পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

মেরিন ক্যাম্পাস (মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি কোচিং)

মেরিন ক্যাম্পাস বাংলাদেশের একমাত্র মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি কোচিং যা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের দ্বারা পরিচালিত হয়। এখানে বুয়েট এবং এক্স-ক্যাডেট ছাত্র-ছাত্রীদের দ্বারা ক্লাস নেয়া হয়। প্রত্যেক ব্যাচে সর্বোচ্চ ২৫-৩০ জন ছাত্র-ছাত্রী নেওয়া হয়। এখানে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির পাশাপাশি ফর্ম পূরন, ফর্ম জমা, সিটিং এরেঞ্জমেন্ট ইত্যাদি বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করা হয়ে থাকে। 

 

ঠিকানা এবং অবস্থান

মেরিন ক্যাম্পাস

প্রধান কার্যালয়

শাখা অফিসগুলো

৭৯ গ্রীণ ভিউ সুপার মার্কেট, ফার্মগেট, ঢাকা ১২১৫।

ইউসিসি ক্যাম্পাস ৩ এর (নীচ তলা)

ষ্টেশনরোড, রংপুর। বনশ্রী, রামপুরা, ঢাকা, ময়মনসিংহ (প্রস্তাবিত), পাবনা (প্রস্তাবিত) এবং যশোর (প্রস্তাবিত)।

মোবাইল: ০১৯১৬-৯৯৩৫৬৩, ০১৬৭৮-১৩৯৬৮৮, ০১৮২৫-৫১৬৫৬৫

 

কোর্স ফি

ক্রমিক নং

কোর্সের নাম

কোর্স ফি

০১.

মেরিন একাডেমী

৮৫০০.০০

০২.

মেরিন ফিশারিজ

৭৫০০.০০

০৩.

মেরিন + মেরিন ফিশারিজ

১১,৫০০.০০

 

 

ক্লাস সময়

সকাল ১০টি থেকে দুপুর ১২টা

দুপুর ১২ টা থেকে বেলা ২টা

বেলা ২টি থেকে বিকাল ৪টা

 

  • সপ্তাহে ৩ দিন ক্লাস ও একদিন পরীক্ষা নেওয়া হয়ে থাকে।
  • শনি, সোম, বুধ, রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতিবার এভাবে ক্লাস নেওয়া হয়ে থাকে। প্রতি শুক্রবার শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া হয়ে থাকে।

 

মেরিন ক্যাম্পাস যেসকল একাডেমী নিয়ে কাজ করে

মেরিন ক্যাম্পাস মেরিন একাডেমী, মেরিন ফিশারিজ একাডেমী, লেদার টেকনোলজী এবং টেক্সটাই ইঞ্জিনিয়ারিং এ ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কাজ করে থাকে। নিম্নে প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচিত তুলে ধরা হলো:

 

মেরিন একাডেমী

১৯৬২ সালে কর্ণফুলী নদীর পূর্ব-পার্শ্বে পাহাড়ের পাদদেশে প্রায় ১০০ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত হয় মেরিন একাডেমী। ১৯৮৯ সালে ওয়ার্ল্ড মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি, মালমো, সুইডেন মেরিন একাডেমীকে তাদের নিজস্ব শাখা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। মেরিন একাডেমীর ডিপার্টমেন্ট ২টি।

নটিক্যাল ডিপার্টমেন্ট

ইঞ্জিনীয়ারিং ডিপার্টমেন্ট

মেরিন প্রফেশনে নটিক্যাল এমন একটি শাখা যাতে রয়েছে মেরিন নেভিগেশন, এ্যাডমিনিষ্ট্রেশন, পোর্ট ম্যানেজমেন্ট এবং জাহাজের সকল দায়-দায়িত্ব যা নটিক্যাল অফিসারদের আওতায়। দু’ বছর সফলতার সাথে প্রশিক্ষণ শেষে ক্রমান্বয়ে প্রমোশন ভিত্তিক ডেস্ক ক্যাডেট. অফিসার, ক্যাপ্টেন (মাস্টার) হিসেবে পদ দেওয়া হয়।

বিশ্বজুড়ে প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নি:সন্দেহে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং সবার উপরে যা বলার অপেক্ষা রাখে না। অনেকেরই ভ্রান্ত ধারণা, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারদের বেশিরভাগ সময়ই জাহাজের মধ্যে কাটাতে হয়। কিন্তু সত্য হলো, জাহাজের চেয়ে স্থলভূমিতেই তাদের জব ফ্যাসিলিটি অনেক। এরা সি-পোর্ট, ওয়ার্ক, ড্রাই ডক ইত্যাদি সেক্টরগুলোতে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন। সফলতার সহিত দু’ বছর প্রশিক্ষণ শেষে ক্রমান্বয়ে প্রমোশন ভিত্তিক ক্যাডেট ইঞ্জিনিয়ার এবং চীফ ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে পদ দেওয়া হয়।

 

 

মেরিন ভর্তির যোগ্যতা

শিক্ষাগত যোগ্যতা

শারীরিক যোগ্যতা

নির্বাচন পদ্ধতি

বিজ্ঞান শাখা থেকে এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ২.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং গণিত পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ২.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং গণিত থাকতে হবে। পরীক্ষার্থীরাও অংশগ্রহণ করতে পারবে।

উচ্চতা ৫’৪” (ন্যূনতম), ওজন ৫০ কেজি, বুকের মাপ ৩০”, বয়স ২১ বছর (সর্বোচ্চ)।

লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে ক্যাডেট নির্বাচিত করা হয়।

 

মেরিন একাডেমীতে ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি

লিখিত

মৌখিক ও শারীরিক

৩০০ নম্বরের এই পরীক্ষায় বিষয়গুলো হলো: পদার্থ বিজ্ঞান ১০০, গণিত ১০০ ও ইংরেজী ১০০। এই পরীক্ষায় (বিশেষ করে পদার্থ বিজ্ঞান ও গণিত বিষয়ে) এইচএসসি পরীক্ষার সিলেবাস অনুসরন করা হয়। সর্বোচ্চ ১০ গাণিতিক সমস্যার সমাধান দিতে হয়। ইংরেজী পরীক্ষাটি হয় গ্রামার ভিত্তিক।

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ১০০ নম্বরের ভাইভা পরীক্ষায় অবতীর্ণ হতে হয়। ভাইভা পরীক্ষাগুলো ৩টি ধাপে বিভক্ত। ধাপগুলো হলো: (০১) শারীরিক পরীক্ষা ও সাঁতার; (০২) মৌখিক পরীক্ষা এবং (০৩) চূড়ান্ত মেডিকেল পরীক্ষা।

 

মেরিন ফিশারিজ একাডেমী

বাংলাদেশের মত্স্য জাহাজে দক্ষ জনশক্তির প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধিতে ১৯৭৩ সালে চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠিত হয় মেরিন ফিশারিজ একাডেমী। এ যাবৎ এখানে ৩২টি ব্যাচের ক্যাডেটবৃন্দ যোগদান করেছেন। মেরিন ফিশারিজ একাডেমী থেকে ক্যাডেটরা পাশ করে যে শুধু বাংলাদেশের জাহাজগুলোতে কাজ করে তা নয়, তারা দেশে-বিদেশে সুনামের সাথে কাজ করছে। একাডেমীর বিষয়গুলো হলো নটিক্যাল বিভাগ, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ।

 

শিক্ষাগত যোগ্যতা (মেরিন ফিশারিজ একাডেমী)

  • নটিক্যাল এবং মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ: মাধ্যমিক (বিজ্ঞান) বা ও লেভেল (গণিত ও পদার্থসহ) এবং উচ্চ মাধ্যমিক (বিজ্ঞান) বা এ লেভেল (গণিত ও পদার্থ সহ) এবং সমমানের পরীক্ষাসমূহে নূন্যতম জিপিএ ২.৫০ থাকতে হবে। উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই গণিত থাকতে হবে।
  • মেরিন ফিশারিজ বিভাগ: মাধ্যমিক (বিজ্ঞান) বা ও লেভেল (জীববিদ্যা ও রসায়নসহ) এবং উচ্চ মাধ্যমিক (বিজ্ঞান) বা এ লেভেল (জীববিদ্যা ও রসায়নসহ) এবং সমমানের পরীক্ষাসমূহে নূন্যতম জিপিএ ২.৫০ থাকতে হবে। উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় অবশ্যই জীববিদ্যা থাকতে হবে।
  • বয়স: সর্বোচ্চ ২১ বছর। শারীরিক মান (ন্যূনতম): উত্তম গঠন ও সুস্বাস্থ্য। সর্বনিম্ন উচ্চতা: ১৬২.৫ সেমি (পুরুষ) এবং ১৫৫ সেমি (মহিলা), দৃষ্টি শক্তি: নটিক্যাল ও মেরিন ফিশারিজ বিভাগ: ৬/৬, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ: ৬/১২, স্বাভাবিক কালার ভিশন। সাঁতার: সাঁতার জানা আবশ্যক। বৈবাহিক অবস্থা: সাধারনত অবিবাহিত মহিলা ও পুরুষ এবং বাংলাদেশের নাগরিক।

 

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে যে শিল্প থেকে তা হল গার্মেন্ট্স শিল্প। পড়াশুনা ও গবেষনার জন্য ঢাকার তেজগাঁওয়ে প্রতিষ্ঠা করা হয় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ। এছাড়া পাবনা, নোয়াখালি, দিনাজপুর এবং বরিশালেও প্রতিষ্ঠা করা হয় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ। ভর্তির জন্য বিষয় ভিত্তিক নম্বর সমূহ নিম্নরূপ: পদার্থ ৬০, গণিত ৬০, ইংরেজী ২০ এবং রসায়ন ৬০। মোট নম্বর ২০০।

 

লেদার টেকনোলজী

চামড়াজাত পণ্য উত্পাদন এবং রপ্তানী শিল্পে উন্নতি সাধন এবং গবেষনার জন্য ঢাকার হাজারীবাগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ কলেজ অব লেদার টেকনোলজী। ভর্তির জন্য বিষয় ভিত্তিক নম্বর সমূহ নিম্নরূপ: পদার্থ ৪৫, গণিত ৪৫, ইংরেজী ২০ এবং রসায়ন ৯০। মোট নম্বর ২০০।

 

কেন মেরিনে ভর্তি হবেন

  • মাত্র ২ বছরের কোর্স শেষে ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রী লাভ।
  • একাডেমীতে থাকা অবস্থায় চাকুরীর নিশ্চয়তা।
  • ২ বছর ক্যাডেট লাইফ শেষে চাকুরীর শুরুতে মাসিক বেতন সর্বনিম্ন ৪০ হাজার টাকা।
  • ৩/৪ বছর চাকুরী করলেই মাসে কমপক্ষে ২-৩ লক্ষ টাকা বেতন পাওয়ার নিশ্চয়তা।
  • মেরিন ভর্তি পরীক্ষায় এইচএসসি এবং এসএসসি পরীক্ষার জিপিএ যোগ হয় না।

 

মেরিন ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্রসমূহ

ঢাকা

ঢাকা কলেজ

চট্টগ্রাম

সরকারী কমার্স কলেজ

রাজশাহী

টিচার্স ট্রেনীং কলেজ

খুলনা

আযম খান কমার্স কলেজ

সিলেট

এম সি কলেজ

বরিশাল

সরকারী বি এম কলেজ

 

মেরিন ক্যাম্পাসের লেকচার শীট

  • প্রতিটি ক্লাসের সাথে থাকছে নির্ভূল ও প্রয়োজনীয় তথ্য সমৃদ্ধ লেকচার শীট। এতে রয়েছে এইচএসসি এর টেক্সট বই উপযোগী প্রশ্ন সমৃদ্ধ তথ্য। প্রতিটি লেকচার শীট ক্লাশের পূর্বেই প্রদান করা হয়।

 

ক্লাশ (মেরিন ক্যাম্পাস)

বিষয়

ক্লাশ সংখ্যা

এসাইনমেন্ট

ক্লাশ পরীক্ষা

সাপ্তাহিক পরীক্ষা

বিষয় ভিত্তিক পরীক্ষা

পদার্থ

১২

১২

১২

গণিত

১২

১২

১২

ইংরেজী

৮+২

রসায়ন

১২

১২

১২

সল্ভ ক্লাশ

--

--

--

--

মোট

৫৪

৪৪

৪৪

২০

২০

 

পরীক্ষা পদ্ধতি (মেরিন ক্যাম্পাস)

  • চান্স পাওয়া এবং ভাল প্রস্তুতির জন্য পরীক্ষার কোন বিকল্প নেই।
  • সপ্তাহের শেষে তিনটি বিষয়ের পরে একটি করে সাপ্তাহিক পরীক্ষা নেওয়া হয়।
  • সিলেবাস সমাপ্তিতে বিষয় ভিত্তিক পরীক্ষা নেওয়া হয় ৫টি করে।
  • চূড়ান্ত প্রস্তুতির এবং ভর্তি পরীক্ষার আদলে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

 

মডেল টেস্টের সূচী

বিষয়

প্রথম পত্র

দ্বিতীয় পত্র

প্রথম+দ্বিতীয় পত্র

মোট

পদার্থ

০২

০২‌

০২

০৬

গণিত

০২

০২‌

০২

০৬

ইংরেজী

সম্পূর্ণ সিলেবাস

রসায়ন

০২

০২‌

০২

০৬

পূর্ণাঙ্গ মডেল টেস্ট

পূর্ণাঙ্গ সিলেবাস

০৩

সর্বমোট

২৭

 

বিবিধ

  • প্রতি ক্লাসে শীতাতপ নিয়ন্ত্রনের ব্যবস্থা রয়েছে।
  • ছেলে ও মেয়েদের জন্য আলাদা টয়লেট ব্যবস্থা রয়েছে।
  • বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা রয়েছে।  

(আপলোডের তারিখ : ২২/০৬/২০১২)

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
সাইফুরস ন্যাচারাল স্পোকেন কোর্সমোহাম্মদপুর, লালমাটিয়া
এফ এম ইনষ্টিটিউটতেজগাঁও, ফার্মগেট
ক্রিকেট একাডেমিধানমন্ডি, ধানমন্ডি
ইউনিভার্সিটি এ্যাডমিশন কেয়ারতেজগাঁও, গ্রীন রোড
মোডাস ইংলিশ মিডিয়াম কোচিংপল্টন, শান্তিনগর
বিজয় কোরিয়ান ল্যাংগুয়েজ সেন্টারতেজগাঁও, গ্রীন রোড
ইউ পয়েন্ট বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিংতেজগাঁও, ফার্মগেট
মেরিন অ্যাডমিশন কেয়ারতেজগাঁও, ফার্মগেট
কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীকলাবাগান, কলাবাগান
কনক্রিট কোচিং সেন্টার ধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আরও ৫৬ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি