষ্টির চেষ্টা করছেন কেন্ডাল। কিন্তু বিবার সেলেনার হুশিয়ারিকে পাত্তা দেননি। তিনি কেন্ডালের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছিলেন। আর এ কারণেই বিবারকে ছেড়ে চলে যান সেলেনা। ঘটনার এখানেই শেষ নয়। বিবারের ফোনে কেন্ডালের বোন টিভি তারকা কাইলি জেনারের এসএমএস ও ছবি দেখার পর প্রচন্ড চটে গিয়েছিলেন সেলেনা। কাইলি ও সেলেনা বন্ধু হলেও এ ঘটনার পর কাইলির সঙ্গে বন্ধুত্বের ইতি টানেন সেলেনা। এ প্রসঙ্গে ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, কাইলি ও তার বোন কেন্ডালের সঙ্গে সেলেনার তুমুল তর্কযুদ্ধ হয়েছে। তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন সেলেনা। আর বেচারা বিবার আবারো প্রেমিকাকে হারিয়ে একা হয়ে গেছেন। এর আগেও ২২ বছর বয়সী সেলেনা বেশ কবার জাস্টিন বিবারের সঙ্গে সম্পর্কচ্যুত করেছেন। তার ধারণা, ২০ বছর বয়সী বিবার এখনো তরুণ হয়ে উঠতে পারেনি। তাই সেলেনা তার ছেলেমানুষির কাছে নিজেকে বিকিয়ে দিতে রাজি নন। তিনি এমন একজন সঙ্গী চাইছেন, যিনি তাকে ভালোবাসার পাশাপাশি দিকনির্দেশনাও দিতে পারেন। তবে সেলেনা এখনো বিয়ে করার সিদ্ধান্ত থেকে দূরে রয়েছেন। তার মতে, সবার আগে যৌবনদীপ্ত রঙিন জীবনকে উপভোগ করে নেয়া উচিত। দাম্পত্য জীবনে প্রবেশের পর বিভিন্ন দায়িত্ববোধ স্বাধীনভাবে চলাফেরায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। ক্যারিয়ার প্রতিষ্ঠায়ও বিরূপ প্রভাব ফেলে। তাই তিনি আরো কিছু দিন একাকী জীবনের সঙ্গে লড়াই করতে চান।

 

ধনী কিশোরীদের তালিকায় সেলেনা:

১৯ বছর বয়সে সেলেনা গোমেজ ধনী কিশোরীদের তালিকায় নাম লেখান। তখন তার আয় ছিল ৫.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। জাস্টিন বিবারের সঙ্গে তার বেশ কয়েকটি ব্যবসায়িক যোগাযোগ থাকার কথা বলা হলেও তার পুরো আয় ছিল নিজস্ব।  ডিজনি চ্যানেলে এলেঙ্ রুশো চরিত্রটির জন্য সেলেনা প্রথম বিশ্ববাসীর নজরে আসেন। তখন অ্যামি এওয়ার্ড বিজয়ী উইজার্ডস অব ওভারলি প্যালেসের জন্য তার প্রতি পর্বে পারিশ্রমিক ছিল ৩০ হাজার মার্কিন ডলার। অভিনয়ের পাশাপাশি তার সংগীত জীবনও বর্ণাঢ্য। কিশোরী বয়সী একজন কণ্ঠশিল্পী হিসেবে তিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। তার তারকাখ্যাতিও আসে সংগীতশিল্পী হিসেবে। ২০১২ সালে ৫.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেন তিনি। তবে গায়িকা হিসেবে প্রথমবারের মতো বিলবোর্ড টপচার্টের শীর্ষে ওঠেন তার প্রথম একক অ্যালবাম 'স্টারস ড্যান্স' প্রকাশের পরপরই। এই কিশোরী কণ্ঠশিল্পী স্টেজ শো করে সবচেয়ে বেশি আয় করেন। তার অ্যালবাম বেস্ট সেলারের তালিকায় উঠে আসার পর সেলেনার আয় বৃদ্ধি পেতে থাকে। গানের সিডির বিক্রি থেকে যে পরিমাণ তিনি আয় করেন তার বেশিরভাগই খরচ করেন বিলাসী জীবনে। স্টেজ শোগুলোতে সেরেনা গোমেজ সর্বাধিক পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

 

সেলেনার বেস্ট ফ্রেন্ড:

সেলেনা গোমেজ সত্যিকারের বন্ধু বলতে একজনকেই বোঝেন। তিনি হলেন আরেক টিনেজ ক্রেজ টেইলর সুইফট। সেলেনা গোমেজের সবচেয়ে কাছের বন্ধু টেইলর সুইফট। সুখে-দুঃখে সবসময়ই টেইলরকে পাশে পান সেলেনা। টেইলর-সেলেনার এই বন্ধুত্ব শুধু প্রশংসনীয়ই নয়, ঈর্ষণীয়ও বটে।টেইলর সুইফটের ব্যাপারে সেলেনা বলেন, “আমার যত সমস্যা সব কিছুর সমাধান থাকে তার কাছে। আমার যত ব্যাথা, একমাত্র সে-ই পারে দূর করতে। টেইলরের যে দিকটা আমার সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে তা হলো, সে জীবনটাকে খুব সহজভাবে দেখে। সবকিছু বিশ্বাস করে। ভালোবাসা, রূপকথা, জীবনসঙ্গী, রাজপুত্র, প্রিন্স চার্মিং...। তার জন্যই এখন আমিও এই সবে বিশ্বাস করি।”

 

লুপাস রোগে আক্রান্ত সেলেনা:

সেলেনা গোমেজ জটিল লুপাস রোগে ভুগছেন। অবশ্য বছর কয়েক আগেই সেলেনার শরীরে এ রোগটি ধরা পড়েছিল। কিন্তু এতদিন বিষয়টি গোপনই রেখেছিলেন ২১ বছর বয়সী এ তারকা সংগীতশিল্পী। লুপাস এমন একটি রোগ যার প্রভাবে শরীরের অ্যান্টিবডি সুস্থ কোষকে আক্রমণ করে বসে। লুপাস রোগে শরীরের ত্বক, কিডনি, ফুসফুস এমনকি হৃদযন্ত্রও অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। সেলেনার মুখের ত্বক কুঁচকানোসহ লুপাস জনিত রোগের অনেক লক্ষণ দেখা দিয়েছে। বর্তমানে মাথাব্যথা এবং ক্ষুধামন্দা বা খাবারের প্রতি অনীহায় ভুগছেন তিনি। চিকিৎসকদের মতে, সুস্থ হয়ে উঠতে চাইলে প্রয়োজনীয়  চিকিৎসা নেওয়ার পাশাপাশি শরীরের প্রতি অনেক বেশি যত্নশীল হতে হবে সেলেনাকে।


মানব সেবায় সেলেনা:

সেলেনা গোমেজের কিন্তু গুণের শেষ নেই। মানবকল্যাণে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। দাঁড়িয়েছেন মানুষের পাশে। ২০০৮ সালে তিনি যুক্ত ছিলেন ‘ইয়োর ভোট কাউন্টস’ কর্মসূচির সঙ্গে। ওই কর্মসূচির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী বারাক ওবামা ও জন ম্যাককেইন সম্পর্কে কিশোর-কিশোরীদের বিস্তারিত তথ্য সরবরাহ করা হয়। একই বছর তিনি সেন্ট জুডস শিশু হাসপাতালের ‘রানওয়ে ফর লাইফ’ তহবিল গঠনে অংশ নেন। পুয়ের্তো রিকোতে ছিন্নমূল কুকুরদের সাহায্য করছে ডু সামথিং ডট ওআরজি নামের প্রতিষ্ঠান। সেলেনা এই প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছাদূত। কঙ্গোতে খনিজ পদার্থ নিয়ে যুদ্ধ আর নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করছেন তিনি। ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত তিনি ‘ডিজনি ফ্রেন্ডস ফর চেঞ্জ’ নামে একটি সংস্থার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সংস্থাটি পরিবেশবান্ধব আচার-ব্যবহারের বিষয়ে আলোকপাত করে। সেলেনা গোমেজ, ডেমি লোভাতো, মাইলি সাইরাস আর জোনাস ব্রাদার্স মিলে ‘সেন্ড ইট অন’ শিরোনামে একটি গান তৈরি করেছেন। গানটি বিক্রি থেকে পাওয়া লভ্যাংশ ‘ডিজনি ওয়ার্ল্ডওয়াইড কনভারসেশন’ শীর্ষক তহবিলে জমা হয়। গানটি বের হওয়ার পর ‘বিলবোর্ড হট হানড্রেড’ তালিকার ২০তম স্থানে অবস্থান করে। ২০০৯ সালে সেলেনা গোমেজ আগে থেকে না জানিয়ে লস অ্যাঞ্জেলেস এলিমেন্টারি স্কুলে গিয়ে ছাত্রছাত্রীদের চমকে দেন। তিনি স্কুলের শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পর সমাজের জন্য কিছু করার জন্য আহ্বান জানান। এমনিভাবে গান আর পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি কাজ করছেন মানুষের জন্য। তাঁর মতে, এই কাজে যে আনন্দ তা আর কিছুতে তিনি পাওয়ার কথা ভাবতেই পারেন না।

সেলেনার কিছু ব্যক্তিগত তথ্য:

  • প্রিয় রং – সবুজ
  • প্রিয় খাবার – পিজা
  • প্রিয় খেলা – বাস্কেটবল
  • প্রিয় ফল – আম
  • প্রিয় মুভি - genre is horror
  • ফেসবুক অ্যাকাউন্ট – Facebook.com/Selena
  • টুইটার অ্যাকাউন্ট - @selenagomez


 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রানী ভিক্টোরিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
রানী ভিক্টোরিয়া (প্রথম পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
মারগারেট থ্যাচারঃ ইতিহাসে লৌহমানবী খ্যাত ব্রিটেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রীসমাজের নিম্নস্তরের সাধারন ঘরের মেয়ের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠার বর্ণাঢ্য এক গল্প
মোহাম্মদ আলী দ্যা গ্রেটেস্টবক্সিং জগতের এক জীবন্ত কিংবদন্তী মোহাম্মদ আলী সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন
পন্ডিত জহরলাল নেহেরু ও এডুইনা মাউন্টব্যাটেনের এক অনবদ্য প্রেমকাহিনীদেশ বিভাগের ঐতিহাসিক সময়ের অদ্ভুত এক প্রেম কাহিনী
থমাস এডওয়ার্ড লরেন্সঃ লরেন্স অব অ্যারাবিয়ালরেন্স অব অ্যারাবিয়াঃ মধ্যপ্রাচ্য গঠনের পেছনের নায়ক
কনকর্ড দি জেট হকবিস্তারিত পড়ুন কনকর্ড দি জেট হক একটি সুপারসনিক বিমানের গল্প
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সূত্রপাতের কারণযে বিষয়গুলোর কারণে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।
‘নূরজাহান’ মুঘল ইতিহাসের এক শক্তিশালী নারী চরিত্রবিস্তারিত পড়ুন মুঘল ইতিহাসের প্রভাবশালী সম্রাজ্ঞী নূরজাহান সম্পর্কে
উইলিয়াম শেকসপিয়ার:ইংরেজি ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক ও নাট্যকার ইংরেজি সাহিত্যের জনক
আরও ১৪২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি