পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

যে ১০টি উপহার বদলে দিতে পারে আপনার সন্তানের জীবন!

কতকিছুই না আপনি আপনার সন্তানকে উপহার দিয়ে থাকেন। আজকে ছেলের জন্য সাইকেল তো কালকে মেয়ের জন্য খেলার পুতুল। আজ ঘুরতে নিয়ে যাওয়া, কাল খেলনা কিনে আনা। নিজের সন্তানের জন্য যাই করুন না কেন, আপনার কাছে কমই মনে হয় সবসময়। উপহার দেয়ার এরকম হাজারো উদাহরণ দেয়া যাবে। কিন্তু ভেবে দেখেছেন কি, এত উপহারের মাঝে কোন উপহারটি আপনার সন্তানের মনে দাগ ফেলছে? এমনভাবে কখনো কি চিন্তা করে দেখেছেন যে, এমন কি উপহার দেয়া যায় যা আপনার সন্তান কখনোই ভুলবে না? কোন উপহারটি সত্যিই তাদের জীবনকে প্রভাবিত এবং সারাজীবনের জন্য পরিবর্তন করতে পারে? আসুন দেখে নেই আপনার দেয়া কি কি উপহার আপনার সন্তানের জীবনের পাথেয় হয়ে থাকবে চিরকাল।

সময়

সবচাইতে যে গুরুত্বপূর্ণ উপহার আপনি আপনার সন্তানকে দিতে পারেন তা হল আপনার সময়। আপনি তাকে সময় দিলে আপনার সাথে তার সম্পর্ক আরও গাঢ় হবে। একসাথে বসে কোন কাজ করা, খাবার খাওয়া কিংবা কোন কথা আলোচনা করার মাধ্যমে পারিবারিক বন্ধন যেমন গভীর হয়, ঠিক তেমনি সন্তানের সাথে আপনার মানসিক বন্ধনও গভীর হয়। আপনি তার শৈশবে তাকে সময় দিলে সে বার্ধক্যে আপনার প্রয়োজনে আপনাকে সময় দেয়া শিখবে।

সমর্থন প্রশংসা করা

আপনার ছোট্ট একটি হ্যাঁ সূচক বাক্য আপনার সন্তানের পুরো জীবনকে প্রভাবিত করতে পারে। সন্তানের ভালো কাজকে সমর্থন করুন। প্রশংসা করুন। তাকে বুঝতে দিন সে আপনার কাছে কতটা প্রিয়। শৈশব কৈশোরের এই সমর্থন সূচক কথাই সে সারাজীবন মনে রাখবে। তার স্মৃতিতে ভালোবাসার প্রতীক হয়ে থাকবে তার ভালো কাজে আপনার সমর্থন ও প্রশংসা।

উৎসাহিত করা

আপনার সন্তানকে উৎসাহিত করুন। ‘তোমাকে পারতেই হবে’ এই ধরনের কথা বলবেন না এতে সে মানসিক চাপে পড়বে। এর পরিবর্তে ‘তুমিই পারবে’ বলুন, এতে সে আত্মবিশ্বাসী হবে। তাকে বড় কিছু হওয়ার স্বপ্ন দেখান। স্বপ্ন সত্যি করার মত মানসিকতা তৈরি করুন। এতে আপনার সন্তান এমন কিছু করতে সক্ষম হবে যা হয়ত সে চিন্তাও করতে পারত না। অথবা আপনি নিজেও চিন্তা করেননি এমন সফলতা আপনার সন্তানের জীবনে আসবে।

ন্যায় অন্যায় বোঝা

শৈশব থেকেই সন্তানকে ন্যায় অন্যায় বোঝান। এখনো ছোট, বুঝবে না ইত্যাদি বলে তার কোন অন্যায় আবদার বা তার দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ কিছু এড়িয়ে যাবেন না। তাকে তার কোন কাজটি সঠিক আর কোন কাজটি ভুল সে সম্পর্কে ধারনা দিন। এছাড়াও আপনার সন্তানের সাথে কোন অন্যায় হলে তার প্রতিবাদী হয়ে নিজেকে একটি উদাহরণ হিসেবে তার সামনে উপস্থাপন করুন। এতে আপনার সন্তান ছোটবেলা থেকেই অন্যায়ের প্রতি বিরূপ মনোভাব তৈরি হবে। এবং সে নিজে অন্যায় করবে না ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে মাথা তুলে দাঁড়াতে সক্ষম হবে।

কৌতূহল

আপনার সন্তানকে প্রশ্ন করতে শেখান। কে, কি, কেন, কেন নয়, কবে, কখন, কোথায় এবং কিভাবে এইসব প্রশ্নের উত্তরের মাধ্যমে আপনার সন্তানের মানসিক বিকাশ পরিপূর্ণতা পাবে। একজন অভিভাবক হিসেবে ‘এত প্রশ্ন বন্ধ করো’ ধরনের কথা কখনই বলবেন না।

আত্মসম্মানবোধ

আপনার সন্তানকে নিজেকে ভালবাসতে শেখার উপহার দিন। তাকে নিজের চোখে প্রিয় করে তুলুন। যে নিজেকে ভালোবেসে বড় হবে তার মধ্যে আত্মনির্ভরশীলতা, আত্মবিশ্বাস ও সঠিক মূল্যবোধের মত গুণাগুণ থাকবে।

সামাজিকতা

সন্তানের সামাজিকতার মনোভাব পুরোপুরি আপনার কাছ থেকে আসে। আপনি নিজে কতোটুকু সামাজিক তা থেকে আপনার সন্তান সামাজিকতা শেখে। কার সাথে কিভাবে আচরন করতে হবে, কথা বলতে হবে, বড়দের সাথে কিভাবে কথা বলতে হবে ইত্যাদি সে আপনাকে দেখেই শিখবে। আপনি নিজে সামাজিক আচার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করুন। সন্তানের মধ্যে দলবদ্ধভাবে কাজের মানসিকতাও আপনি নিজেকে উদাহরণ দিয়ে শেখাতে পারেন।

সততা

যে শিশু তার শৈশবকাল থেকে সত্য কথা বলার মূল্যায়ন কতোটুকু তা বোঝে সে বড় হয়ে সৎ পথে চলার দীক্ষা পায়। সততার মূল্যবোধে চলা মানুষ জীবনে অনেক সুখী হয় এই কথা তাকে ছোটবেলা থেকেই বোঝান। নিজেকে উদাহরন হিসেবে তার সামনে উপস্থাপন করুন।

খুশী থাকতে শেখান

আপনার সন্তানকে অল্প কিছুতে খুশী থাকার শিক্ষা তার পুরো জীবনকে সুখী রাখতে পারে। ছোট কিছু হলেও তার মূল্য ও সেই জিনিষটি কতোটুকু গুরুত্ব রাখে তা বুঝতে শেখান। তাকে তার যা আছে তার মধ্য থেকে খুশী খুঁজে নেয়া শেখান। ছোটখাটো জিনিষে খুশী খুঁজে পাওয়া মানুষ জীবনে সফল ও সুখী হয় এই কথা নিজের মাধ্যমে তুলে ধরুন।

বিশ্বাস আশা

আপনার সন্তানকে তার জীবনের ওপর বিশ্বাস ও আশা রাখতে শেখান। তার সামনে কোন হতাশামূলক কথা বলবেন না। জীবন নিয়ে বিতৃষ্ণামূলক কথা বলা থেকেও বিরত থাকুন। কোন কাজে বিফল হলে তা নিয়ে হতাশ না হয়ে তা বারবার করার দীক্ষা দিন। কোন কোন কাজ শুধুমাত্র পরিশ্রম ও বিশ্বাসের মাধ্যমে সফল হয় এই ধরনের উদাহরণ দিন। জীবনে চলার পথে সে নিজেকে আপনার শৈশবে দেয়া এই দীক্ষায় গড়ে নিতে পারবে।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায় জেনে নিন মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায়
এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণজেনে নিন যেভাবে এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করবেন।
বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেনজেনে নিন বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেন
বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারীবিস্তারিত পড়ুন বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারী
লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায় জেনে নিনবিস্তারিত পড়ুন লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায়
মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষকজেনে নিন কিভাবে মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষক
যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )জেনে নিন যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )
ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?জেনে নিন ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?
লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণবিস্তারিত পড়ুন লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণ
ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায়বিস্তারিত পড়ুন ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায় জেনে রাখুন
আরও ১৪৪৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি