পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আর্কাইভ: ২৫ অক্টোবর, ২০১৩

আপডেটঃ  ২৫ অক্টোবর


 

  • আমাদের অনেকেরই অভ্যাস আছে, কাজের ফাঁকে, প্রয়োজনে বা অপ্রয়োজনে, আঙ্গুল ফোটানোর। আঙ্গুল ফোটালে একধরনের জোড়ালো "ক্র্যাকিং" শব্দও হয়। সাধারণত ধারণা করা হয়, আঙ্গুল মোচড়ানোর সময় হাড়ে হাড়ে ঘষা লেগে বুঝি শব্দ হয়। ব্যাপারটা আসলে সে রকম নয়। সেখানে হাড়ের মধ্যে ঘষা লাগেনা। আমরা যখন আঙ্গুল ফোটাই, আঙ্গুল গুলোকে আমরা সাধারনত এমন পরিমান বেন্ডিং করি, যেটা সাধারন ভাবে আঙ্গুলের পক্ষে হওয়া সম্ভব নয়। আমাদের জয়েন্ট গুলোর চারপাশে একধরনের ফ্লুইড থাকে, যেটাকে বলা হয় - সাইনোভিয়াল ফ্লুইড। যখন আমরা এভাবে আঙ্গুল গুলোকে তাদের স্বাভাবিক অবস্থা থেকে সরিয়ে আনি, এই ফ্লুইডে একধরনের ভ্যাকুয়াম সৃষ্টি হয় এবং একটা বাবল তৈরী হয়, যেটা একদম সাথে সাথেই ভেঙ্গে যায়। এই বাবল ফাটার শব্দটাই হচ্ছে, আঙ্গুল ফোটানোর শব্দের উৎস।  

 

  • আমরা প্রায়শই বলে থাকি মিটি-মিটি তারা। লক্ষ্য করলে দেখেবেন, তারাদের থেকে এক ধরনের ছটা বের হয় এবং ৬ টি বিভিন্ন দিক থেকে এদের তন্তুগুলো প্রসারিত। কিন্তু আসল কথা হল দূরবর্তী যেকোনো আলোক-রশ্মি থেকেই আমরা এ রকম ছটা দেখে থাকি। আসলে তারা থেকে বা কোন আলোক রশ্নি  থেকেই এই রকম ছটা বের হয় না। এই রকম ছটা দেখার কারন আমাদের চোখ নিজেই। যদি আমাদের চোখের গঠনের দিকে তাকাই তাহলে দেখতে পাব, আমাদের চোখটি গঠিত এক ধরনের কেলাসিত লেন্স দ্বারা এবং ছয়টি দিক থেকে বিভিন্ন তন্তু দ্বারা প্রসারিত। আর এই কেলাসিত লেন্সের গঠন মোটেও স্বচ্ছ নয়। তাই দূর থেকে যখন আমাদের চোখে এই রকম কোন আলোর বিন্দু এসে পড়ে তখন কেলাসিত লেন্সের অরিয় প্রতিফলনের ফলে আমরা এই ছয় বিন্দুর তারকা রুপ দেখি। তার মানে তারারা তারার মত ছয় কোনাচে নয়। আর এই ছয় কোনাচে আলো যখন আমাদের বায়ুমণ্ডলের অসম মাধ্যম যেমন- বিভিন্ন মানের তাপ,ঘনত্ব,গ্যাসীয় স্তর এর মধ্য দিয়ে আসে তখন তা আলোর প্রতিসরনের কারনে সোজা পথ থেকে দূরে সরে কখনো অভিসারী আবার কখনো প্রতিসারী আলোক বিন্দুতে পরিনত হয়। তার ফলে বার বার আলোর উজ্জ্বলতার রদবদল ঘটে। তাই দূর থেকে আমাদের কাছে মনে হয় তারারা যেন মিটিমিটি জ্বলছে। তবে যাই হোক না কেন, এটি প্রকৃতিরই এক কারসাজী। আর অবশ্যই অনেক মনমুগ্ধকর তো বটেই। ছোট বেলায় তারা আঁকতে গিয়ে তারার যে সিম্বল (✶) আমরা আঁকতাম, তার আইডিয়া আলোর এই ছয় দিকে বিস্তৃত রশ্মি থেকে এসেছে।

 

 

  • বিশ্বের অন্যতম প্রতিষ্ঠিত গাড়ি কোম্পানি AUDI-এর বাই-সাইকেল, যা ঘন্টায় ৮০ কিলোমিটার চলতে সক্ষম।

 

 

 

  • জাপানেই শুধু মাত্র চারকোনা তরমুজ পাওয়া যায়।

 

 

 

 

  • ‘গোবেকলি তেপে’- তুরস্কের উরফা শহর থেকে ১০ কি.মি. দূরে অবস্থিত। এটিই কোনো মানব সভ্যতার তৈরী বিশ্বের সর্বপ্রথম মন্দির।

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
আর্কাইভ: ০২ জুন, ২০১৪বৈবাহিক জীবন ৫০বছর হলে সেই দম্পতিকে প্রেসিডেন্ট পদক দেয়া হয় - পোল্যান্ডে ! আরও দেখতে
আর্কাইভ: ২৫ মে, ২০১৪বিশ্বের সবচাইতে ধনী ৩ জন লোকের মোট টাকার পরিমান গরীব ৪৮ টি দেশের মোট টাকার চাইতেও বেশি। আরও দেখতে
আর্কাইভ: ২৪ মে, ২০১৪য়েস্ট ইন্ডিজ লিজেন্ড স্যার গ্যারি সোবার্স একমাত্র ব্যাক্তি যিনি ক্রিকেট এবং ফুটবল উভয় বিশ্বকাপ খেলেছেন। আরও দেখতে
আর্কাইভ: ২৩ মে, ২০১৪Underground একমাত্র শব্দ যার শুরু এবং শেষে und অক্ষরগুলো আছে। আরও দেখতে
আর্কাইভ: ২১ মে, ২০১৪জিদান তার পুরো ক্যারিয়ারে কখনও অফসাইড হন নি! আরও দেখতে
আর্কাইভ: ১৯ মে, ২০১৪বিষ প্রয়োগে ঢলে পড়ার সময় পিঁপড়া সবসময় তার ডান দিকে ঢলে পড়ে! ইঁদুর আর ঘোড়া কখনো বমি করেনা! আরও দেখতে
আর্কাইভ: ১৮ মে, ২০১৪বাদুড়ের পায়ের হাড্ডি এতটাই নরম যে, এরা হাঁটতে পারে না! আরও দেখতে
আর্কাইভ: ১৭ মে, ২০১৪গরুর গন্ধশক্তি প্রবল। এটি প্রায় ৬ মাইলদূর থেকে কোনো কিছুর গন্ধপেতে পারে! আরও দেখতে
আর্কাইভ: ১৬ মে, ২০১৪মানুষের শরীরের রক্ত শরীরের ভেতর প্রতিদিন ১৬ লাখ ৮০ হাজার মাইল সমান পথ অতিক্রম করে। আরও দেখতে
আর্কাইভ: ১২ মে, ২০১৪গ্যালিলিও দূরবীন আবিষ্কার করার আগে মানুষ খালি চোখে আকাশে মাত্র পাঁচটি গ্রহ দেখতে পেতো! আরও দেখতে
আরও ১৪০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি