পূর্ববর্তী লেখা    পরবর্তী লেখা
পুরো লিস্ট দেখুন

অতীশ দ্বীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি

বৌদ্ধ ধর্ম প্রচারক অতীশ দীপঙ্করের নামানুসারে ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় অতীশ দ্বীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি। বনানী এলাকার কামাল আতাতুর্ক সড়কের ৩০০ গজ সামনে হাতের ডান পাশে এর অবস্থান। ৩টি ফ্যাকাল্টির অধীনে ১১টি ডিপার্টমেন্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয়। অতীশ দ্বীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির নিজস্ব কোন ভবন নেই। ভাড়া করা ভবনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। বনানী ক্যাম্পাস ছাড়াও উত্তরা, পান্থপথ ও পল্টন এলাকায় তাদের আরও ৩টি ক্যাম্পাস রয়েছে।

 

 

সরকারী দৃষ্টিভঙ্গি:

  • ১৩ ডিসেম্বর ২০১০ ইং তারিখে দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী নিজস্ব ক্যাম্পাস তৈরি করার জমি না থাকার কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এই বিশ্ববিদ্যালয়কে লাল সংকেত প্রদান করে। এই প্রেক্ষাপটে মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেসব বিশ্ববিদ্যালয় স্থায়ী ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত অবকাঠামো এবং সুযোগ-সুবিধা সৃষ্টি করতে ব্যর্থ হয়েছে, তারা আগামী সেপ্টেম্বর ২০১১ (ফল সেমিস্টার) এর পরে আর কোনো প্রোগ্রাম বা কোর্সে নতুন ছাত্রছাত্রী ভর্তি করতে পারবে না।  (মূল লিংক)
  • আগস্ট ২০১২ ইং তারিখে দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত আরও একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেখানে দেশের বৈধ ক্যাম্পাসের পাশাপাশি অবৈধ ক্যাম্পাসধারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়। অবৈধ ক্যাম্পাসধারীর তালিকায় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম রয়েছে।  (মূল লিংক)
  • ১৬ জুলাই ২০১৩ ইং তারিখে একটি পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিজস্ব ক্যাম্পাস তৈরি না করার কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে। (মূল লিংক)

আপডেট: ২০ জুলাই, ২০১৩

 

ভর্তি কার্যক্রম

ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়ে থাকে। ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনপত্র এডমিন অফিস থেকে ৩০০ টাকার বিনিময়ে সংগ্রহ করা যায়। আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পূরণ করে এডমিন অফিসে জমা দিতে হয়। তাছাড়া online-এর মাধ্যমে ভর্তির আবেদন করা যায়। অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রথমে www.atishdipankar.edu.bd –এই ঠিকানায় গিয়ে আবেদনপত্রটি ডাউনলোড করতে হবে। আবেদনপত্রটি যথাযথভাবে পূরণ করার পর ৩০০ টাকা সহ Admin office –এ জমা করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা ৩ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি, এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার মার্কসীটের ফটোকপি এবং ভর্তি ফি ১২,০০০ টাকা জমা করে এই প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারবেন।  সর্বমোট ৫০১৫ জন শিক্ষার্থীকে পাঠদানের জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে ৭৭ জন শিক্ষক। তন্মধ্যে স্থায়ী শিক্ষক ৩৭ জন ও অস্থায়ী শিক্ষক ৪০ এবং ২৪ জন পিএইচডি ডিগ্রীধারী।

 

শিফট ও ফলাফল প্রকাশ পদ্ধতি

এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীদের ক্লাসসমূহ ‘ডে’ ও ‘ইভেনিং’ দুটি শিফটে অনুষ্ঠিত হয়। অনার্সের ক্লাসসমূহ ‘ডে’ শিফটে এবং মাস্টার্সের ক্লাসসমূহ ‘ডে’ এবং ‘ইভেনিং’ উভয় শিফটে অনুষ্ঠিত হয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত সকল পরীক্ষার ফলাফল গ্রেডিং পদ্ধতিতে প্রকাশ করা হয়।

 

শিক্ষা ব্যবস্থা বৃত্তি কার্যক্রম

অতীশ দীপংকর ইউনিভার্সিটির বিষয় ভিত্তিক খরচের তালিকা-

বিষয়

ক্রেডিট

মোট খরচ

বিবিএ

১২৪

২,৬৮,১৬০ টাকা

বিবিএ ইন এগ্রি বিজনেস

১৪৭

২,০৯,০৫০ টাকা

সিএসই

১৪১

২,০২,১৫০ টাকা

সিএসআই

১৪১

২,০২,১৫০ টাকা

ইটিই

১৪৫

২,০৬,৭৫০ টাকা

ইইই

১৬০

২,৯৭,৬০০ টাকা

টেক্সটাইল ইঞ্জি:

১৬৫

৩,৪৩,৬০০ টাকা

বি. ফার্মা

১৫২

৩,১৯,৬৮০ টাকা

এলএলবি(অনার্স)

১২৮

১,৯৩,৬০০ টাকা

এই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফলের ভিত্তিতে ১০০% পর্যন্ত বৃত্তি দেওয়া হয়। এসএসসি ও এইচএসসি –তে চতুর্থ বিষয় বাদে জিপিএ ৫ প্রাপ্তরা ৭৫%, জিপিএ ৪.৭০ থেকে ৪.৯৯ প্রাপ্তরা ৬০%, ৪.০০ – ৪.৬৯ প্রাপ্তরা ৫০% এবং ৩.৫০- ৩.৯৯ প্রাপ্তরা ৩০% বৃত্তি সুবিধা পাবে এবং কোন শিক্ষার্থী যদি পর পর দুই সেমিস্টারে সিজিপিএ ৩.৯০(আউট অব ৪) পায় তবে পরবর্তী সেমিস্টার থেকে তার জন্য শতভাগ বৃত্তি সুবিধা পাবে।

 

ক্রেডিট ট্রান্সফার

ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.৭৫ প্রাপ্তরা এই ইউনিভার্সিটি থেকে দেশের অন্য যে কোন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রেডিট ট্রান্সফার করতে পারবেন। এছাড়া নিজের যোগ্যতা অনুসারে নিজ উদ্যোগে বিদেশের যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রেডিট ট্রান্সফার করতে পারবে।

 

অন্যান্য সুবিধা

জ্ঞানের পরিপূর্ণ বিকাশের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় একটি লাইব্রেরী রয়েছে। প্রায় ২৫,০০০ বই সমৃদ্ধ এই লাইব্রেরীতে রয়েছে টেক্সট বুক, কালেকশন বুক, জার্নাল, দুর্লভ বই, বিভিন্ন ম্যাপ। লাইব্রেরীতে বই পড়ার জন্য প্রথমে লাইব্রেরীর নির্দিষ্ট ফরম সংগ্রহ করে তা পূরণপূর্বক দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ ও এক কপি ষ্ট্যাম্প সাইজ ছবি সংযুক্ত করে জমা দিতে হবে। তারপর লাইব্রেরী কার্ড প্রদান করা হলে একজন শিক্ষার্থী নির্বিগ্নে লাইব্রেরীতে বসে বই পড়ার পাশাপাশি প্রয়োজনে বই বাসায়ও নিয়ে যেতে পারবে। উল্লেখ্য লাইব্রেরী কার্ড সংগ্রহ করার জন্য কোন চার্জ প্রদান করতে হয় না। লাইব্রেরীটি সকাল ১০.০০ টা থেকে রাত ৯.০০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন শিক্ষকদের পৃষ্ঠপোষকতায় ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন সংগঠন রয়েছে। যেমন – কালচারাল ক্লাব, ডিবেটিং ক্লাব, স্পোর্টস ক্লাব, বন্ধুসভা। এসকল সংগঠন কর্তৃক বার্ষিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

 

 

ঠিকানা ও যোগাযোগ

অতীশ দীপংকর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজী

বাড়ী-৮৩, সড়ক-৪, ব্লক-বি, বনানী, ঢাকা।

ফোন: ৯৮৯৭৭০০, ৯৮৯১৯০৪, ৯৮৯৫১১৮, ৮৮১৬৭৬২, মোবাইল – ০১৯১১-২৭৯৬১৯,

ই-মেইল – [email protected], [email protected]

ওয়েব সাইট – http://www.atishdipankaruniversity.edu.bd

 

 

 
আরো পড়ুন
 

নামসংক্ষিপ্ত বিবরণ
পিপলস ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশমোহাম্মদপুর, আসাদ গেট
নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশতেজগাঁও, কাওরান বাজার
আশা ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশমোহাম্মদপুর, মোহাম্মদপুর
ইস্টার্ণ ইউনিভার্সিটিধানমন্ডি, ধানমন্ডি
স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশধানমন্ডি, ধানমন্ডি
নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিগুলশান, বারিধারা
প্রাইম ইউনিভার্সিটিদারুসসালাম, দারুসসালাম
দি মিলেনিয়াম ইউনিভার্সিটিপল্টন, রাজারবাগ
ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটিকলাবাগান, পান্থপথ
ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিগুলশান, মহাখালী
আরও ৩৯ টি লেখা দেখতে ক্লিক করুন
২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি