পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

টাইটানিক মেরিন এ্যাডমিশন গাইডলাইন

মেরিন একাডেমীর ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট সিস্টেমে (১৫ জনকে ) পড়ানো হয়  টাইটানিক মেরিন এ্যাডমিশন গাইডলাইনে। এই গাইডলাইনে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করতে প্রস্তুত করে তোলা হয়।  

 

প্রধান কার্যালয়

সেন্টার পয়েন্ট কনকর্ড (১০তলা ) ফার্মগেট,ঢাকা-১২১২।
ফোনঃ +৮৮-০১৬৭১৬১৭৭৩০, ০১৯২৩-২৯৭৪৯৮, ০১৭২৩-১৬৩৯০৯।
 

 

অন্য শাখাঃ

  • মৌচাক মোড়  
  • ফোন: +৮৮-০১৯১৪৩০২৭৩৮

     

প্রোগ্রাম ও ফিস
 

প্রোগ্রামের নাম

কোর্স ফিস

মেরিন একাডেমী এডমিশন প্রোগ্রাম

১০,০০০ টাকা।
 

মেরিন ফিসারীজ একাডেমী এডমিশন প্রোগ্রাম

১০,০০০ টাকা।



 

মেরিনে ভর্তির যোগ্যতা

 

শেখ মুজিব মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি (পুরাতন মেরিন একাডেমী) চট্টগ্রাম ভর্তির যোগ্যতা

শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিজ্ঞান শাখা থেকে এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ৩.৫০ পেয়ে পাশ করতে হয় এবং গণিত থাকতে হবে।
উল্লেখ্য যে,এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী যারা এখনো ফলাফল পায়নি তারাও এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।
 

শারীরকি যোগ্যতা: উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি, ওজন ৫০ কেজি, বুকের মাপ ৩০ ইঞ্চি, বয়স ২১ বছর (সর্বোচ্চ)
 

নির্বাচন পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা ,মৌখিক পরীক্ষা ও এস এস সি ও এইচ এস সি জিপিও প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে ক্যাডেট নির্বাচন করা হয়।

 



মেরিন ফিসারিজ একাডেমী চট্টগ্রাম ভর্তির যোগ্যতা

শিক্ষাগত যোগ্যতা: বিজ্ঞান শাখা থেকে এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ২.৫০ পেয়ে পাশ করতে হবে এবং গণিত থাকতে হবে। উল্লেখ্য যে,এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী যারা এখানো ফলাফল পায়নি তারাও এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।


শারীরিক যোগ্যতা: উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি (ন্যূনতম), ওজন ৫০ কেজি, বুকের মাপ ৩০ ইঞ্চি, বয়স ২১ বছর সর্বোচ্চ।
 

নির্বাচন পদ্ধতি: লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে ক্যাডেট নির্বাচন করা হয়।


 

লিখিত পরীক্ষা

মেরিন এডমিশনের প্রথম ধাপ হল লিখিত পরীক্ষা। এখানে পদার্থ,গণিত,ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান এর উপর ৩২০ নম্বরের এম সি কিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
এই পরীক্ষার ফলাফলের উপর ভিত্তি কর প্রথম ৬০০ জনকে বাছাই করা হয় মৌখিক পরীক্ষার জন্য।

অর্থাৎ জিপিএ যাই হোক না কেন চান্স পাওয়া সম্পূর্ণ এই এম সি কিউ পরীক্ষার উপর নির্ভর করে। বিষয় ভিত্তিক নম্বর বন্টন নিচে দেওয়া হল:
 


বিষয় নম্বর

পদার্থ বিজ্ঞান ৮০

গণিত ৮০

ইংরেজি ৮০

সাধারণ জ্ঞান ৮০

মোট: ৩২০



মৌখিক পরীক্ষা

মেরিন একাডেমীতে লিখিত পরীক্ষায় প্রতি বছর ৬০০ জনকে মৌখিক পরীক্ষায় নির্বাচিত হয় এবং ৩২০ জনকে (৩০০ জন ছেলে,২০ জন মেয়ে) মেরিন ক্যাডেট হিসাবে ভর্তির জন্য নির্বাচন করা হয়। লিখিত পরীক্ষায় নির্বাচিত হবার পর ভাইভা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এই পরীক্ষায় রয়েছে ৩ টি ধাপ:

ক) ফিজিক্যাল ফিটনেস সুইমিং টেষ্ট

খ) মৌখিক পরীক্ষা

গ) মেডিকেল পরীক্ষা



ফিজিক্যাল ফিটনেস এন্ড সুইমিং পরীক্ষা: এ ক্ষেত্রে প্রতিটি পরীক্ষার্থীকে ৪০০ মিটার দৌড়াতে হবে। দৌড় শেষে ১০ ফুট রোপিং,১০টি পুশআপ দিতে হবে। সাতার কাটতে হবে ৬০ মিটার এবং তারপর কমপক্ষে ৩ মিনিট পানিতে ভেসে থাকতে হবে।


 

মৌখিক পরীক্ষা: এ ক্ষেত্রে এইচ.এস.সি লেভেলের বই এর বিভিন্ন বিষয়ক (পদার্থ বা গণিত) এর উপর প্রশ্ন করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন প্রশ্ন এবং সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর উপরও প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। কখনো কখানো সাধারণ জ্ঞান এর উপর প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। এ পরীক্ষার সময় যে বিষয়গুলো বিশেষ ভাবে দেখা হয় সেগুলো হল: ব্যক্তিত্ব, কথা বলার ক্ষমতা ও প্রকাশ ভঙ্গি,উপস্থিত বুদ্ধি,বিভিন্ন বিশেষ গুণাবলি ইত্যাদি।



চোখের দৃষ্টি ও বর্ণান্ধতা পরীক্ষা: এর ক্ষেত্রে চোখের দৃষ্টি ও বর্ণান্ধতা পরীক্ষা করা হয়। এক্ষেত্রে যারা নটিক্যাল ডিপার্টমেন্টে ভর্তি হতে চায় তাদের চোখের দৃষ্টি অবশ্যই ৬-৬ হতে হয়। তবে যারা ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টে ভর্তি হতে চায় তাদের চোখের ক্ষমতা সর্বোচ্চ +২.৫ ডি বা ২.৫ডি হতে পারবে। তবে কেউ বর্ণান্ধ হলে সে এই পর্যায়ে বাদ পড়ে যাবে।


মেডিকেল পরীক্ষা: এর ক্ষেত্রে হেপাটাইটিস বি/সি, এইচ আই ভি এইডস, রিমোটিক ফিভার ইত্যাদি রোগ আছে কিনা পরীক্ষা করা হয়। এক্ষেত্রে একটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয় এবং তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে ক্যাডেটদের বাছাই করা হয়। এটাই সর্বশেষ ধাপ। এই ধাপে বিবেচিত হতে পারলে সে মেরিন একাডেমীতে একজন মেরিন ক্যাডেট হিসাবে ভর্তি হতে যাচ্ছে বলে ধরে নেওয়া যায়।


ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য হোস্টেল সুবিধা রয়েছে ।

 

বিবিধঃ

এখানে সপ্তাহে তিন দিন ক্লাস ও একদিন পরীক্ষা নেওয়া হয়ে থাকে। এছাড়া প্রতি ক্লাসের শুরুতে আধ ঘন্টা করে পরীক্ষা নেওয়া হয়।
প্রতি ব্যাচে ১৫ জন করে শিক্ষার্থীকে পাঠদান করা হয়ে থাকে।
শিক্ষার্থীদের প্রতি ক্লাসে লেকচার শীট প্রদান করা হয়।
এখানে শিক্ষার্থীদের জন্য টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে।

 

বিশেষ আকর্ষণঃ  যে কোন কোচিং সেন্টারে ভর্তি হওয়ার পূর্বে  ১৫ দিন ফ্রি-ক্লাস করে নিজেকে যাচাইয়ের সুবর্ণ সুযোগ।

 

আপলোডের তারিখ:০৪/০৫/২০১৩ ইং।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
সাইফুরস ন্যাচারাল স্পোকেন কোর্সমোহাম্মদপুর, লালমাটিয়া
এফ এম ইনষ্টিটিউটতেজগাঁও, ফার্মগেট
ক্রিকেট একাডেমিধানমন্ডি, ধানমন্ডি
ইউনিভার্সিটি এ্যাডমিশন কেয়ারতেজগাঁও, গ্রীন রোড
মোডাস ইংলিশ মিডিয়াম কোচিংপল্টন, শান্তিনগর
বিজয় কোরিয়ান ল্যাংগুয়েজ সেন্টারতেজগাঁও, গ্রীন রোড
ইউ পয়েন্ট বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিংতেজগাঁও, ফার্মগেট
মেরিন অ্যাডমিশন কেয়ারতেজগাঁও, ফার্মগেট
কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমীকলাবাগান, কলাবাগান
কনক্রিট কোচিং সেন্টার ধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আরও ৫৬ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি