পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

জেড এইচ সিকদার উইমেন মেডিকেল কলেজ

চিকিৎসাশাস্ত্রে মেয়েদের পড়াশোনার জন্য বেসরকারি পর্যায়ে জেড এইচ সিকদার উইমেন মেডিক্যাল কলেজ গড়ে উঠেছে ১৯৯২ সালে।

 

ঠিকানা ও অবস্থান

মনিকা এষ্টেট, ওয়েস্টার্ন ধানমন্ডি, ঢাকা।

ই-মেইল-  [email protected]

রায়ের বাজার বদ্ধভূমি থেকে ১৫০ গজ দক্ষিনে অবস্থিত। এটি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

 

ভর্তি তথ্য

যোগ্যতা

জীববিজ্ঞানসহ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ হতে হবে। এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি পরীক্ষার জিপিএ এর যোগফল অতিরিক্ত বিষয়ছাড়া ৮ হতে হবে। এখানে শুধুমাত্র এমবিবিএস কোর্স করানো হয়।

 

ভর্তি ফরম

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঘোষণা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে ভর্তি ফরম আহ্বান করা হয়। এইচ এস সি পরীক্ষার ফল প্রকাশের ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে ভর্তি ফরম ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ছাড়া হয়। প্রার্থীকে সকল যোগ্যাতা থাকা সাপেক্ষে অন-লাইনে ফরম পূরণ করতে হবে। পরবর্তীতে ভর্তি পরীক্ষায় পাস করলে উক্ত কলেজ অফিস থেকে ৬০০ টাকা মূল্যের ফরম ক্রয় করেই একই জায়গায় জমা দিতে হবে।

 

ভর্তির সিলেবাস

ভর্তি পরীক্ষার সিলেবাস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক নির্ধারন করা হয়। পরে সিলেবাস, সময়সূচী জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়। তবে ভর্তি পরীক্ষার জন্য বাংলা, ইংরেজী, গণিত বিষয়ভিত্তিক ১০০ টি প্রশ্ন থাকে। কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবছর কিছু পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয়। প্রস্তুতির হিসেবে বাণিজ্যিকভাবে পরিচালিত কোচিংয়ে ভর্তি হওয়া যেতে পারে।

 

ভর্তির ফলাফল

ভর্তির পরীক্ষার ফলাফল দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশ করা হয়। এছাড়া ওয়েবসাইটেও পাওয়া যায়।

 

ভর্তি প্রক্রিয়া

ভর্তির জন্য কলেজের অফিসে যেতে হবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষায় পাস করা সাপেক্ষে শিক্ষার্থী তার সকল বোর্ড পরীক্ষার সনদপত্র, নম্বরপত্র, মূলকপি সত্যায়িত ছবি, অভিভাবকের অনুমতিপত্র ও উপস্থিতি সাপেক্ষে ভর্তি করানো হয়।

অপেক্ষমান তালিকায় যারা থাকে একমাত্র তারা পরে ভর্তির সুযোগ পায়। সাধারণভাবে ফল প্রকাশের ২০ থেকে ২৫ দিন অপেক্ষা করতে হয়। তবে সময় কর্তৃপক্ষ নির্ধারন করে থাকে।

 

ভর্তি ফি

৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। তবে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য আলোচনা সাপেক্ষে ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

 

এম,বি,বি,এস কোর্স

এম,বি,বি,এস কোর্স করতে ৫ বছর লাগে। কোর্সের মেয়াদ ৫ বছর।

কোর্স সম্পন্ন করতে প্রায় ৭ থেকে ৮ লক্ষ টাকা লাগে।

কোর্স শেষ হলে উক্ত কলেজেই ১ বছর যাবৎ ইন্টার্নী করতে হয়।

 

শিক্ষক

শিক্ষকের সংখ্যা ১২৫ জন। স্থায়ী শিক্ষক ৬০ জন, অস্থায়ী শিক্ষক ৬৫ জন ও প্রফেসর ৪৫ জন।

 

ল্যাব

এখানে যেসব ল্যাব রয়েছে তার মধ্যে বিষয়ভিত্তিক গবেষণা কার্যক্রম চলে। যেমন-

ক) ফিজিওলজি।

খ) এনাটমী।

গ) নিউরোলজি।

ঘ) গ্যাষ্ট্রোলজি।

ঙ) কার্ডিওলজি।

চ) গাইনিকোলজি।

ছ) সার্জারী।

এছাড়া এম,বি,বি,এস সংক্রান্ত সকল ল্যাব রয়েছে।

 

ক্লাস

ক্লাসের ব্যবস্থা ডেস্কটাইপ, শীতাতপ ও মাল্টিমিডিয়াসহ সর্বাধুনিক সেবা সম্বলিত।

সাধারণ ক্লাস সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত চলে। শুক্রবার সাপ্তাহিক বন্ধ। প্রতিটি ক্লাসের ব্যাপ্তিকাল ১.৩০ ঘন্টা।

 

শিফট

এটি মাত্র “ডে” শিফট।

 

লাইব্রেরি

লাইব্রেরি দ্বিতীয় তলায়। মেডিক্যাল সংক্রান্ত বইসহ সকল ধরনের রুচিসম্মত বই রয়েছে। এখানে বইয়ের পরিমান প্রায় ১০,০০০ থেকে ১২,০০০। সকল শিক্ষার্থী তার পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে বই ব্যবহার করতে পারে। উক্ত লাইব্রেরি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত।

 

ড্রেসকোড

ড্রেসকোড হল সাধারন পোশাকের উপরে সাদা এপ্রন।

 

বৃত্তি তথ্য

মেধাবীরা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বৃত্তি পেয়ে থাকে। যদি গরিব শিক্ষার্থী হয় তাহলে কলেজ তার ব্যয়ভার তিন ভাগের এক ভাগ হ্রাস করে থাকে এবং হোষ্টেলে ফ্রি থাকতে পারে। কিন্তু খাবারের দাম দিতে হয়।

 

বিদেশি শিক্ষার্থীদের ভর্তি

বিদেশি শিক্ষার্থীরা উল্লেখ্য যোগ্যতা থাকা সাপেক্ষে নিজ দেশের এ্যাম্বেসীর অনুমোদন পেলে ভর্তি হতে পারে।

 

ক্রেডিট ট্রান্সফার

ক্রেডিট ট্রান্সফার শুধু বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য হয়ে থাকে। যদি কোন ছাত্রী বিশেষ প্রয়োজনে দেশের বাইরে যেতে চায় তাহলে তাকে কলেজের সকল মূল কাগজপত্র সহ নির্দিষ্ট কারণ দর্শাতে হবে। এভাবে ক্রেডিট ট্রান্সফার করা যায়।

বিদেশে উচ্চ শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে সকল পদ্ধতি কলেজ কর্তৃক পরিচালনা করা হয়।

 

সহ শিক্ষা কার্যক্রম

এখানে বিশেষ দিনে বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়া বিতর্ক, ক্রীড়া, ধর্মীয় ও রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হয়।

কলেজের সামনেই সুবিশাল মাঠ আছে। এখানে পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে। যেকোন খেলা এ মাঠে পরিচালনা করা যায়।

 

আবাসিক সুবিধা

ক) ৩ টি হল আছে।

খ) সকল হল ছাত্রীদের।

গ) যেকোন শিক্ষার্থী ব্যয়ভার বহন সাপেক্ষে থাকতে পারে।

ঘ) থাকা খাওয়া প্রতিমাসে ৪,০০০ টাকা।

ঙ) কলেজের পাশেই হলসমূহ অবস্থিত।

চ) কলেজের আঙ্গিনায় সুন্দর খেলার মাঠ আছে।

 

ক্যান্টিন

প্রতিটি হলের প্রবেশদ্বারে শুকনা খাবাবের ক্যান্টিন রয়েছে। এগুলো সাধারনত সকাল ৭ টা থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

 

একাডেমিক ভবন

একটি মাত্র বৃহৎ কলেজ ভবন থেকে একাডেমিকসহ সকল অফিসিয়াল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। ভবনটি মূল সড়কের মেইন রাস্তার পাশে হওয়ায় সহজেই আসা যায়।

 

অডিটোরিয়াম

নিজস্ব বড় কোন অডিটোরিয়াম নেই। তবে সেখানে সেমিনারের আয়োজন করা হয়। সেখানে অন্যান্য অনুষ্ঠানও ডেকোরেশন করে সম্পন্ন হয়।

 

অন্যান্য

বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস, ডায়বেটিস দিবস সহ বিশেষ দিনে আন্তর্জাতিক মানের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সংক্রান্ত সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়শাহবাগ, শাহবাগ
স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজকোতোয়ালী, মিড ফোর্ড
আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজতেজগাঁও, তেজগাঁও
হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজরমনা, মগবাজার
বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজধানমন্ডি, ধানমন্ডি
জেড এইচ সিকদার উইমেন মেডিকেল কলেজধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আদ-দ্বীন মহিলা মেডিকেল কলেজরমনা, মগবাজার
ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজমিরপুর, কল্যাণপুর
ইব্রাহিম মেডিকেল কলেজশাহবাগ, শাহবাগ
আনোয়ার খাঁন মডার্ন মেডিকেল কলেজধানমন্ডি, ধানমন্ডি
আরও ৮ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি