পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

ফেসবুকে আসক্তি কমাতে "ডায়েট"

অনেকক্ষণ ধরে লাইনে দাড়িয়ে আছেন, ফোন বের করে আপনার ফেসবুক স্ট্যাটাস এ কয়টা লাইক পরল একটু দেখে নিলেন। জ্যামে আটকে আছেন ঘণ্টাব্যাপী, দিয়ে দিলেন একটা আক্ষেপ আর বিরক্তিভরা স্ট্যাটাস ঢাকা শহরের কখনই শেষ না হওয়া জ্যাম নিয়ে। বাসায় একা একা বোর হচ্ছেন, সাথে সাথে কম্পিউটার অন করে বসে গেলেন ফেসবুকে। বন্ধুদের সাথে আড্ডায় কোন ভালো রেস্টুরেন্টে গেলেন বা ঘুরতে যাচ্ছেন কয়দিনের জন্য কোন জায়গায়, ব্যাস দিয়ে দিলেন চেক ইন যা থেকে জানা যাবে কোথায় আছেন আপনি। এরকম ভাবেই ফেসবুক যা সোশ্যাল নেটওয়ার্ক হিসেবে পরিচিত আমাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করছে। ফেসবুক এখন আর শুধুমাত্র সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই, এখানে ভিডিও দেখা, গেইম খেলা, গান বা ছবি শেয়ারসহ আরও অনেকরকম কাজ করা যায়। তাই এই নতুন নতুন ফিচার যুক্ত হওয়ার সাথে সাথে মানুষের এর প্রতি আকর্ষণও যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে।

একটা সমীক্ষায় পাওয়া গেছে, এই আসক্তি অনেকসময় এলকোহল বা সিগারেট থেকেও বেশি হতে পারে। এই আসক্তি আপনার স্ট্রেস বাড়িয়ে আপনাকে দুশ্চিন্তা রাখতে পারে, আপনার সম্পর্ক খারাপ করতে পারে প্রিয় মানুষটির সাথে,আপনার পরিবারের সাথেও আপনার দূরত্ব বাড়ায়।

কেন এই আসক্তি

অনেকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, যারা সাধারণত একাকীত্বে ভোগে বা পড়ালেখা শেষ করার পর করার মতো কিছু থাকেনা তারাই ফেসবুকে বেশি সময় কাটায়। অজানা মানুষদের সাথে বন্ধুত্ব করে, অনেকে নিজের নাম বা ছবি বদলেও ফেসবুকে একাউন্ট খুলে অনেক অজানা অচেনা লোকের সাথে কথা বলে তার একাকীত্ব দূর করার জন্য। শেষ পর্যন্ত এর ফলটা খারাপ হতে পারে জানার পরও তারা জড়িয়ে পরে এই ভার্চুয়াল জগতে।

অনেকের মধ্যে আরেকটি ব্যাপার দেখা গেছে , যখন তারা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত থাকে তখন ইতিবাচক পোস্ট বা লেখা দেখার মধ্য দিয়ে নিজেকে সান্ত্বনা দেয়। অথবা এমন কোন মানুষের সাথে তার কষ্ট শেয়ার করতে চায় যার সাথে কথা বললে তার মন ভালো লাগবে, হতে পারে সে কোন বন্ধু বা অচেনা কেউ। একটা মানসিক প্রশান্তির আশায় তারা ফেসবুকে বসে।

কারো কারো মধ্যে হিংসাত্মক মনোভাবও কাজ করে যে তার পোস্টে কতোটা লাইক বা কমেন্টস আসলো আর অন্যদের পোস্টে কতোটা এটার একটা তুলনা করতে থাকে তারা সবসময়।

অনেকে তাদের প্রতিভা বা কাজের কদর ঠিকভাবে পায়না। এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সহজেই পরিচিতি বা প্রশংসা পাওয়া যায়। এমনকি কাজের ক্ষেত্র বা সুযোগও পায় অনেকে। তাই সবসময় আপডেট এবং যোগাযোগ রক্ষার জন্যও এই মাধ্যমে মানুষ এতোটা নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে।

অনেকের জন্মদিনে ফেসবুকে উইশ পেতে ভালো লাগে, দূরের কোন বন্ধুর মেসেজ পেতে ভালো লাগে, তাদের ছবি দেখতে ভালো লাগে। দূরের মানুষদের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগটা ধরে রাখার জন্য অনেকে ফেসবুকে আসে।

এখন কিছু মজার প্রশ্নের উত্তরের মাধ্যমে জেনে নিতে পারেন আপনারা আসলেই ফেসবুকে আসক্ত কিনা

  • আপনি কি ফেসবুক একাউন্ট ডি এক্টিভেট করার কিছুদিন পর আবারও এক্টিভেট করেন?
  • আপনার পড়ালেখা ও কাজে কি আপনি আগের থেকে কম মনোযোগী হয়ে পড়ছেন?
  • আপনার যখন মন খারাপ থাকে বা খুব আনন্দে থাকেন তখন কি মনে হয় ফেসবুকে থাকলে পারলে ভালো হতো?
  • আপনি কি বারবার চেক করছেন আপনার পোস্টে কয়টা লাইক বা কমেন্টস পড়লো?

যদি প্রশ্নগুলোর উত্তর হ্যাঁ হয় তাহলে আপনি ফেসবুক আসক্তিতে ভুগছেন।

ফেসবুক ডায়েট

হ্যাঁ, ঠিক ধরেছেন। ফেসবুক ডায়েটের কথাই বলছি।
আমরা যখন হঠাৎ মোটা হয়ে যাই বা ওজন অস্বাভিকভাবে বাড়তে থাকে তখন বুঝতে হবে খাবারের প্রতি আসক্তিটাই এর মূল কারন বা আমরা হয়তো চর্বি জাতীয় খাবার বেশি খাচ্ছি । এই অবস্থায় ওজন কমানোর জন্য আমরা ডায়েট করি। একইরকম ভাবে ফেসবুকে আসক্তি কমাতেও আমরা ফেসবুক ডায়েট করতে পারি কিছু ব্যাপার অনুসরণ করেঃ

  • ভার্চুয়াল দুনিয়া থেকে বের হয়ে সত্যিকারের দুনিয়াতে সত্যিকারের বন্ধুদের সাথে মিশুন, আড্ডা দিন, ঘুরতে যান।
  • নিজের পরিবারকে আরও বেশি সময় দিন। সারাদিন অফিসের কাজে ব্যাস্ত থাকলে অন্তত রাতে একসাথে কিছুক্ষণ বসে গল্প করুন, একসাথে রাতের খাবার খান।
  • আত্মীয়স্বজনদের খোঁজ ফেসবুকে না নিয়ে ফোন করুন বা বাসায় যেয়ে দেখা করে আসুন। এতে করে সম্পর্কটা আরও ভালো হবে এবং আপনারও ভালো লাগবে।
  • অবসরে ফেসবুকে বারবার না বসে গল্পের বই পড়ুন, ভালো সিনেমা দেখতে সিনেমা হলে যান বা বাসায় সবার সাথে বসে টিভি দেখতে পারেন।
  • গঠনমূলক কাজ করুন। হাতের কাজ শিখুন, নতুন রেসিপি চেষ্টা করুন, ভবিষ্যতে কাজে লাগতে পারে এমন কোন কিছুর চর্চা করুন।
  • দিনের শেষে কোন একটা নির্দিষ্ট সময়ে ফেসবুকে বসতে পারেন বারবার না বসে। এতে সময়ও অপচয় হবেনা এবং আপনিও নিয়ন্ত্রনে থাকবেন।
  • একটানা অনেকক্ষণ ফেসবুকে বসবেন না, তাহলে আরও একটু থাকি এরকম চিন্তা আসবে।
  • কোথাও ঘুরতে গেলে ফেসবুকে চেক ইন দেয়ার কথা চিন্তা না করে মন খুলে আপনার ঘোরার সময়টা উপভোগ করুন।
  • কোয়ালিটি সময় কাটান আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সাথে। একসাথে কফি খেতে যান, একসাথে ছুটির দিনে রান্না করুন,বাসায় বসেই দুজন দুই দলে ভাগ হয়ে প্লে স্টেশন এ গেইম খেলুন, গান গাইতে পারেন দুজনে, গান ছেড়ে দিয়ে নাচুন একসাথে, দূরে কোথাও গাড়ি নিয়ে ঘুরতে চলে যান আর সময়ের অভাবে তা সম্ভব না হলে কাছেই কোথাও রিকশা নিয়ে দুজন মিলে ঘুরে আসুন। এভাবে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়াটা ভালো থাকবে এবং সম্পর্কে একঘেয়েমি আসবে না।
  • একা থাকলে বাগান করুন বা গাছের পরিচর্যা করুন, কোন কিছু লিখতে বসে যান। এতে আপনার স্বকীয়তারও প্রকাশ ঘটবে।

ডিজিটাল গণ্ডি থেকে বের হয়ে এসে খোলা আকাশের নিচে দাড়িয়ে থেকে বুকভরে শ্বাস নিয়ে দেখুন তো কোনটা বেশি ভালো লাগছে আপনার! অস্পর্শ্য মোহের থেকে কাছের মানুষের স্পর্শটাই নিশ্চয়ই ভালো লাগবে।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায় জেনে নিন মুখ ও গলার কালো দাগ দূর করার ২টি কার্যকরী উপায়
এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণজেনে নিন যেভাবে এক নিমিষে লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করবেন।
বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেনজেনে নিন বুদ্ধিমান ও মেধাবী সন্তান পেতে যা করবেন
বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারীবিস্তারিত পড়ুন বিশেষ সময়ে যদি হঠাৎ এমন হয় তাহলে মনোবিদরা জানাচ্ছেন এক বিরল গুণের অধিকারী
লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায় জেনে নিনবিস্তারিত পড়ুন লিফট ছিঁড়ে গেলে বাঁচার উপায়
মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষকজেনে নিন কিভাবে মরণ খেলা ব্লু হোয়েল’র ফাঁদ থেকে ছাত্রকে প্রাণে বাঁচালেন স্কুল শিক্ষক
যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )জেনে নিন যেই ভিডিও গেম খেললেই নিশ্চিত মৃত্য (ব্লু হোয়েল )
ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?জেনে নিন ব্লু হোয়েল গেমটি কে কীভাবে তৈরি করেন?
লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণবিস্তারিত পড়ুন লেবু দিয়ে শরীরের যেকোন কালো দাগ দূর করুণ
ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায়বিস্তারিত পড়ুন ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার দারুণ কার্যকরী কিছু উপায় জেনে রাখুন
আরও ১৪৪৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি