পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

গুলশান ২ ডিসিসি মার্কেট

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের অধীন এই মার্কেটটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৮ সালে। এটি গুলশান এলাকার একটি প্রখ্যাত মার্কেট।

 

ঠিকানা ও অবস্থান

গুলশান-২, ঢাকা-১২১২।

মহাখালি থেকে গুলশান ২ গোলচত্ত্বর থেকে গুলশান ১ এর দিকে যেতে ৪০-৫০ গজ এগিয়ে হাতের বামে অবস্থিত।

 

ভবন ও দোকান

মার্কেটটি দ্বি-তল ভবনে অবস্থিত। দু’টি তলাতেই দোকান রয়েছে। মার্কেটে প্রবেশের জন্য দু’টি প্রবেশ পথ রয়েছে।

 

প্রধান প্রধান পণ্য সামগ্রী

 

হ্যান্ডিক্রাফট

এই মার্কেটে প্রায় ১২ টি হ্যান্ডিক্রাফটের দোকান রয়েছে। এই দোকানগুলোতে পাওয়া পণ্যগুলো হল- মূর্তি, লাইট, টেলিগ্রাফ, ঘড়ি, হিন্দু ধর্মীয় মূর্তি, কাঠের আলমারি, কাঠের বক্স। এই আইটেমগুলো ঢাকার ধামরাই ও চট্রগ্রাম থেকে সংগ্রহ করা হয়। এই আইটেমগুলো পিতল, সেগুন কাঠ দিয়ে তৈরি।

হ্যান্ডিক্রাফটের কালেকশনগুলো ভাড়া দেয়া হয়। ভাড়া দেয়ার সময় পণ্যের সমমূল্যে পরিমাণ টাকা জামানত হিসেবে জমা রাখা হয়। পণ্য ফেরত দেয়ার সময় জমাকৃত টাকার ১০% ভাড়া বাবদ রেখে বাকি টাকা ফেরত দেয়া হয়।

হ্যান্ডিক্রাফটের কালেকশনগুলো অনন্য হওয়ায় ক্রেতারা এখানে আসে।

ক্রেতার চাহিদা মাফিক পণ্যের অর্ডার নেয়া হয়। তবে যেহেতু পণ্যগুলোর প্রাপ্তি সংগ্রহের উপর নির্ভর করে। তাই পণ্য পাওয় যাবে এমন কোন নিশ্চয়তা নেই।

 

আর্ট গ্যালারি

০১.) এই মার্কেটে কয়েকটি আর্ট গ্যালারি রয়েছে। এসব আর্ট গ্যালারিতে সাধারণত ছবি বিক্রি ও ছবি বাঁধাই করা হয়।

০২.) এই মার্কেটের আর্টের দোকানগুলোতে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ছবি বিক্রি করা হয়।

০৩.) এছাড়া এখানে প্রখ্যাত শিল্পীদের ছবি পাওয়া যায় তবে, সেগুলো বিক্রির জন্য নয়। প্রখ্যাত শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন।

ক) শিল্পাচার্জ জয়নুল আবেদীন।

খ) এস এম সুলতান।

গ) রফিকুন নবী।

ঘ) কামরুল হাসান।

ঙ) শাহাবুদ্দীন।

চ) রনজিত দাস।

এই মার্কেটের সবচেয়ে বিখ্যাত আর্টের দোকান হল-

 

সাজু আর্ট গ্যালারী

ফোন- ৯৮৯৫৯৪০

ফ্যাক্স- ৮৮২২৫৫

ই-মেইল- [email protected]

 

স্পোর্টস আইটেম

এই মার্কেটের স্পোর্টস আইটেমের দোকানগুলোতে ফুটবল, ক্রিকেট, টেনিস, গলফ, সুইমিং, বেসবল, বাস্কেটবল, ব্যান্ডমিন্টন, হ্যান্ডবল, রাগবি খেলার সকল ধরনের পণ্য সামগ্রী পাওয়া যায়। পণ্যগুলো সাধারণত সিঙ্গাপুর, চায়না, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, জাপান ইত্যাদি দেশের হয়ে থাকে। তবে এখানকার দোকানগুলোতে দেশীয় ব্র্যান্ডের পণ্য বিক্রি হয়না। আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে রয়েছে- এডিডাস, নাইকি, উইলসন, পোলো অন্যতম।

 

পার্ল সেন্টার

এই মার্কেটের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পণ্য হল মুক্তোর গহনা। এখানাকার দোকানগুলোতে পার্লের (মুক্তোর) গহনা পাওয়া যায়। তবে এই পার্ল চাষ করা ঝিনুক থেকে আহরিত হয়।

 

শোপিস দোকান

এই মার্কেটের শোপিসের দোকানে থাইল্যান্ডের তৈরি নানাধরনের শোপিস পাওয়া যায় এবং লোকান শোপিস ও পাওয়া যায়। থাইল্যান্ডের পণ্যগুলো গ্লাস স্টেইনলেস স্টিল ও ফেব্রিকসের তৈরি এবং লোকাল পণ্যগুলো সাধারণত পোড়া মাটির তৈরি। এই শোপিসগুলো ফিক্সড প্রাইজে বিক্রি করা হয়। এইখানে হোম  ডেকোরেটরও পাওয়া যায়।

 

লেদার সেন্টার

এই মার্কেটে কয়েকটি লেদার প্রডাক্টের দোকান রয়েছে। লেদারের পণ্যগুলো সবই আমাদের দেশি অর্থাৎ লোকাল। পণ্যগুলো হল- জুতা, সেন্ডেল, ব্যাগ, পার্টস, ব্রিফকেস, মানিব্যাগ, ট্রাভেল ব্যাগ, জ্যাকেট, কোটি, বেল্ট।

কয়েকটি উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠান/দোকান

ক) গ্যালারি অ্যাপেক্স।

খ) আমিন জুয়েলার্স।

গ) পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের ব্রোকারেজ হাউজ।

ঘ) Band box লন্ড্রি ও ড্রাইক্লিনিং সার্ভিস।

ঙ) Haier এর শোরুম।

চ) Mr.Baker কেক ও পেস্ট্রি শপ।

 

কসমেটিকস ও স্টোর

এখানকার থাকা কসমেটিকসের দোকানগুলোতে বিদেশি কসমেটিকস পাওয়া যায়। কসমেটিকসের দোকানগুলোতে পাওয়া পণ্যগুলো হল- ঘড়ি, ল্যান্ডফোন, মোবাইল, ক্যামেরা, কাফলিং, সানগ্লাস, মেয়েদের নানা প্রসাধনী, লাইটার, আন্ডার গার্মেন্টস, তোয়ালে, শার্ট, হাফ শার্ট, ফুল শার্ট, তৈজসপত্র, বাচ্চাদের খেলনা, ক্রিস্টাল শোবিস, টেবিলঘড়ি, মেয়েদের ব্যাগ ও ছেলেদের অফিস ব্যাগ।

এই মার্কেটের নিচতলায় কয়েকটি ফার্মেসী রয়েছে, যেখানে ডাক্তার দেখানোর ব্যবস্থাও রয়েছে।

 

বাইরের যেসব দেশের পণ্য এখানে পাওয়া যায়

বিদেশি পণ্যগুলো সাধারণত সিঙ্গাপুর, চায়না, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া এবং জাপান থেকে আমদানিকৃত।

 

বিদেশি ক্রেতা

ক) এই মার্কেটে বিদেশি ক্রেতা আসে।

খ) বিদেশিদের সাহায্য করার জন্য পথশিশুদের অবস্থান মার্কেট কমপ্লেক্সের গাড়ি পার্কিং এলাকায়।

 

বিবিধ

ক) এখানে বারগেইন এবং ফিক্সড প্রাইজ দুই ধরনের দোকানই রয়েছে।

খ) এই মার্কেটের প্রায় প্রত্যেক দোকানে বিল প্রদানের ক্ষেত্রে কার্ড ব্যবহার করা হয়।

গ) এই মার্কেটে কোন পণ্য পাইকারি বিক্রি হয় না।

ঘ) মুক্তার দোকান, সাজু আর্ট গ্যালারী এরূপ বিশেষ ধরনের দোকান এখানে থাকায় এখানে ক্রেতার সমাগম বেশি হয়।

ঙ) এই মার্কেটের নিচতলায় বামপাশে মিঃ বেকার এবং ডান পাশে একটি দোকান রয়েছে। কোল্ডড্রিংকস, সফটড্রিংকস পাওয়া যায়।

 

মার্কেটের ভেতরের পরিবেশ

ক) এই মার্কেটে পর্যাপ্ত আলো বাতাসের ব্যবস্থা রয়েছে।

খ) বৃষ্টি হলে মার্কেটের ভেতর পানি পড়ার কোন সুযোগ নেই।

গ) অগ্নি নির্বাপণের জন্য মার্কেটের ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় ফায়ার ডিসটিনগুইশার রয়েছে।

 

টয়লেট ব্যবস্থা

মার্কেটের ভেতরে টয়লেট ব্যবস্থা রয়েছে। পুরুষ ও মহিলাদের জন্য  আলাদা টয়লেট রয়েছে।

 

গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা

ক) নিজস্ব গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা রয়েছে। এই মার্কেটের বিশাল পরিসরে গাড়ি পার্ক করা যায়। প্রায় ১৮০ থেকে ২০০টি গাড়ি পার্ক করা যায়। এই মার্কেটের মার্কেট ভবনের সামনে খোলা জায়গায় গাড়ি পার্কিয়ের স্থান অবস্থিত।

খ) গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য কোন চার্জ দিতে হয় না।

 

খোলা-বন্ধের সময়সূচী

প্রতিদিন এটি সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকে এবং সাপ্তাহিক সোমবার দিন বন্ধ থাকে।

 


নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
সিঙ্গারমতিঝিল, দিলকুশা
আইপিএসএ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য রয়েছে
গ্রীন লাইফ মার্কেটিং কোম্পানীপল্টন, পল্টন
পাওয়ার ইয়ার্ড (প্রাঃ) লিঃN\A, N\A
মাওলানা ভাষানী স্টেডিয়াম মার্কেটপল্টন, গুলিস্তান
মাস্টারমাইন্ড বাংলাদেশধানমন্ডি, ধানমন্ডি
অমনি লাইটস্ N\A, N\A
লাইটিং প্যালেসগুলশান, গুলশান ১
স্যামসাং ইলেকট্রনিকসশাহবাগ, পুরানা পল্টন
এলজি-বাটারফ্লাই শো-রুমতেজগাঁও, বিজয় সরণি
আরও ১৬ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি