পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

কুরআনসহ সব আসমানি গ্রন্থের ওপর বিশ্বাসের গুরুত্ব

ঈমান হলো এই যে, আল্লাহ তাআলা কর্তৃক প্রেরিত সকল নবী রাসুলের ওপর অবতীর্ণ ধর্মগ্রন্থের ওপর বিশ্বাস রাখা। কোনো আসমানি কিতাব ও নবী-রাসুলকে অস্বীকার না করা। কোনো আসমানি কিতাব বা নবীকে অস্বীকার করা আবার কাউকে মেনে নেয়া এবং নবী-রাসুল ও আসমানি কিতাবের মধ্যে পার্থক্য সূচিত করা ইসলামে বৈধ নয়। প্রত্যেক নবী-রাসুল ও আসমানি কিতাবের প্রতিই বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে।
 
আর আমল করতে হবে শুধুমাত্র কুরআনের ওপর। কেননা পূর্ববর্তী ধর্মাদর্শগুলো অবিকৃত অবস্থায় নেই এবং কুরআন নাজিলের মাধ্যমে পূর্ববর্তী সব গ্রন্থের বিধানকে রহিত করা হয়েছে। কুরআনসহ পূর্ববর্তী নবী-রাসুল ও আসমানি কিতাবের ওপর বিশ্বাস সংক্রান্ত বিষয়ে আল্লাহ তাআলা বলেন-
‘তোমরা বল, আমরা তো আল্লাহর ওপর ঈমান এনেছি এবং ঈমান এনেছি আল্লাহ তাআলা আমাদের ওপর যা নাজিল করেছেন তার ওপর; (আমাদের আগে হজরত) ইবরাহিম, ইসমাইল, ইসহাক, ইয়াকুব (আলাইহিস সালাম) ও তাদের (পরবর্তী) সন্তানদের ওপর যা কিছু নাজিল করা হয়েছে সে সবও (আমরা মানি, তাছাড়া হজরত) মুসা, ঈসা (আলাইহিস সালাম) সহ সব নবীকে তাদের মালিকের পক্ষ থেকে যা কিছু দেয়া হয়েছে তার ওপরও আমরা ঈমান এনেছি, আমরা এদের কারো মধ্যেই কোনো তারতম্য করি না, আমরা তো হচ্ছি আল্লাহ তাআলা নিকট আত্মসমর্পণকারী (বান্দা)।’ (সুরা বাঁকারা : আয়াত ১৩৬)
 
এ আয়াতে আল্লাহ তাআলা হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি অ্যা সাল্লামের ওপর যা অবতীর্ণ হয়েছে তার ওপর যেন তারা বিস্তৃতভাবে বিশ্বাস স্থান করে পাশাপাশি পূর্ববর্তী নবীদের ওপর যা অবতীর্ণ হয়েছে সেগুলোকে সংক্ষিপ্তাকারে বিশ্বাস স্থাপন করে। কিন্তু আমল হবে শুধুমাত্র কুরআনুল কারিমের ওপর।
 
পূর্ববর্তী নবীদের কারো নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং অন্যান্যদের সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরা হয়েছে। এবং আল্লাহ তাআলা বলেছেন, কেউ যেন পূর্ববর্তী নবীদের মধ্যে প্রভেদ সৃষ্টি না করে। কাউকে মানবে আর কাউকে বিশ্বাস করবে না এমনটি করা ঠিক নয়।
 
এমনটি করার অভ্যাস পূর্ববর্তীদের মধ্যে ছিল। ইয়াহুদিরা হজরত ঈসা আলাইহিস সালামকে মানতো, খ্রিস্টানরা হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি অ্যা সাল্লামকে মানতো না, আবার হিজাজের আরববরা হজরত মুসা, ঈসা ও হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি অ্যা সাল্লাম এ তিনজনকেই অস্বীকার করতো। এদের সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা অন্যত্র বলেছেন, ‘এরা নিশ্চিত রূপেই কাফির।’ (সুরা নিসা : আয়াত ১৫১)
 
পক্ষান্তরে যারা ইসলামকে জীবন-বিধান হিসেবে গ্রহণ করেছে। তারা এমনটি করতে পারে না। কারণ তারা আল্লাহ তাআলার নিকট পরিপূর্ণভাবে আত্মসমর্পন করেছে।
 
আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তাঁর সকল বিধি-নিষেধ পালন করে খাঁটি মুসলিমদের অন্তর্ভূক্ত হওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।
 
 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
যখন আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হতো এবং ঝড়ো বাতাস বইত; তখন রাসুলুল্লাহ (সা.) যা বলতেনবিস্তারিত জানুন যখন আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হতো এবং ঝড়ো বাতাস বইত; তখন রাসুলুল্লাহ (সা.) কি বলতেন
না দেখেই বিয়ে: অতঃপর বাসরঘরে যা দেখলেন যুবক!বিস্তারিত জানুন না দেখেই বিয়ে: অতঃপর বাসরঘরে যা দেখলেন যুবক!
আল্লাহ তা’য়ালা মদকে তিনটি পর্যায়ে হারাম ঘোষনা করেনবিস্তারিত জেনে নিন আল্লাহ তা’য়ালা মদকে তিনটি পর্যায়ে হারাম ঘোষনা করেন
জাকাতের অর্থ দেয়া যাবে যাদেরজাকাতের অর্থ দেয়া যাবে যাদের সম্পর্কে
সকাল-সন্ধ্যায় যে দোয়া পড়তেন প্রিয়নবিসকাল-সন্ধ্যায় যে দোয়া পড়তেন প্রিয়নবি সম্পর্কে
রমজানের অন্যতম শিক্ষা ‘জামাআতে নামাজ আদায়’রমজানের অন্যতম শিক্ষা ‘জামাআতে নামাজ আদায়’ সম্পর্কে
জুমআর নামাজ তরক করা মারাত্মক গোনাহজুমআর নামাজ তরক করা মারাত্মক গোনাহ সম্পর্কে
রমজানের পর শাওয়ালের ৬ রোজার প্রয়োজনীয়তারমজানের পর শাওয়ালের ৬ রোজার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে
লাইলাতুল কদর : যেভাবে কাটাবেন আজকের রাতলাইলাতুল কদর : যেভাবে কাটাবেন আজকের রাত সম্পর্কে
রমজানের শেষ দিনগুলোর বিশেষ আমলরমজানের শেষ দিনগুলোর বিশেষ আমল সম্পর্কে
আরও ৬৪৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি