পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

বোয়িং ডিসি – ১০: আকাশের মর্যাদার প্রতীককে আর দেখা যাবে না আকাশে

বাংলাদেশ বিমানের বিমান বহরে রয়েছে এমন এক বিমান যা বিশ্বের অন্য আর কোনো দেশে নেই। এটি হল বোয়িং ডিসি – ১০। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশে এই বিমান আগে ছিল, তারা অনেক আগেই এই বোয়িং ডিসি – ১০ বিমান পরিত্যক্ত ঘোষণা করে। অন্যসব বিমানের চেয়ে এটি অন্য কোনো দিক থেকে আলাদা নয়। এটি মূলত অনেক আগের পুরনো মডেল। সম্প্রতী বিশ্বের বৃহত্তম বিমান নির্মাতা কম্পানি বোয়িং বাংলাদেশের কাছে একটি বিমান চেয়েছে। গবেষণার জন্য নয়, আকাশে ওড়ানোর জন্যও নয়; বাংলাদেশ থেকে বিমানটি নিয়ে জাদুঘরে রাখবে তারা। যে বিমানটি চেয়ে অনুরোধ জানিয়েছে বোয়িং, সেটি একটি ডিসি-১০ বিমান। বোয়িং কোম্পানিই এটি নির্মাণ করেছে।

 

বোয়িং ডিসি – ১০ এর ইতিহাস:

১৯৬৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনীর প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে এ বিমানের জন্ম। বোয়িং ডিসি – ১০ এর যাত্রা শুরু হয় ১৯৬৭ সালে। যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাকডোনেল এয়ারক্রাফট কর্পোরেশন ও ডগলাস এয়ারক্রাফট কোম্পানি একসাথে এই বোয়িং ডিসি – ১০ বিমান নির্মাণ করেন। ১৯৮৯ সালে সর্বশেষ ডিসি-১০ নির্মাণ করে ম্যাকডোনেল-ডগলাস কম্পানি। ওই সময় পর্যন্ত ৩৮৬টি ডিসি-১০ যাত্রীবাহী বিমান নির্মাণ করে বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করা হয় এবং ৬০টি সামরিক ডিসি-১০ বিমান যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনীকে সরবরাহ করা হয়। ৩৮৬টি যাত্রীবাহী ডিসি-১০-এর মধ্যে এখন মাত্র একটি বিমান চালু আছে এবং সেটি রয়েছে বাংলাদেশ বিমানের বহরে। অন্যসব দেশ এ বিমান পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে অনেক আগেই।

 

স্বাধীনতার পর ১৯৮১ সালে বাংলাদেশ বিমানকে শক্তিশালী করার কাজ শুরু হয়। তার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ বিমানের বহরে সর্বপ্রথম ডিসি-১০ যুক্ত হয় ১৯৮৩ সালে। ঐ বছর সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স থেকে চার বছরের পুরনো ৩টি ডিসি-১০ ক্রয় করে বাংলাদেশ। চতুর্থ ডিসি-১০ বিমানটি ১৯৮৮ সালের ডিসেম্বরে সরাসরি ক্যালিফোর্নিয়ার প্রোডাকশন লাইন থেকে কেনে বাংলাদেশ। এরপর ১৯৯৯ এবং ২০০০ সালে আরো দুইটি ডিসি-১০ কেনা হয় কেনাডিয়ান এয়ারলাইন্স থেকে। ১৯৮৩ সালে কেনা তিনটি ডিসি-১০-এর বয়স প্রায় ৩০ বছর। আর ১৯৮৯ সালে কেনা ডিসি-১০-এর বয়স প্রায় ২৩ বছর।  বিভিন্ন সময় যান্ত্রিক ত্রুটি এবং প্রয়োজনী যন্ত্রাংশের অভাবে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় ধাপে ধাপে বিমান বহর থেকে কমিয়ে আনা হয় ডিসি-১০। তবে বিশ্বের সর্বশেষ এবং একমাত্র ডিসি-১০ সিরিজের উড়োজাহাজটি এখনো বাংলাদেশ বিমানের বহরে রয়েছে। যার সর্বশেষ নিয়মিত যাত্রা সম্পন্ন হয়েছে ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪।

 

বিশ্বের অন্যান্য দেশে যে কারণে এই বিমান পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে:

এ উড়োজাহাজটি হচ্ছে সবচেয়ে জ্বালানি ব্যয়বহুল। একটি নতুন উড়োজাহাজের পরিচালনা ব্যয় ঘণ্টায় প্রায় চার হাজার ডলার। তুলনায় পুরনো উড়োজাহাজের খরচ প্রায় ১২ হাজার ডলার। এভিয়েশন বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনো উড়োজাহাজের পরিচালনা ব্যয় আট হাজার ডলারের বেশি হলে সেটিকে বাণিজ্যিকভাবে টিকিয়ে রাখা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু বাংলাদেশে বছরের পর বছর এই বিমানগুলো চলছে। বাংলাদেশ বিমানের এই বিমানগুলো প্রায়ই দুর্ঘটনায় পড়ে। তারপর মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করে সেগুলো মেরামত করা হয়। ব্যয়বহুল হওয়ার কারণে বিশেষজ্ঞরা বারবার এয়ারলাইনসের বহর থেকে ডিসি-১০ সরিয়ে ফেলার পরামর্শ দিলেও তা আমলে নেওয়া হচ্ছে না। এখন ডিসি-১০-এর খুচরা যন্ত্রাংশও বাজারে পাওয়া যায় না।  যাত্রীর নিরাপত্তা বিবেচনায় যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এই উড়োজাহাজের অবতরণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

 

জাদুঘরে নয়, যাচ্ছে ভাগাড়ে!

যুক্তরাষ্ট্রের জাদুঘরে নয়, পুরোনো লোহা-লক্কড়ের (স্ক্র্যাপ) ভাগাড়ে যাচ্ছে বিশ্বের শেষ যাত্রীবাহী ডিসি-১০ উড়োজাহাজ। বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের এই উড়োজাহাজটি ২৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় ফিরিয়ে আনা হবে। এর আগে বিমান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, উড়োজাহাজটি যুক্তরাজ্য হয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে। সেখানে বোয়িং কোম্পানির ‘দ্য মিউজিয়াম অব ফ্লাইটস’ জাদুঘর হবে এর শেষ ঠিকানা। কিন্তু সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, বোয়িং কোম্পানি আগের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে।

 

সময়ের ব্যবধান আর যুগের দাবিতে আজ হয়ত এসব জাহাজ সেকেলে মনে হচ্ছে। কিন্তু একটা সময় ছিল যখন এ সবই ছিল সবচেয়ে মর্যাদার প্রতীক।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রানী ভিক্টোরিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
রানী ভিক্টোরিয়া (প্রথম পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
মারগারেট থ্যাচারঃ ইতিহাসে লৌহমানবী খ্যাত ব্রিটেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রীসমাজের নিম্নস্তরের সাধারন ঘরের মেয়ের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠার বর্ণাঢ্য এক গল্প
মোহাম্মদ আলী দ্যা গ্রেটেস্টবক্সিং জগতের এক জীবন্ত কিংবদন্তী মোহাম্মদ আলী সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন
পন্ডিত জহরলাল নেহেরু ও এডুইনা মাউন্টব্যাটেনের এক অনবদ্য প্রেমকাহিনীদেশ বিভাগের ঐতিহাসিক সময়ের অদ্ভুত এক প্রেম কাহিনী
থমাস এডওয়ার্ড লরেন্সঃ লরেন্স অব অ্যারাবিয়ালরেন্স অব অ্যারাবিয়াঃ মধ্যপ্রাচ্য গঠনের পেছনের নায়ক
কনকর্ড দি জেট হকবিস্তারিত পড়ুন কনকর্ড দি জেট হক একটি সুপারসনিক বিমানের গল্প
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সূত্রপাতের কারণযে বিষয়গুলোর কারণে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।
‘নূরজাহান’ মুঘল ইতিহাসের এক শক্তিশালী নারী চরিত্রবিস্তারিত পড়ুন মুঘল ইতিহাসের প্রভাবশালী সম্রাজ্ঞী নূরজাহান সম্পর্কে
উইলিয়াম শেকসপিয়ার:ইংরেজি ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক ও নাট্যকার ইংরেজি সাহিত্যের জনক
আরও ১৪২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি