পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

অমর একুশে ফেব্রুয়ারি

ভাষা মনের ভাব প্রকাশের অন্যতম বাহন। মানুষ প্রধানত মাতৃভাষার মাধ্যমেই স্বাধীনভাবে মনের ভাব প্রকাশ করে থাকে। মা, মাতৃভাষার সাথে নাড়ির টান  সর্ম্পক অবিচ্ছেদ্য। আমরা বাঙালি ,বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। বিশ্বের প্রায় ৩০ কোটি মানুষের মাতৃভাষা বাংলা। মাইকেল মধুসূদন দত্ত , বঙ্কিমচন্দ্র, রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জীবনান্দ দাস, শরৎচন্দ্রসহ অসংখ্য সাহিত্যকর্মী ও ভাষাপ্রেমী মনীষীর কর্মপ্রয়াসে বাংলা ভাষা উন্নীত হয়েছে আন্তর্জাতিক মানে।

 

তবে এই বাংলা ভাষা এমনি এমনি আসেনি একথা আমরা সবাই কম-বেশি জানি। ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারী, বিকেলে তিনটা ২০ থেকে ৫০ মিনিট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবনের ঐতিহাসিক আমতলায় উপস্থিত হাজার হাজার উদ্দীপ্ত তরুণদের মধ্যে তুমুল উত্তেজনা চলছিল। রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাইব -এই দাবিতে এক অদ্ভুত চঞ্চলতা চলছিল। তারা সেইদিন পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর সব ধরনের নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে যুথবদ্ধ হয়ছিলেন। তারা সেদিন বজ্রদীপ্ত কন্ঠে ১৪৪ ধারা ভাংগার পক্ষে রায় দিয়েছিলেন। তার পর দলে দলে বিভক্ত হয়ে ছাত্রছাত্রীরা মিছিল বের করলে পুলিশ তাদের উপর লাঠিপেটা করে, কাদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে, অবশেষে গুলি করে হত্যা করে সালাম, বরকত, রফিক, শফিক, জব্বারসহ অরো নাম না জানা অনেককে। কিন্তু সেই নৃশংস হত্যাকান্ড অমিত প্রাণের কল্লোল থামাতে পারে নি। আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে গোটা শহরে, সারা দেশে। এর একদিন পর প্রথম শহীদদের স্মরণ করে ঢাকায় শহীদ মিনার তৈরী করা হয় যা পাক শাসকগোষ্ঠী ভেঙ্গে ফেলে।

 

এর পরবর্তী সময়ে বাংলা ভাষাকে পূর্ব পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে বহু আন্দোলন করতে হয়েছে এদেশের প্রতিবাদী মানুষকে। বহু আন্দোলন, বহু ত্যাগ-তিতীক্ষার বিনিময়ে অবশেষে ১৯৫৬ সালের ১৬ ই ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের এ্যাসেম্বলীতে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসাবে স্বীকৃতি প্রদান করে তা সংবিধানের অন্তর্গত করার জন্য প্রস্তাব উত্থাপিত হয়।  প্রাদেশিক প্রধানমন্ত্রী আবু হোসেন সরকার কর্তৃক শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন। ১৯৬৩ সালের ২১ শে ফেব্রুয়ারী শহীদ আবুল বরকতের মা হাসিনা বেগম কর্তৃক এই শহীদ মিনারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়  এবং ১৯৫৬ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান জাতীয় এসেম্বলী বাংলা এবং উর্দুকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা হিসাবে স্বীকৃতি দিয়ে সংবিধান পাশ করে।

 

১৯৯৯ সালে জাতিসংঘের শিক্ষা , বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থা (ইউনেস্কো) এর ৩১তম সম্মেলনে  বাংলাদেশের মহান একুশে ফেব্রুয়ারীকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এই ঘোষণার ফলে আমাদের একুশের গৌরবোজ্জল  ইতিহাস বিশ্ব দরবারে ছড়িয়ে  পড়ে। ২০০০ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি প্রথম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। আমাদের মত জাতিসংঘের ১৮৮টি সদস্য দেশেও উদযাপিত হয়ে থাকে  এই আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।  ইতিহাসের আন্তর্জাতিক পরিচিতি, বিশ্বময় বিস্তার আর উদযাপন যদি আমাদের ইতিহাসের মূল থেকে বিচ্চ্ছিন্ন করে ফেলে, তাহলে জাতি হিসেবে আমরা দিন দিন দেউলিয়া হয়ে পড়ব। ২১শে ফেব্রুয়ারী সারা বিশ্ব আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করলেও আমাদের কাছে ২১শে ফেব্রুয়ারি প্রথমত মহান শহীদ দিবস তারপর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

 

জিন্নাহর সেই কুখ্যাত ঘোষণা "উর্দু একমাত্র উর্দুই হবে পাকিস্থানের রাস্ট্রভাষা।

বাংলাকে রাস্ট্রভাষার মর্যাদা দেবার দাবিতে সচিবালয় অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল ১১ই মার্চ ১৯৪৮ সাল।

বায়ান্নর ৪ঠা ফেব্রুয়ারি ঢাকার নবাবপুর রোডে মিছিল।

এই সেই ঐতিহাসিক আমতলা যেখান থেকে ভাষা আন্দোলনের সুত্রপাত। শুধু ভাষা আন্দোলন নয়, আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনের অনেক ঐতিহাসিক ঘটনার সাক্ষি এই আমতলা ।

১৪৪ ধারা ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত, ২১শে ফেব্রুয়ারি ১৯৫২ সাল।

ছাত্ররা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করছে। ২১শে ফেব্রুয়ারি ১৯৫২ সাল ।

ভাষার দাবীতে আন্দোলনরত সাধারণ জনগণ।

১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারী সশস্ত্র অবস্থানে পুলিশ।

২২শে ফেব্রুয়ারি ১৯৫২ সালে শহিদদের স্মরণে ঢাকায় গায়েবানা জানাজা।

শহিদ মিনারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করছেন শহিদ আবুল বরকতের পরিবারের সদস্যরা।

প্রথম শহিদ মিনার। যা স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালিন সময়ে গুড়িয়ে দেয় পাকিস্থানি বাহিনী।

একুশে ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩ : পুরান ঢাকা কলেজ প্রাঙ্গনে ইডেন কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রীদের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের ছবি।

 

ভিডিও:

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি।

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
ইংরেজী নববর্ষ১ জানুয়ারী এই দিবসটি পালন করা হয়
মহান বিজয় দিবস১৬ই ডিসেম্বর এই দিবসটি পালন করা হয়
আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য দিবস২২ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস১৯ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব জাদুঘর দিবস১৮ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস১৭ই এপ্রিল এই দিবসটি পালন করা হয়
ঐতিহাসিক ফারাক্কা দিবস১৬ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব পরিবার দিবস১৫ই মে এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব মা দিবসমে মাসের ২য় রবিবার এই দিবসটি পালন করা হয়
বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস৮ মে এই দিবসটি পালন করা হয়
আরও ৪৩ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি