পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

ঈদ পোশাকে মানানসই সাজ

শাড়ি একদিকে যেমন বাঙালীয়ানা একটি পোশাক, অন্যদিকে এটি উৎসবেরও পোশাক। ঈদের দিন তো বটেই ঈদ ছাড়া বাঙালীর অন্য অনেক উৎসবেও রয়েছে শাড়ির প্রাধান্য। আর তাই শাড়ির সঙ্গে মানানসই রূপচর্চার জন্য শাড়ির ধরন এবং সাজের সময়টিও কম গুরম্নত্বপূর্ণ নয়।

যে কোন শাড়ির ক্ষেত্রে শাড়ির অাঁচল কিংবা অাঁচলের কাজ একটু বেশি চোখে পড়ে। আর তাই ঈদের দিনের সাজ হতে হবে শাড়ির অাঁচলের সঙ্গে মানানসই। এক্ষেত্রে শাড়ির বেসিক কালারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে যেমন আনুষঙ্গিক সাজ হতে পারে তেমনি সাজটা হতে পারে খানিকটা কন্ট্রাস্ট। উদাহরণস্বরূপ নীল কিংবা লালের কাছাকাছি রঙের শাড়ির ক্ষেত্রে সাজের বেজটা যদি পিংক বা মেটালিক ধরনের হয় তাহলে তা দেখতে ভাল লাগবে।

বিশেষ করে ইদানীং বিভিন্ন ফেস্টিভ শাড়ির সঙ্গে মেটালিক সাজের চলটাই একটু বেশি। আবার শাড়িটা যদি মোটা পাড়ের হয় তাহলে এর সঙ্গে কপালে বড় একটা টিপে সাজ বেশ মানাবে। শাড়ির সঙ্গে যে কোনা ধরনের সাজের ৰেত্রেই চোখটিকে ফুটিয়ে তোলা খুব গুরম্নত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিশেষ করে শাড়ি যদি হয় পার্টিতে যাবার পোশাক তাহলে চোখটিকে সুন্দর করে সাজিয়ে নেয়া খুবই গুরম্নত্বপূর্ণ। খায়াল রাখবেন যেন শাড়ির রঙের সঙ্গে চোখের শ্যাডো, মানানসই হয় এবং এটা যেন চোখকে একটা সি্নগ্ধ রূপ দেবার বদলে উৎকট রূপ না দেয়।

ঈদের দিনে শাড়ির সঙ্গে মানানসই সাজের ক্ষেত্রে ব্লাউজ এর ধরনটিও গুরম্নত্বপূর্ণ। সাধারণত আটপৌরে শাড়ির ক্ষেত্রে সাধারণ ব্লাউজ আর সাধারণ সাজই বেশ মানানসই। তবে ঈদের দিনে পরবার জন্য নির্বাচিত শাড়িটি যদি হয় একটু কালারফুল আর ফাঙ্কি টাইপের তাহলে এর সঙ্গে সিস্নভলেস, ম্যাগি কিংবা রম্নমাল হাতার বস্নাউজ বেশ মানিয়ে যাবে। এ ক্ষেত্রে মুখের সাজেও খানিকটা হাইলাইট রাখা যেতে পারে। আবার ফ্লোরাল মোটিভের শাড়ির সঙ্গে কুচি দেয়া ব্লাউজ বেশ মানিয়ে যায়। অন্যদিকে যারা রাতের অনুষ্ঠানে ওয়েস্টার্ন প্যাটার্নে শাড়িকে উপস্থাপন করতে চান তাদের পরনে থাকতে পারে সিস্নভলেস লোয়ার কাটের ব্লাউজ। শাড়ির সঙ্গে সম্পূর্ণ একটি সাজে জুতো জোড়ার ভূমিকাও কম গুরম্নত্বপূর্ণ নয়। সাধারণত শাড়ির সঙ্গে একটু হিল জাতীয় জুতাই বেশি মানানসই। তবে চাইলে ফাঙ্কি শাড়ির সঙ্গে কিছুটা ফ্ল্যাট জুতোও পরা যেতে পারে। এছাড়া শাড়ির মধ্যে যদি বাঙালীয়ানা কিংবা আভিজাত্যের বিষয়টি প্রাধান্য পায় তাহলে চুলে খোঁপা বেঁধে এবং খোঁপায় স্টাইলি চুলের কাঁটা ব্যবহার করেও সাজে ভিন্নতা আনা যেতে পারে।চোখে আই লাইনার এবং মাশকারার ব্যবহারও হতে হবে পরিমিত। অন্যদিকে ঈদের দিনে একটু ক্যাজুয়াল লুকের শাড়ির সঙ্গে হাল্কা করে কাজল দিলে দেখতে মন্দ লাগবে না। যারা ঈদের দিনটিতেই শাড়ি পরতে চান তারা অবশ্যই এ সময়ে হাল্কা করে মুখটিকে সাজানোর দিকে লৰ্য রাখবেন। এজন্য হাল্কা বস্নাশন আর হাল্কা বেজ দিয়ে চোখটিকে সুন্দর করে সাজানো আর ঠোঁটে ন্যাচারাল কালারের লিপস্টিক লাগালেই দেখতে বেশ লাগবে। অন্যদিকে ঈদের রাতে পার্টি আমেজে শাড়ি পরলে সাজের মধ্যেও আনা যেতে পারে খানিকটা ওয়েস্টার্ন লুক। এ ৰেত্রে লিপ লাইনার ও আই লাইনারের সাহায্যে ঠোঁট ও চোখের আকার ঠিক করে তাতে একটু ডার্ক কালারের লিপস্টিক ও আই শ্যাডো ব্যবহার করা যেতে পারে।

আর মাত্র কিছুদিন পরেই ঈদ। আর ঈদের এই উৎসবমুখর পরিবেশে নিজেকে উৎসবের সাজে সাজিয়ে তুলতে কম বেশি সবার মাঝেই একটা বাড়তি প্রস্তুতি থাকে। বিশেষ করে যারা বয়সে তরু্রু, তরুণী কিংবা ঈদের দিনে যাদের এখানে ওখানে বেড়াতে যাবার অভ্যেস রয়েছে তাদের জন্য ঈদের সাজ নতুন ঈদ পোশাকের মতোই গুরম্নত্বপূর্ণ। যদিও ঈদের দিনের সাজ নিয়ে অনেকেই এমন সময়ে এসে ভাবেন যখন কোন কিছুই আর মনে মতো গুছিয়ে করা যায় না। এছাড়া অনেকে ঈদের পোশাক নিয়ে অনেক আগে থেকেই ভাবেন শুরু করলেও ঈদের মানানসই সাজ নিয়ে সেভাবে ভাবেন না। আর এ কারণে ঈদের দিন ট্রেন্ডি পোশাকের সঙ্গে টেন্ডি মেকআপ না থাকায় ঈদের পুরো সাজটাই মাটি হয়ে যায়।
প্রতিবারের মতো এবারেও ঈদে তারম্নণ্যের পছন্দের পোশাক হিসেবে সালোয়ার কামিজের চলটাই সবচেয়ে বেশি থাকবে। এবার ঈদটা হচ্ছে শরৎ কালে। এখনও প্রকৃতিতে গরমের কমতি নেই। এ সময়টাতে আরামদায়ক হয় এমন পোশাক এবং সাজের দিকেই লৰ্য রাখতে হবে। এবারের ঈদের জন্য একাধিক সালোয়ার কামিজ কিনেছেন বা কিনছেন, তারা দিনের উষ্ণ আবহাওয়ায় পরার জন্য অবশ্যই প্রাধান্য দেবেন সুতি বা সুতি জাতীয় কাপড়ের সালোয়ার কামিজকে। অন্যদিকে যারা ঈদের দিন সকালে কিংবা দুপুরে বাইরে বেশি ঘোরাঘুরি করেন তারাও সালোয়ার কামিজ কেনার সময় সুতির কাপড়ের দিকে মনোযোগ দেবেন। সুতির সালোয়ার কামিজের সঙ্গে যে কোন মার্জিত সাজই সহজে মানিয়ে যায়। তবে সকালের ট্রাডিশনাল পোশাকের সঙ্গে সাজটাও হতে হবে ট্রাডিশনাল ও হাল্কা। মনে রাখবেন সারাদিনের ব্যসত্মতায় মেকআপের ধরনের পরিবর্তন আনা হলেও মেকআপের বেজটি তৈরি করে নিতে হবে সকাল বেলাতেই। সাধারণত ট্রাডিশনাল পোশাকের সঙ্গে গরমের সকালের সাজ হিসেবে বেজ হাল্কা হলেই ভাল দেখাবে এবং এতে মুখ ঘেমে কালো দেখাবে না।
সালোয়ার কামিজের সঙ্গে সকালের সাজ হিসেবে হাল্কা লিপস্টিক ও হাল্কা বস্নাশন থাকলে আপনার মুখাবয়ব অনেক বেশি সি্নগ্ধ ও সুন্দর দেখাবে। আবার গরমের তোয়াক্কা না করে যারা সকাল থেকেই একটু ট্রেন্ডি পোশাক যেমন জিন্সের সঙ্গে শর্ট কামিজ কিংবা ফতুয়া পরবেন তাদের সাজেও থাকতে পারে একটা ফাঙ্কি লুক। এ ৰেত্রে চুল হাইলাইট করা কিংবা মুজ দিয়ে খানিকটা কালি ভাব নিয়ে আসা যেতে পারে। একইভাবে মুখের সাজের ৰেত্রেও আই শ্যাডো বা লিপস্টিকে একটা হাইলাইটেড দিক বের করা যেতে পারে। সারা দিনের সাজে যদি জমকালো ভাবটা মিস করেন তাহলে সেটা প্রকাশ করম্নন রাতের সাজে। এ সময়ে আপনার পরনে যদি থাকে ট্রেন্ডি কোন সালোয়ার কামিজ কিংবা ভারি কাজের কোন পোশাক তাহলে সাজের ৰেত্রেও সেই আভিজাত্যের ছোঁয়া থাকতে হবে। রাতের মেকআপটি যেন গরমে নষ্ট না হয়ে যায় সে জন্য প্রথমেই মুখে বরফ ঘষে নিতে পারেন। এবার ওয়াটার বেজ ফাউন্ডেশন ব্যবহার করম্নন। এছাড়া সালোয়ার কামিজের ধরন বুঝে ম্যাট প্যানস্টিকও ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকের সঙ্গে মিলিয়ে সাদা ছাড়া অন্য যে কোন বেজ মেকআপ নির্বাচন করম্নন। রাতের বেলায় আইশ্যাডোর রঙ একটু গাঢ় যেমন পার্পেল, এ্যাশ কিংবা ব্রাউন এ্যাশ হলেই ভাল দেখাবে। এছাড়া আইলাইনারের সঙ্গে কাজল সার্থকভাবে ব্যবহার করেও এ সময়ের সাজটিকে আরও আকর্ষণীয় করতে পারেন। আর ঈদের উৎসবে রাতের পোশাক হিসেবেও যারা ট্রাডিশনাল সালোয়ার কামিজই বেছে নিতে চান তারা সাজপোশাকে বৈচিত্র্য আনতে খোলা চুলের সঙ্গে যোগ করতে পারেন বাহারি টিপও।


কিছু প্রয়োজনীয় টিপসঃ

ঈদে নিজেকে কিভাবে সাজাবেন, কিভাবে সাজলে অন্যের চেয়ে একটু বেশি আলাদা দেখাবে আপনাকে সেই পরিকল্পনাটি এখন থেকেই শুরম্ন করে দিয়েছেন অনেকেই। আপনার এ পরিকল্পনায় সঙ্গে যদি কিছু বিশেষ টিপস যোগ হয় তাহলে ঈদের দিনে আপনার মেকআপ গেটআপে নতুন মাত্রা যোগ হবে সন্দেহ নেই। এখানে তেমন কিছু প্রয়োজনীয় টিপস তুলে ধরা হলো।

  • সুন্দর মেকআপ চর্চার বিষয়। হুট করে মেকআপ করতে না বসে বাসায় কয়েকদিন প্র্যাকটিস করম্নন।
  •  মেকআপে যত ব্র্যান্ড ইমেজ আনা যায় ততই ভাল। তাই লিপস্টিক, আইশ্যাডো ব্র্যান্ড করে লাগিয়ে নিন।
  •  লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটে ফাউন্ডেশন ও ফেস পাউডার একটু একটু লাগিয়ে প্রথমে মুছে নিন। এরপর লিপস্টিক লাগান। এতে করে
  • লিপস্টিকটা অনেকৰণ ধরে স্থায়ী হবে।
  •  ত্বকের দাগ দূর করতে অরেঞ্জ ফেসিয়াল খুবই কার্যকর একটি পদ্ধতি। পার্লারে এ ফেসিয়ালের চারটি সিটিং নিলে মুখের সব দাগ একেবারে দূর হয়ে সব ঠিক হয়ে যাবে।
  •  ঘরে লং, পুদিনা পাতা আর হলুদ বেস্নন্ড করে মুখে লাগাতে পারেন। এতে করে ত্বক উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।
  •  এছাড়া আলু, বাঁধাকপি, ডাবের পানি মুখে লাগাতে পারেন। যা ফ্রেশলুক এনে দেবে।
  •  মেহেদির পাশাপাশি আজকাল হাতে টাট্টুও বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ডিজাইন বুক দেখে আপনি আপনার পছন্দের টাট্টুটি বেছে নিন। এ টাট্টুগুলো একমাস পর্যনত্ম স্থায়ী হয়।
  •  চুলে রিবন্ডিং করাতে চাইলে কমপৰে ঈদের ১০ দিন আগে করানো উচিত। কারণ রিবন্ডিং করার পর পাঁচদিন শ্যাম্পু করা যাবে না। এছাড়াও কিছু নিয়ম রয়েছে।
  •  ঈদের আগে মুখম-লে ইনস্ট্যান্ট চাকচিক্য আনতে ময়দা, দুধ আর লেবুর কোন বিকল্প নেই। এ জন্য দুধ ও লেবুর রসে অল্প পরিমাণ ময়দা মুখম-লে লাগান।
  • মেকআপের মাধ্যমে চোখ বড় করতে চাইলে চোখের নিচের পাতায় রিমে সাদা পেনসিলের টান দিয়ে চোখকে বড় দেখানো যায়।
  •  সাজগোজে বসার আগে সম্ভব হলে মিনিট পনের সবকাজ কর্ম থেকে নিজেকে সরিয়ে নিন। ঘর অন্ধকার করে অনত্মত দশ মিনিট চোখ বন্ধ করে শুয়ে থাকুন। মেঝেতে শুয়ে পা দুটো বালিশের উপর তুলে রাখতে পারলে ভাল হয়। এ সময় জাগতিক কোন ভাবনা মাথায় আনবেন না। দেখবেন মাত্র ১৫ মিনিটের বিশ্রাম আপনার চোখমুখ থেকে ক্লানত্মি ছাপ মুছে দিয়েছে, মনে রাখবেন মন ভাল থাকলে এমনিতেই সুন্দর লাগবে আপনাকে।
  •  মুখের আকার বুঝে মেকআপ করম্নন। সবার জন্য এক মেকআপ নয়। মেকআপ করার সময় এ বিষয়টি মাথায় রাখুন।
  •  মেকআপ করার আগে সারা মুখে বরফ ঘষে নিন। এতে করে মেকআপটা ভাল করে মুখে বসবে।
  •  ঈদের আগের হেয়ার ট্রিটমেন্ট, ফেয়ার পলিশ, স্কিন পলিশ করাতে চাইলে অবশ্যই ২০/২৫ দিন আগে থেকে প্রক্রিয়া শুরম্ন করম্নন।
  •  কনসিলার ব্যবহারের ৰেত্রে ফাউন্ডেশনের রঙের তুলনায় হাল্কা হওয়া উচিত। তাতেই ঠিকমতো চোখের নিচের কালি অথবা ত্বকের দাগ অদৃশ্য করা যায়।

ঈদের আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি। পোশাক, জুয়েলারি, জুতা, মেকআপ কিট সবই কিনেছেন। কিন্তু নিজের রূপের দিকে একবারও ভাল করে তাকিয়েছেন কি? সুন্দর জামা, শাড়ি, জুয়েলারি পরলেন কিন্তু আপনার চুল সুন্দর না, ফেসিয়াল করেননি একবারও ম্যানিকিওর প্যাডিকিওর কিছুই করানো হলো না, তাহলে সৌন্দর্যের এত যজ্ঞ দিয়ে কি হবে বলুন। তাই বলছি, সময় এখনও ফুরিয়ে যায়নি। ঈদের আগে যতটা দিন বাকি রয়েছে সেই সময়টাতে যদি ঠিকঠাকমত রূপচর্চা চালিয়ে যেতে পারেন তাহলে তো দারুন হয়। এর ফলে আর কোন টেনশন থাকবে না ঈদের সাজগোজ নিয়ে। নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন আপনি।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায় জেনে নিন মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায়
এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণজেনে নিন যেভাবে এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করবেন।
বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেনজেনে নিন বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেন
বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারীবিস্তারিত পড়ুন বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারী
লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায় জেনে নিনবিস্তারিত পড়ুন লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায়
মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষকজেনে নিন কিভাবে মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষক
যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )জেনে নিন যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )
ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?জেনে নিন ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?
লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণবিস্তারিত পড়ুন লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণ
ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায়বিস্তারিত পড়ুন ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায় জেনে রাখুন
আরও ১৪৪৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি