পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

বাংলা নববর্ষ

বছর ঘুরে আবার আমাদের মাঝে ফিরে এলো বাঙালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। পুরাতনকে পেছনে ফেলে, জীর্ণতাকে দূরে ঠেলে নববর্ষের নতুন সূর্য আমাদের জন্য বয়ে নিয়ে আসে নতুন সম্ভাবনা। এদিন সকল ধর্ম-বর্ণ, শ্রেণি-পেশা, আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা সবাই সকল ভেদাভেদ ভুলে একসাথে মেতে উঠে নববর্ষ উদযাপনে। সমগ্র বাংলাদেশ যেন রূপ নেয় উৎসবের নগরীতে।

 

তবে আজ আমরা যে নববর্ষ উদযাপন করছি এর পেছনে কিছু ইতিহাস রয়েছে। ইতিহাস থেকে যতদূর জানা যায়, সম্রাট আকবরের আমলে বাংলা নববর্ষ পালন শুরু হয়। কৃষিকাজের সুবিধার্থে আকবর ১৫৮৪ খ্রিস্টাব্দের ১০ বা ১১ মার্চ বাংলা সন প্রবর্তন করেন। হিজরি চান্দ্রসন ও বাংলা সৌরসনকে ভিত্তি করে বাংলা সন প্রবর্তিত হয়। নতুন সনটি প্রথমে ফসলি সন নামে পরিচিত ছিল, পরে তা বঙ্গাব্দ নামে পরিচিত হয়।

 

ইতিহাস থেকে আরও জানা যায়, পৃথিবীর প্রাচীন উৎসবগুলোর মধ্যে নববর্ষ অন্যতম। প্রায় চার হাজার বছর পূর্বে ব্যবিলেনে নববর্ষ পালন করা হতো। হযরত ঈসা (আ)-এর জন্মের প্রায় ২০০০ বছর আগে বসন্ত শুরুর পর যেদিন আকাশে প্রথম নতুন চাঁদ উঠত সে দিনকে নতুন বর্ষের প্রথম দিন হিসেবে গণ্য করা হতো। বসন্তকে নতুন বছর হিসেবে বেছে নেয়ার কারণ ছিল, এ সময় মৌসুমের প্রথম ফসল বোনা হতো। ব্যাবিলনে নতুন বর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠান ১১ দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হতো। এ সময় প্রতিদিনই আলাদা রীতি অনুযায়ী অনুষ্ঠানসূচি তৈরি করা হতো। যার ফলে ১১ দিন ১১টি ভিন্ন ভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নতুন বর্ষকে বরণ করে নেয়া হতো।

 

নববর্ষে উদযাপিত অনুষ্ঠানগুলো:

নববর্ষ মানেই দলবেধে রাজপথে বেরিয়ে পড়া, হই-হুল্লোড় করে সারাটি দিন কাটিয়ে দেয়া। বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন নিয়ে মেলায় ঘুরে বেড়ানো, আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বেড়াতে যাওয়া, খাওয়া-দাওয়া ইত্যাদি। তবে পহেলা বৈশাখের সবচেয়ে প্রাচীন অনুষ্ঠান হল ‘হালখাতা মহরত’। ব্যবসায়ীদের কাছে নববর্ষের দিনটির তাৎপর্য অনেক। নতুন বছরে নতুন করে লাভ-লোকসানের খতিয়ান। পূর্বে নববর্ষের দিনে আরও একটি অনুষ্ঠান বেশ তাৎপর্যমন্ডিত ছিল। সেটি হলো নববর্ষের দিন ‘জমিতে হাল দেয়া’। সময়ের বিবর্তনে এই অনুষ্ঠানটি এখন আর তেমন চোখে পড়ে না। শহুরে নববর্ষের অনুষ্ঠানে যাত্রা, পালাগান, বাউল, কীর্তন এর আগের মতো চল না থাকলেও অনেক গ্রামাঞ্চলের সাধারণ মানুষের নববর্ষের অন্যতম অনুষ্ঠান এগুলো। নববর্ষে উদযাপিত অনুষ্ঠানগুলোর একটি অংশ দখল করে নিয়েছে খাবার-দাবার। সারা বছর আমরা পান্তা ভাতের ধারেকাছে সহজে ভিরতে না চাইলেও এই দিনটিতে সকলে নববর্ষের চিরাচরিত রীতি বজায় রাখার জন্য শখ করে হুমড়ি খেয়ে পড়ি পান্তা ভাত ও ইলিশ মাছের উপর। এছাড়া পাহাড়ি ও আদিবাসীদের মধ্যে প্রচলিত রয়েছে বৈসাবি বা বিজু মেলা। ত্রিপুরা আদিবাসীদের বৈস্যু, মারমাদের সাংগ্রাই, চাকমাদের বিজু’র আদ্যাক্ষর নিয়ে বৈসাবি নামের উৎপত্তি হয়েছে। সাঁওতাল ও গারোরাও বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে নববর্ষ উদযাপন করে থাকে। সাঁওতালরা সমাজে এদিন তীর-ধনুক নিয়ে জঙ্গলে শিকার করতে যাওয়ার রেওয়াজ প্রচলিত রয়েছে।

 

নববর্ষের নব বার্তা:

নববর্ষে মানুষের চিরন্তন অভিলাষ শান্তি ও স্বস্তিপূর্ণ আরেকটি বছর। এদিনে অতীতের দুঃখ-গ্লানি ধুয়ে মুছে নতুনভাবে জীবন শুরু করার স্বপ্ন রচনা করেন সবাই। সেই প্রাণাবেগই যেন ধরা পড়ে নববর্ষ পালনের বহুমাত্রিক আয়োজনে। সব কিছুর মূলে সেই একই বিষয়- শান্তিপূর্ণ জীবন আর সমৃদ্ধ আগামী। এ আকাঙ্ক্ষা বিশ্বজনীন, সর্বজনীন। যেন একটি ইচ্ছেই প্রতিভাত হাজারো পাণে – সুখ চাই, শান্তি চাই, জীবন সুখময় হোক, ঋদ্ধ হোক জাতির মনন, সংসার দিগন্তে দেখা দিক অমলিন সুবর্ণ রেখা- আগামী বসন্তের শেষ দিবসের মধ্যরাত নাগাদ। তারপর ফের সেই বৈশাখ আবাহন- এসো, এসো হে বৈশাখ।

 

নববর্ষের বিভিন্ন ধরনের শুভেচ্ছা বার্তা:

আমরা বাঙালিরা নববর্ষে একে অপরকে ‘শুভ নববর্ষ’ বলে শুভেচ্ছা বিনিময় করি। ইংরেজিতে বলা হয় ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’। এমনিভাবে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তাদের নিজস্ব ভাষায় নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করে থাকে।

  • আরবি : কুল আম আনতুম সালিমুন
  • জাপানিজ : আকেমাশিতে ওমেডেতু গোজাইমাসু
  • হিন্দি : নয়া সাল মোবারক
  • রাশিয়ান : এস নোভিম গুদুম
  • জার্মান : প্রোসিট নেউজার
  • চাইনিজ : চু সেন তান
  • ফ্রেঞ্চ : বন্নে আন্নি
  • ইতালিয়ান : বুয়োন কাপোডান্নো
  • ডাচ : গুল্লুকিগ নাইয়ো যার
  • সুইডিশ : গট নিট আর
  • স্প্যানিশ : ফেলিজ আনো নিউভো
  • উর্দু : খোশ আমদেদ নয়া সাল
  • পর্তুগিজ : ফেলিজ আনো নিউভো
  • ভিয়েতনামিজ : চুং চুক তান জুয়ান
  • টার্কিশ : ইয়েনি ইয়েলিনিজ কুটলু ওলসান

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
ইংরেজী নববর্ষ১ জানুয়ারী এই দিবসটি পালন করা হয়
মহান বিজয় দিবস১৬ই ডিসেম্বর এই দিবসটি পালন করা হয়
আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য দিবস২২ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস১৯ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব জাদুঘর দিবস১৮ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস১৭ই এপ্রিল এই দিবসটি পালন করা হয়
ঐতিহাসিক ফারাক্কা দিবস১৬ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব পরিবার দিবস১৫ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব মা দিবসমে মাসের ২য় রবিবার এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস৮ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
আরও ৪৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি