পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

লিওনেল মেসি - প্রেম ও অ্যান্তোনেলা রকুজ্জোর সাথে পরিচয়ের ঘটনা

মেসি ও অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো

মেসি ও তার বান্ধবী

মাকারিনা লেমোস নামক এক মেয়ের সাথে মেসির সম্পর্ক ছিল। মেসি পরে বলেছিলেন, ২০০৬ বিশ্বকাপের আগে ইনজুরি সারিয়ে যখন তিনি আর্জেন্টিনায় যান, তখন মেয়ের বাবা ঐ মেয়ের সাথে মেসিকে পরিচয় করিয়ে দেন। লুসিয়ানা স্যালাজার নামক এক আর্জেন্টাইন মডেলের সাথেও তার সম্পর্ক ছিল। ২০০৯ সালে ক্যানাল ৩৩ টেলিভেশন চ্যানেলের ‘‘হ্যাট্রিক বার্সা’’ নামক অনুষ্ঠানে মেসি বলেন, ‘‘আমার একজন মেয়েবন্ধু আছে এবং সে আর্জেন্টিনাতে থাকে। আমি সুখী এবং নিশ্চিন্তে আছি।’’ সিজেস কার্নিভালে ‘অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো’ নামক ঐ মেয়ের সাথে মেসিকে দেখা যায়।

অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো এর সাথে মেসি

‘রকুজ্জো’ রোজারিওর স্থানীয় অধিবাসী। মেসি স্পেনে থাকা সত্বেও রকুজ্জো এবং তার পরিবারের সাথে সুনিবিড় বন্ধন রক্ষনাবেক্ষন করে চলেছেন। তার কথার মাধ্যমেই এই বন্ধন সম্পর্কে বোঝা যায়। মাঝে মাঝে মেসি কিছুটা আলাদা ধরনের স্পেনীয় ভাষায় কথা বলেন, যেমনটি রোজারিওর স্থানীয় মানুষেরা বলে থাকেন। তিনি প্রতিনিয়তই রোজারিওতে তার কিছু বন্ধুর সাথে ফোন বা বার্তার মাধ্যমে যোগাযোগ করে থাকেন, যাদের অধিকাংশই ‘‘দ্য মেশিন অব ‘৮৭’’ এর সদস্য ছিলেন। একদিন বুয়েনোস আইরেসে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে ট্রেনিং শেষে তিনি রকুজ্জো’র পরিবারের সাথে ডিনার করতে এবং রাত কাটানোর জন্য গাড়িতে করে রোজারিওর উদ্দেশ্য যাত্রা করেন এবং পরের দিন ট্রেনিং শুরু হওয়ার আগে বুয়েনোস আইরেসে ফিরে আসেন। মেসি রোজারিওতে তার পুরনো বাড়ির মালিকানাও রেখে দিয়েছেন, যদিও তার পরিবার বাড়িটি আর ব্যবহার করেনা।

ইকুয়েডরের বিপক্ষে মেসি গোল করে বল জার্সির ভেতর ঢুকিয়ে মেয়ে বন্ধু গর্ভবতী হওয়ার ইঙ্গিত প্রকাশ করেন

২০১২ সালের ২ জুন ইকুয়েডরের বিপক্ষে মেসি একটি গোল করেন ও একটি গোলে সহায়তা করেন। গোল করার পর তিনি বলটি তার জার্সির ভেতর ঢুকিয়ে নেন, যা তার মেয়েবন্ধুর গর্ভবতী হওয়ার ইঙ্গিত বহন করে। রকুজ্জো তার টুইটারে পোস্ট করেন যে তিনি সেপ্টেম্বরে সন্তান জন্ম দিতে যাচ্ছেন। মেসি নিশ্চিত করেন যে এটি একটি ছেলে শিশু, সে অক্টোবরে জন্মগ্রহন করবে এবং তিনি ও তার মেয়েবন্ধু শিশুটির নাম থিয়াগো রাখার পরিকল্পনা করেছেন। তবে থিয়াগোর জন্ম একটু পরেই হয়।

 

মেসি জুনিয়র-'থিয়াগো'র আগমন

বান্ধবী অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো এবং মেসি ও ‘মেসি জুনিয়র’-‘থিয়াগো’

বর্তমান বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের অন্যতম লিওনেল মেসি ২০১২ সালের ২ নভেম্বর রাতে বাবা হন। বান্ধবী অ্যান্তোনেলা রকুজ্জো কোলজুড়ে এসেছে ‘মেসি জুনিয়র’-‘থিয়াগো’। বার্সেলোনার ন্যু ক্যাম্প স্টেডিয়ামের ৭০০ মিটার দূরের ডেক্সাস হাসপাতালে জন্ম নিয়েছে মেসির প্রথম সন্তান। পুত্র সন্তানের মুখ দেখার জন্য শুক্রবার অনুশীলন না করে বার্সেলোনার হাসপাতালে ছুটে গিয়েছিলেন ২৫ বছর বয়সী মেসি। বান্ধবী রকুজ্জোও ওইদিনই হাসপাতালে ভর্তি হন। এর কিছুক্ষণ পরই সন্তানের জন্ম দেন তিনি। পুরো প্রক্রিয়ার সময় মেসি হাসপাতালেই ছিলেন। দু’জনে আগেই বাচ্চাটির নাম রেখেছিলেন থিয়াগো। পিতা হওয়ার সংবাদটি নিজেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে সারা বিশ্বকে জানিয়েছেন মেসি। তাতে তিনি লিখেছেন, ‘‘আজ আমি বিশ্বের সবচেয়ে সুখী মানুষ, আমার সন্তান জন্মগ্রহন করেছে এবং এই উপহারের জন্য সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ।’’ বার্সেলোনাও তাদের ক্লাবের ওয়েবসাইটে দিয়েছে ছোট্ট একটা বিবৃতি, ‘লিও মেসি এখন বাবা।’ স্পেনেই ভূমিষ্ঠ হয়েছে মেসি তনয় থিয়াগো।

 

লিও মেসি ফাউন্ডেশন - সুবিধা বঞ্ছিত শিশুদের সহায়তা

মেসি ২০০৭ সালে ‘‘লিও মেসি ফাউন্ডেশন’’ প্রতিষ্ঠা করেন। এই সংস্থা সুবিধা বঞ্ছিত শিশুদের শিক্ষা ও স্বাস্থের প্রতি নজর রাখে। শৈশবে মেসিরও শারীরিক সমস্যা ছিল, তাই এই সংস্থা আর্জেন্টিনার রোগাক্রান্ত শিশুদের স্পেনে নিয়ে গিয়ে চিকিত্‍সার ব্যবস্থা করে এবং যাতায়াত, চিকিত্‍সা ও অন্যান্য ব্যয় বহন করে। এই সংস্থার জন্য মেসি নিজে সহায়তা করার পাশাপাশি চাঁদা সংগ্রহ করে থাকেন। এছাড়াও হার্বালাইফ নামক একটি বহুমুখী বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান লিও মেসি ফাউন্ডেশনের সহায়তা করে থাকে।

মেসি ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত এবং মেসির 'লিও মেসি ফাউন্ডেশন'

২০১০ সালের ১১ মার্চ, মেসিকে ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে ঘোষনা করা হয়। শুভেচ্ছা দূত হিসেবে মেসির লক্ষ্য শিশুদের অধিকার রক্ষা। এক্ষেত্রে মেসিকে সহায়তা করে থাকে তার নিজের ক্লাব বার্সেলোনা। বার্সেলোনাও ইউনিসেফের সাথে নানাবিধ কর্মকন্ডে জড়িত। এছাড়া মেসি তার সাবেক ক্লাব নিওয়েল’স ওল্ড বয়েজের স্টেডিয়ামের ভেতরে ক্লাবের যুব প্রকল্পের জন্য একটি শয়নাগার তৈরিতে আর্থিকভাবে সহায়তা প্রদান করেন। এমনকি একটি নতুন ব্যায়ামাগারও তৈরি করে দেন। এতে করে নিওয়েল’স এর সাথে মেসির বন্ধন আরও দৃঢ় হয়। তারা মেসির ছেলে সন্তান থিয়াগোকে একটি বিশেষ সদস্যপত্র দেওয়ার পরিকল্পনাও করেছেন। ২০১৩ সালের মার্চে, মেসি তার জন্মভূমি আর্জেন্টিনার রোজারিওতে একটি শিশু হাসপাতালে ৬০০,০০০ ইউরো অনুদান প্রদান করেন। এই অর্থ ব্যয় হয় ভিক্টর জে ভিলেলার শিশু হাসপাতালের অনকোলজি ইউনিটের পুনঃ সংস্কারের কাজে। সেইসাথে ডাক্তারদের প্রশিক্ষণের জন্য বার্সেলোনায় ভ্রমনের জন্যেও এই অর্থ ব্যয় করা হয়।

 

সবচেয়ে ধনী ফুটবলারদের তালিকায় মেসি

২০১২ সালের মার্চে ফুটবল ভিত্তিক ফরাসি ম্যাগাজিন ফ্রান্স ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ফুটবলারদের তালিকায় মেসিকে শীর্ষস্থানে রাখে। ৪৪.৬৮ মিলিয়ন ইউএস ডলার বার্ষিক আয় নিয়ে ডেভিড বেকহ্যাম ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে পেছনে ফেলে তিনি শীর্ষস্থান দখল করেন। বেতন, বোনাস ও মাঠের বাহিরের বিভিন্ন মাধ্যম হতে তিনি এই অর্থ আয় করে থাকেন। তার সর্বমোট সম্পত্তি হিসাব করা হয়েছে ১১৫ মিলিয়ন ইউএস ডলার।

 

বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত ফুটবলার মেসি

বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত ফুটবলার মেসি

২০১২ সালের ডিসেম্বরে, বার্সেলোনা ঘোষণা যে মেসি পাঁচ বছরের জন্য চুক্তি নবায়ণ করতে যাচ্ছেন যার মাধ্যমে তিনি ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় থাকবেন। এই চুক্তিতে তার পারিশ্রমিক বাড়িয়ে করা হয় ১৬ মিলিয়ন ইউরো (২১.২ মিলিয়ন ডলার), যা তাকে বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত ফুটবলারে পরিণত করে। স্পেনে এই স্তরের আয়ের আয়কর বন্ধনী ৫৬% হওয়ায়, বার্সাকে মেসির পক্ষে আয়কর দিতে হবে ২০ মিলিয়ন ইউরোর (২৬.৫ মিলিয়ন ডলার) চেয়ে সামান্য বেশি।

 

মিডিয়া ও টাইম ম্যাগাজিনে মেসি

প্রো ইভলিউশন সকার ২০০৯ ও প্রো ইভলিউশন সকার ২০১১ ভিডিও গেম দুটির কভারে মেসির ছবি ব্যবহার করা হয়। এছাড়া, গেম দুটির প্রচারমূলক অভিযানের সাথেও তিনি জড়িত ছিলেন। প্রো ইভলিউশন সকার ২০১০ গেমটির কভারে ফের্নান্দো তোরেসের সাথে মেসির ছবি ব্যবহার করা হয়। ২০১১ সালের নভেম্বরে, প্রো ইভলিউশন সকারের প্রধান প্রতিদ্বন্দী ফুটবল গেম সিরিজ ফিফা’র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইলেক্ট্রনিক আর্টস ঘোষনা করে, ২০১২ সালে তাদের আসন্ন ভিডিও গেম ফিফা স্ট্রিটের কভারে মেসির ছবি ব্যবহার করা হবে। ইলেক্ট্রনিক আর্টসের ফিফা ২০১৩ ভিডিও গেমটির কভারেও মেসির ছবি ব্যবহার করা হয়। জার্মান খেলাধূলার সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এডিডাস মেসির স্পন্সর। তাকে আডিডাসের টেলিভিশন বিজ্ঞাপনেও দেখা যায়। ২০১০ সালের জুনে মেসি হার্বালাইফের সাথে তিন বছরের একটি চুক্তি সাক্ষর করেন। এই প্রতিষ্ঠানটি লিও মেসি ফাউন্ডেশনের কাজেও সহায়তা করে। মেসি টাইম ম্যাগাজিন কর্তৃক প্রকাশিত ‘টাইম ১০০’ এর তালিকায় ২০১১ সালে টানা দুইবার জায়গা পান। প্রতি বছর বিশ্বের ১০০ জন সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তিকে নিয়ে এই তালিকা তৈরি করা হয়।

 

ফেসবুকে লিওনেল মেসি

লিওনেল মেসি'র ফেসবুক ফ্যান পেজ

২০১১ সালের এপ্রিলে, মেসি তার ফেসবুক পাতা চালু করেন। মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যেই পাতার অনুসারীর সংখ্যা ৬০ লক্ষ ছাড়িয়ে যায়। ২০১৩ সালের নভেম্বর অনুসারে তার পাতায় অনুসারীর সংখ্যা পাঁচ কোটিরও বেশি।

মেসি'র ফেসবুক ফ্যান পেজ লিঙ্ক: 

 

খাটি স্বর্ণে মেসির বাঁ পায়ের প্রতিকৃতি

২০১৩ সালের মার্চে, খাটি স্বর্ণ দ্বারা মেসির বাঁ পায়ের একটি প্রতিরূপ তৈরি করা হয়। যা জাপানে ৫.২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে বিক্রিত হয়। ২৫ কিলোগ্রাম ওজনের প্রতিরূপটি নির্মান করেন জাপানী গহনা নির্মাতা গিনজা তানাকা। তিনি এটি নির্মান করেন মেসির টানা চতুর্থ ব্যালোন দ’অর জয়কে স্মরণীয় করে রাখার জন্য।

 

আরও দেখুন:

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
রানী ভিক্টোরিয়া (দ্বিতীয় পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
রানী ভিক্টোরিয়া (প্রথম পর্ব)ব্রিটেনে রাজতন্ত্রের ভূমিকা নতুন করে নির্ধারণ করেছিলেন যিনি
মারগারেট থ্যাচারঃ ইতিহাসে লৌহমানবী খ্যাত ব্রিটেনের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রীসমাজের নিম্নস্তরের সাধারন ঘরের মেয়ের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠার বর্ণাঢ্য এক গল্প
মোহাম্মদ আলী দ্যা গ্রেটেস্টবক্সিং জগতের এক জীবন্ত কিংবদন্তী মোহাম্মদ আলী সম্পর্কে বিস্তারিত পড়ুন
পন্ডিত জহরলাল নেহেরু ও এডুইনা মাউন্টব্যাটেনের এক অনবদ্য প্রেমকাহিনীদেশ বিভাগের ঐতিহাসিক সময়ের অদ্ভুত এক প্রেম কাহিনী
থমাস এডওয়ার্ড লরেন্সঃ লরেন্স অব অ্যারাবিয়ালরেন্স অব অ্যারাবিয়াঃ মধ্যপ্রাচ্য গঠনের পেছনের নায়ক
কনকর্ড দি জেট হকবিস্তারিত পড়ুন কনকর্ড দি জেট হক একটি সুপারসনিক বিমানের গল্প
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সূত্রপাতের কারণযে বিষয়গুলোর কারণে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।
‘নূরজাহান’ মুঘল ইতিহাসের এক শক্তিশালী নারী চরিত্রবিস্তারিত পড়ুন মুঘল ইতিহাসের প্রভাবশালী সম্রাজ্ঞী নূরজাহান সম্পর্কে
উইলিয়াম শেকসপিয়ার:ইংরেজি ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক ও নাট্যকার ইংরেজি সাহিত্যের জনক
আরও ১৪২ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি