পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

শ্যামবাজার

শ্যামবাজার ঢাকার অন্যতম পুরাতন বাজার। এটা ব্রিটিশ শাসনামল থেকে ঢাকাবাসীর বিভিন্ন দ্রব্যের যোগান দিয়ে আসছে। বর্তমানে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্ববধানে বাজারটি পরিচালিত হচ্ছে।

 

সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে পূর্ব দিকে ৮ – ১৫ গজ দূরে শ্যমবাজারের সীমানা শুরু।

 

এই বাজারে সাধারণত ফজর নামাযের পর থেকে সকাল ১১.০০ টা পর্যন্ত বেশী ভিড় হয়। কোন সাপ্তাহিক বন্ধ নেই এবং প্রতিদিন ভোর বেলা থেকে রাত ৮.০০ টা পর্যন্ত স্বাভাবিক লেনদেন হয়ে থাকে।

 

সাধারণত প্রায় দৈনন্দিন খাদ্য তালিকার সব কাঁচা বাজার ও ফলমূল পাওয়া যায়। যেমন – আলু, পেঁয়াজ, মরিচ, বেগুন, মাছ, সবজি, পটল, করলা ইত্যাদি। আর ফলমূল এর মধ্যে রয়েছে – আম, জাম, কলা, লিচু, তেঁতুল, আনারস, পেয়ারা ইত্যাদি। এছাড়া তেল, লবণ, মসলাও পাওয়া যায়।

 

বাজারের বিভিন্ন ধরনের ভাগ আছে। যেমন – ১নং রোডে বুড়িগঙ্গা নদীর পাড় ঘেঁষে রয়েছে আম, কাঁঠাল, লিচু এবং অন্যান্য ফল আর নদীর পাড়ের রাস্তার বিপরীত পাশে পাওয়া যায় আলু, পেঁয়াজ, আদা, রসুন ইত্যাদি। মূল বাজারের মাঝামাঝি ও নদীর পাড় ঘেঁষে বিভিন্ন রকম শাক-সবজির বাজার বসে।

 

এই বাজারে উৎপাদনকারী বা বিক্রেতাকে আড়ৎদারের মাধ্যমে বিক্রয় কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হয়। এজন্য আড়ৎদাররা নির্দিষ্ট হারে কমিশন নিয়ে থাকে। সাধারণত যেসব পণ্য ওজনে বিক্রি হয় সেগুলোর ক্ষেত্রে প্রতি কেজিতে ৪০ পয়সা থেকে ৫০ পয়সা পর্যন্ত কমিশন দিতে হয়। আবার আদা-রসুনের ক্ষেত্রে প্রতি কেজিতে ১ টাকা পর্যন্ত কমিশন দিতে হয়। যেসব পণ্য কেজিতে বিক্রি না হয়ে সংখ্যার ভিত্তিতে বিক্রি হয় সেসব ক্ষেত্রে প্রতি এক টাকায় ১০ পয়সা কমিশন দিতে হয়।  

 

কুলির রেট প্রতি বস্তা ১০ টাকা।

 

বাজারের নির্দিষ্ট কোন পার্কিং ব্যবস্থা নেই। তবে রাস্তার আশেপাশে নিজ দায়িত্বে গাড়ি পার্ক করা যায়। পণ্যের ভিন্নতার উপর পাইকারী সর্বনিম্ন ক্রয়সীমা নির্ধারিত হয়। সাধারণত ৫ কেজিতে সর্বনিম্ন পাইকারী ক্রয় বিবেচনা করা হয়। আবার কাঁচা মরিচ ক্রয়ে ২.৫ কেজি ক্রয়কেও পাইকারী ক্রয় বিবেচনা করা হয়।

 

এখান থেকে পণ্য পরিবহনের জন্য প্রয়োজনীয় পিক-আপ, ভ্যান, রিক্সা ও লেবার পাওয়া যায়।

পণ্য গুদামজাতকরণের জন্য আড়ৎদারদের সহযোগীতা নিতে হয়। আলাদা কোন গুদামঘর নেই। আড়ৎ মালিকরা পাইকার ও বিক্রেতাদের পণ্য গুদামজাতকরণ ও রাত্রি যাপনের ব্যবস্থা করে থাকে।

কোন প্রকার সমস্যা হলে কমিউনিটি পুলিশকে সমস্যার কথা জানাতে হবে।

মৌসুমী সব ধরনের ফল এখানে পাওয়া যায়। যেমন – আম, কাঁঠাল, লিচু, পেয়ারা, আনারস, জাম, আখ ইত্যাদি।

এই বাজারে বড় কয়েকটি গুদামঘর আছে।

এর মধ্যে কয়েকটির নাম ও যোগাযোগের নম্বর –

সিদ্দিক বাণিজ্যালয়।

মোবাইল: ০১৭১৫-০৫৪০৮১।

মহানগর আড়ৎ।

মোবাইল: ০১৭২২-২৭৮৩১৫।

শাহজালাল আড়ৎ।

মোবাইল: ০১৭১১-৫২১৯৪২।

শান্ত ট্রেডার্স।

মোবাইল: ০১৭১৮-৭০৪৪৬১।

 

এই বাজারে তেমন বড় কোন মাছের আড়ত নেই। তবে অনেক মাছ এখানে বিক্রি হয়। যেমন – রুই, মৃগেল, কাতল, চিতল, চিংড়ি, বোয়াল, কার্প জাতীয় মাছ প্রভৃতি।

 

আপডেটের তারিখ - ২৬ এপ্রিল ২০১২

 


নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
সালেক গার্ডেন কাঁচাবাজারহাজারীবাগ, ঝিগাতলা
বাদামতলী ঘাট ফলের আড়ৎবাদামতলী ঘাট ফলের আড়ৎ
পলাশী কাঁচা বাজারলালবাগ, পলাশী
গুদারাঘাট কাঁচা বাজারগুলশান, গুলশান ১
বনানী কাঁচা বাজারগুলশান, বনানী
গুলশান – ২ ডি.সি.সি কাঁচাবাজারগুলশান, গুলশান ২
গুলশান দক্ষিণ ডি.সি.সি কাঁচাবাজারগুলশান, গুলশান ১
বি জি বি মার্কেটউত্তরা, সেক্টর ০৭
মিরপুর সেকশন ১১ কাঁচা বাজারপল্লবী, মিরপুর ১১
সেকশন ৬ মসজিদ মার্কেট কাঁচা বাজার, পল্লবীপল্লবী, সেকশন ৬
আরও ৪১ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি