পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

এমা ওয়াটসন: হ্যারি পটার খ্যাত এক অভিনেত্রীর জীবনের গল্প

এমা ওয়াটসন, জনপ্রিয় এক হলিউডি অভিনেত্রীর নাম। ২৪ বসন্ত পার করা এই অভিনেত্রীর অভিনয় জীবনের শুরু হয় খুব অল্প বয়সেই বিখ্যাত ‘হ্যারি পটার সিরিজ’ এর মাধ্যমে। এমা ওয়াটসনের জীবনের জানা-অজানা বিভিন্ন তথ্য এই পেজটিতে তুলে ধরা হয়েছে।

 

জন্ম ও পরিবার

৪ এপ্রিল ১৯৯০ সালে পৃথিবীর বুকে আগমন ঘটে এই অভিনেত্রীর। ফ্রান্সের প্যারিসে তার জন্ম হয়। এমা ওয়াটসন এর বাবার নাম জ্যাকলিন লুসবি এবং মায়ের নাম ক্রিস ওয়াটসন। পেশায় তার বাবা-মা দুজনই ছিলেন ব্রিটিশ আইনজীবী। এমা ওয়াটসনের দাদি ছিলেন ফ্রেঞ্চ। তার দাদীর নাম অনুসারে তার নামকরণ করা হয়।  এমা ওয়াটসনের ৫ বছর বয়সে তার বাবা-মায়ের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপর তার মা এমা ওয়াটসন ও তার ছোট ছেলে অ্যালেক্স ওয়াটসনকে নিয়ে পাড়ি জমান যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডশায়ারে।

পড়াশোনা

প্যারিস থেকে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডে আসার পর সেখানার ‘দ্য ড্রাগন স্কুল’ এ পড়াশোনা করেন ২০০৩ সাল পর্যন্ত। এরপর ভর্তি হন ‘হেডিংটন স্কুল’ এ। ২০০৬ সালে ওয়াটসন জিসিএসই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। এতে তিনি ১০টি পাঠ্য বিষয়ের মধ্যে আটটিতে A* এবং দুইটিতে A গ্রেড অর্জন করেন। ২০০৮ সালের এ লেভেল পরীক্ষাতে ওয়াটসন ইংরেজী সাহিত্য, ভূগোল ও মানবিকে A গ্রেড অর্জন করেন। ২০০৭ সালে এএস (অ্যাডভান্সড সাবসিডিয়ারি) পরীক্ষাতে তিনি মানবিক ইতিহাস বিষয়েও A গ্রেড অর্জন করেন। এরপর ২০১১ থেকে ২০১২ পর্যন্ত অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত অরচেস্টার কলেজে ইংরেজি পড়েন।

 

অভিনয় জীবনের শুরু

৬ বছর বয়স থেকেই সে অভিনেত্রী হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন এমা ওয়াটসন। এই লক্ষ্যে তিনি ‘স্টেজকোচ থিয়েটার আর্টস’ এর অক্সফোর্ড শাখা থেকে সংগীত, নাচ ও অভিনয়ের উপর হাতে কলমে প্রশিক্ষণ নেন। ৯ বছর বয়সে অবশেষে আসে অভিনয়ের সুযোগ। তিনি যে প্রতিষ্ঠানে অভিনয় শিখতেন সেই প্রতিষ্ঠানেই কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য দুটি নাটক হলো - দ্য ইয়ং ইয়ার্স এবং দ্য হ্যাপি প্রিন্স।

 

হ্যারি পর্টারের মাধ্যমে প্রফেশনাল অভিনয়ের যাত্রা শুরু

‘স্টেজকোচ থিয়েটার আর্টস’ এর নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমেই নিজের জাত চিনিয়েছিলেন এমা ওয়াটসন। ১৯৯৯ সালে হ্যারি পটার সিরিজে অভিনয়ের জন্য অভিনেতা-অভিনেত্রী খোঁজা হচ্ছিল। সে সময় জে. কে. রাউলিং ‘স্টেজকোচ থিয়েটার আর্টস’ এর শিক্ষকের মাধ্যমে খোঁজ পান এমা ওয়াটসনের। প্রথম যোগ্যতা পরীক্ষাতেই জে.কে. রাউলিং এর কাছ থেকে পাশ নম্বর পেয়ে যান এমা ওয়াটসন। অথচ তার অন্য সহঅভিনেতা-অভিনেত্রী নির্বাচনে সর্বোচ্চ ৮ বার অডিশন নিতে হয়েছিল। ২০০১ সালে মুক্তি পায় এমা ওয়াটসন অভিনীত হ্যারি পটার সিরিজের ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্ট স্টোন’ মুভিটি। এটি ছিল ২০০১ সালের সর্বোচ্চ ব্যবসা সফল ছবি। এই মুভিটির সফলতার একমাত্র দাবিদার এমা ওয়াটসন না হলেও চলচ্চিত্র বোদ্ধাদের বাহবা কুড়াতে ভুল করেননি। এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে ৫টি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন এমা ওয়াটসন এবং সর্বশেষ ‘ইয়ং আর্টিস্ট’ পুরস্কারটি নিজের ঝুলিতে পুড়েন। হ্যারি পটার সিরিজের ছবিগুলোতে হারমিওন চরিত্রে অভিনয় করে মাত্র দশ বছর বয়সেই তারকা বনে যান তিনি। ওই চরিত্রে অভিনয় করেই বয়স ২৩ পার করেছেন এমা ওয়াটসন।

 

এরপরের বছর ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য চেম্বার অফ সিক্রেটস’ মুভিতে অভিনয় করেন এমা ওয়াটসন। হ্যারি পটার সিরিজের ২য় এই মুভিতে পরিচালক এমা ওয়াটসনকে সেভাবে গুরুত্ব দেননি। যার কারণে মুভিটি মুক্তি পাওয়ার পর মিডিয়ার দুয়োধ্বনি শুনতে হয় পরিচালককে। তার পরও ঝুলিতে পুড়েন ‘জার্মান ম্যাগাজিন ব্র্যাভো’ প্রদত্ত একটি পুরস্কার। ২০০৪ সালে মুক্তি পায় এই সিরিজের ৩য় মুভি ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য প্রিজনার অফ আজকাবান’ মুভিটি। এবারও তার মুকুটে যুক্ত হয়ে বেশ কয়েকটি পালক। এর মধ্যে ২টি অটো অ্যাওয়ার্ড এবং টোটাল ফিল্ম ম্যাগাজিন তাকে ভূষিত করে ‘চাইল্ড পারফরম্যান্স অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কারে। ২০০৫ সালে এই সিরিজের যেই মুভিটি মুক্তি পায় সেটি একটি মাইলফলক অর্জন করে। মুভিটির পাশাপাশি এমা ওয়াটসনও নতুন এক মাইলফলক অর্জন করে। ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার’ নামের এই মুভিটি মুক্তি পাওয়ার ১ম সপ্তাহেই অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে। এই মুভিটি এমার জীবনে নিয়ে আসে বেশকিছু নতুন বিষয়। যেমন – পুরস্কারের মুকুটে যুক্ত হয় ‘অটো অ্যাওয়ার্ড’ এর পালক। সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে ‘টিন ভগ’ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে স্থান করে নেওয়া। এভাবে একে একে হ্যারি পটার সিরিজের পরের মুভিগুলোতেও অভিনয় করেন এমা ওয়াটসন। ২০০৭ সালে এই সিরিজের ৫ম মুভি হিসেবে মুক্তি পায় ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স’।

 

হ্যারি পটার থেকে বিদায়

হ্যারি পটার সিরিজের মুভিগুলোতে তাদেরকেই নেওয়া হয় যারা এখনো বয়:সন্ধিকাল এখনো পেরিয়ে যায় নি। একদিকে বয়:সন্ধিকাল পেরিয়ে যাওয়া অপর দিকে নতুন মুভির অফার। দুই মিলিয়ে হ্যারি পটারের পরবর্তী মুভিতে এমা ওয়াটসনের অভিনয় অনেকটা অনিশ্চিতই হয়ে পড়ে। তবে শেষ মেষ এই সিরিজের আরও দুটি মুভিতে অভিনয় করেন এমা ওয়াটসন। এজন্য অবশ্য তার পারিশ্রমিক দুই গুণ বাড়িয়ে দিতে হয়। এমা ওয়াটসন অভিনীত এই সিরিজের সর্বশেষ মুভিটি হলো ‘হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ডেথলি হ্যালোস’। দুই পর্বে বিভক্ত এই মুভির ১ম পর্ব মুক্তি পায় ২০১০ সালে এবং ২য় পর্ব মুক্তি পায় ২০১১ সালে।

 

এমা ওয়াটসন অভিনীত হ্যারি পটার সিরিজের বাইরের কিছু মুভি

হ্যারি পটার সিরিজের মুভিগুলোতে অভিনয়ের মাঝেই এমা ওয়াটসন অভিনয় করেন ‘ব্যালেট সুজ’ মুভিতে। ২০০৭ সালে এই মুভিটি মুক্তি পায়। কিন্তু মুভিটি দর্শকপ্রিয়তা লাভ করতে ব্যর্থ হলেও ৫.৭ মিলিয়ন দর্শক এই মুভিটি উপভোগ করে। এরপর ২০০৮ সালে অভিনয় করেন অ্যানিমেটেড মুভি ‘নেপোলিয়ন অ্যান্ড বেটসি’ তে অভিনয় করেন। কিন্তু মুভিটি মুক্তি পায় নি।

 

অভিনয় জগত থেকে বিদায় নিতে চেয়েছিলেন এমা

হ্যারি পটার সিরিজে অভিনয় শেষে অভিনয় জগত থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিতে চেয়েছিলেন এমা ওয়াটসন। হ্যারি পটার সিরিজের সর্বশেষ মুভিতে অভিনয়ের পর দুবছর বিরতি নিয়েছিলেন এবং অভিনয়জগত থেকে যতটা সম্ভব দূরে থেকেছিলেন। এই সময়টাতে তিনি জীবনের পথচলাকে অন্যদিকে ঘোরানোর চিন্তাভাবনাও করেছিলেন। কিন্তু শেষমেষ অভিনয়েই তাকে ফিরে আসতে হয়েছে। 

 

সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত তারকা

হ্যারি পটার সিরিজে অভিনয়ের মাধ্যমে এমা ওয়াটসন আয় করেন ১০ মিলিয়ন পাউন্ডেরও বেশি। ২০০৯ এর মার্চে ফোর্বস ম্যাগাজিন ওয়াটসনকে বিশ্বের ষষ্ঠ মূল্যবান তরুণ তারকার মর্যাদা দেয়। ২০১০ এর ফেব্রুয়ারীতে তিনি হলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত নারী তারকা হন।

 

বিশ্বসেরা আবেদনময়ী

২০১৩ সালের বিশ্বসেরা আবেদনময়ী নির্বাচিত হয়েছেন এমা ওয়াটসন। চলচ্চিত্রবিষয়ক সাময়িকী 'এম্পায়ার'র 'সেক্সি অ্যাকট্রেস' শীর্ষক বার্ষিক জরিপে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।  ১০০ জন প্রতিযোগীর মধ্য থেকে ভোটিং পদ্ধতির মধ্যমে এ জরিপ চালানো হয়। এমা ৪০ শতাংশ ভোট পেয়ে শীর্ষ স্থানটি দখল করে নেন।

 

এমা ওয়াটসনের কিছু টুকরো তথ্য

  • ২০০৯ সালে দশকের হাইয়েস্ট গ্রসিংস অ্যাকট্রেস হিসেবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে তাঁর নাম ওঠে ।
  • মাত্র সাত বছর বয়সে ডেইজি প্র্যাট পোয়েট্রি কম্পিটিশনে সেরা হন তিনি!
  • এমা বিড়ালপ্রেমী। তাঁর দুটি বিড়াল আছে, নাম রেখেছেন—বাবলস ও ডমিনো ।
  • তাঁর পছন্দের ছবি নটিং হিল, পছন্দের টিভি অনুষ্ঠান ফ্রেন্ডস, পছন্দের নায়ক জনি ডেপ, পছন্দের নায়িকা জুলিয়া রবার্টস ।
  • স্পোর্টস, ড্যান্স আর শপিং এমার পছন্দ। হকি, টেনিস প্রভৃতি এমার পছন্দ। ব্রাড পিট আর চকোলেটও তার পছন্দ।
  • আমার ফেভারিট কালার নীল আর কালো। এমার ফেভারিট কালার লাইট ব্লু।

 

লাজুক এমা ওয়াটসন

এক সাক্ষাৎকারে নিজেকে অনেক বেশি লাজুক ও অন্তর্মুখী বলে দাবি করেছেন এমা। এমা বলেন, “আমি পার্টি পছন্দ করি না। সত্যি বলতে আমি সত্যিই অনেক লাজুক, সামাজিকভাবে অনেক বেশি বিচ্ছিন্ন, অন্তর্মুখী একজন মানুষ।” সবার সামনে থেকে দূরে থাকার জন্য সময় কাটাতে বাথরুমে গিয়ে বসে থাকেন তিনি। অল্পবিস্তর কথা বলতেই নাকি খুব ভয় করে তার। শুধু ভয় নয়, অনেক বেশি মানুষ থাকলে নাকি অস্থির হয়ে পড়েন জনপ্রিয় এই বৃটিশ অভিনেত্রী!

 

প্রেম-ভালোবাসা

দীর্ঘ দিনের প্রেমিক উইল আড্যামভিচের সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর ব্রিটিশ এই রাগবি খেলোয়াড় ম্যাথিউ জ্যানির সঙ্গে মন দেয়া-নেওয়া চলছে এমা ওয়াটসনের। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় তাদের দুজনকে একসাথে ঘনিষ্ঠ অবস্থায়ও দেখা যাচ্ছে। বন্ধু-বান্ধব কারো নিষেধই মানছেন না এমা ওয়াটসন। 

 

বিউটি আইকন

২০১৩ সালে প্রকাশিত এক জরিপে এক দশকের মধ্যে আইকনিক ব্রিটিশ বিউটি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন এমা ওয়াটসন। বিউটি ব্র্যান্ড এসটি মরিজ পরিচালিত জরিপে তিনি আইকনিক ব্রিটিশ বিউটি খেতাব জয় করেন। তার যে গুণগুলো তাকে এই খেতাব জয়ে সাহায্য করেছে তা হলো - ‘এমা একজন নিখুঁত ব্রিটিশ বিউটি আইকন। তার মধ্যে আছে বিশুদ্ধ ব্রিটিশ চেহারা, তিনি ক্ল্যাসিক এবং ত্রুটিহীন।’

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রানী ভিক্টোরিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
রানী ভিক্টোরিয়া (প্রথম পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
মারগারেট থ্যাচারঃ ইতিহাসে লৌহমানবী খ্যাত ব্রিটেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রীসমাজের নিম্নস্তরের সাধারন ঘরের মেয়ের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠার বর্ণাঢ্য এক গল্প
মোহাম্মদ আলী দ্যা গ্রেটেস্টবক্সিং জগতের এক জীবন্ত কিংবদন্তী মোহাম্মদ আলী সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন
পন্ডিত জহরলাল নেহেরু ও এডুইনা মাউন্টব্যাটেনের এক অনবদ্য প্রেমকাহিনীদেশ বিভাগের ঐতিহাসিক সময়ের অদ্ভুত এক প্রেম কাহিনী
থমাস এডওয়ার্ড লরেন্সঃ লরেন্স অব অ্যারাবিয়ালরেন্স অব অ্যারাবিয়াঃ মধ্যপ্রাচ্য গঠনের পেছনের নায়ক
কনকর্ড দি জেট হকবিস্তারিত পড়ুন কনকর্ড দি জেট হক একটি সুপারসনিক বিমানের গল্প
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সূত্রপাতের কারণযে বিষয়গুলোর কারণে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।
‘নূরজাহান’ মুঘল ইতিহাসের এক শক্তিশালী নারী চরিত্রবিস্তারিত পড়ুন মুঘল ইতিহাসের প্রভাবশালী সম্রাজ্ঞী নূরজাহান সম্পর্কে
উইলিয়াম শেকসপিয়ার:ইংরেজি ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক ও নাট্যকার ইংরেজি সাহিত্যের জনক
আরও ১৪২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি