পুরো লিস্ট দেখুন

আর.জে হতে চাইলে

দিন দিন উন্নত হচ্ছে প্রযুক্তি আর এর ঢেউ এসে পড়ছে রেডিওতে। আমাদের দেশে রেডিও শোনার সংস্কৃতি কিন্তু বেশ পুরনো। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র তথা রেডিওর রয়েছে দারুণ এক গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা। অবশ্য বর্তমান সময়ে এসে শহরের তরুণরা দারুণভাবে আকৃষ্ট হয়েছে এফএম-এর প্রতি। এফএম রেডিও তাদের এ দিকে ফিরিয়ে এনেছে বলা চলে। দেশের শিল্প-সংস্কৃতিতে তরুণদের সম্পৃক্ত করতে রেডিও অবদান অসামান্য।


বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এসব স্টেশনে আরজে হিসেবে কাজ করছেন এই তরুণ প্রজন্মই। অনেকেই আবার পড়াশোনার পাশাপাশি করছেন আরজের চাকরি। অনেক শ্রোতাই নিজেদের আরজে হিসেবে দেখতে চান। এই পেশায় রয়েছে তারকা খ্যাতির হাতছানি। এক কথায় অনেক তরুণের এখন স্বপ্নই আরজে হওয়া; যেমন আর দশটা তরুণ স্বপ্ন দেখেন ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার কিংবা সাংবাদিক হওয়ার।

 

বর্তমানে বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি এফএম রেডিও স্টেশন রয়েছে। এর মধ্যে এবিসি রেডিও, রেডিও টুডে, রেডিও আমার, রেডিও ফুর্তি, পিপলস রেডিও, ঢাকা এফএম অন্যতম। এছাড়াও কিছু এফএম রেডিও তাদের কার্যক্রম চালু করার লাইসেন্স পেয়েছে এবং অন এয়ারের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে এফএম-এর পাশাপাশি এখন কিছু অনলাইন রেডিও যুক্ত হয়েছে এই কাতারে। খুবই স্বল্প খরচে এসব অনলাইন রেডিও প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব বিধায় তরুণর্ওা ঝুঁকছে এসব অনলাইন রেডিও প্রতিষ্ঠা করতে। অনুষ্ঠানের পাশাপাশি এসব স্টেশনে নিয়মিত প্রচার করা হয় সংবাদ এবং ট্রাফিক আপডেট।


শিক্ষাগত বাড়তি যোগ্যতা
বাংলাদেশে মূলত বেসরকারি পর্যায়ে প্রতিষ্ঠিত এফএম রেডিও স্টেশনে রেডিও জকিদের কাজের চাহিদা রয়েছে। বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে অত্যন্ত নতুন এই পেশাতে যোগ্যতা হিসেবে বিভিন্ন রেডিও স্টেশন অনুসারে স্নাতক পাশকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হয়ে থাকে। তবে যোগ্যতাসম্পন্ন স্নাতক অধ্যায়নরতরাও এই পেশায় ক্যারিয়ার শুরু করার জন্য আবেদন করতে পারেন। তবে একটি কথা মাথায় রাখা প্রয়োজন, শিক্ষাগত যোগ্যতা এই পেশায় মূল নয়। বরং এই পেশায় সফল হওয়ার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার বাইরের অনেক বিষয়েই নজর দিতে হবে।

পরিষ্কার ও স্পষ্ট উচ্চারণ, উপযুক্ত শব্দ ব্যবহার, জড়তাহীনভাবে কথা বলার ক্ষমতা, যেকোনো প্রশ্নের উত্তর উপস্থিত বুদ্ধি সহকারে দ্রুত দিতে পারা, মিউজিক্যাল সেন্স, সেন্স অব হিউমার, নিরপেক্ষতা বজায় রেখে কথা বলা, সৃজনশীলতা প্রভৃতি গুণাবলী থাকা অত্যন্ত জরুরি একজন রেডিও জকি হওয়ার জন্য। আর প্রয়োজন সমসাময়িক বিষয়গুলো সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকা। দেশ এবং দেশের বাইরের খবরগুলোতে নিয়মিত তাই নজর রাখা দরকার। বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে পেশা হিসেবে নতুনরূপে পরিচিত এই রেডিও জকিদের নিজস্বতা এবং শ্রোতাদের আকৃষ্ট করণের লক্ষ্যে স্বাতন্ত্র্য জনপ্রিয়তা অর্জনে ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছে। আসলে একজন রেডিও জকিকে তার শ্রোতাবন্ধুদের মুগ্ধ করতে হয় কেবল কথার মাধ্যমেই। কাজেই নানা ধরনের মানুষকে লক্ষ্য রেখেই কথা বলতে হয় রেডিও জকিকে। বিভিন্ন মানুষের সাথে কথা বলার সেই ধরণটা অর্জন করতে হয় এই পেশার জন্য। আরেকটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, একজন রেডিও জকিই কিন্তু তার প্রোগ্রামকে জনপ্রিয় করবে। এর পুরো দায়টাই তার একারই বহন করতে হয়।

প্রশিক্ষণ

আরজে প্রশিক্ষণের জন্য রয়েছে কিছু প্রতিষ্ঠানে। এর মধ্যে রয়েছে জবস এ ওয়ান, রেডিও টুডে, মিডিয়া একাডেমী, বিজেমসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান। আরজে হিসেবে নিয়োগের পরে সব রেডিও স্টেশনই তাদের নতুন নিয়োগকৃত আরজেদের জন্য ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করে থাকে। এসব ট্রেনিংয়ে সিনিয়র আরজেরাই ক্লাস নিয়ে থাকেন। এখানে রেডিও অনুষ্ঠান উপস্থাপনার নানা নান্দনিক এবং টেকনিক্যাল দিক তুলে ধরা হয়।

আয়-রোজগার
বাংলাদেশে এই পেশাটি তুলনামূলকভাবে নতুন হলেও এই পেশায় ভালো করার বেশ সুযোগ রয়েছে। বিভিন্ন রেডিও স্টেশন সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিকভাবে একজন রেডিও জকি পার্টটাইম এবং ফুল টাইম—দুইভাবেই কাজ করতে পারে। এ ক্ষেত্রে সাধারণ সময়সীমা ব্যতীত তাদেরকে সুনির্দিষ্ট সময় অনুযায়ী কাজ করে যেতে হয়। পার্টটাইম হিসেবে একজন আরজেকে তিন ঘণ্টা অনুষ্ঠান পরিচালনা করার লক্ষে কমপক্ষে পাঁচ ঘণ্টা অফিস করতে হয়। আর ফুল টাইমের ক্ষেত্রে এই সময়সীমা ৮ ঘণ্টা বা তার চেয়ে বেশি হয়ে থাকে। শুরুর দিকে রেডিও জকিদের বেতন হয়ে থাকে ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে এ ক্ষেত্রে আরজেদের দক্ষতা এবং জনপ্রিয়তা ভূমিকা রাখে। আর সময়ের সাথে সাথে বেতনও বাড়তে থাকে।

যোগাযোগের উপায়
আপনি যদি নিজেকে ভবিষ্যতে জনপ্রিয় আরজে হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান তবে প্রথমেই আপনাকে ভাবতে হবে আপনি এই পেশার জন্য কতটা নিজেকে যোগ্য বলে মনে করেন। সেই সাথে আপনার যদি উচ্চারণে স্পষ্টতা এবং যেকোনো বিষয়ে কথা চালিয়ে নেওয়ার যোগ্যতা থাকে, তবে আপনি এই পেশাতে যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হতে পারেন। বাংলাদেশে বেসরকারি রেডিও স্টেশনসমূহে সরাসরি যোগাযোগ করে অথবা ডাকযোগে আপনার জীবনবৃত্তান্ত এবং নিজের আগ্রহ এবং দক্ষতা বর্ণনা করে একটি আবেদনপত্র পাঠিয়ে রাখতে পারেন। আপনার যোগ্যতা এবং আগ্রহ এই পেশাতে আপনাকে নির্বাচনের ক্ষেত্রে রেডিও স্টেশনসমূহকে সহায়তা করবে। এ ছাড়া রেডিও স্টেশনগুলো তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী বিজ্ঞাপনও দিয়ে থাকে। সেগুলোর দিকেও নজর রাখতে হবে। বিজ্ঞাপনের নির্দেশনা অনুযায়ী আবেদন করলে এরপর কেবল স্টেশনগুলোর পক্ষ থেকে ডাকের অপেক্ষা।

সময়ের সাথে সাথে যেভাবে রেডিও স্টেশনের সংখ্যা বাড়ছে এবং রেডিও জকিদের চাহিদা তৈরি হচ্ছে, তাতে করে এই পেশাতে আপনার আগ্রহ এবং দক্ষতা আপনাকে ভালো একটি ক্যারিয়ারের দিকে ধাবিত করতে পারে।

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
বনসাইN\A, N\A
ডায়েট কাউন্সিলিং সেন্টাররমনা, ইস্কাটন
ব্লু প্লানেট অ্যাকুরিয়াম শপওয়ারী, ওয়ারী
ঘূর্ণিঝড়ে করণীয়ঘূর্ণিঝড়ের সময় করণীয় সম্পর্কে তথ্য রয়েছে
আমরা শোকাহতN\A, N\A
মহররমের ইতিহাস১০ই মহররমের ইতিহাস বর্ণনা করা হয়েছে
ঈদে বাড়তি সতর্কতাN\A, N\A
ডাক টিকেট সংগ্রহকিভাবে এলো ডকটিকেট? সৌখিন সংগ্রাহকগণ কোথায় যাবেন ডাকটিকেট কিনতে?
জাতীয় পতাকাN\A, N\A
টুথব্রাশ নিয়ে ৫ টি মজার তথ্য টুথব্রাশের ব্যবহার নিয়ে কিছু অপ্রচলিত ও বিস্ময়কর তথ্য নিয়ে সাজানো
আরও ২০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি