পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

আবুল মাল আবদুল মুহিত

ভাষাসৈনিক আবুল মাল আবদুল মুহিত নবম জাতীয় সংসদের মাননীয় অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি সিলেট-১ আসন থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। একজন খ্যাতনামা অর্থনীতিবিদ ও লেখক হিসেবেও তার পরিচিতি রয়েছে।

 

জন্ম:

আবুল মাল আবদুল মুহিত ১৯৩৪ সালের ০৬ অক্টোবর সিলেট জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মের সময় সিলেটের নাম ছিলো শ্রীহট্ট।

 

শিক্ষাজীবন:

আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেটের এম.সি. কলেজ থেকে ১৯৫১ সালে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। পরবর্তীতে ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজী সাহিত্যে প্রথম শ্রেণিতে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। তার পরের অর্থাৎ ১৯৫৫ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় হতে একই বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া তিনি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.পি.এ. ডিগ্রি অর্জন করেন।

 

ব্যক্তিগত জীবন:

আবুল মাল আবদুল মুহিত এর স্ত্রীর নাম সৈয়দা সাবিহা মুহিত। তিনি একজন ডিজাইনার। তাদের সংসারে দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। সন্তানদের মধ্যে মেয়ে সামিয়া মুহিত একজন ব্যাংকার ও মুদ্রা নীতি খাতের একজন বিশেষজ্ঞ। আর বড় ছেলে শাহেদ মুহিত একজন বাস্তুকলাবিদ এবং ছোট ছেলে সামির মুহিম একজন শিক্ষক।

 

পেশাগত জীবন:

১৯৬০ সাল থেকে ১০৬৯ সাল পর্যন্ত আবুল মাল আবদুল মুহিত পাকিস্তান সিভিল সার্ভিস সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব ছিলেন। পরবর্তীতে ১৯৬৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত পাকিস্তান দূতাবাসে যোগ দেন। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ১৯৭২ সালে পরিকল্পনা কমিশনের সচিব হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৭৭ সালে অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বহি:সম্পদ বিভাগের সচিব হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেন। আবুল মাল আবদুল মুহিত ১৯৮১ সালে সরকারি চাকরীজীবন থেকে অবসর গ্রহণ করেন। অবসর গ্রহণের পর ১৯৮২-১৯৮৩ সালে হুসেনই মোহাম্মদ এরশাদ সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন। পেশাগত জীবনের বিভিন্ন সময়ে তিনি জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল, আইডিবি ও জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন।

 

মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ:

আবুল মাল আবদুল মুহিত সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেননি। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি ওয়াশিংটনে অবস্থিত পাকিস্তান দূতাবাসে কূটনীতিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হলে তিনি যুদ্ধের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে চাকরি থেকে পদত্যাগ করেন। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে গঠিত অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়াশিংটন দূতাবাসে ইকোনমিক কাউন্সেলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।  

 

লেখক আবুল মাল আবদুল মুহিত:

বর্ণাঢ্য কর্মজীবন, রাজনৈতিক জীবন সবকিছু ছাপিয়ে একজন লেখকও তিনি। এ পর্যন্ত তিনি ২১টি বই লিখেছেন। তার বইগুলো মূলত প্রশাসন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক। 

 

 

আপডেটের তারিখঃ ৯ জুন, ২০১৩ ইং

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
হুমায়ুন আহমেদবাংলা সাহিত্যাকাশের উজ্জ্বল নক্ষত্র
কাজী নজরুল ইসলামবাংলার জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি
রাজা রামমোহন রায়ঊনবিংশ শতাব্দীর বাংলার নবজাগরণের অন্যতম পথিকৃৎ
মৃণাল সেনবিখ্যাত বাঙালী চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্র নাট্যকার ও লেখক
বেবী মওদুদবিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখিকা
ড. মুহাম্মদ ইউনুসশান্তিতে নোবেল বিজয়ী বাংলাদেশী অর্থনীতিবিদ
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরবাংলা সাহিত্যের দিকপাল
নেলসন ম্যান্ডেলাদক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদ বিরোধী অবিসংবাদিত নেতা
ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়াজন্ম: ১৬ ফেব্রু. ১৯৪২ মৃত্যু: ৯ মে, ২০০৯
প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার১৯১১ সালের ৫ই মে জন্মগ্রহণ করেন
আরও ৩০ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি