পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আনা কুর্নিকোভা: এক টেনিস কন্যার হারিয়ে যাওয়ার গল্প

‘আনা কুর্নিকোভা’ এক রাশিয়ান টেনিস কন্যার নাম। খুব বেশিদিন তিনি টেনিস কোর্টে ছিলেন না। তার খেলার যে ধরণ ছিল তাতে টেনিস বিশ্বের ভবিষ্যৎ শাসনকর্তী হিসেবেই তাকে ধরে নিয়েছিলেন টেনিস বোদ্ধারা। মাঝপথেই ইনজুরির কারণে শেষ হয়ে যায় তার টেনিস ক্যারিয়ার। টেনিস থেকে অবসর নিয়েছেন ১০-১১ বছর হয়ে গেছে তারপরও এখনো অগণিত টেনিসপ্রেমীর অন্তরে বিরাজ করেন তিনি। টেনিস ছাড়লেও এখনো ক্যামেরার লেন্স খুঁজে ফেরে এই গ্ল্যামার কুইনকে। আনা কুর্নিকোভার বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

 

 

 

জন্ম ও পরিবার

১৯৮১ সালের ৭ই জুন সোভিয়েত রাশিয়ার মস্কোয় জন্মগ্রহণ করেন কুর্নিকোভা৷ বাবা সের্গেই ছিলেন কুস্তিগির আর মা আলা ছিলেন ৪০০ মিটার দৌড়বিদ।

 

টেনিসের হাতেখড়ি

ছোটবেলা থেকেই আনা ছিলেন খুবই চটপটে আর চঞ্চল। আনা কুর্নিকোভার বয়স যখন ৫ বছর তখন নতুন বছরের উপহার হিসেবে তার বাবা তাকে একটি র‌্যাকেট উপহার দিয়েছিলেন। র‌্যাকেট উপহার পাওয়ার পর সপ্তাহের দুইদিন ছোটদের টেনিস শেখানোর ক্যাম্পে যেতেন। উদ্দেশ্য ছিল শুধুমাত্র মজা করা। এভাবে মজা করতে করতেই বছর দুয়েকের মধ্যে টেনিসে হাত পাকিয়ে ফেলেন কুর্নিকোভা। তাই তার বাবা-মা সিদ্ধান্ত নেন মেয়েকে পেশাদার টেনিস খেলোয়াড় বানানোর। সেই ভাবনা থেকেই আনা কুর্নিকোভার বয়স যখন ১০, তখন তারা সপরিবারে পাড়ি জমান আমেরিকাতে। সেখানে গিয়ে আনা কুর্নিকোভাকে নিক বোল্লেত্তেরির টেনিস একাডেমীতে ভর্তি করে দেন। এটি হলো টেনিস খেলোয়াড়দের তীর্থভূমি। এখান থেকেই প্রশিক্ষণ নিয়েছেন পিট সাম্প্রাস, আন্দ্রে আগাসির মতো কালজয়ী তারকারা।

 

টেনিস কোর্টে কুর্নিকোভা

মাত্র ১৪ বছর বয়সে র‌্যাকেট হাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন আনা কুর্নিকোভা। পেশাদার টেনিসে কুর্নিকোভার অভিষেক হয় ১৯৯৫ সালে। তবে লাইমলাইটে আসতে কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হয় তাকে। ১৯৯৭ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে টেনিসের বিশ্বকাপ উইম্বলডন ওপেনে অংশ নিয়ে চমকে দেন সবাইকে। সেবার শিরোপা জেতা না হলেও সেমিফাইনালে পৌঁছে এবং খেলার ধরন দিয়ে বুদ করে ফেলেন পুরো টেনিস বিশ্ব। টেনিস বোদ্ধারা বলাবলি করা শুরু করে দিয়েছিলো, ‘আগামী দিনের টেনিস বিশ্বের রানী বিশ্ব কাঁপাতে আসছেন’। তাকে জন স্টেফিগ্রাফ, মনিকা সেলেস দের সাথেও তুলনা করা শুরু করে দিয়েছিলেন।

   

 

কিন্তু হলো না

আনা কুর্নিকোভা সম্পর্কে টেনিস বিশ্বের বোদ্ধাদের সকল ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়। টেনিস কোর্টে খুব একটা সফল হতে পারেন নি কুর্নিকোভা। একক ক্যারিয়ারে কোনো শিরোপা না থাকলেও মার্টিনা হিঙ্গিসের সঙ্গে জুটি বেঁধে পরপর দুই বছর ইউএস ওপেন জিতেছিলেন স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড, ম্যাক্সিমসহ বিভিন্ন ফ্যাশন ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে জায়গা করে নেওয়া এ রুশ স্বর্ণকেশী। একে একে ১৭টি ডাবলস জিতেন তিনি৷ এরপর ২০০৩ সালে পিঠের ব্যথার কারণে টেনিস জগৎ থেকে অবসর নিলেও, রুশ টেনিস তারকাদের জন্য পথ তৈরী করে দেন আনা কুর্নিকোভা৷

 

প্রেম-বিয়ে নিয়ে ধুম্রজাল

আনা কুর্নিকোভার প্রেম-বিয়ে নিয়ে তার ভক্তদের মধ্যে অনেক দ্বিধা-দ্বন্ধ ছিল। কারণ ২০০১ সালে কুর্নিকোভা বিয়ে করেন তারই স্বদেশী আইস হকি খেলোয়াড় সার্জেই ফেডরোভকে। ঠিক একই সময়ে আরেক আইস হকি খেলোয়াড় পাভেল বুরের সাথেও কুর্নিকোভার প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে গুঞ্জন ছিল। ফেডরোভের সাথে বিয়ের আগে থেকেই অর্থাৎ ১৯৯৯ সাল থেকেই পাভেলের সাথে কুর্নিকোভার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ২০০৩ সালে কুর্নিকোভার সাথে ফেডরোভের ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপর অবশ্য কুর্নিকোভা ও পাভেলের প্রেমের বিষয়টি সম্পর্কে আর কোনো তথ্য জানা যায় নি। অবশ্য কুর্নিকোভা ও ফেডরোভের বিয়ে সম্পর্কেও কুর্নিকোভার ব্যক্তিগত সহকারী সঠিক কোনো তথ্য জানতেন না। কুর্নিকোভার প্রেম-বিয়ের রহস্যের জট খুলতে না খুলতেই আবার খবর বের হয় যে, পপস্টার এনরিক ইগলেসিয়াসের সাথে প্রেমে মজেছেন তাদের টেনিস-সুন্দরী কুর্নিকোভা। ভক্তদের চোখ কপালে উঠার জোগার হয় যখন তারা জানতে পারে এনরিকের সাথে তার প্রেম সেই ২০০১ সাল থেকেই! ওই বছরেই এনরিকের একটি মিউজিক ভিডিওতে নিজের সৌন্দর্যের ঝলক দেখিয়ে বেড়াচ্ছিলেন কুর্নিকোভা। তারপর ২০০৩ ও ২০০৫ সালে আবার বিয়ের খবরও বের হয়। বিয়ের খবরের সাথে তাল মিলিয়ে দুজনের অস্বীকার খবরও প্রচার হতে থাকে বিশ্ব মিডিয়ায়। সে খবরের সত্য- মিথ্যার পক্ষেও চলতে থাকে নানা কথা। প্রায়ই শোনা যায় কুর্নিকোভা- এনরিক জুটি টিকে আছে এবং শীঘ্রই বিয়েও করতে যাচ্ছেন তারা। তবে ২০১১ সালেই নাকি তারা সেরেই রেখেছেন বিয়ের কাজ, এমন খবরও আছে! কুর্নিকোভার আঙুলে শোভা পাওয়া বিয়ের আংটি এ খবরের পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণও বহন করছে।

 

 

কোর্টের চেয়ে কোর্টের বাইরেই বেশি সফল

টেনিস খেলোয়াড় আনা কুর্নিকোভা টেনিস কোর্টের চেয়ে কোর্টের বাইরের কর্মকাণ্ডেই বেশি সফল হতে দেখা গিয়েছে। গ্ল্যামার, স্টাইল, আবেদন, পাওয়ার এসবের কারণে পণ্যের মুখপাত্র, ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদকন্যা, বিজ্ঞাপনের মডেল, নিউজিক ভিডিওর মডেল, এসব নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়েন কুর্নিকোভা। অবিশ্বাস্য গতিতে বেড়ে চলল ব্যাংক ব্যালান্স। আর নামতে শুরু করল র‌্যাংকিং। স্পন্সর কিংবা ব্রান্ড এ্যাম্ব্যাসেডরদের দৃষ্টিতে পড়ে আয়ের পথ সমৃদ্ধ হলেও ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ র‌্যাংকিং আট।


 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রানী ভিক্টোরিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
রানী ভিক্টোরিয়া (প্রথম পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
মারগারেট থ্যাচারঃ ইতিহাসে লৌহমানবী খ্যাত ব্রিটেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রীসমাজের নিম্নস্তরের সাধারন ঘরের মেয়ের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠার বর্ণাঢ্য এক গল্প
মোহাম্মদ আলী দ্যা গ্রেটেস্টবক্সিং জগতের এক জীবন্ত কিংবদন্তী মোহাম্মদ আলী সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন
পন্ডিত জহরলাল নেহেরু ও এডুইনা মাউন্টব্যাটেনের এক অনবদ্য প্রেমকাহিনীদেশ বিভাগের ঐতিহাসিক সময়ের অদ্ভুত এক প্রেম কাহিনী
থমাস এডওয়ার্ড লরেন্সঃ লরেন্স অব অ্যারাবিয়ালরেন্স অব অ্যারাবিয়াঃ মধ্যপ্রাচ্য গঠনের পেছনের নায়ক
কনকর্ড দি জেট হকবিস্তারিত পড়ুন কনকর্ড দি জেট হক একটি সুপারসনিক বিমানের গল্প
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সূত্রপাতের কারণযে বিষয়গুলোর কারণে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।
‘নূরজাহান’ মুঘল ইতিহাসের এক শক্তিশালী নারী চরিত্রবিস্তারিত পড়ুন মুঘল ইতিহাসের প্রভাবশালী সম্রাজ্ঞী নূরজাহান সম্পর্কে
উইলিয়াম শেকসপিয়ার:ইংরেজি ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক ও নাট্যকার ইংরেজি সাহিত্যের জনক
আরও ১৪২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি