পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

হয়ে উঠুন প্রভাবশালী উদ্যোক্তা

প্রভাবশালী হতে কে না চায়? নিজেকে একটু ভিন্নভাবে জাহির করার ইচ্ছা, আর দশজনের থেকে নিজেকে আলাদা করে চেনানোর ইচ্ছা সবারই থাকে, কিন্তু নেতা হতে পারে কয়জন? নিঃসন্দেহে বলা যায় বর্তমান পৃথিবীর অনেক কাজই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উপর নির্ভরশীল। এর ফলে কাজের ধরণ, খেলাধুলা, বন্ধুত্ব, ব্যবসা, প্রণয় সবকিছু পরিবর্তিত হয়েছে, পরিবর্তন এসেছে ব্যবসাতেও, মোটামুটি সবকিছুই এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উপর নির্ভরশীল। এখন প্রশ্ন হল, কোথা থেকে শুরু করতে হবে?

লিডারদের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম একটি অনন্য বস্তু। এটি যোগাযোগের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা স্থাপন করছে। জনগন ও প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারদের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। এর মাধ্যমে সংলাপ ও ফোরাম তৈরী হয় এবং একই সাথে উৎপাদন, একতা ও মুনাফা বৃদ্ধি পায়।

আশ্চর্যকর বিষয় হচ্ছে শতকরা সত্তর থেকে আশি ভাগ লিডার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করেন না। যা কিনা এক হাত পেছনে বাঁধা অবস্থায় টেনিস খেলার মত। আর বাকি যারা আছেন তাদের বেশির ভাগই আংশিকভাবে এতে সক্রিয়। আসুন দেখা যাক, প্রভাবশালী নেতৃত্বের বৈশিষ্ট্যগুলো আসলে কেমন।

আত্মপরিচয় হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার এমন একটি মাধ্যম যার ফলে আপনি নিজের ভাবনাকে প্রতিষ্ঠা করতে পারেন। আপনার পক্ষে কখনোই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশেষ ব্যক্তি হওয়া সম্ভব না যদি আপনি সত্য পরিচয় প্রকাশ না করেন। পরিচয় গোপন রেখে আপনার সহকর্মী ও কর্মকর্তাদের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়ে তোলা অসম্ভব । সুতরাং মুক্তমনা ও স্বচ্ছ হোন। আপনার পক্ষে সর্বোচ্চ যা হওয়া সম্ভব তাই হয়ে উঠুন। মনে রাখবেন মূল্যবোধ অমূল্য বস্তু। সবার কাছে সবকিছু বলা আপনার পক্ষে সম্ভব না, তারপরও সবার সংস্পর্শে গিয়ে আপনার কথাকে হালকা করারও মানে হয় না। কিন্তু লোকজন যখন আপনার কোন লেখা পড়বে তারা অনেক কিছু শিখবে, উৎসাহিত হবে এবং তাদের শক্তি বৃদ্ধি পাবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সবার পোস্ট আমরা পড়তে চাই না, কারণ সবার কাছ থেকে ভাল শিখা যায় না। দুপুরের খাবারে কি মেন্যু ছিল এমন পোস্ট যারা দেন নিশ্চয় তাদের পোস্ট গুরুত্বপূর্ণ নয়। আপনার প্রতিটি পোস্ট যেন গুরুত্বপূর্ণ হয় তা নিশ্চিত করুন। খুব ঘন ঘন পোস্ট দেয়ার চেয়ে মাঝে মাঝে খুব ভাল পোস্ট দেয়াই উত্তম। সামাজিক যোগাযোগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে তা কর্মকর্তাদের অন্তর্দৃষ্টি ও সম্যক ধারণা বাড়িয়ে তোলে। একজনের চিন্তা অন্যজনের সাথে শেয়ারের মাধ্যমে সবার মধ্যে বিরাট চিন্তার উদ্ভব ঘটতে থাকে। তাই, যোগ্য নেতারা সঠিক আলোচনা শুরু করেন সামাজিক মাধ্যমে। আমরা এমন অনেক সাইট দেখি যেগুলো ক্লান্ত ও ধীরগতির এবং বন্ধুভাবাপন্ন নয়। এ ধরণের সাইট কর্মপরিবেশ ধ্বংস করে। কাজের সুষ্ঠ পরিবেশের জন্য আপনার সাইটটিকে গতিসম্পন্ন ও সবার জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে। সবাইকে উজ্জীবিত করার জন্য আপনি চেষ্টা করে চলেছেন। দুর্বল কিংবা সন্দেহজনক কিংবা অস্পষ্ট কোন পোষ্ট দেয়া যাবে না। অন্যান্য শক্তিশালী মাধ্যমের মত এখান থেকেও বড় কোন ভুলের জন্ম নিতে পারে। সবসময় খোলাখুলি ও স্বতঃস্ফূর্ত থাকুন কিন্তু কাজ করার আগে অবশ্যই ভাবুন।

সবকিছুই গতানুগতিক, তাই নয় কি? গতানুগতিক হতেও পারে নাও হতে পারে তবে মেধাবী ও ফলপ্রসু লিডাররা যা করেন তা ভালবাসা দিয়েই করেন। খেলাচ্ছলে তারা কাজকে হাসিল করে নেয়। সফলতার মধ্য দিয়েই সবকিছু বিস্ফোরিত হয়ে ওঠে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, কাজ কেন করবেন, স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য নাকি টাকার জন্য? আপনি হয়তো আরামদায়ক কোন কাজ খুঁজছেন। কিন্তু এটা কখনোই ঠিক নয়। নিজেকে চ্যালেঞ্জ করুন, অন্যের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার পরিবর্তে নিজের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করুন। নিকট ভবিষ্যতে আপনি কি পাচ্ছেন তা নিয়ে ভাবনা বন্ধ করে দিন। সবসময় সুদূর ভবিষ্যতের দিকে দৃষ্টি নিক্ষেপ করুন। আচ্ছা ধরুন আপনি কোথাও কাজ করছেন ও প্রতি সপ্তাহে তার জন্য বেতন পাচ্ছেন। এখন প্রশ্ন হল এই বেতন দিয়ে আপনি কি করছেন? আপনি হয়তো এবারের ছুটিটা এ টাকায় উপভোগ করতে পাচ্ছেন। কিন্তু এ প্রক্রিয়ায় টাকা উপার্জন করে আপনি কখনোই সুখী হতে পারবেন না। মনে রাখবেন টাকা উপার্জন হল একটা দীর্ঘ ভ্রমন। খুব তাড়াতাড়ি টাকা উপার্জনের চিন্তা হতে আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে।

সব কিছুর জন্য নিজেকেই দায়ী করুন। নিজের বিবেচনা নিজেই করুন। কেননা দিনশেষে আপনি যা কিছু করবেন সবই আপনার হবে। সমস্যা তৈরির পরিবর্তে সমাধান তৈরি করুন। চাকরী, অর্থ কিংবা ভালোবাসা ছাড়া আপনি হয়তো বাঁচবেন না। কিন্তু মনে রাখবেন এ সবকিছুই আপনার নিজেকে করে নিতে হবে।

আপনি হয়তো প্রায় সময় ভাবেন আপনার নেটওয়ার্ক খুবই দুর্বল। আপনার ধারণাটা ঠিক নয়। কারণ আপনার আশেপাশের সবাইকে উৎসাহ উদ্দীপনা দিয়ে সফলতার জন্য প্রস্তুত করা আপনার মূল দায়িত্ব। মানসিকভাবে শক্ত ব্যক্তিরা কখনোই অন্যদের কাছে নিজের ক্ষমতা জাহির করে অন্যকে ছোট বা নিচু করে দেখায় না। তারা তাদের কাজ ও অনুভূতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে জানে।

নিজের ফর্ম খারাপ হয়ে গেলে কিংবা একাধারে কোন কাজে ব্যর্থ হতে থাকলেও তারা ভেঙ্গে পরে না বরং সেখান থেকেই উঠে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। মানসিকভাবে শক্তিশালী ব্যক্তি কখনো শুধুমাত্র অপরকে খুশি করার জন্য কিছু করে না। তারা যা ন্যায়সম্মত মনে করে তাই করে থাকে। ব্যবসায়ে ঝুঁকি নেয়া না নেয়া প্রায় সবটাই নির্ভর করে যে ঝুঁকি নিচ্ছে তার মানসিক শক্তির উপর। যা মানসিকভাবে শক্ত সে কখনো ঝুঁকি নিতে ভয় পায় না। এমন কি এর ফলে কোন ক্ষতি হলেও তা বহন করতে তৈরি থাকে মানসিকভাবে শক্ত উদ্যোক্তা। মানসিকভাবে শক্ত ব্যক্তি ভুল থেকে শিক্ষা নেয়, এবং একই ভুলের বার বার পুনরাবৃত্তি করে না।

সফলেরা  সকলের সাফল্য সানন্দে গ্রহন করে, কোন রকম বিরক্তি ও অসন্তোষ প্রকাশ করা ছাড়াই। এছাড়া কেউ তাদের কাছে সাহায্য চাইলেও তারা নির্দ্বিধায় সাহায্য করে। প্রত্যেক ব্যর্থতা সাফল্যের রাস্তা খুলে দেয়, এই মূলমন্ত্র নিয়েই তারা এগিয়ে যায়। তাই কখনো কোন কাজে ব্যর্থ হলেও তারা হাল ছেড়ে দেয় না। আর। এই হাল না ছেড়ে দেওয়ার মানুসিকতা আপনাকে প্রভাবশালী উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট

আপলোডের তারিখঃ ২১ ডিসেম্বর, ২০১৩।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
বনসাইN\A, N\A
ডায়েট কাউন্সিলিং সেন্টাররমনা, ইস্কাটন
ব্লু প্লানেট অ্যাকুরিয়াম শপওয়ারী, ওয়ারী
ঘূর্ণিঝড়ে করণীয়ঘূর্ণিঝড়ের সময় করণীয় সম্পর্কে তথ্য রয়েছে
আমরা শোকাহতN\A, N\A
মহররমের ইতিহাস১০ই মহররমের ইতিহাস বর্ণনা করা হয়েছে
ঈদে বাড়তি সতর্কতাN\A, N\A
ডাক টিকেট সংগ্রহকিভাবে এলো ডকটিকেট? সৌখিন সংগ্রাহকগণ কোথায় যাবেন ডাকটিকেট কিনতে?
জাতীয় পতাকাN\A, N\A
টুথব্রাশ নিয়ে ৫ টি মজার তথ্য টুথব্রাশের ব্যবহার নিয়ে কিছু অপ্রচলিত ও বিস্ময়কর তথ্য নিয়ে সাজানো
আরও ২০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি