পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

মদিনায় মসজিদে নববীর দোয়া কবুলের স্থানসমূহ

মদিনা নামটি মুসলিম হৃদয়ে প্রেম-ভালোবাসার ঝড় তোলে। বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আশেকগণ মদিনা জিয়ারাতে জন্য উদগ্রীব থাকে। তাইতো রচিত হয়েছে অসংখ্য ইসলামি গাণ, কবিতা। এমনকি যারা ইসলামের পরিপূর্ণ বিধান মানতে পারে না বা মানে না; তারাও মদিনার নাম শুনলে আবেগ ভালোবাসায় জারি-গাণ তৈরি করতে ভুল করে না। সবারই চাওয়া মদিনায় যাওয়া। বিশ্বনবীর রওজা জিয়ারাত করা।

মনিদায় মসজিদে নববীর অন্তর্গত অনেক অংশ ও স্থাপনা বিভিন্ন কারণে মর্যাদা লাভ করেছে। সে স্থানগুলোতে দোয়া করলে আল্লাহ তাআলা দোয়া কবুল করেন। তাই হজ ও ওমরা পালনকারীদের জন্য মসজিদে নববীর দোয়া কবুলের ফজিলতপূর্ণ ইবাদাতের স্থানগুলোর পরিচয় সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো-

রিয়াজুল জান্নাহ
বিশ্বনবীর হুজরা মোবারক বা মিম্বারের পাশের জায়গাটি রিয়াজুল জান্নাহ বা বেহেশতের বাগান হিসেবে পরিচিত। এ স্থানে নামাজ আদায়ের বিশেষ ফজিলত রয়েছে। মসজদে নববীর কার্পেট লাল রংয়ের হলেও রিয়াজুল জান্নাহ অংশের কার্পেটের রং সাদা।

মসজিদে নববীর ভেতরে কয়েকটি স্তম্ভ রয়েছে, সেগুলোকে রহমতের স্তম্ভ বা খুঁটি বলা হয়। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের তৈরি মসজিদে খেজুর গাছের খুঁটিগুলোর স্থলে উসমানী সুলতান আবদুল মাজিদ পাকা স্তম্ভ নির্মাণ করেন। এগুলোর গায়ে মর্মর পাথর বসানো এবং স্বর্ণের কারুকাজ করা । প্রথম কাতারে ৪টি স্তম্ভের লাল পাথরের এবং পার্থক্য করার সুবিধার জন্য সেগুলোর গায়ে নাম লেখা রয়েছে।

উস্তুওয়ানা হান্নানা (সুবাস স্তম্ভ)
মিম্বারে নববীর ডান পাশে খেজুরগাছের গুঁড়ির স্থানে নির্মিত স্তম্ভের নাম উস্তুওয়ানা হান্নানা বা সুবাস স্তম্ভ। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মিম্বার স্থানান্তরের সময় এ গুঁড়িটি বিশ্বনবীর ভালোবাসায় উঁচু স্বরে কেঁদে উঠেছিল।

উস্তুওয়ানা সারির
এখানে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ই’তিকাফ করতেন এবং রাতে আরামের জন্য তাঁর বিছানা এখানে স্থাপন করা হতো। স্তম্ভটি হুজরা শরিফের পশ্চিম পাশে জালি মোবারকের সঙ্গে রয়েছে।

উস্তুওয়ানা উফুদ
বিশ্বনবীর সঙ্গে দেখা করার জন্য বাইরের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিনিধিদল আসতেন। আগত প্রতিনিধদল এখানে বসে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে ইসলাম গ্রহণ করতেন এবং এখানে বসেই কথা বলতেন। এ স্তম্ভটিও জালি মোবারকের সঙ্গে রয়েছে।

উস্তুওয়ানা আয়িশা (আয়িশা স্তম্ভ)
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আমার মসজিদে এমন একটি জায়গা রয়েছে, লোকজন যদি সেখানে নামাজ পড়ার ফজিলত জানত, তাহলে সেখানে স্থান পাওয়ার জন্য প্রতিযোগিতা করত।’ স্থানটি চিহ্নিত করার জন্য সাহাবায়ে কিরাম বিশ্বনবীর জীবদ্দশায় চেষ্টা করতেন।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ইন্তেকালের পর হজরত আয়িশা রাদিয়াল্লাহু আনহা তাঁর ভাগ্নে হজরত আবদুল্লাহ ইবনে যুবাইর রাদিয়াল্লাহু আনহুকে সে জায়গাটি চিনিয়ে দেন। এটিই সেই স্তম্ভ। এই স্তম্ভটি উস্তুওয়ানা উফুদের পশ্চিম পাশে রওজায়ে জান্নাতের ভেতর।

উস্তুওয়ানা আবু লুবাবা (তওবা স্তম্ভ)
একটি ভুল করার পর হজরত আবু লুবাবা রাদিয়াল্লাহু আনহু নিজেকে এই স্তম্ভের সঙ্গে বেঁধে বলেছিলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজে এ বাঁধন খুলে না দেবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত আমি এর সঙ্গে বাঁধা থাকব।’

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছিলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত আমাকে আল্লাহ আদেশ না করবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত খুলব না।’ এভাবে দীর্ঘ ৫০ দিন পর হজরত আবু লুবাবা রাদিয়াল্লাহু আনহুর তাওবা কবুল হয়। অতঃপর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজ হাতে তাঁর বাঁধন খুলে দিলেন। এটি উস্তুওয়ানা উফুদের পশ্চিম পাশে রওজায়ে জান্নাতের ভেতর অবস্থিত।

উস্তুওয়ানা জিবরাইল
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট ফেরেশতা হজরত জিবরিল আলাইহিস সালাম যখনই হজরত দাহিয়াতুল কালবি রাদিয়াল্লাহু আনহুর আকৃতি ধারণ করে ওহি নিয়ে আসতেন, তখন অধিকাংশ সময় তাঁকে এখানেই উপবিষ্ট দেখা যেত।

মিহরাবে নববি
যে মিম্বারের ডান পাশে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দাড়াতেন। ভিড় না থাকলে মাকরূহ সময় ব্যতিত কাউকে কষ্ট না দিয়ে এখানে নফল নামাজ আদায় করুন। নিজে নামাজ পড়ার পাশাপাশি অন্যকেও এ স্থানে নামাজ আদায়ের সুযোগ করে দিন।

জান্নাতুল বাকি
‘জান্নাতুল বাকি’নামক গোরস্থানটি মসজিদে নববীর পাশেই অবস্থিত। এখানে হজরত ফাতেমা রাদিয়াল্লাহু আনহা, হজরত ওসমান রাদিয়াল্লাহু আনহুসহ অগণিত সাহাবায়ে কিরামকে দাফন করা হয়েছে। প্রতিনিয়ত এর এক পাশে নতুন নতুন কবর হচ্ছে। এ কবরগুলোকে ‍শুধু এক খণ্ড পাথর দ্বারা চিহ্নিত করে রাখা হয়।

আল্লাহ তাআলা হজ ও ওমরা পালনকারীদের এ স্থানসমূহে ইবাদাত-বন্দেগি করার তাওফিক দান করুন। সমগ্র মুসলিম উম্মাহকে এ সকল স্থান জিয়ারাত করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
যখন আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হতো এবং ঝড়ো বাতাস বইত; তখন রাসুলুল্লাহ (সা.) যা বলতেনবিস্তারিত জানুন যখন আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হতো এবং ঝড়ো বাতাস বইত; তখন রাসুলুল্লাহ (সা.) কি বলতেন
না দেখেই বিয়ে: অতঃপর বাসরঘরে যা দেখলেন যুবক!বিস্তারিত জানুন না দেখেই বিয়ে: অতঃপর বাসরঘরে যা দেখলেন যুবক!
আল্লাহ তা’য়ালা মদকে তিনটি পর্যায়ে হারাম ঘোষনা করেনবিস্তারিত জেনে নিন আল্লাহ তা’য়ালা মদকে তিনটি পর্যায়ে হারাম ঘোষনা করেন
জাকাতের অর্থ দেয়া যাবে যাদেরজাকাতের অর্থ দেয়া যাবে যাদের সম্পর্কে
সকাল-সন্ধ্যায় যে দোয়া পড়তেন প্রিয়নবিসকাল-সন্ধ্যায় যে দোয়া পড়তেন প্রিয়নবি সম্পর্কে
রমজানের অন্যতম শিক্ষা ‘জামাআতে নামাজ আদায়’রমজানের অন্যতম শিক্ষা ‘জামাআতে নামাজ আদায়’ সম্পর্কে
জুমআর নামাজ তরক করা মারাত্মক গোনাহজুমআর নামাজ তরক করা মারাত্মক গোনাহ সম্পর্কে
রমজানের পর শাওয়ালের ৬ রোজার প্রয়োজনীয়তারমজানের পর শাওয়ালের ৬ রোজার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে
লাইলাতুল কদর : যেভাবে কাটাবেন আজকের রাতলাইলাতুল কদর : যেভাবে কাটাবেন আজকের রাত সম্পর্কে
রমজানের শেষ দিনগুলোর বিশেষ আমলরমজানের শেষ দিনগুলোর বিশেষ আমল সম্পর্কে
আরও ৬৪৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি