রূপনগর কাঁচা বাজার, পল্লবী

রূপনগর বাসস্ট্যান্ড থেকে শিয়াল বাড়ীর দিকে যাওয়ার পথে প্রায় ১০০ গজ সামনে হাতের বাম পাশে এই কাঁচা বাজারটি অবস্থিত। সপ্তাহের ০৭ (সাত) দিনই সকাল ৬.০০ টা থেকে রাত ১১.৩০ টা পর্যন্ত বাজারটি সকলের জন্য খোলা থাকে। এই কাঁচা বাজারের ফ্লোরটি পাকা।

 

বিভিন্ন পণ্যের দোকান ও সংখ্যা

  • তরকারীর দোকান ৫০ টি।
  • মাছের দোকান ২০টি।
  • গরুর মাংসের দোকান ২৮০ টি।
  • মুরগীর দোকান ১০ টি।
  • ছাগলের মাংসের দোকান ০২ টি।
  • মাছের শুটকির দোকান ০২ টি।
  • মুদির দোকান ৩০ টি।
  • চাউলের দোকান ৩০ টি।
  • ক্রোকারীজের দোকান ০২ টি।
  • ঘি/তৈলের দোকান ০২ টি।

 

বিশেষ ধরনের সবজি

  • প্রায় সকল ধরনের সিজনাল ও নন সিজনাল শাকসবজি এই কাঁচা বাজারে পাওয়া যায়। যেমন – লাউ, কুমড়া, বেগুন, টমেটো, পটল, সিম, শসা, লেবু, পেঁয়াজ, ফুলকপি, বাঁধাকপি, পেঁপে, বিভিন্ন প্রকার শাক ইত্যাদি।

 

মাছের বাজার

এখানে সকাল ৭.০০ থেকে রাত ১০.০০ পর্যন্ত মাছ বিক্রি হয়। সাধারণত সকালের দিকে বড় মাছ পাওয়া যায়।

 

মাংসের বাজার

এখানে গরুর মাংশের পাশাপাশি আলাদাভাবে গরুর মাথা, পা, ফুসফুস, কলিজা, খিরি, মগজ, জিহ্বা এবং ভূড়ি পাওয়া যায়।   

 

মুরগীর বাজার

এই বাজারে দেশী মুরগী ছাড়াও বিদেশী ব্রয়লার ও লেয়ার মুরগী পাওয়া যায়।  এছাড়া আলাদাভাবে গিলা-কলিজা, পা-পাখনা-চামড়া প্রভৃতি পাওয়া যায়।

 

বিবিধ

  • এখানে চ্যাপা, লইট্যা, কাঁচকি, লোনা ইলিশ, ভেটকি, লাক্ষা, বাইন প্রভৃতি মাছের শুটকি পাওয়া যায়।

 

গাড়ী পার্কিং ব্যবস্থা

  • তবে সামনের রাস্তায় এবং ফুটপাতে ৪০ টি গাড়ী পার্কিং করা যায়।

 

আপডেটের তারিখ-২৬ এপ্রিল

যেভাবে জয় করবেন নারীর মন
মেয়েরা বোকা, নাকি ছেলেরা বোকা?
বিচিত্র সব বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা
সম্পর্কের স্বার্থে যে কথা যায়না বলা....
নির্বাচিত প্রতিবেদন
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
আপডেট নিউজ
লাইফ স্টাইল
নির্বাচিত লেখা থেকে
বাংলা বই (Bangla Book)
বই পড়ার অভ্যাস সবার নেই। অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সাঈদের মতে শতকরা ১০-২০ ভাগের মত ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে বই পড়ানো সম্ভব। তিনি অবশ্য বই পড়া বলতে পাঠ্যবহির্ভূত বইয়ের কথা বলেছেন। আবার সৈয়দ মুজতবা আলীর বিখ্যাত উক্তি, বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয় না। তবে যেখানে বই পড়া -র এবং কেনার অভ্যাসটাই সেভাবে নেই, সেখানে তাঁর উক্তির সঠিকতা যাচাই করা কঠিন বটে! বই পড়তে যাদের বিশেষ ভালো লাগে না, তারাও বই কেনেন এবং... বিস্তারিত
 
বিদেশী দূতাবাস