বিশ্ব বাঘ দিবস

প্রতি বছর ২৯শে জুলাই বিশ্ব বাঘ দিবস পালিত হয়।

 

রয়েল বেঙ্গল টাইগার আমাদের জাতীয় পশু, অনেক সময় এটি আমাদের জাতিসত্তা এবং বীরত্বের প্রতীক। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের লগোতেও জায়গা করে নিয়েছে এই বাঘ। বেঙ্গল টাইগার বা বাংলা বাঘ যে কেবল বাংলাদেশ আর ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পাওয়া যায় তাই নয়, ভুটান, নেপাল এবং চীনেও পাওয়া যায়। এক সময় পুরো এশিয়া মহাদেশ জুড়ে এই বাঘের বসতি ছিল। তবে তৎকালীন বাংলায় এই বাঘ ছিল সবচেয়ে বেশি। সেই প্রকৃতি আর পরিবেশ এখন নেই। মুলত সুন্দরবেনই এখন বেঙ্গল টাইগারের বসতি।

 

২০০ বছর আগেও সুন্দরবনের আয়তন ছিল প্রায় ১৬,৭০০ বর্গ কিলোমিটার। সে সুন্দরবনের আয়তন এখন প্রায় এক তৃতীয়াংশ, আয়তন ক্রমান্বয়ে আরো কমছে।

 

শুধু আমাদের সুন্দরবনই নয় সারা বিশ্বেই বাঘ আজ বিপন্ন। বাঘের মোট আটটি উপপ্রজাতি সনাক্ত করা গেছে, যার মধ্যে তিনটিই বিলুপ্ত হয়ে গেছে।  বলা হয় বাঘ অত্যন্ত অভিযোজন দক্ষ একটি প্রাণী। কিন্তু প্রকৃতির ওপর মানুষের আগ্রাসন বাঘকেও বাঁচতে দিচ্ছে না।

 

জীববৈচিত্র সংরক্ষণ যে কারণে জরুরি

ইকোসিস্টেম রক্ষার ক্ষেত্রে প্রতিটি প্রজাতির উপস্থিতি জরুরি। একটি প্রজাতির অনুপস্থিতি অন্য প্রজাতির ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। যেমন আজ সুন্দরবন থেকে সব বাঘ সরিয়ে নেয়া হলে হরিণের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পেয়ে গাছের সংখ্যা হ্রাস পাবে।

 

এরকম প্রতিটি প্রজাতিরই একটি ভূমিকা রয়েছে ইকোসিস্টেমে।

 

আবার জীবন রক্ষাকারী অনেক ওষুধ তৈরির ক্ষেত্রে বিভিন্ন উপাদান সংগ্রহ করা হয় উদ্ভিদসহ বিভিন্নধরনের প্রজাতি থেকে। কিন্তু বিভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদ ও প্রাণী দ্রুত বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। অনেক প্রজাতি মানুষ সনাক্ত করার আগেই বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। হয়ত ভবিষ্যতে কোন গুরুত্বপূর্ণ ওষুধ তৈরিতে এগুলো কাজে লাগানো সম্ভব ছিল।এছাড়া জেনেটিক ইঞ্জনিয়ারিং এর জন্য বিভিন্ন প্রজাতির জিন নিয়ে গবেষণা করতে জীববৈচিত্র থাকা জরুরি।

 

আমাদের অস্তিত্বের স্বার্থেই জীববৈচিত্র সংরক্ষণ করতে হবে। বাঘ সংরক্ষণও জীববৈচিত্র ধরে রাখার একটি অংশ। তাছাড়া বাঘকে যেকোন বনের প্রাকৃতিক পাহাড়াদারও বলা হয়।

 

বাংলাদেশের প্রক্ষাপট

কাঠ, মধুসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক সম্পদ সংগ্রহের জন্য সুন্দরবন এলাকার মানুষকে বনে ঢুকতে হয়। এছাড়া বন ধ্বংস, খাবারের অভাব, নদী শুকিয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন কারণে বাঘ লোকালয়ে চলে আসে।

 

ফলে বনের ভেতরে এবং লোকালয়ে বাঘের কারণে প্রাণহানি একটি সাধারণ ঘটনা। উত্তেজিত জনতাও বাঘ পিটিয়ে ঝাল মেটায়। প্রতিবছর বাঘের কারণে ৪০ থেকে ৫০ জন মানুষ মারা যায়।

 

মজার তথ্য হচ্ছে সাপের কারণে মারা যায় প্রায় আড়াই হাজার মানুষ। অথচ মানুষের যত ক্ষোভ ওই বাঘের ওপর। কারণ সাপ মৃতদেহ খেয়ে ফেলে না, কিন্তু বাঘ মানুষকে খেয়ে ফেলে এটি মানুষ কিছুতেই মেনে নিতে পারে না।

 

এছাড়া বিশ্ব বাজারে বাঘের চামড়ার বিশেষ চাহিদা রয়েছে, চীনা বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী ওষুধ তৈরিতে বাঘের চাহিদা রয়েছে। এ কারণে চোরাচালানকারীরা বেপরোয়া হয়ে বাঘ শিকার করে চলেছে। আইন করেও এসব ঠেকানো যাচ্ছে না।

 

সারা বিশ্ব

১৯০০ সালে সারা বিশ্বে ১,০০,০০০ বাঘ ছিল, বর্তমানে এ সংখ্যা ৩২০০। সারা বিশ্বেই বাঘ আজ বিপন্ন। ভিয়েতনাম, লাওস ও কম্বোডিয়ার যুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র অনেক বনাঞ্চলে কার্পেট বোম্বিং করে, এতে বাঘসহ অন্যান্য প্রাণী বিপুল সংখ্যায় মারা পরে। বনের খালে বিষ প্রয়োগের ফলেও প্রচুর বাঘ মারা যায়। সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের সময়কার বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে বাঘ শিকারীরা সাইবেরিয়া বনাঞ্চলের প্রচুর বাঘ মেরে ফেলে। আবার কাঠের জন্য ইন্দোনেশিয়া এবং মালয় উপদ্বীপের প্রচুর গাছ কাটা হচ্ছে। বসতি ধ্বংস হবার কারণে বাঘের সংখ্যাও কমছে।

 

উদ্যোগ

পৃথিবীর মোট ১৩টি দেশে বাঘ আছে এখন। দেশগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ, ভারত, বার্মা, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, লাওস, ভূটান, নেপাল ও রাশিয়া। তবে বাঘ নেই এমন দেশগুলোও এখন বাঘ সংরক্ষণে মনোযোগী হয়েছে। বাঘ সংরক্ষণে করণীয় নির্ধারণে বাঘ রয়েছে এমন ১৩টি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানগণ ২০১০ সালে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে আয়োজিত বিশ্ব বাঘ সম্মেলনে মিলিত হন। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীও সে সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন।

 

বাংলাদেশে বাঘ দিবস উদযাপন

বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়, বন অধিদপ্তর, ওয়াইল্ডলাইফ ট্রাস্টসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বাঘ দিবসে নানা অুনষ্ঠান আয়োজন করে। এর মধ্যে রয়েছে শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী ইত্যাদি। এছাড়া সুন্দরবনের আশেপাশের এলাকাগুলোতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিতেও নানা প্রচারণা চালানো হয়।  

 

প্রাসঙ্গিক লেখা:

 
আরো পড়ুন
 

২৫ বছরে ১৮ সন্তানের জননী!
সর্বপ্রথম পোর্টেবল দ্বীপ
বিদেশিনীর বাংলা প্রেম
জুতার গাছ!
exam
নির্বাচিত প্রতিবেদন
exam
সুমাইয়া শিমু
পিয়া বিপাশা
প্রিয়াংকা অগ্নিলা ইকবাল
রোবেনা রেজা জুঁই
বাংলা ফন্ট না দেখা গেলে মোবাইলে দেখতে চাইলে
how-to-lose-your-belly-fat
guide-to-lose-weight
hair-loss-and-treatment
how-to-flatten-stomach
fat-burning-foods-and-workouts
fat-burning-foods-and-workouts
 
সেলিব্রেটি